নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • কাঙালী ফকির চাষী
    • রাজর্ষি ব্যনার্জী
    • মাহের ইসলাম
    • মৃত কালপুরুষ

    নতুন যাত্রী

    • নীল মুহাম্মদ জা...
    • ইতাম পরদেশী
    • মুহম্মদ ইকরামুল হক
    • রাজন আলী
    • প্রশান্ত ভৌমিক
    • শঙ্খচূড় ইমাম
    • ডার্ক টু লাইট
    • সৌম্যজিৎ দত্ত
    • হিমু মিয়া
    • এস এম শাওন

    দেলু দালাল সাঈদীর ফাঁসি


    দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে আনা ২০টি অভিযোগের মধ্যে ৮টি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। ৫টি অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। ২টি অভিযোগের বিষয়ে ট্রাইব্যুনাল কোনো মন্তব্য করেনি।
    ১, ২, ৩, ৪, ১৩, ১৪, ১৫, ১৬ ও ১৯নং অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে গণহত্যা, হত্যা, গণধর্ষণ, ধর্ষণ, অপহরণ, লুটপাট ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ।
    ৫, ৯, ১২, ১৭ ও ১৮ নং অভিযোগ প্রমাণিত হয়নি। এর মধ্যে রয়েছে লেখক সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের পিতা ফয়জুর রহমান ও ভাগিরথী সাহা হত্যাসহ অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগ।

    একই অঙ্গে কত রূপ!!!


    কয়েকদিন আগে বাংলাদেশে ইসলাম ধর্মের "ত্রানকর্তা!!"(এদের কথামতো যারা না চলে তারা নাকি নাস্তিক) জামায়াত ইসলাম ঘোষনা দিল নাস্তিকদের পণ্য বর্জন করবে। অনেক ভেবেচিন্তে অবশেষে খুশিই হলাম এই ভেবে যে, এবার নাস্তিকদের আবিষ্কৃত ফেসবুক তারা বর্জন করবে; কম্পিউটার, ইন্টারনেট তারা বর্জন করবে। তাদের অনলাইনে মিথ্যাচার, ফটোশপের জ্বালা খেকে মুক্তি পাবো আমরা। কিন্তু ছাড়লো আর কই; মার্ক জুকারবার্গ, বিল গেটস নাস্তিক হলেও তাদের ওরা ছাড়তে পারলো না। কি অদ্ভুত রকমের মিথ্যাচার ! এখন ওরা বারাক ওবামার দৃষ্টি আকর্ষনের চেষ্টা চালাচ্ছে, হোয়াইট হাউজের একটা পিটিশন খুলে সেখানে নামে-বেনামে মেইল Account খুলে স্বাক্ষয় সংগ্রহ করছে। অর্থাত্‍ এই বঙ্গদেশে ওদের ইসলাম(হিংসাত্বক ইসলাম ওদের, শান্তির ইসলাম জনসাধারনের) বাঁচাতে একটা অমুসলিম রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ কামনা করছে!! এই কি জামায়াত ইসলামের ইসলামী আদর্শ? দেশের কথিত নাস্তিকরা ওদের কাছে কুকুর, আর বিদেশী খৃস্টানরাও ওদের কাছে ঠাকুর !

    জোট গড়ার আগে একসময় সাঈদি সাহেব বলেছিলেন, ইসলামে নারী নেতৃত্ব হারাম। জোট গড়ার পর সেই সাঈদিই খালেদার নেতৃত্বে পিরোজপুরে একই মঞ্চে উঠলেন! এদেশে ইসলাম কি কুরআনের নিয়মানুযায়ী চলে নাকি জামায়াতের নিয়মানুযায়ী চলে ভেবে পাই না।

    বিএনপির আর কারো কথা নাই বললাম। মির্জা সাহেবও বহুরূপী আচরনে কম যান না। কোন একসময় বলেন শাহবাগের আন্দোলন সরকারের সাজানো নাটক। আবার কয়েকদিনের ভিতরই চেহারা পাল্টিয়ে আন্দোলনকারীদের স্বাগত জানিয়ে অন্যান্য দাবি তোলার আহ্বান জানান।
    কথনো বলেন ক্ষমতায় গেলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করবেন। আবার ঠিকই যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য জামায়াতের ডাকা হরতালে সমর্থন দেন।

    একই অঙ্গে এতসব রঙ্গ দেখে বলতে ইচ্ছা করে--
    একই অঙ্গে কত রূপ !!!!!

    যদি আজ দেইল্লা রাজাকারের ফাঁসী না হয়(এমনকি হলেও) !!!


    কাদের মোল্লা ৩৪৪টি খুন করে খুন প্রতি ১৫দিন কয়েদ জীবনে পুরস্কৃত হবার পর সত্যিকার অর্থে আশা থাকলেও ভরসা ভিজে চুপসে গিয়েছিল । তবে শাহবাগের গণজাগরণ এই চুপসে যাওয়া ভরসাকে ভরসা দিয়াশলাই এর মতন ই "ভিজলেও জলে" করে দিয়েছে । তারপরও পরিস্থিতি অনেক ঘোলাটে । মঞ্চ তার উপর পরিচিত মুখ ব্লগার , নিরপেক্ষ প্রতিনিধিতবকারী ধারক বাহক ও অনুসরকের আধিপত্য হারাছসে , হানিফ সাহারাকে বোতল ছুরে মারার মত জনগনের ক্ষমতার জৌলুশ হারাচ্ছে এবং এরই পরিপ্রেক্ষিতে সত্যিকার কার্যকারিতা ক্ষীণ হয়ে গেছে বলেও বোধ হছসে । সরকারের নীরব কামড় আর বিএনপি-জামাতের অব্যাহত চক্রান্তের থাবাকে পেরোতে হবে । "এতটা পথ এসেছি বাধা ফেলে , বাকিটা পথ

    আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় শাহবাগের আন্দোলন; ইতিহাসকে ব্লগের ফ্রেমে বন্দী করার একটি ক্ষুদ্র প্রয়াস


    শাহবাগের আন্দোলন ইতোমধ্যেই দেশের সীমানা ছাড়িয়ে দূর পরবাসে ছড়িয়ে গেছে। শুরু হয়ে গেছে বিভিন্ন বিশ্লেষণ। কেউ এটাকে তুলনা করছে অকুপাই ওয়াল স্ট্রিট আন্দোলন কিংবা তাহরির স্কয়ারের আন্দোলনের সাথে। কারো কারো দৃষ্টিতে এই আন্দোলন মানবতার ঝাণ্ডাকে সমুন্নত রাখার আন্দোলন। আবার কারো কাছে এই আন্দোলন সরকারী দমন-নিপীড়নকে বৈধতা দেওয়ার আন্দোলন। হঠাত করেই মনে হল আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে কিভাবে এই আন্দোলনকে মূল্যায়ন করা হচ্ছে সেটা সবাইকে জানানো দরকার। বলা যায় না, ইতিহাস নিয়ে বারবার কাটাছেড়া করার যে সংস্কৃতি আমাদের রাষ্ট্রীয় জীবনে বিদ্যমান; এই পোস্ট হয়ত কিছুটা হলেও সেই সংস্কৃতির ভিত্তিমূলে আঘাত হানার

    শুভ বোধের উদয় হোক.....


    অনেকদিন ধরেই চাইছিলাম এই কথাগুলো বলব,তুলে ধরব জনতার কাছে,কিন্তু নিজের সাথে নিজে যুদ্ধ করে করে থেমে গিয়েছি। হাজার বার চেয়েছি লিখব/বলব,কিন্তু পারি নাই। তবে আজ একপ্রকার বাধ্য হয়েই লিখতে বসলাম।
    গতকাল স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, সম্ভবত আমি ভুল করছি,আমার নিজের ক্ষেত্র কথা বলার স্বাধীনতার স্থান থেকে আমি সরে দাড়িয়েছি তাই উচিত হবে ফিরে আসা,অবশেষে সেটাই করেছি।

    গ- তে গোলাম আজম তুই রাজাকার (জামাতী তাণ্ডব, গণজাগরণ ও হিট লিস্টের পাশে কিছু অপ্রাসাংগিকতা-২)


    -আপনার উপর আমি বিয়াকফ গোস্বা করছি।

    -সালাম আদাব নাই, কুশল বাতচিত নাই, নারাজগি দেখাতে হ্যায়, কিয়া বেসারম ঘরওয়ালি। উপুর হয়ে শুয়ে গুয়াজম বিবির কথায় উল্টা রাগ ঝাড়ল আর মুখ ফিরিয়ে নিল বিবির দিক থেকে। একে পশ্চাদ্দেশের ব্যথায় জান কাহিল আর এই বেটী দেখাইতেছে রাগ। ব্যথা সামাল দিব না বিবি সামাল দিব। বিবি গোস্বা ক্যান করল জিগেসা করবেন কি কিরবেন না ভাবতে ভাবতে তাকায় বিবির দিকে সে নেকাব খুলতাছে। ইয়া আল্লাহ্‌ এ কি বিবির তো জোয়ানি আসছে। বিবির বয়স তো ১০ বছর কমে গেছে।
    - কি বিবি চেহারা এমুন খোলছে ক্যামনে? কি করছ? রূপটান মাখা ধরছ নাকি? বিস্ময় নিয়ে গোয়াজম বিবি রে জিগেসা করে।

    রায়, রফা, রাজাকার


    রাজাকার না থাকলে হাসিনা-খালেদার রাজনীতি জমবে না, এই সহজ সত্যের বাইরে এসে যারা আওয়ামী লীগের উপর ভরসা রাখছেন তারা হয় সুবোধ জনতা অথবা আওয়ামী লীগের চামচা। বিএনপির মুখোশ জনগণের কাছে পরিস্কার হয়ে গেছে, আ. লীগের দালালি এখনও পরিস্কার হয়নি। কিন্তু আশা রাখি অতিদ্রুত সেই দিন সামনে চলে আসছে। সাঈদীর রায় কী হবে?

    ছবি


    ছবি ,আমার জীবনে ছবির গুরুত্ব বর্ণনাতীত । জীবন্ত মানুষ যে জীবন থেকে অবসর নিয়েছে সেখানে ছবিই বেঁচে থাকার মুখ্য সঙ্গী আমার কাছে । মোট তিনজনের একজন ছবি হয়ে গেল ,অবশিষ্ট দুই জন ঐ ছবিকে নিয়ে ১৩ বছর চললাম ,এবার বাকি দুইজনের আরও একজন ও আমাকে স্তব্ধ করে দিয়ে ছবি হয়ে গেল ,আমি ছিলাম নীরব দর্শক ,কিচ্ছু করার মত বিবেক বা বুদ্ধি জাগ্রত ছিলনা তখন ।

    সাঈদীর বিরুদ্ধে যতো অভিযোগ…


    অভিযোগ-১: পিরোজপুর সদর এলাকার মধ্য মাসিমপুর বাসস্ট্যান্ডের পেছনে পরিকল্পিতভাবে আগে থেকে জড়ো করা ২০ জন নিরস্ত্র মানুষকে গুলি করে হত্যার সহযোগিতা।

    অভিযোগ-২: মাসিমপুর হিন্দুপাড়ায় হিন্দু বাড়িগুলোতে লুট এবং আগুন ধরিয়ে দেয়া। মানুষ পালাতে শুরু করলে সাঈদী ও তার দলের সদস্যরা এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করলে ১৩ জন শহীদ।

    অভিযোগ-৩: সাঈদী নিজে মাসিমপুর হিন্দুপাড়ায় মনীন্দ্রনাথ মিস্ত্রী ও সুরেশ চন্দ্র মণ্ডলের বাড়ি লুট এবং আগুন ধরিয়ে দেন।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর