নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • কাঠমোল্লা
    • মিঠুন বিশ্বাস
    • মারুফুর রহমান খান
    • দ্বিতীয়নাম

    নতুন যাত্রী

    • চয়ন অর্কিড
    • ফজলে রাব্বী খান
    • হূমায়ুন কবির
    • রকিব খান
    • সজল আল সানভী
    • শহীদ আহমেদ
    • মো ইকরামুজ্জামান
    • মিজান
    • সঞ্জয় চক্রবর্তী
    • ডাঃ নেইল আকাশ

    যৌবন কি !?


    অনেকেই ভেবে থাকেন যৌবন হচ্ছে মৌবন, কাঁটাবন, সুন্দরবন ইত্যাদির মত একধরণের বন-জঙ্গল । আসলেই কি তাই ?
    এ বিষয়ে আসলে নানা মুনি - ঋষীর নানা মত -

    * মহামতি মমতাজের অভিমত , 'যৌবন একটি গোল্ডিফ সিগারেট'....

    * বিশিষ্ট বলিউড স্পেশালিষ্ট জেমসের মতে , যৌবন এমন একটা জিনিস যা নূরজাহানের আঁচলের তলায় থাকে ,যেটাকে আবার উঠানে শুকানো যায় ... তাই তিনি উদাত্ত গলায় গেয়েছিলেন -
    "প্রেমের কাব্য লিখে সূচ সূতায়
    আচলের যৌবন উঠানে শুকায় ...
    হারাগাছের নুর জাহান ,
    গাঙের জলে করে স্নান "....

    *হেলাল হাফিজের মতে ,যৌবন মানবজীবনের একটা সুনির্দিষ্ট সময় ,যে সময়ে যুদ্ধে যাইতে হয় ...

    একটি JOKE শুনুন ।


    সালউদ্দিন কাদের চৌধুরী একবার জাতীয় সংসদে স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষন করে বলেন, " মাননীয় স্পিকার, শুনেছিন কিনা যে , দেশে এক আজব মেশিন তৈরি হয়েছে।" স্পিকার কৌতুহলী হয়ে জানতে চাইলেন, "কী সেই মেশিন ?"
    সালউদ্দিন কাদের চৌধুরী হাসতে হাসতে তার স্বভাব সুলভ ভংগিমায় বলেছিলেন, "সেই আজব মেশিনের নাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ । এই মেশিনের একদিকে রাজাকার ঢুকে অন্যদিক দিয়ে রাজাকার বের হ্য় ।"

    সালউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে যারা ভোট দেয় তারাও নির্দ্বিধায় তাকে রাজাকার বলে স্বীকার করে ।

    প্রজন্ম চত্বরে আর কি কি হবে ?


    গতকালের লেখাটি আবার তুলে ধরলাম । । ।

    সংবাদ সম্মেলনে ইমরান এইচ সরকার বলেন, " মাননীয় বিরোধীদলীয় নেত্রীর কাছে আহবান জানাবো, আপনি আবারো ভেবে দেখুন , আপনি এই নষ্ট নাস্তিকদের কাতারে এসে দাড়াবেন নাকি ধর্ষক-যুদ্ধাপরাধী-খুনি জামাত শিবিরের পাশে গিয়ে দাড়াবেন । "

    বি দ্র : নিজেদের পরিচয় শেষ পর্যন্ত স্বীকার করলেন ।

    তারা বোঝাতে চেয়েছে, তারা নষ্ট নাস্তিক হতে পারে তবে ধর্ষক-যুদ্ধাপরাধী-খুনি জামাত শিবিরের বিচার ছাড়া একচুলও নড়বে না ।

    সাহসী তার কথা বার্তা ।
    তবে একটু অদূরদর্শিতা সম্পন্ন ।

    যত দোষ নন্দ ঘোষ।


    ব্লগাররা আজ নাস্তিকের দল হিসেবে সারা বাংলায় পরিগণিত, এদের প্রতিহত করতে প্রত্যেক জুমাবারে ধর্মফ্রানেরা প্রতিজ্ঞা নেয়, ঈমান রক্ষার্থে খুন করে। আর তাতে সমর্থনও পায়। কিন্তু দাঁড়ি,টুপি পড়ে জোব্বা পড়ে কেউ যদি গাইলও দেয় তারপরেও তারা হুজুর এবং সহীহ থাকে, এর প্রকৃত উদাহারন তো আগেই দিছিলাম মওদুদী ছাহেবের বিভিন্ন কিতাব হইতে। তবে এবার আরো আইশ্চর্যজনকভাবে কিছু কথা পাইলাম অনলাইনে। এগুলো পড়ে আমি যারপরনাই আমি ব্যাপক চিন্তিত হয়ে পড়লাম।

    ১. আল্লাহ মিথ্যা বলতে পারেন।
    [ফতোয়া-ই- রশীদিয়া, ১ম খণ্ড, পৃষ্ঠা-৯, কৃত মৌং রশীদ আহমদ গাঙ্গুহী দেওবন্দী]

    অন্তত একটিবার কি আপনারা পারেন না সত্যতা যাচাই করে দেখতে? (সব সত্য লিখছি,যাচাই করে দেখতে পারেন)


    আপনারা অনেকে দাবি করে থাকেন আওয়ামীলীগ নাকি ''জয় বাংলা,জয় বঙ্গুবন্ধু'' স্লোগানটি জোড় করে তাদের পারিবারিক স্লোগান বানিয়ে নিজস্ব সম্পত্তির মত ব্যবহার করে। কিন্তু লজ্জাজনক কথা হল যে, আপনাদের সবাই এই দাবি সাধারণত ইতিহাস না জেনে অযুক্তিক ভাবে করে।আমি আজকে সত্যের জয় সর্বদা এই কথাটি স্মরণ করে,আপনাদের দাবির ভুল প্রমান করার জন্য সেই ব্রিটিশ শাসন আমলের পর থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু এবং আওয়ামীলীগের সৃষ্টি সম্পৃক্ত সকল ঘটনা আপনাদের সবার সামনে তুলে ধরছি।

    একজন স্বনামধন্য আস্তিককে দেখে আসার আমন্ত্রন


    একটা টাটকা ঘটনা শেয়ার করি।

    প্রায় মাসখানেক আগে এক ব্লগার ফেলো মারফত জানতে পারি যে বাংলাদেশি সমকামীদের কিছু অনলাইন কমিউনিটি এবং ফোরাম রয়েছে, আর অবাস্তব হলেও সত্য যে এই সকল কমিউনিটি বা ফোরামে কিছু ধর্মপ্রান মুসলমানও আছে। রীতিমতোন একটা হোঁচট খাই এই কথা শুনে।

    গল্পঃ অনুজ


    বিছানায় শুয়ে এপাশ ওপাশ করতে থাকে শম্ভু। আরামদায়ক বিছানা বলতে যা বোঝায় তাতে সে শোয়নি। এলোমেলো ছড়িয়ে দেয়া খড়ের ওপর কয়েকটা তেল চিটচিটে কাঁথা পাশাপাশি বিছিয়ে বানানো হয়েছে বিছানাটা। বাঙালির গড়পড়তা উচ্চতার তুলনায় শম্ভু আহামরি কোন লম্বা মানুষ নয়। তবুও তার পা কাঁথার আচ্ছাদনের বাইরে বেরিয়ে এসেছে। ক্লান্ত মাথাটা দুদন্ড শান্তি পাচ্ছে না বালিশের অনুপস্থিতিতে। উদোম শরীরে খড়ের আঁচড়ে তীব্র চুলকোনি হয়। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতো জুটেছে ঝাঁকে ঝাঁকে মশা। তার পাশে শুয়ে থাকা জনা সাতেক ক্লান্ত মানুষের বিচিত্র নসিকা গর্জনে হারাম হয়ে গেছে ঘুমের পরিবেশ। চোখ বুজে মড়ার মতো পড়ে থাকে শম্ভু। নাছোড

    রাখীর হাত


    অজান্তে কাশবন, হিজল আর পাণ্ডুলিপি
    করস্পর্শ বেমানান, তবু রাখীর হাত।
    নিস্পাপ নিষ্কলুষ প্রতিযোগী সুইটিরা তাঁকে
    ভালবাসা বলে, ড্যাফোডিল ফুল হতে বলেছিল
    একবার ডাইরির পৃষ্ঠা জুড়ে।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর