নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    There is currently 1 user online.

    • নুর নবী দুলাল

    নতুন যাত্রী

    • চয়ন অর্কিড
    • ফজলে রাব্বী খান
    • হূমায়ুন কবির
    • রকিব খান
    • সজল আল সানভী
    • শহীদ আহমেদ
    • মো ইকরামুজ্জামান
    • মিজান
    • সঞ্জয় চক্রবর্তী
    • ডাঃ নেইল আকাশ

    ফিরতে চাওয়ার কবিতা


    আমি এখানের কেউ নই ... আমাকে আমার ওখানেই ফিরতে হবে ...
    ফিরে যেতে হবে নিঃস্বার্থ কাক আর বক শালিকের দেশে...
    শকুনের রাজ্যে আমি আজ ভীত-সন্ত্রস্ত...
    কিসের ভিতি ?? ভয়ের ভয়ঙ্কর এক ভয়ার্ত ভীতি...
    যা অকল্পনীয় ভাবে ভেঙ্গে দেয় সব নীরবতা...
    আমি বাইরে যাবো... হাটতে হবে... অনেক দূরে যেতে হবে...
    বেচে থাকতে হলে ছুটে যেতে হবে কয়েক মাইল...
    তারপর বিনিদ্র রাত সাথে করে ফিরে যেতে হবে নিদ্রাদেবির বুকে..
    মিশে হতে হবে একাকার ...
    তুমি বরং এখন ফিরে যাও তোমার প্রিয়তমর বুকে...
    নিশ্চিন্তে নিঃশ্বাস নাও সেখানে...
    অবিশ্বাসী বাতাস কে আটকে রেখে দম ঘুটে মরা বুকের লোমগুলো দাড়িয়ে যাক তোমার প্রিয়তমর...

    'বাংলাদেশ' শব্দ।


    কবি সুকান্ত ভট্টাচার্য ভারত ভাগ হবার অনেক আগেই তার কাব্যগ্রন্থ পূর্বাভাসের দূর্মর কবিতায় 'বাংলাদেশ' শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন। কবিগুরু শ্রী রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা ১৩২৪ সালে জনাব জ্ঞানচন্দ্র বন্দোপাধ্যায় নামক একজন সাংবাদিক কে একটি চিঠি লিখেন,যাতে কবিগুরু 'বাংলাদেশ' শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন।অর্থাত্‍ ৯৬বছর আগে আমাদের দেশের ভূ-খন্ডকে বোঝানোর জন্য 'বাংলাদেশ' শব্দ ব্যবহৃত হত। দেশের বর্তমান অবস্থা যদি এভাবে এগুতে থাকে তাহলে কি, সমনের আরো ৯৬ টা বছর আমরা আমাদের দেশকে বাংলাদেশ বলে ডাকতে পারব?আজ থেকে ৪২ বছর আগেও এই শব্দটি নিয়ে যুদ্ধ করতে হয়েছে আমাদেরকে,আজ ৪২ বছর পর '১৩ সালে স্বাধীনতাকে যেভাবে ধর্মের স

    ফতুল্লায় গোপন বৈঠক, মাঠে নামছে ইসলামী ছাত্রী সংস্থা ও মহিলা হেফাজতিরা


    ১৩ দফা দাবির সমর্থনে এবার মাঠে নামছে হেফাজতে ইসলামের মহিলা কর্মীরা। কওমী ধারার মহিলা মাদ্রাসাগুলোতে মহিলা কর্মীরা সংগঠিত হচ্ছে। কওমী মাদ্রাসার মেয়েদের এর আগে তেমন কোনো কর্মকান্ড না থাকলেও সম্প্রতি হেফাজতের ১৩ দফা নিয়ে মাঠে নামছে তারা। সারা দেশে কওমী মাদ্রাসাগুলোর মহিলা শাখাসহ আড়াই হাজার মহিলা মাদ্রাসা আছে। এইসব মাদ্রাসা থেকে ১৩ দফা দাবির সমর্থনে পুরুষদের পাশাপাশি মহিলাদের মধ্যেও হেফাজতে ইসলাম ব্যাপক সমর্থন লাভ করবে এমন পরিকল্পনা থেকেই মহিলাদের মাঠে নামানো হচ্ছে। তাছাড়া এমন কাজ আছে যা হেফাজতের পুরুষ কর্মীদের করা সম্ভব হবে না। এসব জায়গায় মহিলা হেফাজতিদের কাজে লাগাতে চায় তারা।

    আমি অন্ধকার সেল


    বেচে থাকলে বুঝি মানুষ বদলায়,
    সাপ বদলায় তার খোলস,
    ধরীত্রি বদলায় তার রঙ।
    পূর্নিমার চাদ হয় অমাবস্যায় লীন,
    মরা পাতা ঝড়ে পরে,
    সাগরের ঊর্মীমালা অতলে বিলীন,
    সবকিছু বদলায়,
    পুরুণো দিন আসেনা ফিরে।
    সেই তুমিও চলে গেছ বদলে যাবার দলে,
    কেবল বদলাইনি এই আমি এক টুকরো অন্ধকার,
    চীরকালের সেই একই অন্ধকার নিকশ কালো।
    আমার আর লাগে না ভালো।
    যেমন মেশেনা জল আর তেল,
    তেমনই তুমি আলো আর আমি অন্ধকার সেল।

    দর্শক টিকিট আছে তো হাতে!


    শুরু হয়ে গেল শেক্সপীয়ারের আরেকটি মঞ্চায়ন। না, গ্যালারীতে কোনো দর্শক নেই। দর্শকই হয়ে ওঠেন পাকা অভিনেতা । মঞ্চের কানায় কানায়, এমনকি উইংসে অভিনেতা অভিনেত্রী টইটুম্বুর! হট্টগোল বেঁধে যায় কখন সখনো। আসলে এটা ও অভিনয়ের অংশবিশেষ। গান বাজনা, নৃত্যশৈলী, টান টান উত্তেজনায় ভরপুর। দর্শক ইতোমধ্যে ভুলে বসে আছেন টিকিট কেটেছেন নির্দিষ্ট সময়সীমায় পরাবাস্তব নাটক দেখবার জন্য। কিন্তু হায়! অদ্ভুত এ মঞ্চে তিনি নিজেই নাটকের কুশীলব হয়ে ওঠেন নিজেরি অজান্তে। অভিনয়ে মন্দ নয় কেউ। তবে হেরফের হয়ে যায় যখন ভুলে মনে পড়ে যায় তিনি একজন দর্শক বৈ আর কিছু নন!

    ১৭ এপ্রিল : বাঙালি’র ঐতিহাসিক দিন


    ১৭ এপ্রিল বাঙালি জাতির ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক স্মরণীয় দিন। ২৫ মার্চ রাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের স্বাধীনতা ঘোষণার ২২ দিন পর ১৭ এপ্রিল কুষ্টিয়ার মেহেরপুরের আম্রকাননে স্বাধীনতা যুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী প্রবাসী সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ গ্রহণ করে। ওই সরকারের নেতৃত্বেই প্রায় ৯ মাসের সশস্ত্র যুদ্ধে বাংলাদেশ চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করে। শপথ গ্রহণের পর প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ প্রবাসী সরকারের রাজধানীর নামকরণ করেন 'মুজিবনগর'।

    রিয়াল মাদ্রিদে ''ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো'' মিথোলজি


    বিলবাওয়ের বিপক্ষে জোড়া গোলে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো টানা তৃতীয় মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ত্রিশটি বা তার বেশী গোল করার মাইলফলক অর্জন করলো। এই মাইলফলকের মাধ্যমে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো সাবেক মাদ্রিদ কিংবদন্তি হুগো সানচেজের ১৯৮৬-৮৭ এবং ১৯৮৯-৯০ দুই মৌসুমে ৩০টি বা তার বেশী গোলের রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে।

    গ্রীক মিথলজিতে জিউস
    দেবতা আতলাসকে শাস্তি দিয়াছিল স্বর্গের বোঝা কাধে বহন করার, আতলাসের প্রতীক হল কাধের উপর বিশ্ব।

    কিয়ের ভিত্রে কি ?


    আরে !এ দেখি ঘরের শত্রু বিভীষণ ! কিয়ের ভিত্রে কি ?

    এতদিন শিবির আর ডিবির মধ্যেই দেখি নাস্তিকের লিস্টি বানানির কাম ছিল । তাদের এই কষ্ট মনে হয় অনেকেরি সহ্য হইতাছেনা ।এতদিন ''আস্তিক/নাস্তিক ক্যাচালে কান দিবেননা'' এইসাব বাকওয়াজ কইতা এখন অনলাইনের বলদগুলিও নাস্তিকের/ধর্মবিদ্বেষীদের লিস্টি বানাইতাছে ! দুইদিন পর তো পাছা বাচানির দায়ে দাও সাপ্লাই দিব ! ব্যাপারটা আম্লিকের ব্লগার গ্রেফতার করার মতই পায়ে কুড়াল মারার আইডিয়া না ?

    কথা যা হবে শাহবাগের দাবির উপরেই তো হবে । এখানে শিবিরের লিস্ট না কইরা নাস্তিক/ধর্মবিদ্বেষীর লিস্ট করার প্রসংগ আসে কই থেকা ?

    আমাদের মিডিয়া এবং আমাদের বুদ্ধিজীবীরা... অথবা আমরা


    মানুষ বড়ই অদ্ভুদ জীব। এইটা ত সবারই জানা। তবুও বারবার একটি মানুষ থেকে আরেকটি মানুষের পার্থক্য অথবা একই মানুষের বিশেষ সময়ে আচরনগত পরিবর্তন আমাকে বিশেষ বিনোদন দেয়। শাকিব খানের মতো কখনও আমিও যদি সেলিব্রেটি হই এবং ছয় ইঞ্চি প্লাস্টার মেখে নাক-মুখ একটু ডান বামে সরিয়ে বসা উপস্থাপিকা যদি আমাকে প্রশ্ন করে যে, অবসর সময়ে আপনি কি করে কাটান? তাহলে আমার উত্তর হবে চারদিকের মানুষের কথা ভেবে(এর মাঝে আমিও আছি কিন্তু)।. উপস্থাপিকা তখন একদম ঢলঢল মুখে “ওয়াও,আপনার মতো একজন মানুষ , অবসর সময়ে মানুষের কথা ভেবে সময় কাটান!

    এখনি সময়


    এক হেফাজতিরে যিনি এখনো সেটা হক আন্দোলন মনে করেন,গতকাল একটা প্রশ্ন করেছিলুম - দেখেন দাদা ,আপনাদের নাস্তিক বিরোধী আন্দোলনে আমরা সবাই দেখেছি স্বঘোষিত নাস্তিক মুরতাদ ফরহাদ মঝার ও জাকির হোসেনকে ।

    তিনি- বৃহত্তর আন্দোলনে এমন দু-একজন থাকতেই পারে । এইসব ধর্তব্য না ।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর