নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • নুর নবী দুলাল
    • সুব্রত শুভ

    নতুন যাত্রী

    • মহক ঠাকুর
    • সুপ্ত শুভ
    • সাধু পুরুষ
    • মোনাজ হক
    • অচিন্তা দত্ত
    • নীল পদ্ম
    • ব্লগ সার্চম্যান
    • আদি মানব
    • নগরবালক
    • মানিকুজ্জামান

    বার্তাবাহক আমি।


    শাহবাগ জেগেছে আজ উন্মাদে
    দেখোনি জাতি তুমি
    যদি দেখতে তবে চাইতে
    তা থামিয়ে দিতে।
    আমিতো এই জাগরণ সমর্থন করতাম
    আমার বিবেক সাড়া দিতো এই
    আবেদনে,
    তবে কেন আমি নিরবে?
    তবে শোনো সেই কথা-
    কই তখন তো কোনো জাগরণ হয়না,
    যখন রাস্তার পাশে না খেয়ে
    ক্ষিদের যন্ত্রণায় কাতরায় পথশিশু?
    তখনো তো কোনো প্রতিবাদ হয়নি
    যখন পদ্মাসেতু নিয়ে সরকার কানামাছি খেললো?
    প্রতিবাদ তো তখনো হয়নি যখন
    সুরন্জিত নামক এক চোর জনগনের টাকা নিয়ে ধরা খেল?
    তবে আজ কিসের প্রতিবাদ?
    যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি চাও
    সেটাতো আমিও চাই।
    আমিতো স্লোগান তুলি-
    "আওয়ামী,বিএনপি,জামায়াত
    আমরা সবাই ভাইভাই,
    রাজাকারের ফাঁসি চাই।"

    তোমরা কেন বসে থাকবা বাবা


    আর কতদিন শান্তিপুর্ন আন্দোলন করব ভাইয়েরা, আর কতদিন? মনে আছে আমাদের এক মা কি বলেছিল

    ".........তোমরা ক্যান বসে থাকবা বাবা, ওই চুনোপুটিগুলা কিভাবে কি করে..............."

    ধর্ম ও মানুষ "থাবা বাবা"


    একদা যুদ্ধের ময়দানে হযরত মোহাম্মদ(সঃ) কে প্রায় মেরে ফেলার অবস্থায় নিয়ে যাওয়ার পরও হাত তুলে তিনি আল্লাহ রব্বুল-আলা-মিন এর কাছে আওয়াজ তুলছিলেন মুমুর্ষ অবস্থায়,"হে প্রভু তাদের জ্ঞান দাও",তিনি শত্রু পক্ষের নাশ চান নি তারপরেও।একজন কৃষ্ণ পরম অবতার হয়েও,তিনি নিজের মৃত্যুকে কর্ম ফলের হাতে সপে দেন।ব্যাধ এর তীরের আঘাতে তার মৃত্যু হয়,তাকেও তিনি ক্ষমা করে যান।একজন গৌতমের ক্ষমার গুনে একজন আংগুলিমান এর মানুষ হয়ে ওঠা।আবার প্রভু যীশুও লাস্ট সাপারে তার বিশ্বাসঘাতক অনুচরকে ক্ষমা করে দেন নিজ গুনে।তাদের ধর্ম শেখাতে হয় নি।ধর্মকে তারা ধারণ করে দেখিয়েছেন ও তারা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন ভাল কিছু।তারা সফলও

    শিবির সুসমাচার! ও তাদের অর্থনৈতিক ভিত গুলো ।


    শিবির সুসমাচার। একটু পেছনে ফিরে তাকাই তাহলে। আগে একটু স্মরণ করিয়ে রাখা ভাল তাহল; বাঙলা ভাই ও তার সাঙ্গপাঙ্গ কিন্তু জামাত-শিবিরের সাবেক সদস্য ছিল। ২০০৬ সালের ৬ মার্চ রক্তাক্ত অবস্থায় গ্রেফতার করা হয় বাঙলা ভাইকে। যিনি নিজেও অতীতে জামাতী ইসলাম করতেন।

    জেএমবির সামরিক শাখার প্রধান আবু বক্কর সিদ্দিক ওরফে নজরুল ওরফে শিবলু দলটির হাতে গ্রেফতার হয়। যিনি আগে জামাতের কেন্দ্রীয় নেতা ছিলেন।

    স্বাধীনতার মৃত্যু চাই


    প্রশস্থ হোক, আরো ধারালো হোক মৃত্যুরা
    নৃশংস মৃত্যু চাই, আরো নৃশংস যেন সুতীক্ষ্ণ তীব্র স্বাদ পায় ওরা
    নির্মম মৃত্যু চাই, আরো নিষ্ঠুর যেন তা বোধকে ছাড়িয়ে যায়।
    মৃত্যু চাই, স্বাধীনতার মৃত্যু......
    মৃত্যু হোক চেতনার, মৃত্যু হোক ভাবনার
    মৃত্যু হোক সার্বভৌমত্তের, মৃত্যু হোক মুক্তির
    আমি স্বাধীনতার মৃত্যু চাই নতুবা জীবিত স্বাধীনদের।

    স্বাধীনতা’রা মরে যাক, স্বাধীনতা’রা পচে যাক
    দ্বিখণ্ডিত হোক, ত্রিখন্ডিত হোক
    খন্ডে খন্ডে বিখন্ডিত হোক স্বাধীনতা’রা
    মৃত্যু চাই আমি, স্বাধীনতার মৃত্যু চাই
    নির্মম-নিষ্ঠুর-নৃশংস হোক সে মৃত্যু
    বিশেষণের উর্ধে হোক সে মৃত্যু

    একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সাংবাদিক সম্মেলনের বক্তব্য


    ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৩ বিলিয়া মিলনায়তনে আয়োজিত একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্য‘৭১-এর গণহত্যার পরিপূর্ণ ন্যায়বিচার নিশ্চিতকরণের প্রয়োজনে সংবিধান এবং ট্রাইবুনালের আইন ও বিধির আরও সংশোধন প্রয়োজন
    ---------------------------------------------------

    শিবিরের নতুন হিট লিস্ট!


    সোনারবাংলা ব্লগে প্রথম হিট লিস্ট প্রকাশ করার তিনদিনের মাথায় আমরা হারিয়ে ব্লগার রাজীব হায়দারকে। শিবিরের ঘাতকরা নৃশংসভাবে কুপিয়ে ব্লগার রাজীবকে হত্যা করেছে। ব্লগারদের আলোচনা চলছে এর পরের হিট লিস্টে কারা আছেন। রাজীব হত্যার চব্বিশ ঘন্টা না পার হতেই আজ ফেসবুকে 'ধানসিঁড়ি ওয়াহিদ' নামের চট্টগ্রামের একজন শিবির কর্মী নতুন হিট লিস্ট প্রকাশ করেছেন। এবারের হিট লিস্টে আসিফ মহিউদ্দিন, অমি রহমান পিয়াল,আরিফ জেবতিক,ডাক্তার ­ আইজু,নিঝুম মজুমদারের নাম আছে। হিট লিস্ট বার্তায় উপরোল্লিখিত নামের ব্যক্তিদ্বয়কে কতল করা ফরজ বলে এই শিবিরের ক

    প্রজন্মের আন্দোলন আর কিছু সুশীল-কুশীল চিন্তা


    ধর্মনিরপেক্ষতা,জাতীয়তাবাদ,গনতন্ত্র,সমাজতন্ত্র - এই চারটি শব্দের সাথে আমার পরিচয় ক্লাস নাইনে সামাজিক বিজ্ঞান বইতে।তখন শুধু মাত্র ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দটার অর্থই আমি বুঝেছিলাম নিজে নিজেই।যার অর্থ আমার কাছে প্রতিটি ধর্মের পারস্পরিক সহ অবস্থান।বলতে দ্বিধা নাই বাকী শব্দগুলোর অর্থ আমার মাথার উপর দিয়ে গেল,স্যাররাও বোঝাবার চেষ্টা করল না।অথচ যতই বয়স বাড়তে থাকল অবাক হয়ে দেখতে থাকলাম এই শব্দটার অর্থ একেকজন একেকরকম করে আসছে একেকভাবে যেমনটা যার প্রয়োজন,চলছে কুতসিত রাজনীতি,রক্তের হোলি খেলা।ব্যাবহৃত হচ্ছে লাভের গুড় ছিনিয়ে নেবার হাতিয়ার হিসেবে।

    আমরা সুশিল আমরা সব মানবতা অপরাধের বিচার চাই


    "আমরাও যুদ্ধপরাধীদের বিচার চাই...তবে। আমরা চাই সব হত্যার বিচার হোক। বিশেষ করে আওয়ামীলীগ আমলে সব হত্যা কারীর বিচার। বিশ্বজিৎ হত্যার বিচার।" থাবা বাবা প্রশ্ন রেখেছিলেন, বিশ্বজিৎ এর হত্যার জন্য সুর উঠে কিন্তু জামাত যখন বাসে মানুষ পুড়িয়ে মারে, তার নামটা জানারও প্রয়োজন বোধ করিনা। এই থাবা বাবাই এখন সেই নামের তালিকায় যোগ হয়েছে। সোনা ব্লগের পোস্টের চারদিন পরে হত্যা যজ্ঞ আমাদের নিশ্চিত করছে,এর সাথে সোনাব্লগের ব্লগার,জামাত ,শিবির এই হত্যার সাথে জড়িত। আরো প্রমাণ হয়তো পুলিশ পেয়ে যাবে।

    হুম, এবার আমরাও আপনাদের সাথে বিচার চাই।

    থাবা বাবা ( রাজীব হায়দার) কী ধর্মের জন্য " বলি " হল নাকি আন্দোলনের জন্য?


    প্রথমেই আসি ধর্মের প্রসঙ্গে। আমরা যারা ফেসবুক ও ব্লগে থাবা বাবাকে চিনি তারা সকলেই জানি থাবা বাবার সবচেয়ে বেশি লেখা ধর্ম নিয়ে। বিশেষ করে ধর্মকে ব্যঙ্গ করে। এখন কথা হচ্ছে ধর্মকে ব্যঙ্গ করে বা নাস্তিকতার জন্য তার উপর এই নির্মম আঘাত কী আসল? আমি বলব না। এই আঘাত তার নাস্তিকতা বা ধর্মের সমালোচনার জন্য আসে নি। কারণ যদি আসত তাহলে অনেক আগেই এই আঘাত আসতে পারত তাহলে কথা আসে এই আঘাত এখন আসল কেন?

    http://img26.imageshack.us/img26/4994/kobid95175700511f33e199.jpg

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর