নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • কাঠমোল্লা
    • মিঠুন বিশ্বাস
    • মারুফুর রহমান খান
    • দ্বিতীয়নাম

    নতুন যাত্রী

    • চয়ন অর্কিড
    • ফজলে রাব্বী খান
    • হূমায়ুন কবির
    • রকিব খান
    • সজল আল সানভী
    • শহীদ আহমেদ
    • মো ইকরামুজ্জামান
    • মিজান
    • সঞ্জয় চক্রবর্তী
    • ডাঃ নেইল আকাশ

    বুমেরাং


    এক.
    অফিস থেকে বাড়ি ফেরার এই সময়টাকে সবচেয়ে কষ্টকর সময় বলে মনে হয় রফিক সাহেবের। এই ৫২বছর বয়সে টানা তিন ঘন্টা বাসের মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা তার জন্য সত্যিই কষ্টের। অথচ অফিস থেকে বাসায় যেতে বাসে করে বড়জোর ত্রিশ মিনিট লাগার কথা। আসার সময় সিট নিয়ে কোন ঝামেলা হয়না। কিন্তু বাসায় ফেরার পথে প্রায় দিনেই দাঁড়িয়ে ফিরতে হয়। এভাবে দাঁড়িয়ে আসা আগে অসহ্য মনেহলেও কয়েক বছর থেকে একেই উপভোগ্য করে নিয়েছেন তিনি। মাঝে মাঝেই অবাক হয়ে ভাবেন, এত্ত চমতকার একটা আইডিয়া তার মাথায় আরো আগে আসলো না কেনো?

    অপরাজনীতিবিদগন এবং সাধের স্বাধীন বাংলাদেশ


    বাংলাদেশের রাজনীতিতে ইতিবাচক হাওয়া বইছে! সকালের প্রথম খবর আমি এটাই পড়ি। সুশীল সমাজের অনেক বিশ্লেষক সমালোচক আলোচক এমন মন্তব্য করেছেন, রাজনীতিতে হয়তো স্থিতিশীল অবস্থা ফিরে আসছে। দেশ ও জনগণের কথা চিন্তা করে উভয় দল আজ আলাপ আলোচনার পথ বেছে নিচ্ছে। আর কত অস্থিতিশীলতা দেখবো! আর কত নিসংশতা দেখবো! এবার পথ খুলবে, স্বস্তি আসবে!

    বিভিন্ন সুশীল সমাজের বক্তব্য, মন্তব্য শুনলাম, জানলাম, দেখলাম। কিন্তু মানতে পারলাম না। মনে এক ভয়াবহ চরম আশংকা থেকেই গেলো। ইতিবাচক হাওয়া ??? বাংলাদেশে??? এতো তাড়াতাড়ি??? এতো সহজে??? এতটাই আপোষকামি বিরোধীদল??? এতটাই উদার সরকার??? অবশেষে সেই কাঙ্ক্ষিত সংলাপ কি হবে???

    চ তে চা, তুই সংলাপ তুই সংলাপ


    “জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরাতে প্রধানমন্ত্রী এখন আলোচনার কথা বলেন। সংসদে যাওয়ার আহ্বান জানান। আর কয়েদিন পর হয়ত চা খাওয়ার আমন্ত্রণ দেবেন। আমি বলব, আসুন আমার বাড়িতে আপনাকে চা খাওয়ার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।”

    নেত্রী এইটা ভালো বলছে। চা খেতে খতে গল্প করলে, সং আলাপ করলে খারাপ হয় না। অন্তত জাতি একটি চা দিবস পাবে,চা কম্পানি গুলা বিজ্ঞাপনে "চা খতে খেতে কাছে আসা" টাইপ ডায়ালগ (সংলাপ) দিতে পারবে।

    তবে ম্যাডাম, একটা অনুরোধ, আপনার চায়ের তলানি খাবার জন্য জামাত কে রাখবেন না। এরা তো তলানি খেতে খেতেই আজ ডেগচি ধরে খাবার চিন্তা করে, যদিও তারা অতিতে এই চা নামক হারাম বস্তুও না খাবার ভং ধরেছিল।

    বাংলাদেশ থেকে ভিজিট করা শীর্ষ ২০ ওয়েব সাইট


    ১. Facebook: ধারণা করাই যায়। আমিও এটাকে সমর্থন করি। এখন মানুষ ইন্টারনেট কী বোঝার আগে বোঝে ফেইসবুক কী? ইন্টারনেটে যে ফেইসবুক ছাড়া অন্য কাজও করা যায়, সেটাও অনেকে জানে না। ফেইসবুক তো উপরে থাকবেই। আপনিও আপনার সন্তানকে ফেইসবুক চালাতে উৎসাহী করুন। ভুলে ভরা পাঠ্যবই পড়ে ভুল শেখার চেয়ে ফেইসবুক পড়ে কিছু না শেখাই ভাল।

    ২. Google: খোঁজ দ্য সার্চ। বাঙালি অলিতে খোঁজে। গলিতে খোঁজে। তারা পানির নিচে ডুব দিয়ে সেখানেও খোঁজে। তো গুগল উপ্রে থাকবে না তো কি আমি থাকব???

    ছেঁকামূলক কবিতা এবং ভুয়া কিছু প্রেম-কাম দর্শন


    ওরে শকুন পাখি
    তোর লাগি যে রাত্রি বেলা তারার দিকে চেয়ে চেয়ে
    দাঁড়কাকের পাশে বসে
    ব্যাকুল আমি জাগি

    পাখি তুই কই গেলি রে?
    তন্দ্রা চোখে ছায়াপথে খুঁজে আসি

    কারা নাস্তিক!


    ১।গাড়ীতে তর্ক জুড়ে দিল পায়জামা দাড়ী টুপি পরিহিত হেফাজত দাবীদার ঐ লোকটি।কথায় কথায়ই বলতে চায় যারা তাদের বিরুদ্ধে সবাই নাস্তিক বা নাস্তিকের মদদ দাতা।মানুষকে বুঝাচ্ছে গণজাগর মঞ্চের সবাই নাস্তিক কিন্তু বলতে পারেনি গণজাগরণ মঞ্জে ধর্মের বিরুদ্ধে কোন কথা বলেছে।।শফি সাহেব এই প্রতিবাদের ডাক না দিলে আল্লাহর কাছে কি জবাব দেবেন। তিনি এ দেশর শ্রেষ্ট অলি।এ সরকার এদেশর আলেম ওলামা এমনকি হাট হাজারীরর প্রতি এই অলির প্রতি অসদাচরণ করছে যাহা কোন সরকার দেখাতে সাহস করেনি।এসমন সব।সবাই হেফাজতের অবরোধে গিয়ে এই জালিম সরকারকে উঃখাত করতে হবে.......আরোও কত কি?

    পারি না ছুঁতে তোমায় !!


    পারি না ছুঁতে তোমায় !!
    *********************
    নি:স্ব কেন বলতে পারো ?
    তুমি থাকার পরেও,
    ভালোবাসাই তো চেয়েছিলাম
    তাও, দিতে নাহি পারো ?
    কি করে বলো আমি রইব তুমিহীন
    তোমায় ভেবে হিয়া আমার জ্বলছে নিশি দিন,

    # ▓►ধর্মানুভূতির বাস্তবতা - সাথে কিছু অতি সাধারন বোধগম্যতা ◄▓#


    বাংলাদেশে গড়ে ৫১.৩ % মানুষ অক্ষর জ্ঞান সম্পন্ন । তন্মধ্যে আনুমানিক ধরতে গেলে এক হাজারে একজন পাওয়া যেতে পারে যারা ব্লগ পড়ে অথবা লেখে ।
    এর অনেক কারন আছে , যেগুলা তেমন উল্লেখযোগ্য নয় । কেননা আমরা এগুলা জানি এবং বুঝি । দারিদ্র্য সীমার নিচে অবস্থান কারি দেশ হবার কারনে আমাদের

    অধিকাংশ মানুষের বিশ্বাস, চেতনা , ধ্যানধারণা , উপলব্ধি অনেক প্রাচীন ধাচের রয়ে গেছে ।
    শতকরা ৭৫ ভাগ মানুষ গ্রাম এ বাস করে । এই সাধারন মানুষ গুলা অনেক পুরাতন অভ্যাসের প্রতিফলন হেতু ধর্মের প্রতি গভীর ভাবে অনুগত ।

    আড্ডা


    আড্ডা দিবার জন্য ব্লগে আসলাম । আড্ডা হয়ে যেতে পারে যদি আপনারা সঙ্গ দেন । আশা করা যায় আড্ডা জমে যাবে । কারন ইস্টিশন আড্ডা দেয়ার ভালো জায়গা । দেশের চলমান অবস্থা আড্ডার মুখ্য পয়েন্ট হিসাবে দাড় করানো যেতে পারে । তাছাড়া কারিগর.কম এর সহায়তায় স্টেশন মাস্টারের মহতি উদ্দোগ আলোচনায় আনা যেতে পারে । এই ব্যাপারে আতিক ভাই মুকুল ভাই শামিমা মিতু আপা প্রফেসর বেনসর সোহরাব ভাই আরো যারা আছে তারা আড্ডায় অগ্রনি ভূমিকা পালন করবে বলে আমার ভ্রম হয় । তো দেখা যাক আড্ডা কেমন জমে ।ক্লান্ত কালবৈশাখি
    সুমিত চৌধুরী অসংজ্ঞায়িত মেহেদী অবাস্তব স্বপ্নচারী

    বিভাবরী


    মাথার ডান দিকটা চিনচিন করছিল বিকেল থেকেই। অবশ্য তা এমন আহামরি কিছু ছিল না। কিন্তু সন্ধ্যের সময় প্রাইভেটে যাবার রাস্তায় সেটা এমন ভয়াবহ আকার ধারণ করবে কল্পনাও করিনি। অগত্যা আজ আর যাওয়া হল না। বাসার দিকে রওনা দিলাম। হাঁটতে হাঁটতে যখন খিলগাঁও রেল-গেটে এলাম, তখন থেকেই এই গল্পের শুরু।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর