নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • কাঠমোল্লা
    • সাতাল
    • সৈকত সমুদ্র
    • মৃত কালপুরুষ

    নতুন যাত্রী

    • সুমন মুরমু
    • জোসেফ হ্যারিসন
    • সাতাল
    • যাযাবর বুর্জোয়া
    • মিঠুন সিকদার শুভম
    • এম এম এইচ ভূঁইয়া
    • খাঁচা বন্দি পাখি
    • প্রসেনজিৎ কোনার
    • পৃথিবীর নাগরিক
    • এস এম এইচ রহমান

    ছোটন ছোটন ডাক পারি(মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক একটি ছোট গল্প)


    ছোটনের আজ মন ভালো নেই।মাঠে খেলতে গিয়ে দেখে আজ সব বড় ভাইয়েরা বঙ্গবন্ধুর ভাষণ এর জন্য রেডিও সামনে নিয়ে বসে আছে।আজ খেলা হবেনা।ছোটন চলে আসার জন্য প্রস্তুতি নিতেই খালিদ ভাই ডাক দিয়ে বসতে বলল।অবশেষে ভাষণ শুরু হল।ছোটন খুব মনোযোগী হয়ে উঠলো।রেডিওর সাউন্ড বেশি ছিলোনা কিন্তু বঙ্গবন্ধুর প্রতিটি কথা যেন রেডিওর স্পীকার ফেটে বের হয়ে আসছে।“এবারের সংগ্রাম আমাদের স্বাধীনতার সংগ্রাম” বলার সাথে সাথেই সবার মুখ দিয়ে জোরে বের হয়ে এলো “জয় বাংলা”।ছোটনের কাছে মনে হল সমস্থ কিশোরগঞ্জ যেন কেপে উঠলো এই ছোট গ্রাম এর কিছু স্বাধীনতাকামী মানুষের চিৎকারে।

    ইস্টিশনের টিকিট কিনে যাত্রা শুরু করলাম


    প্রিয় ইস্টিশনের চালক, যাত্রীবৃন্দ,
    শুভেচ্ছা নিন।

    ২১ ফেব্রুয়ারি বাঙলা এবং বাঙালিদের জন্য একটি পবিত্র ও গুরুত্বপূর্ণ দিন। এ দিনেই বাঙালিরা বাঙলাকে স্বাধীন করেছে। রক্তের বিনিময়ে আমরা বাঙলা ভাষা পেয়েছি। বাঙলা, বাঙলাদেশের জন্য বাঙালিরা বারবার জীবন দিয়েছে।

    ইস্টিশন ব্লগ সম্পূর্ণ ভিন্নধর্মী একটি ব্লগ। এই পবিত্র দিনে ইস্টিশন ব্লগে আজীবন চলার জন্য টিকিট কিনলাম। টিকিট হাতে পেয়েছি; যাত্রাও শুরু করেছি। আশা করি, অস্থায়ীভাবে বিরতি নিয়ে স্থায়ীভাবে ইস্টিশন চলতে থাকবে।

    টিকিট যখন কেটেছি, তখন চলবো। আশা করি কখনো থেমে যাবো না।

    সবার জন্য শুভকামনা রইলো; সবার যাত্রা শুভ হোক।

    দিল্লীর সেই ধর্ষণ আর আমাদের কিছু বাস্তবতা......


    সে দিল্লির এক ২৩ বছর বয়সী মেডিকেল ছাত্রী। তার একটাই ভুল ছিলঃ ভাগ্য তাকে ভুল সময়ে ভুল বাসে উঠিয়েছিল।যাতে ছিল কতগুলি ছদ্মবেশী(মানুষরূপী) জানোয়ার। ছয় কুকুর তাকে একের পর এক টানা ধর্ষণ করে গেল।তাতেও ওদের লালসা পূর্ণ হল না।একটি লোহার রড মেয়েটির যৌনাঙ্গে ঢুকিয়ে চিরে ফেলল, ক্ষতবিক্ষত করল তার কোমল শরীর যাতে তার দুইটি ইনটেঁসটাইনই বেরিয়ে এল।

    এরপর মেয়েটিকে চলন্ত বাস থেকে সম্পূর্ণ নগ্ন,আহত,উলঙ্গ আর বিপর্যস্ত অবস্তায় রাস্তায় ফেলে দিল মরার জন্য।রাস্তার কেউই একটিবারের জন্যও তার দিকে তাকাল না কিংবা মেয়েটির নগ্ন বিপর্যস্ত শরীরের উপর এক টুকরা কাপড় পর্যন্ত ছুড়ে দিল না।

    মানুষের সমাজ এবং কর্নেল তাহের


    সমাজ বিপ্লবীরা মানুষকে কর্তৃত্ববাদী ভাবনা থেকে মুক্তি দিতে চেয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে দার্শনিক তত্ত্ব মানুষকে মুক্তি দিয়েছে ঈশ্বরের প্রতি অন্ধবিশ্বাস থেকে; কিন্তু এই সমাজেরই শ্রেণীবিভাজন মানুষের বোধ-বুদ্ধি ও জাগরণের চেষ্টাকে কেটে টুকরো টুকরো করে দিয়েছে। মানুষকে এই শ্রেণীবিভাজনই দুইটি শ্রেণীতে ভাগ করে দিয়েছে, শোষক ও শোষিত।

    এই মাতৃভাষা দিবসকে আর কদ্দিন বাঁচিয়ে রাখা যাবে?


    বিশাল সম্মানিত 'মাতৃভাষা দিবস'
    উপলক্ষে বাসার পাশে বিশাল এক শহীদ
    মিনার নির্মান করছে আমাদের বিশাল
    এলাকার বিশাল যুবসমাজ। রঙ-বেরঙের
    বিশাল বিশাল লাইট লাগানো হইছে। বিশাল
    শহীদ মিনারের বিশাল বেদীর ওপর বিশাল বিশাল ফুল দেয়া হইতেছে। সে এক বিশাল
    আড়ম্বরপূর্ণ অবস্থা! বিশাল
    আয়োজনে অংশগ্রহনকারী বিশাল যুবগোষ্ঠীর

    ওরা আসবে চুপিচুপি।


    ১৯ শে ফেব্রুয়ারী, ১৯৫২...
    মা,
    কেমন আছো তোমরা সবাই ? তোমার শরীরটা ভালো তো ? বেশিদিন আর কষ্ট করতে হবে না তোমাকে। আর কিছুদিন তারপরই চাকরি পেয়ে যাবো, মুছে দিবো কষ্টগুলো। অনেকদিন হয়ে গেলো তোমাদের দেখি না। ক’দিন পরই বাড়িতে আসবো আমি । খুব দেখতে ইচ্ছা করছে তোমাদের। মা, তোমার রান্না কতদিন খাই না । এবার এসে পেট ভরে খাবো । ভালো থেকো তোমরা সবাই ।
    ইতি
    তোমার( )

    ২১শে ফেব্রুয়ারী, ১৯৫২.....

    অ্যাঁর মা-র ভাষাৎ লেইক্ষ্যুম,অ্যাঁর মা-র ভাষাৎ শিক্ষুম"


    "Urdu and Urdu shall be the state language of Pakistan"..........জিন্নাহ নিজেও বুঝে নাই নিজের মরণ কামড় নিজে কিভাবে দিল।সালাম-রফিক-বরকত-জব্বারদের ভাঙ্গা ১৪৪ ধারা ভুল কি শুদ্ধ ছিল আমরা তা হাড়ে হাড়ে বুঝিয়েছি।আমরা মায়ের ভাষায় টিকিয়ে রেখেছি লালনের মানবতা,রবি-নজরুলের বানী,কবি শামসুর রহমানের চিৎকার,শিল্পী আলতাফ মাহমুদের সুর আমাদের কানে বাজিয়ে আমরা লাখো শহীদের রক্তে রঞ্জিত রাজপথে এনেছি আমাদের স্বাধীনতা।আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গা একুশ আমার শরীরে কাঁপন ধরায় একাত্তরের হাতিয়ারের গর্জে ওঠা হাতিয়ারের মত।শিল্পী এস এম সুলতান কিংবা জয়নুলের বাংলাদেশ আমার শিল্প সত্ত্বা।আমার বাংলা শহীদ বঙ্গবন্ধু শেখ

    নাইলন একটি গ্রহের নাম


    পৃথিবীতে, বিশেষ করে এশিয়া মহাদেশের অন্তর্গত বাংলাদেশে একটা রহস্যময় ঘটনা ঘটলো। পেপারের কোণায় ছোট করে সংবাদ টা উঠল কিনা জানি না। তবে এই নিয়ে কারও মাথা ব্যাথা রইল না। কর্তৃপক্ষের লোক সামান্য ভ্রু কুঁচকাল, এই যা ব্যস। টেনশন বলতে এই যা এতটুকুই। বাংলাদেশের ঢাকা জেলার শাহবাগ এলাকার মোড়টায় এই নিয়ে একটা ছোট কথা উঠল, অনেকেই শুনল। কেউ গা করল না। ওদিকে হরদম ফুল বিক্রি চলছে। ঘটনা আর কিছু না, পাবলিক লাইব্রেরি থেকে অনেক গুলো বই উধাউ হয়ে গেছে। কোন উপাত্ত ছাড়া ই। এটা কোন কথা হল ? চুরি ও তো হওয়ার কথা না। স্রেফ উধাও।

    - কেমন দেখলি ?
    - ভালই তো। গ্রহটার নাম কি যেন ?

    শুরু হলো 'ইস্টিশন'র মহাযাত্রা.......


    রাষ্ট্র কার? জনগণের? নাকি মালিকদের? জনতার রাষ্ট্র গড়ার লড়াইটা চলে আসছে যুগ যুগান্তর থেকে। আমরা ব্লগার। এই লড়াইয়েরই একটা অংশ আমরা। কিন্তু লড়াইয়ে নেমে আমরা দেখি, ব্লগিংও সেই একই বৃত্তে আটকা পড়ে আছে। ব্লগ কি ব্লগারদের প্ল্যাটফরম? নাকি ব্লগ মালিকদের?

    প্রেম ভালোবাসা বিষয়ক কিছু প্রশ্ন?


    প্রেম, ভালোবাসা এই বিষয়গুলো কি? কিভাবে হয়? কেন হয়?
    আবেগের প্রশ্ন থাকে, বাস্তবতার প্রশ্ন থাকে, যুক্তি থাকে আবার কোন কিছুই থাকে না। মাঝে মাঝে স্বপ্ন থাকে আবার মাঝে মাঝে কিছুই খুজে পাওয়া যায় না।
    কোন একদিক থেকে এই বিষয়টা নিয়ে লিখতে গেলে কিছুই পরিষ্কার ভাবে লেখা যায় না।
    তাই খাপছাড়া ভাবে শুরু করা যাক।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর