নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 12 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • আরমান অর্ক
    • উর্বি
    • নুর নবী দুলাল
    • সাইয়িদ রফিকুল হক
    • কিন্তু
    • পৃথু স্যন্যাল
    • মিশু মিলন
    • সুমিত রায়
    • মিসির আলী
    • হেজিং

    নতুন যাত্রী

    • অন্নপূর্ণা দেবী
    • অপরাজিত
    • বিকাশ দেবনাথ
    • কলা বিজ্ঞানী
    • সুবর্ণ জলের মাছ
    • সাবুল সাই
    • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
    • মাহফুজুর রহমান সুমন
    • নাইমুর রহমান
    • রাফি_আদনান_আকাশ

    স্বাধীনতা যুদ্ধের দুটি বিশেষ দিন ২৫ ও ২৬শে মার্চের জানা অজানা অনেক তথ্য (সত্য বিবেচনা করে দেখুন)


    পর্দার আড়ালে বাঙালি হত্যাকাণ্ড পরিচালনার নীল নকশার সমস্ত আয়োজন সমাধান করে ২৫ মার্চ ইয়াহিয়া খান এবং ২৬ মার্চ ভুট্টো সাঙ্গ-পাঙ্গদের নিয়ে চুপিসারে পাকিস্তান পালিয়ে যায়। ২৫ মার্চ রাতের অন্ধকারে পাকিস্তানি আর্মি আধুনিক ও ভারী মরনাস্ত্র নিয়ে বেরিয়ে পড়ে বাঙালি নিধনে। প্রথম তারা আক্রমণ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,রাজারবাগ পুলিশ লাইন,পিলখানা ইপিআর হেড কোয়ার্টার,আওয়ামীলীগের বিভিন্ন অফিস ও বঙ্গবন্ধুর বাড়ি। রুখে দাড়ায় রাজারবাগ পুলিশ লাইন। শুরু হয় প্রথম সশস্ত্র যুদ্ধ।

    [sb]স্মৃতিকথা : আমার মুসলমানী(সুন্নতে খৎনা), ভয়ে খাটের তলে পলায়ন এবং ধরা খাওয়া অতঃপর প্রিয় জিনিসের মাথা হারানো [/sb] :(


    আমারে যেদিন মুসলমানী করানো হইলো, সেদিন আমি জানতামই না, আজই আমার নুনু কাটানো হইবো। সকাল থেইকা আমাদের বাড়ি ভরা মেহমান। এত্ত মানুষ দেইখা একটু পরপরই মা’র কাছে গিয়া জিগাই,
    “মা আইজকা কি কারও বিয়া? বাড়ি ভরা এত্ত মানুষ ক্যান?”
    মা, চাচি, দাদি আর বড় বইনেরা সবাই আমার কথা শুইনা খালি হাসে। আমারে লক্ষ্য কইরা কয়,
    “হ। আইজ তোর বিয়া।” Wink
    আব্বা একটু পরপর আইসা বাসার মহিলাদের ঝারি মারে,
    “এখনও কত্ত কাম বাকী! রান্না-বান্না শুরুই হয়নাই। ওইদিকে হাসেম ভাই(যিনি নুনুর গলা কাটে :P) আইসা পড়লো বোধহয়!” X((

    আমরাও মানুষ, চাই সমান অধিকার


    আমি চাই না নাস্তিক শব্দটি আর গালি হিসেবে ব্যবহৃত হোক। আমি চাই না আমরা যারা নাস্তিক তারা সমাজের বাইরে বাস করি। দিনের পর দিন নির্যাতিত হতে হতে আমরা ভুলতে বসেছি নিজেদের অধিকার। শুধু নাস্তিকতার জন্য আহত কিংবা শত্রুর ছুরিকাঘাতে জখম হয়েছেন এমন উদাহরণ অনেক আছে। নিজের জীবন পর্যন্ত দিতে হয়েছে কাউকে। একজন আস্তিক সহজেই তার বিশ্বাসের কথা অকপটে বলতে পারেন যে কারও সাথে। কিন্তু সমমনা মানুষ ছাড়া আমরা নিজেদের মতামত স্বাধীনভাবে প্রকাশ করতে পারি না কেবলই শারীরিকভাবে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কায়। কেউ বলতে পারবে না কোন নাস্তিক তার নাস্তিকতা রক্ষার জন্য কোন আস্তিকের উপর অস্ত্র নিয়ে ঝাপিয়ে পড়েছে। স্বাভাবিকভাবেই একজন না

    যাতনার যন্ত্রসঙ্গীত


    এখন লেখা হবে সেইসব কথা যা লেখা হয়নি
    ইতোপূর্বে, হয়ত হতো'ও না কোনোদিন যদি সুখের অসুখ না হতো।

    অনেক'কে দেখেছি চিঠিতে তুলে দ্যায়
    দু' এক আজলা কবিতা, মেঘলা অনুভবে
    (অনেক পেয়েছি অমন, বয়সকালে)।
    আজ বয়স ডিঙিয়ে সাঁঝবেলায়
    বুঝেছি
    কবিতার গোটা'টাই চিঠি,
    অনামা অপ্রাপ্য খোলসে ঢাকা।

    একজন স্বনামধন্য আস্তিক এবং সংশ্লিষ্ট সিশটেম


    দিবস- এক।।

    প্রায় মাসখানেক আগে এক ব্লগার ফেলো মারফত জানতে পারি যে বাংলাদেশি সমকামীদের কিছু অনলাইন কমিউনিটি এবং ফোরাম রয়েছে, আর অবাস্তব হলেও সত্য যে এই সকল কমিউনিটি বা ফোরামে কিছু ধর্মপ্রান মুসলমানও আছে। রীতিমতোন একটা হোঁচট খাই এই কথা শুনে।

    হয়তো আমিও মাতাল হয়েছিলাম!!!!


    আমাদের মাঝে শুধু আমিই চুপচাপ ছিলাম। এর মানে কখনই এটা নয় যে আমি এরকমই। সেদিন মনটা খানিক খারাপ ছিল। ভাবনাগুলোও জড়িয়ে যাচ্ছিল। নানান কাব্যিক আলোচনা, শব্দ নিয়ে বাক্যালাপ, শুনেই যাচ্ছিলাম। সেদিন একা একা হাঁটতে হাঁটতে একবার ড্রেনেও পড়ে গেছিলাম। পা ভাঙ্গেনি কপাল ভালো। বিকেল সরিয়ে আঁধার নামতেই আমাদের বাক্যগুলো আলাদা হতে লাগল। আমৃত আসল, শুধা আসল। না জানি আরও কত বিশেষণ চলে আসল। কাজলায় দাঁড়িয়ে নানা আবেশে ঢুকে নানা সৃষ্টির পথ বিশ্লেষণ হল। হল, অনেক কিছুই হল। আমি বাদে বাকী সব কনক্রিটই লাগছিল। ফলত প্রশ্নটা আমার কাছেই আসল। আমি যেতে চাই কিনা?

    শোক পরিণত হউক সংযমে


    গঠনতান্ত্রিকভাবে বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল। ভোটের রাজনীতিতেই এর বেঁচে থাকা এবং বিকাশ। ভোটের জন্য বিএনপির যা করা উচিত, তাই দলটির জন্য শোভন এবং সঠিক। স্বৈরাচার বিরোধী গণতান্ত্রিক আন্দোলনে মাঠে থেকে রাজনীতির পাঠ নিয়েছেন বেগম জিয়া। তাঁর দলে বেগম জিয়ার সমকক্ষ আর কেউ নেই।

    মাস্টার দা সূর্যসেন


    ১৯৩৪ সালের ১২ জানুয়ারি। সন্ধ্যাবেলা। চট্টগ্রাম জেলে বসে সূর্যসেন খুব সচেতনভাবেই ভাবছেন রাত ১২ টা ১ মিনিট বাজতে আর মাত্র পাচ ঘন্টা বাকী। এই সময়টুকুই পার হওয়ার সাথে সাথে তাঁর এবং তাঁর সহকর্মী তারকেশ্বর দস্তিদারের জীবন প্রদীপ নিবিয়ে দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। রাত ১২ টা১ মিনিটে ফাঁসির রজ্জু তাকে পড়তেই হবে। এটাই আইন। ব্রিটিশ সরকারের আইন। ব্রিটিশ সরকারের বিজ্ঞ আইনজ্ঞ জজের রায়।

    কেউ কথা রাখেনি ২


    প্রস্তাবনাঃ হুমায়ূন আহমেদ বলেছিলেন "মানুষের জন্মই হয়েছে অপেক্ষা করার জন্য" অবস্থা এমন দাড়িয়েছে মাঝে মাঝে মনে হয় মানুষের জন্ম হয়েছে আসলে কথা না রাখার জন্য। মানবজাতি বিশেষ করে বাঙালীজাতি একটা সিস্টেমে পড়ে গেছে। সিস্টেমটা হচ্ছে লম্বা লম্বা কথা দেওয়া হবে এবং অতি দ্রুত সেই কথা ভুলে যাওয়া হবে। অষ্টাদশী প্রেমিকা স্বপ্ন দেখাবে তারপর স্মৃতিভ্রংশতায় আক্রান্ত হয়ে আরেকজনকে দেখাবে রংধনু,বিপ্লবী জননেতা আল্টিমেটাম দেবেন এবং কী করার কথা ছিল তা ভুলে গিয়ে নতুন কর্মসূচী দিয়ে হাততালি পাবেন,টিভিতে নিজের চেহারা দেখে খুশিতে বাকবাকুম করতে থাকবেন। আমরা যারা লাইট হাউজ দেখে দূরদূর

    অপদ্য বচন (১৬৬-১৭৫)


    ১৬৬. আমাদের সমাজে অনেকেই সত্য কথা বলতে চাইলেই নিজের ব্যাপারে সত্যটি শুনতে নারাজ।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর