নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • বুলবুল
    • জাকারিয়া হুসাইন
    • সৌরভ দাস
    • মোমিনুর রহমান মিন্টু
    • কাঙালী ফকির চাষী
    • দুর্জয় দাশ গুপ্ত

    নতুন যাত্রী

    • আমি ফ্রিল্যান্স...
    • সোহেল বাপ্পি
    • হাসিন মাহতাব
    • কৃষ্ণ মহাম্মদ
    • মু.আরিফুল ইসলাম
    • রাজাবাবু
    • রক্স রাব্বি
    • আলমগীর আলম
    • সৌহার্দ্য দেওয়ান
    • নিলয় নীল অভি

    সংলাপ – ২


    সংলাপ – ২

    - সকালের কল, ব্যাক করলে দুপুরে
    যখন মানবাধিকার নিয়ে ভীষণ ব্যস্ত মিটিং এ
    কেটে দিতে হলো নিতান্ত অনিচ্ছায় ।
    অফিস শেষে যখন আবার চাইলাম তোমায় ফোনে
    তুমি তখন মগ্ন ছিলে জানিনা কার ধ্যানে !
    মোবাইল স্ক্রিনে কেবল ‘ নো আনসার ’, ‘ নো আনসার ’, ‘ নো আনসার ’।
    তোমাকে দেখিনা ‘ দীর্ঘ দিবস, দীর্ঘ রজনী, দীর্ঘ বরিষ মাস ’
    নীলা, তোমার ড্রেসিং টেবিলের আয়নাও আমার মতো অতো দুখি না !

    - এ তোমার ভারী অন্যায় রুদ্র ! এতো অভিযোগ করছো কেন ?
    মগ্ন ছিলাম বটে ফলবতী জ্যৈষ্ঠের গা পুড়িয়ে দেওয়া অহঙ্কারে ।

    -অভিযোগ নয় নীলা । বলো, অনুযোগ ।

    আমার প্রিয়ার নিকট খোলা চিঠি


    প্রিয়তমা,

    আমি জানি তুমি আমাকে কতটা ভালবাস। তার পরো বলি আমাকে ভালবাসা অতটা সোজা না। ভালবাসা হয়তো সহজ, কিন্তু সারা জীবন এক সাথে চলার স্বীদ্ধান্ত নেওয়াটা একটু কঠিন।
    আমার পাশে হাটার সময় দেখবে আমার হাটায় প্রবলেম, পা একটু বাকা করে হাটি।

    আমার সাথে যখন হাঁসবে লক্ষ্য করবে হাঁসিতেও সমস্যা আছে, ঠিক মত হাঁসতে পারি না, অনেকটা বোকার মত হাঁসি।

    যখন কথা বলবে আর আমায় পরিচয় করিয়ে দিবে তোমার বন্ধু দের সাথে তখন দেখবে বলাতেও ত্রুটি আছে, অযত্ন অবহেলায় আমার কথা গুলো আর সভা সমাবেশ বা অনেকের সামনে চলে না।

    সমসাময়িক


    অবস্থাটা এমন যে
    কাউকে ভালোবাসতে নেই
    আর ভালোবাসলেও তা বুঝতে দিতে নেই।
    তবুও ভালোবাসা আর ভালো না বাসা
    সর্বক্ষন এক কান ধরে থাকে!
    কতো সম্বোধন আর মিথ্যা বিনিময়
    কি হইছে, কি খাইছ ইত্যাদি ইত্যাদি...

    ইস্টিশনে আমি বাচাল যাত্রি।


    ইষ্টিশন তথা ব্লগিং জগতে আমার বয়স ৫ দিন। এই পাচ দিনে ৬-৭ টার মত ব্লগ লিখেছি মাত্র কিন্তু অশংখ্য পোস্টে মন্তব্য করেছি তর্ক করেছি। সহমত হয়েছি। আমাবার বাক যুদ্ধও করেছি।

    আজ শেষ সাত দিনের মধ্য বাচাল যাত্রি তথা মন্তব্য কারীদের মধ্য আমি চতুর্থ।
    এমন চালিয়র গেলে হয়তো প্রথম হতে পারতাম।

    হেফাজতি বাংলাদেশে এই ধর্ষনের বিচার চাওয়া যাইতো কি?


    ধর্ষন ও ধর্মান্তরের ঘটনাটির সাথে ধর্ম সম্প্রদায়কে না জড়িয়ে সমালোচনা করার অনুরোধ করেছিলাম গতকাল যাতে বিশেষ লাভ হয়েছে বলে মনে হচ্ছেনা। সুতরাং হেফাজতে ইসলামের ১৩ দফা দাবি কায়েম হয়ে বাংলাদেশে ইসলামি শাসন প্রতিষ্ঠিত হইলে কি হইতে পারতো তার একটি তুলনামুলক আলোচনা করার লোভ সংবরণ করতে পারলাম না। এই ধর্ষন ও ধর্মান্তরের বিচার আমরা আদৌ পাইতাম অথবা চাইতে পারতাম কিনা সেটা বিবেচনা করা যাক।

    ধর্ষকরা কি অপ্রতিরোধ্য? নরপশুদের রুখে দিন


    ধর্ষণ। বর্বর এ শব্দটি বর্তমান সমাজে দিন দিন ব্যাধির মতো ছড়াচ্ছে। ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতরা যেন অপ্রতিরোধ্য। তাদের থামানোর কেউ নেই। শিশু থেকে বৃদ্ধা কেউই পার পাচ্ছে না মানুষরূপী হায়েনাদের হাত থেকে। পত্রিকার পাতা খুললে প্রতিদিনই চোখে পড়ে এক একটি লোমহর্ষক ঘটনা। গত বছরের ১ এপ্রিল রাজধানীর কাফরুল থানাধীন ইব্রাহিমপুরে ২ বছর ৪ মাস বয়সী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়। ১ আগস্ট লৌহজংয়ে ধর্ষণের শিকার হয় এক বাক প্রতিবন্ধী। ওই দিনই ধর্ষিতার পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিয়ে থানায় বসেই ঘটনার রফা করেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। ২৭ সেপ্টেম্বর রামগড়ে পৈশাচিকভাবে গাছের সঙ্গে বাঁধা অবস্থায় ধর্ষণ করা হয় ১২ বছরের এক শিশুক

    হুজুর বলেন নাস্তিক তুমি...


    পূবের দরজা দিলে ধাক্কা
    পশ্চিমে দেখা যায় মক্কা
    অন্তর আমার শ্রেষ্ঠ কাবা
    পড়ে যাই সেজদায়,
    হুজুর বলেন নাস্তিক তুমি দোযখে যাইবায়!

    আরো বলেন পাইবা তুমি ৭০ হাজার হুর,
    আমি বলি জান্নাত হুজুর সে যে ভীষণ দূর

    “চট্টগ্রামে সকল প্রাইভেট ক্লিনিক এবং চেম্বারে অনির্দিষ্টকালের জন্যে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন চিকিৎসকরা”


    খবর - “চট্টগ্রামে সকল প্রাইভেট ক্লিনিক এবং চেম্বারে অনির্দিষ্টকালের জন্যে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছেন চিকিৎসকরা”

    এই ধর্মঘট ডাকার কারন হচ্ছে এক চিকিৎসককে কারাগারে পাঠানোর প্রতিবাদে তার মুক্তির দাবিতে সারা চট্টগ্রামের সব ক্লিনিক আর চেম্বারে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রাখছেন তারা।
    গত বছর একটা বেসরকারি ভার্সিটির এক ছেলের (নাম সম্ভবত আমিনুল ইসলাম) মলদ্বারে অপারেশনের সময় ওই ছাত্রের মলদ্বারে একটা সূচ থেকে যায়। পরে ভারতে নিয়ে অপারেশন করে ওই সূচ বের করা হয়। এ বছরের জানুয়ারিতে ছেলের মা মামলা করেন আদালত সেই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে আর আদালত ওই চিকিৎসকে কারাগারে প্রেরন করে।

    ‘শিরোনাম সমাচার’


    বিরোধী দলের কপাল ভালো হওয়ার কোন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। যতবার চেষ্টা করছে শিরোনামে আসবার, ততবারই কোন না কোন অঘটন ঘটে যাচ্ছে। হেফাজতকে নিয়ে দারুণ একটা গতি নিয়ে এসেছিল আন্দোলনে এমন সময় ঘটলো ‘রানা প্লাজা’ ট্র্যাজেডি। প্রায় সপ্তাহ খানেকের জন্য শিরোনাম ছিনতাই হয়ে গেল। এরপর হেফাজতের পলায়ন। ফলে সেখানেও শিরোনাম কিছুদিনের জন্য হাতছাড়া হয়ে গেল।

    ধর্ষিত জাতি,ধর্ষিত মানবতা,কি নির্মম বর্বরতা


    একটা বাচ্ছা মেয়ে বয়স ঠিক এগার।আজ সে ধর্ষিত,পুরোজাতি আজ কলঙ্কিত।স্বাধীনতার চার দশক পরেও আমার বোনকে ধর্ষিত হতে হচ্ছে কিন্তু কেন।এর দায় কি করে সমাজপতিরা এড়িয়ে যাবেন।পত্রিকার ভাষ্যমতে মেয়েটাকে মাদক চোরাকারবারীরা তুলে নিয়ে যায় অতপর ধর্মান্তরিত করে অর্ধশতাদিক দিন ধর্ষন করে।অতপর মেয়েটা উদ্বার হয়।ধর্ষন করতে ধর্ম লাগে এমন ভাবা পাগলামী বৈ আর কিছু নয়।আমি শতভাগ নিশ্চিত ধর্ষক গ্যাং সাম্প্রদায়ীক দাঙ্গা তৈরির লক্ষ্যে এই নোংরামী করেছে।হয়ত এতে সে সফল ফায়দাও লুটে নিচ্ছে।কেউ যদি ধর্মকে দোষ দেন তবে বলি যেহেতু ধর্ষক পশুটা মুসলিম নামধারী।তাকে ইসলামী আইন অনুযায়ী মাটিতে অর্ধেক শরীর চাপা দিয়ে পাথর মেরে মারা হোক।তখন

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর