নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • নুর নবী দুলাল
    • দ্বিতীয়নাম
    • সাইয়িদ রফিকুল হক
    • মিশু মিলন

    নতুন যাত্রী

    • নীল মুহাম্মদ জা...
    • ইতাম পরদেশী
    • মুহম্মদ ইকরামুল হক
    • রাজন আলী
    • প্রশান্ত ভৌমিক
    • শঙ্খচূড় ইমাম
    • ডার্ক টু লাইট
    • সৌম্যজিৎ দত্ত
    • হিমু মিয়া
    • এস এম শাওন

    প্রাণবন্ত জলরঙ


    ল্যাপটপ সামনে রেখে মেয়েটি বসে রয়েছে পড়ার টেবিলে। সামনের জানালাটা হাট করে খোলা। একটু হেলে রয়েছে স্ক্রীনের দিকে তাকিয়ে। তার মসৃণ ঘন কালো অবাধ্য চুলগুলো বাতাসে দুলছে মৃদু। তবে ঠিক ঠাহর করা যায় না, জানালা দিয়ে আসা বাতাসে নাকি ফ্যানের বাতাসে উড়ছে চুলগুলো। একদৃষ্টিতে তাকিয়ে রয়েছে বটে, কিন্তু কিছু দেখছে কিনা তা বোঝা যাচ্ছে না। আঙ্গুলগুলো কীবোর্ডময় নড়েচড়ে বেরোচ্ছে কিন্তু কোথাও চাপ দিচ্ছে না, লিখতে চেয়েও কি এক সংকোচের বাঁধনে তারা যেন আবদ্ধ! ওয়ার্ড ফাইলটা মিনিমাইজ করে ফেসবুকে লগ ইন করলো অরিত্রা। খুব অভ্যস্ত হাতে সার্চ অপশনে একটি পরিচিত নাম লিখলো। নাহ!

    বিসিএস কোটা এবং যৌক্তিক-অযৌক্তিক কিছু কথা।


    বিষয়টা এমন যে আপনি যদি স্লোগান দিয়ে থাকেন ''মুক্তিযোদ্ধার গালে গালে, জুতা মারো তালে তালে'' তাইলে অবশ্যই ''ফকিন্নির পুত'' গালিটা আপনার জন্যই বরাদ্দ ছিল। কাজেই অযথা ''ফকিন্নির পুত'' কথা টারে ইস্যু বানায়ে ভাল সাজতে চায়েন নাহ। সরকারী নিয়োগের ক্ষেত্রে কোটা সিস্টেম বাতিল করার জন্য আন্দোলন করবেন বুঝলাম ভাল কথা। কিন্তু পুরো ব্যাপারটা যত্ন সহকারে ভাবা উচিৎ।

    দুই মানবীর প্রেম আর কিছু হাউ-কাউ


    আমাদের মিডিয়া আর সুশীলেরা কি ভুলে গেছে যে কান উৎসবে সেরা চলচ্চিত্র Blue is the warmest color সমকামী প্রেমের কাহিনী থেকে নির্মিত? তাহলে দুজন মানুষ , হোক সমলিঙ্গের, পরস্পরকে ভালোবেসে জীবন অতিবাহিত করার সিদ্ধান্ত নেয়াতে এত হু-হা কিসের?

    কে কার সাথে কিভাবে জীবন কাটাবে এটা ঠিক করে দেয়ার জন্য আপনি, সমাজ, রেওয়াজ কেউ নন। আপনার কোন অধিকার নেই অনধিকার চর্চার। যারা এই দুজন মানুষ সমকামী বলে আহত হচ্ছেন, তাদের জ্ঞাতার্থে বলে রাখি, পৃথিবীতে প্রতি ৪ জন মানুষের মধ্যে অন্তত একজন হলেও সমকামী। সজ্ঞানে হোক, আর অজ্ঞানে।

    সাম্প্রতিক কিছু গ্রাফিক্স (হাসি ফ্রি)


    জাতীয় ইস্যুতে এখন যুদ্ধ চলে ফেসবুকের পাতায়...................যুদ্ধ চলে ব্লগে....... ছাগুদের ছবি এডিট করে মিথ্যা প্রচারনার বিপরীতে আমাদের এই ব্যতিক্রমি যুদ্ধ । এই ছবিগুলো একটাও সত্যি নয় ; কিন্তু একটু ভাবলেই দেখা যাবে কতগুলি চরম সত্য লুকিয়ে আছে ছবিগুলোর মাঝে। ছবির পাত্র-পাত্রীদের চরিত্রই সাধারণত প্রকাশ পেয়েছে গ্রাফিক্সগুলিতে।

    তিন চরিত্রবান............

    লালা শফি....যে কোন মায়ের গর্ভে জন্মেনাই..........

    1408- অসংজ্ঞায়িত এক কক্ষ এবং চিরচেনা এক শয়তানের গল্প......


    গীটারের একটা তার ছিড়ে গেলে যেমন গীটার বেসুরো হয়ে যায়, জীবনের একটা বড় অংশ জুড়ে থাকা খুব প্রিয় একজন বহুদূরে চলে জাবার পর মাইক এন্সলিং এর জীবনটাও বেসুরো হয়ে গেলো। হঠাৎ করেই দুনিয়ার যতসব ভয়াবহ ও ভৌতিক হানাবাড়িতে রাত কাটানো হয়ে গেলো তার নেশা। সেই নেশা এক সময় রুপান্তরিত হল পেশায়। বাস্তব অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে তার লেখা বেশ কিছু বই হল বেস্টসেলার। কিন্তু বইয়ের লেখক যে এখনও অতৃপ্ত। খুব অদ্ভুতভাবেই একদিন তার আশা পুরনের সুযোগ এল। মেইলবক্সে আসা চিঠি-পত্র চেক করার সময় হঠাৎ সে একটা হোটেলের পোস্টকার্ড পেল। নিউইয়র্কের ডলফিন হোটেল নামক সেই হোটেলের পোস্টকার্ডে নিচে লেখা এক অদ্ভুত লাইন তার দৃ

    একজন টাংকিবাজ ইমরান এর ফাও প্যাচালের কাহিনি ( যারা যতি চিহ্ন , বানান এবং ভাষার শুদ্ধতা নিয়া ফাল পারতে আসবেন তাঁরা অফ যান)


    আজকে আমার ভাতিজার বার্থডে ছিল।পার্টি টা ছিল বসুন্ধরা সিটি তে ।সন্ধ্যার পার্টি ছিল তাই ফিরতে দেরি হয়ে গেল।দেরি মানে একদম রাত সাড়ে এগারোটা ।আমি আর দুলাভাই দাড়ায় আসি বসুন্ধরা সিটির সামনে।হঠাৎ করে শুরু হল সেইরাম ঝড় বৃষ্টি।সুন্দর ঠাণ্ডা বাতাস আর বৃষ্টির ছিটে ফোঁটা মুখে পরতে লাগল

    এক কথায় পাঙ্খা ওয়েদার মাম্মা।ঠিক এই মুহূর্তে যখন আমি ওয়েদার এনজয় করতেসি তখন পুরান দিনের কথাগুলা মনে পরে গেল

    ধুর।এইগুলা ভাল্লাগে আপনারাই কন।বিরক্ত হয়ে একটা সিগারেট ধরাইতে গেলাম তাও ধরল না ।কি আর করা?ফিরে গেলাম পুরানো দিনে

    এরা আসলে কাঠের পুতুল, আসল কালপ্রিট তারাই যারা ক্ষমতার দাপটে এদের নাচায়!


    আমিঃ আচ্ছা ভাই। এই মুহূর্তেই যদি ক্যাম্পাসটা গরম হয়ে যায়। মারা মারি শুরু হয় আপনার চোখের সামনেই, তাহলে কি অ্যাকশন নিবেন নাহ?
    পুলিশঃ নাহ! যদি উপর থেকে কিছু করতে বলে তাইলে...
    আমিঃ মানুষ কয় আপনারা নাকি ঘুস খান! (রসিকতা কইরা কইলাম)
    পুলিশঃ আমরা স্কেলের যে বেতন আমি পাই সেটা দিয়ে আমার সংসার চলে নাহ। এমনিতেই ভাড়া আর রেশনের টাকা কাইটা নেয়! আর একা একা দুর্নীতি করা যায় নাহ। সবাই মিলেই করি।

    আমি চাই, আমার মা একটি কবিতা লিখুক


    আমি চাই, আমার মা একটি কবিতা লিখুক
    কুসুমকুমারী দাস কিংবা সুফিয়া কামালের মত করে নয় ।
    একদম নিজের মত করে ।
    যেভাবে তিনি বুঝেন- একটি তরকারীতে কতটুকু নুনের প্রয়োজন ।
    তেল এবং পেঁয়াজের মিশ্রণে কিভাবে একটি অমৃত পরিবেশন করতে হয় ।
    তোষকের নিচে জমানো টাকায় বৃদ্ধ শ্বশুরের ঔষধের জোগাড় তিনিই করেন
    তিনি জানেন সংসারে বৃদ্ধ কবিতাগুলো কত অসহায় !
    বেহিসেবি ছোট ছেলের বৈরাগীত্বে বড্ড বেশী আপত্তি তার ।
    দুর্মূল্যের বাজারে দূর্বোধ্য কবিতার ব্যাঞ্জনা তিনি বুঝেন ।
    আমি চাই এমনি একটি কবিতা আমার মা লিখুক ।
    অষ্টাদশী বালিকার সংসারে অভিষেক,
    তারপর দুইযুগের মধ্যবিত্ত সংসারে-

    প্লিজ ভোট ফর আওয়ামি লীগ প্লিজ প্লিজ প্লিজ...


    একটু পেছনে যান,অপারেশন ক্লিন হার্টের নাম করে ওরা নিরাপরাধ লোকেদের ধরে নিয়ে গিয়েছিলো নির্মম্ভাব টর্চার করা হয়েছিলো,রাস্তায় বের হলে মেয়েদের বুকে পেটে ওরা আলকাতরা লেপে দিতো,খোলা চুলে হাঁটলে চুল কেটে দিতো,সেই সময়েই ঘটে গিয়েছিল ৬৪ টি জেলায় সিরিজ বোমা হামলা,একুশে আগষ্ট গ্রেনেড হামলা ওরা ঘটিয়েছিলো,রমনায় বোমা হামলা,শাহজালালের মাজারে বোমা হামলা,পুকুরের গজার মাছ মেরে ফেলা,নেতাকর্মী সংস্কৃতি কর্মী হত্যা,মঞ্চ নাটক পথ নাটকের স্বাধীনতা সুশীলের শালীনতা হরণ,বাংলা ভাই আব্দুর রহমানের উদ্ভব ওরা ঘটিয়েছিলো। বিরক্তিকর লোড শেডিং,দ্রব্যমূলের উর্ধগতি,খুন ছিন্তাই রাহাজানি ওদের হাত ধরেই বেড়েছিলো!রাজাকারের গাড়িতে জাত

    ভালো থেকো রমা’দি...........


    রমাদিকে প্রথম দেখি চেরাগী পাহাড়ের রাস্তায় । চেরাগী পাহাড়ের মোড়ে আমাদের অন্তহীন আড্ডা চলতো । প্রতিদিনই সকাল থেকে মাঝরাত অবধি এবং কখনও কখনও রাত ভোরেও শেষ হতো না আমাদের আড্ডা । এই রকমই এক বিকেলে শিবুদা’র হোটেলে বসে আছি...আমি আর প্রীতম । রাস্তা দিয়ে রমা চেীধুরী যাচ্ছিল । প্রীতম আমাকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলে, ঐ যে রমা চেীধুরী যায় । আমি জিজ্ঞেস করি...রমা চেীধুরী কে ?

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর