নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • নুর নবী দুলাল
    • সৌম্যজিৎ দত্ত
    • নগরবালক

    নতুন যাত্রী

    • নীল মুহাম্মদ জা...
    • ইতাম পরদেশী
    • মুহম্মদ ইকরামুল হক
    • রাজন আলী
    • প্রশান্ত ভৌমিক
    • শঙ্খচূড় ইমাম
    • ডার্ক টু লাইট
    • সৌম্যজিৎ দত্ত
    • হিমু মিয়া
    • এস এম শাওন

    জন্ম উৎসব পালনের ইতিকথা!


    আজ আমার জন্ম দিন!১৯৮৮ সালের কোন এক বৃহস্পতিবার আমার জন্ম।আমি যে মূহুর্থে ভূমিষ্ট ঠিক তখনি,আমাদের এলাকায় বৈদ্যুতিক বাতি প্রথম জ্বলে উঠে,সে জন্য আমার এক কাকা আমার নাম রাখেন বিদ্যুৎ।এমন এক শরৎ সন্ধ্যা সেদিন আমাদের বাড়ি আলোকিত হয়েছিল,আমার জন্ম আর নতুন জ্বলে উঠার বৈদ্যুতিক বাল্বে। আমার দাদা মহা-উৎসাহে আযান দিয়েছিলেন।সেই আমার জন্মদিন পালন।

    একটি বাস্তবতা


    ১ম ব্যাক্তি : হা হা !!! দেখেন দেখেন মহিলাটা কাদায় পইড়া গিয়া গড়াগড়ি খাইতাছে

    ২য় ব্যাক্তি :হে হে হে !!! আরে খাইবই তো চোখ খানা তো মহিলারা আকাশের দিকে রাইখা হাঁটে !! মহিলারা আসলে একটু বেখেয়ালিল্লা !!

    ৩য় ব্যাক্তি :আরে ভাই, এই দেশের যে রাস্তা ঘাট !! এই সব রাস্তা ঘাটে কি আর মানুষ চলে !!

    ৪র্থ ব্যাক্তি :ঠিক ই কইছেন , ভাই... সরকারের মন্ত্রী মিনিস্টাররা রাস্তা-ঘাট না কৈরা সব খায়া ফালাইছে !!! এই সরকার......

    ৫ম ব্যাক্তি : ধুর মিয়া !! সরকারের এত্ত গুলা ফ্লাই অভার কি আপ্নেগ চোখে পড়ে না!! বিগত সরকার.........

    বলে কি আর লাভ ?


    ইন্ডিয়ান মিউজিক ভিডিও গুলা এক কথায় অশ্লীল । এক কথায় বললাম , কারণ কথা ঘুরায় পেচায় বলার অভ্যাস আমার নাই (ছাগু মার্কা অভ্যাস না থাকাই ভালো) ।

    হ্যা , হলিউডি গুলা যে খুব শ্লীল তা না । কিন্তু সেটা তাদের কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত না । আমাদের সংস্কৃতির সাথে অদেরটার বিশাল পার্থক্য । সেই হিসেবে ইন্ডিয়ান কালচাল কিন্তু এতটা অসভ্য ছিল না । আর হলিউডি মুভির ক্ষেত্রে অশ্লীল কথাটা খুব একটা খাটেও না বলা যায় । কারন ওদের দেশের পোষাক-আশাক বহু আগে থেকেই এমন । তাই এটা ওদের জন্য নরমাল । মুভিতে যেমন দেখায় , রাস্তা ঘাটে এবং পারিবারিক দিক থেকেও একদম সেইম ই দেখা যায় ।

    তুষারের জীবনের উথান-পতন


    মেঘলা একটি বিকাল। পশ্চিম আকাশের মেঘ গুলো রক্তিম রঙ-এ রঞ্জিত হয়েছে। স্নিগ্ধ কোমল পরিবেশ বিরাজ করছে। কিন্তু তুষারের মনে বইছে কালবৈশাখীর ঝড়ো হাওয়া। মনির কথা ভাবছে সে। মনি যেন এখন শুধু একটি সহপাঠী নয়, তার চেয়েও বেশি কিছু হয়তো। কিন্তু সে যে পুরো নারী জাতিটিকে ঘৃণা করে। এই নারী জাতি টা একটা স্বার্থপর জাতি। নিজেদের প্রয়োজনের তাগিদেই অন্যের সাথে থাকে কিন্তু প্রয়োজন ফুরলেই তাকে আর পাশে পাওয়া যায় না। নারী জাতিকে এখন তুষার ভয় পায়। তাদের সান্নিধ্যে আবারও কোন কিছু হারাবার ভয় হয় তার।

    মওদুদী কথন -২


    গত পর্বে আমরা দেখেছিলাম কিভাবে জামায়াতের জনক মওলানা আবুল আ’লা মওদূদী সময়ের বিবর্তনে পাল্টেছিলো সংজ্ঞা, পাল্টেছিলো মতবাদ। শুধুমাত্র তোষামুদী করতেই একসময়ে যে নেজামের চাটুকার ছিলো সেই আবার হয়েছিলো ব্রিটিশ সরকারের দালাল। আবার এই মওদূদী ব্রিটিশ সরকারের দালালী করতে গিয়ে বিরোধিতা করেছিল কংগ্রেসের একই সাথে বিরোধিতা করেছিল মুসলিম লীগের। অথচ এই মুসলিম লীগের হাত ধরেই জন্ম হয়েছিল পাকিস্তানের। আজকের লেখায় তুলে ধরার চেষ্টা করবো মওদূদীর মুসলিম লীগ বিরোধিতা সম্পর্কিত কিছু কথা।

    টুনি হালদার থেকে কাঙ্গালিনী সুফিয়াঃ এক হার না মানা শিল্পী।।


    টুনি হালদার।।
    জন্মগ্রহণ করেন ১৯৬১ সালে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দির অর্ন্তগত রামদিয়া গ্রামে।।
    বাবার নাম- খোকন হালদার এবং মায়ের নাম- টুলু হালদার।।
    মাত্র ১৪ বছর বয়সে গ্রাম্য একটি অনুষ্ঠানে গান গেয়ে শিল্পী হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন।।
    ১৫ বছর বয়সে "সুধির হালদার" নামক একজন বাউলের সাথে তাঁর বিয়ে হয়।। কিন্তু স্বামীর সাথে বনিবনা না হওয়ায় অল্প কিছুদিনের মধ্যেই তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।।

    দুটি কবিতা।।


    ১.
    মাঝ বরাবর, দুধের যে ভাজ
    সে খাজে সুখ রাখিস কি?
    হাত ওঠালে বগলের ভাজ
    নাক ঘষে ঘষে গন্ধ নি।
    মাতাল করা, মিষ্টি সে বাস
    মন ভরে যায়, হায় আমার
    উরুসন্ধিতে উরুর সে ভাজে
    উথলে উঠে দীর্ঘশ্বাস
    মত্ত হওয়ার, শেষ বাসনা

    ‘প্রেম যৌনতা ও আমরা’


    ‘প্রেম যৌনতা ও আমরা’

    বর্তমানে হাল ফ্যাশনে প্রেম করা বা প্রেমে পড়া একটি সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রেম না করাটাই যেন বিস্ময়কর একটা ঘটনা। আর এই প্রেমের সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখছে মোবাইল ফোন। কি যুবক কি যুবতি, বা স্কুল, কলেজ পড়ুয়া ছেলে মেয়ে সকলে নিমজ্জিত এই সুধা পানে।

    কমা অথবা দাড়ির গল্প


    - না সম্পর্কে আর কোন কমা, সেমিকোলন না। একেবারে দাড়ি।
    - আর একবার কমা দাও। এইবার তুমি যতদিন চাও কমা থাকবে। আমি এর মাঝে তোমাকে জ্বালাবো না।
    - জ্বালানো নিভানো জানি না। তোমার সাথে আমার আর সম্পর্ক রাখা চলে না।
    -আরে।,আর একবারই তো।
    - না বলছি। না।

    এভাবে আরও কয়েকবার দাড়ি দিতে গিয়ে কমা হয়ে গেছে ইমামার। এবার আর না। আর কোনভাবেই ইমামা সম্পর্ক রাখবে না সাব্বিরের সাথে।অনেক হেয়ালিপানা সহ্য করেছে। আর না। কাল রাতেও সাব্বির ফেসবুকে গিয়েছে, নিশ্চয়ই মেয়েদের সাথে লুকিয়ে লুকিয়ে চ্যাট করেছে। এতবার করে মানা করার পরও।

    - তুমি কাল রাতেও ফেসবুকে গিয়েছিলে?
    - মানে? কে বলল তোমাকে?

    একটি স্বপ্ন; অতঃপর......


    স্যারের বাসার সামনে যে বড় আমগাছটি আছে তার নিচে দাঁড়িয়ে আছে রনি।। সাথে আশিক।। এই স্যারের কাছেই টিউশন পড়তে আসে তন্নী।। কিছুক্ষণের মাঝেই বের হবে।। রনি'র টেনশন হচ্ছে।। বের হতে আর বেশি দেরী নেই তন্নীর।। অল্প অল্প ঘামছে সে।। আশিকের দিকে তাকিয়ে কিছুটা হিংসা হল তার।। কি সুন্দর নির্ভার হয়ে দাঁড়িয়ে আছে সে।। টেনশনের কোন নাম-গন্ধই নেই তার।।

    স্যারের বাসা থেকে বের হল তন্নী।। এদিকেই আসছে।। আস্তে আস্তে হার্টবিট বেড়ে যেতে শুরু করলো রনি'র।। আশিক উঁকি ঝুকি দিয়ে দেখছে; আশেপাশে কেও আছে কিনা।। না; নেই।। রনি'র কাছ থেকে একটু দূরে চলে গেলো সে।। এখন একা দাঁড়িয়ে আছে রনি।। সামনে এসে দাঁড়ালো তন্নী।।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর