নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 0 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    নতুন যাত্রী

    • জয়বাংলা ১৯৭১
    • জাহানারা নূরী
    • মোহাম্মদ আল আমীন
    • সজিব আহামেদ
    • সাগর সাহা
    • মাহবুব আলী
    • সাগর স্পর্শ
    • মীর মোহাম্মদ মামুন
    • শাহরিয়ার_খান_রাব্বি
    • শাহ্রিয়ার খান রাব্বি

    নির্ভীক রুমীরা


    শহীদ রুমী স্কোয়াডের অনশনের ৬২ ঘন্টা পার হল । এই ৬২ ঘন্টার মধ্যে আমরা অনেক অনেক বাধার সম্মুখিন হয়েছি ,হচ্ছি। আমাদের নিয়ে চালানো হচ্ছে নানা রকম অপপ্রচার , আমাদের অনশন মুল্যহীন , আমরা নিজেদের দল দার করানোর জন্য এমন অনশন করছি , আমাদের ভেতর রয়েছে বঙ্গবন্ধুর খুনীর ছেলে ,আমাদের খবর এখনো কোন নিউজে হেডলাইন হয়ে আসে নাই ইত্যাদি ইত্যাদি ।
    আমাদের অনশনকে প্রত্যাহার করার জন্যও বিভিন্ন মহল থেকে বলা হয়েছে । কিন্তু আমাদের দলের রুমীরা নির্ভিক । তারা সকল বাধাকে উপেক্ষা করে আমরণ অনশন চালিয়ে যাচ্ছে ।

    ঐতিহাসিক এবং চলমান একটি সেনা-কৌতুক এবং মির্জা ফখ্রুল এবং...


    প্রথমে একটি কৌতুক শুনে মেজাজটা ফুরফুরে করে নেই। কৌতুকটা ঐতিহাসিক এবং চলমান মানে এটার শেষ নাই..

    /একদা এক দেশে ছিল এক "ছাগবাদী দল"।এক সেনাশাসক ছিল ঐ দলের প্রতিষ্ঠাতা। ছাগবাদী দলের সকল ছাগ ছাগপোনা মনে করে সেই সেনাশাসক হাত ধরে এসেছিল গনতন্ত্র। কালের চাকার ঘুর্ণনে সেই সেনাশাসক মরিয়া গেল এবং তার 'আন্ডার এইট ক্লাস গ্র্যাজুয়েট' স্ত্রী সেই দলের কেদেরাব্যাক্তি নির্বাচিত(!) হলেন।

    একটি অশুভ সকাল


    গতকাল সকালে অফিস যাচ্ছিলাম।হরতালে রিক্সা নিলাম।নিয়ে বৌদ্ধ মন্দির ক্রসিং করে হেমসেন লেইনের সোজা রোড ধরে রিক্সা।সবকিছু সুনসান নীরব।রাস্তার উপর বাজার বসেছে।হটাৎ দেখি কোত্থেকে ব্যানার সহ আচমকা মিছিল।তারপর দুই-দুইটা বিস্ফোরন।বিস্ফোরোনের আগে মনে ছিল ডিসি হিলের একটু আগে করে এক দল অভিভাবক তাদের ছেলেমেয়েদের নিয়ে যাচ্ছিলো স্কুলের দিকে নাহয় কোন মাস্টার মশাইয়ের কাছে।বিস্ফোরনের পর মনে করলাম কিছু হয় নাই।হটাৎ কানে শুনলাম, একজন বলল ভাগ্যভালো বারুদের ছিল ভিতরে কোন কাঁচ ছিল নাহ।তারাতারি হাসপাতালে নেন।তাকিয়ে দেখি একটি মেয়ের চোখ দিয়ে পড়ছে রক্ত।

    হরতালের রাজনীতিতে ইতিহাসের সেরা লজ্জা :: ঢুঁকরে ঢুঁকরে কাঁদার প্রস্তুতি নিন।


    চট্টগ্রামে গতকাল হরতালে পিকেটারদের ছুঁড়ে মারা ককটেলে যে স্কুলছাত্রীটা চোখে মারাত্মক আঘাত পেয়ে যন্ত্রণায় এখন হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছেন, তিনি তো আর আমাদের বিরোধীদলীয় নেত্রী ম্যাডাম খালেদা জিয়ার পরিবারের কেউ নন, তাই উনার ডাকা হরতালে সেই মেয়েটির জীবনে ক্ষত এনে দেওয়ার জন্য আমাদের মাননীয় ম্যাডামের কিচ্ছু আসে যায়না। বরং তার লাশের উপর দিয়ে হেঁটেও যদি ক্ষমতায় যাওয়া যায়, ধারনা করেই বলা যায় যে সেটাও তাহার জোটে অন্তর্ভুক্ত স্বাধীনতাবিরোধী পক্ষাবলম্বীরা করতে প্রস্তুত।

    বাঙালীর নায়কতত্ত্ব


    প্রাচীন সমাজ নায়কে বিশ্বাসী ছিল কিনা আমার জানা নাই, ওটা এইমুহুর্তে জানাটাও খুব একটা জরুরী না। আমার দেখা সমাজ নিয়েই আপাতত আমার আগ্রহ তাই এই সমাজের নায়কদের একটু ব্যবচ্ছেদ করে দেখি-

    আর্জি


    আমি প্রথম থেকেই একটা কথাই বিশ্বাস করে আসছি, তা হল গণজাগরণের প্রধান শক্তি এবং সৌন্দর্য হল ঐক্যের। এখানে নানা মতের, নানা দলের লোক মিলেছে একটা সুনির্দিস্ট ইস্যুতে- যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি এবং জামায়াত নিষিদ্ধ করার দাবিতে। এই বিষয়টা মাথায় না রাখলে গণজাগরণের মূল চরিত্র সম্পর্কে ভুল বোঝার অবকাশ থাকে। শহীদ রুমি স্কোয়াডের আমরণ অনশনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন পক্ষের যে পাল্টাপাল্টি কাদাছোড়াছুড়ি চলছে তা একই সাথে ঘৃণ্য এবং বালখিল্যতা। এই অনুদারতা তরুণ প্রজন্মের কাছে জাতি আশা করে না। উদারতা ছাড়া কোন ঐক্য টিকতে পারে না। আধিপত্যবাদী মনোভাব যেকোন আন্দোলনকে নষ্ট করার জন্য যথেষ্ট। সবাইকে একখাপে মাপার চেষ্ট

    পৃষ্ঠাসমূহ

    Facebook comments

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর