নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • ফারজানা সুমনা
    • মিনহাজ

    নতুন যাত্রী

    • অরুণাভ দে
    • পাহাড়ের উপমানুষ
    • পুরানো ঘড়ি
    • স্বর্ণ সুমন
    • হেজিং
    • মং চিং প্রু
    • প্রলয় দস্তিদার
    • ফারিয়া রিশতা
    • চ্যাং
    • রাসেল আহমেদ

    আমার পক্ষে আর লেখা সম্ভব না, ক্ষমা চাই


    সাভার ট্র্যাজেডি নিয়ে ভাবছিলাম কিছু একটা লিখবো । কিন্তু কোনভাবেই কিছু লিখতে পারতেসি না । যতবারই লিখতে যাই, কানের কাছে কে যেন বলে, "দাদা, আমাকে একটু বাঁচান । কলমটা আমার দিকে এগিয়ে দেন, কলমটা ধরে আমি উঠে আসি । আমাকে তুলেন দাদা, আমাকে বাঁচান"।

    কবিতা জেনে গেছে ...


    কবিতা জেনে গেছে ...

    না ! এটা কোন শোককবিতা না,
    কারো কোমল হৃদয় নদীতে দুঃখের পাল তুলে যাওয়া বিরহী কোনো সাম্পান নয় এ কবিতা ।

    এ কবিতা আহত হতে জানেনা,
    এ কবিতা রক্তাক্ত হতে জানেনা,
    এ কবিতা ডুকরে কাঁদতে জানেনা ।

    কবিতা জেনে গেছে, সভ্যতার নামে মিথ্যে মানুষ কেবল অসভ্যতা নির্মাণ করছে
    নিপুণ চারু হাতে ।
    কবিতা বুঝে গেছে, যন্ত্রণায় দগ্ধ হওয়ার নামে ইতর মানুষ প্রকাশ্য বিলবোর্ড হতে ভালোবাসে,
    পত্রিকা কিম্বা ক্যানভাসে বিমূর্ত শোকস্তম্ভ হতে ভালোবাসে ।

    কে তুমি একুশে কিম্বা ছাব্বিশে কালো ব্যাজ ধারণ করো ?
    কে তুমি সাদা শাড়ি অথবা কালো জামায় শহীদ মিনার ও স্মৃতিসৌধে ফুলেল শ্রদ্ধা জানাও ??

    সাভারের রানা প্লাজায় ঘটে যাওয়া দূর্ঘটনা নিয়ে Gf & Bf কথোপকথন এবং অতঃপর


    - জানু আমরা কিন্তু বিয়ের পর
    বিল্ডিং-এ বা পাকা ভবনে থাকব না । কুড়ে ঘরে থাকব ।

    - এমা কেন ?

    - দেখনি সাভারে কত্ত মানুষ
    মারা গেছে ? ভবনে থাকার কোন
    নিরাপত্তা নাই ।

    - হ্যা জানু দেখেছি । ইস কত্ত মানুষ যে মারা গেছে ।
    আমি কেঁদে ফেলেছিলাম ।

    - ইস কেঁদে ফেলছ ? আর কাঁদিও না জানু পাখিটা । যা হবার তা তো হয়েই গেছে । আমি একটু আগে রক্ত দিলাম তিন ব্যাগ ।

    - তিন ব্যাগ ? আল্লা বল কি ! খুব ভাল করছ । তোমার জানি রক্তের গ্রুপ কি ?

    - আমার তো A+ । তোমার ?

    - আল্লা আমার তো A- । এখন কি হবে ? আমি যদি অসুস্থ হয়ে যাই আর রক্ত যদি লাগে তখন কি করবা ?

    শিক্ষা মহান দায়িত্ববোধ নিয়ে আসে


    কীভাবে শুরু করব বুঝতে পারছি না। আবার আরেক শোকে মাতম এই সোনার বাংলা। এইতো কয়েকদিন আগেই আরেকটা ট্রাজেডিতে মারা গিয়েছিল ১১২ শ্রমিক! আজ এই মৃত্যুর মিছিল তাও ছেড়ে যাবে কোন সন্দেহ নেই! আমি আজ আর গতানুগতিক তীব্র নিন্দার ঝড় বসাব না। আমি কি প্রাসঙ্গিক করনীয় আর সমাধানের কথা লিখব। তার আগে গত কয়েক বছরে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনার ফিরিস্তি দেই।

    কটনউড গাছ ও একটি দড়ি


    সেবা প্রকাশনীর ওয়েস্টার্ন গল্প গুলো আমার সবচেয়ে প্রিয় । বুনো পশ্চিম, সবুজ প্রেয়রি, বাথান, ঘোড়া, মাইনার, গরুর পাল, নতুন গড়ে ওঠা শহর, রেলরোড, বার, রাসলিং, খুন, গানফাইট, আত্মসম্মান বাঁচাতে ডুয়েল লড়াই । এক কথায় প্রতি লাইনে লাইনে চরম টান টান উত্তেজনা ।

    সাহায্য চাই


    কে কিভাবে সাহায্য করতে পারবেন জানান।
    সাভারে এখন অক্সিজেন, শুখনো খাবার, পানি ও টর্চ লাইট/আলোর ব্যবস্থার প্রয়োজন। অক্সিজেন কিভাবে নিতে হবে জানি না। শুকনো খাবার আর পানির জন্য টাকা দরকার।
    কেউ কি জানেন অক্সিজেন কিভাবে নিতে হয়/কিনতে হয়/ক্যারি করতে হয়। আর সবাই মিলে যদি ১০০০ বোতল পানি নিয়ে+ ৫০০/১০০০ মানুষের জন্য চিড়ামুড়ি নিয়ে সাভার যেতে চাই রাতের মধ্যে তাহলে কেমন করে কো-অর্ডিনেট করা যায় কেউ এডভাইজ দেন। প্লীজ, ডু সামথিং।

    সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


    সাভারের বহুতল ভবন ধ¦সে শত শত মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় অমরা গভীর শোক প্রকাশ করছি। জাতির এই দুর্যোগময় মুহূর্তে অতীতের মতো ঢাকা শ্বিবিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী হিসেবে দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর প্রত্যয় থেকেই আগামীকাল ২৫ এপ্রিল, ২০১৩ তারিখের পূর্বঘোষিত ধর্মঘট কর্মসূচি স্থগিত করার সিন্ধান্ত গ্রহণ করেছি। একই সঙ্গে দেশবাসীর প্রতি আমাদের আহ্বান, আসুন আমরা দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়াই।
    জাতীয় জীবনের এই অপূরণীয় ক্ষতি এবং শোককে শক্তিতে পরিণত করে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনকে বেগবান ও কার্যকর রাখার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করছি।
    আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচি সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানানো হবে।

    অজয় বাবু


    প্রেম করতে চেয়েছিল আমাদের অজয় বাবু
    সে অনে...ক দিন আগের কথা ,
    স্বপ্ন ছিল চণ্ডীদাস হবে-
    তাই অনে...ক আশা নিয়ে বসে থাকতো রাস্তার ধারে,
    রজকিনী এলো ঠিকি-
    স্যান্ডেল দেখিয়ে চলে গেল বটে,
    একযুগ নয়,
    প্রায় দুই যু...গ ধরে প্রতীক্ষায় অজয় বাবু,
    স্যান্ডেল কি আসবে আবারও ফিরে?

    অজয় বাবুর দাঁড়িতে আজ পাক ধরেছে,
    রাস্তাটাও হয়ে গেছে পিচঢালা,
    আজ শুধু একটার পর একটা..আ মিছিল আসে,
    বিভীষিকাময় হয় নানা...ন বাহনায়,
    তারপরও হারমানে না অজয় বাবু,
    আজও দাঁড়িয়ে আছে রাস্তায় ।

    এইতো সেদিনের কথা...
    সেদিনও ঠায় দাঁড়িয়েছিল অজয় বাবু,
    অদূরে বসা দাঁড়কাক অশুভ দিনের গান গাচ্ছিল ,

    বাংলাদেশে’র রিকার্সিভ দুঃখ !!


    “তুফানের মত ঝড় আইল , তারপর আমগো সবাইরে কই লইয়া গেল ” এই বলেই কাঁদতে থাকলেন এক জন নারী গার্মেন্টস কর্মী ।

    “বাবা আমগোরে বাঁচান , আমগোরে বাঁচান বাবা ” –আটকে পরে থাকা আরেক নারী গার্মেন্টস কর্মী ।

    “আমরা এখানে পাঁচজন আটকা পইরা আছি ভাই ” –আটকে পরে থাকা এক পুরুষ গার্মেন্টস কর্মী ।

    “আমি এই জায়গায় সাত মাস ধইরা চাকরী করতেছি । গত সাত মাস ধইরা অনেক বার এই বিল্লিং এ আগুন লাগছে , কাইপ্পা উঠছে । তাই চিন্তা করছিলাম বেতন পাওনের পর চাকরী ছাইরা দিমু ”- উদ্ধারকৃত এক নারী গার্মেন্টস কর্মী ।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর