নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • দ্বিতীয়নাম
    • মিশু মিলন

    নতুন যাত্রী

    • সুশান্ত কুমার
    • আলমামুন শাওন
    • সমুদ্র শাঁচি
    • অরুপ কুমার দেবনাথ
    • তাপস ভৌমিক
    • ইউসুফ শেখ
    • আনোয়ার আলী
    • সৌগত চর্বাক
    • সৌগত চার্বাক
    • মোঃ আব্দুল বারিক

    আয়নার ভেতর বাস


    আয়নায় আমার দেবীকে খুঁজি আমি। দেবী আমায় জিজ্ঞেস করে, কোথায় তোমার দেবীর বাস? দেবীকে আমি বলি- দেবী আয়নায় খোঁজ কর তার, হয়তো পেয়ে যাবে।
    আমার দেবী-"আমার দেবী" হতে চায়নি। তাই দেবী আয়নায় যায়নি দেখতে তার রাঙ্গা মুখ। আমি বড় ক্লান্ত, দেবী। আগের মত তোমার সামনে আয়না হয়ে দাড়াবার মত অবশিষ্ট শক্তিটুকু আর আমার নেই। দেবী, আমি আর আগের মতন নেই।

    ভোট চাওয়ার একাল-সেকাল


    ১৯৯১সাল। জন্ম সনদ অনুযায়ী ভোটার হতে তিন বছর বাকী থাকলেও ঐ বছরই আমি ভোটার হই (ভোটার বানানো হয়)। শুধু আমি না, আমার সাথে আরো ৩ জন চাচাতো ভাইবোনও ছিলো। গ্রামে বাপ-চাচারা তাদের পছন্দের প্রার্থীর বাক্স ভরার জন্যেই হয়তো এ কাজটি করে থাকেন। বাড়ির সবাই একদিন নির্বাচনসংক্রান্ত আলোচনায় বসেছেন। আমাদের নব্যভোটারদেরও রাখা হয়েছে সে আলোচনায়। আলোচনা শেষে বড় চাচা আমাদের নব্যভোটারদের উদ্দেশে বললেন—ওমুক প্রার্থীরে ভোট দিবি। নব্যভোটারদের একজন চাচাকে প্রশ্ন করলেন—কেন, ওনাকে ভোট দেব কেন?

    আফগানি শিক্ষা


    তালেবানি শাসনামলে ফুটবল ক্রিকেট বা যে কোন ধরনের "ক্রীড়া কর্ম"ই ছিল "ক্রীড়া কৌতুকে"র ই অন্য নাম ! তালেবানী এক বিস্ময়কর ফতোয়া সেই সময় বহির্বিশ্বে বেশ মাস্তির খোরাক জোগাইছিল - খেলা ভাল লাগলে চিল্লা চিল্লি ,হৈ চৈ বা সকল প্রকারের তালি দেয়া নিষিদ্ধ , তার বদলে অবশ্য দর্শক আলমহামদুলিল্লাহ বা সুবহানাল্লাহ পড়তে পারবে !!!!
    ক্যান মাদারচ্চোত! !! অথচ দশম সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতছে সেই আফগানিস্তান। কাঠমান্ডুর দশরথ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালে তারা ২-০ গোলে ভারতকে হারিয়ে প্রথম বারের মতো সাফ ফুটবলের শিরোপা জয় করে তারা !!!

    ফেলানীর নয়; বাংলাদেশের চিৎকার


    সময় তার নিজেস্ব নিয়মে আপন মনে টিক্ টিক্ করে চলতে থাকে। কখনো কারো পক্ষে বেশী বা কম তার সমিকরণ করে চলে না। চলে গদ্য-পদ্য তৈরি করে, নাটক-কাহিনী জন্ম দিয়ে। ইতিহাস-রচনা মাধ্যমে নক্ষত্র তার গধূলী লগ্নে বিদায় নেয় নতুন কিছুর আশায়।

    চারপাশে আযানের শব্দ। গধূলী লগ্নে বিদায় নেয়া সূর্য্য তার নিজেস্ব আলো বিকিরণের মাধ্যমে এ পৃথিবীকে নতুন রূপে সাজাতে উকি দিচ্ছে, উদিত হচ্ছে নতুন সংবাদ নিয়ে। যা এ মানব সম্প্রদায়ের সিমিত জ্ঞানের বাইরে।

    আজ ১২ সেপ্টেম্বর শাহ আব্দুল করিম তৃতীয় মৃত্যুযবার্ষিকী।


    আমি যখন ক্লাস সিক্সে পড়তাম, তখন সোপানে সরগম শেখার পর থেকেই আমি যে গানটি প্রথম হারমনিতে তুলি সেই গানটি হল ‍‍‍ কোন মেস্তরি নাও বানাইল কেমন দেখা যায়, ঝিলমিল ঝিলমিল করেরে ময়ূর পঙ্খী নায়। এই গানটি হয়ত বুঝতে পারছেন কার লেখা সুর করা। শাহ আব্দুল করিম। আজ ১২ সেপ্টেম্বর শাহ আব্দুল করিম তৃতীয় মৃত্যুযবার্ষিকী। তার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছি। শাহ আব্দুল করিম এর বিশাল ভক্ত আমি।

    তমালিকার দিনপাত


    ছেঁড়া ডাইরির পাতা হতে.........১

    তমালিকার দিনপাত

    তমালিকা তামবি হা এই নামেই তার আইডি। যদিও এটি ওর ছদ্ম নাম( যা পরে জেনেছি, আর ওর অনুরধে ওর আসল নামটা এড়িয়ে গেলাম)। আমাদের পরিচয় এর বিশেষ কোন ঘটনা নেই। কেমন করে যেন আমিই ওকে বন্ধুর নিমন্ত্রণ পাঠিয়েছিলাম এবং ও তা গ্রহণ করেছিল। সেই থেকে ওর সঙ্গে আমি এসএমএস আদান করি ফেসবুকে। আস্তে আস্তে আমার একটি ভাল বন্ধু ও এখন। আমার লিখায় ওর কমেন্ট ও লাইক দিয়ে ও আমাকে বেশ উৎসাহ প্রদান করে। এভাবেই ব্যক্তিগত তথ্য বাদে সব রকম কথা হতো ওর সঙ্গে।

    আঙুল ফুলে বিল্ডিঙের ছাদে কলা গাছ—


    আমিও আকাশচারী, অব–আকাশে আছি।
    পাতারা দোলে পেন্ডুলাম হাওয়ায়।
    মিডনাইট সিগনাল সবুঝ জানালায় এখনো কি চলছে দেয়া-নেয়া?
    নক্ষত্র আর কতকাল সাক্ষী থাকবে?
    লাল নিসানা ওয়ালা টাওয়ারগুলো,
    অবান্ধব পরিবেশ,
    তোমার আমার করোটিতে তাক করা ট্রিগার।

    ডিএনএ কী?১১শ পর্ব,GENE কী? DNA কী ভাবে লিখিত নির্দেশ পত্রের বাস্তব রুপ দেয়?RIBOSOME একটি প্রোটীন ফ্যাক্টরী।


    ডিএনএ কী?১১শ পর্ব,GENE কী? DNA কী ভাবে লিখিত নির্দেশ পত্রের বাস্তব রুপ দেয়?RIBOSOME একটি প্রোটীন ফ্যাক্টরী।

    ফটো- George E. Palade নোবেল বিজয়ী-১৯৭৪

    RIBOSOME এর আবিস্কার-১৯৫৫

    ১।George E. Palade
    জন্ম: ১৯ নভেম্বর ১৯১২, Iasi, Romania
    মৃত্যু: ৭ই অক্টোবর ২০০৮, Del Mar, CA, USA

    ২।Albert Claude
    জন্ম: ২৪ আগষ্ট, ১৮৯৮, Longlier, Belgium
    মৃত্যু: 22 মে, ১৯৮৩, Brussels, Belgium

    ৩।Christian de Duve
    জন্ম: 2 অক্টোবর,১৯১৭, Thames Ditton, United Kingdom

    আবেগের শহরে


    ছুটে যায় যুবকের কালোবাইক সময়ের গতির সাথে পাল্লা দিয়ে।পিছনে জড়িয়ে থাকে সদ্যপ্রেমে পড়া প্রেমিকা।যুবক তাকে 'আত্মা' বলে ডাকে।হ্যাঁ, আত্মার মতোই প্রেমিকার ড্রেসে আজ সাদা রঙের ছড়াছড়ি মিলেমিশে একাকার।চলন্ত বাইকে প্রেমিকা যুবকের কাঁধে বুক এলিয়ে দিয়ে চোখ বুঝে থাকে ভয়মিশ্রিত অদ্ভুত এক ভালোলাগায় যেন কালো পঙ্খিরাজ ঘোড়ায় চড়ে কোন রাজকুমার সাতসমুদ্র তেরো নদী পার হয়ে তাকে নিয়ে হাওয়ায় ভাসিয়ে পালিয়ে বেড়ায়।প্রেমিক হৃদয় খুঁজে বেড়ায় প্রেমিকার ঠোঁটে নিজের স্কেচ আকার আদর্শতম স্থানটি।হতে পারে সেটা শতবর্ষী বটবৃক্ষের সামনে দাঁড়িয়ে অথবা ঢাকা শহরের সবচেয়ে উচুভবনের ছাদে প্রায় দুইকোটি ব্যস্

    স্বপ্নজাল


    কিছু কথা না বল্লেই নয়।
    আমিতো কবি নই,তাই কবিরা যেনো আমার এই ধৃষ্টতা ক্ষমা সুন্দর চোখে দেখেন।
    *******************************************
    আমি তোমার পৃথিবীতে এক নতুন পৃথিবী গড়ে তুলবো
    যেখানে দেহের নয় হবে মনের সাথে মনের মিলন;
    যেখানে থাকবেনা আঁধার,থাকবেনা সূর্যের খরতাপ;
    চাঁদের আলোয় হবে তোমার আমার অদৃশ্য বাসর।

    সবুজেরা দেবে শীতলতা,পাখিরা শুনাবে রবীন্দ্র সুর
    ফিদা হোসেন তোমার নগ্ন হৃদয়ে এঁকেদেবে শুভ্র বসন;
    বৃস্টিরা ঝরবে, নীল নদে উঠবে জোয়ার,আর ফুলেলগন্ধ;
    দূর আকাশে জমে উঠবে লক্ষ কোটি তারাদের আসর।

    আমি তোমার পৃথিবীতে এক নতুন পৃথিবী গড়ে তুলবো

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর