নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 7 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • মোঃ হাসানুল হক ...
    • এফ ইউ শিমুল
    • পথিক রাজপুত্র
    • বিপ্লব পাল
    • দিন মজুর
    • নুর নবী দুলাল
    • সাম্যের সাধক

    নতুন যাত্রী

    • আহসান_পাপ্পু
    • অন্ধকারের শেষ প...
    • রিপন চাক
    • বোরহান মিয়া
    • গোলাম মোর্শেদ হিমু
    • নবীন পাঠক
    • রকিব রাজন
    • রুবেল হোসাইন
    • অলি জালেম
    • চিন্ময় ইবনে খালিদ

    মাতৃগর্ভের নির্বাণ : প্রথম পর্ব


    আমাদের আধ্যাত্মিক সাধনার ইতিহাস বলে মানুষ মাত্র আধ্যাত্মিকতার বীজ নিয়েই এ পৃথিবীতে আসে। তাই হয়তো আমরা বারবার ঈশ্বরের দিকে ঘুরে যাই, ঈশ্বরকেই খুঁজি। প্রবলভাবে ঈশ্বরের অসীম সত্ত্বার মধ্যেই নিজের অস্তিত্ব মিলিয়ে দিতে চাই। ভাবা হয় যার মধ্যে এই বীজ অঙ্কুরিত হতে পেলোনা, পুষ্টি পেলোনা তার জীবন অর্থহীনতায় তলিয়ে যাবেই। কখনও আবার ঈশ্বর নয় আধ্যাত্মিক সাধনার সর্বোচ্চ স্তরটিকে মোক্ষ বা নির্বাণ বলে অভিহিত করা হয়। আর এই মোক্ষ বা নির্বাণের অবস্থায় উপনীত হতে সাধককে আত্মসত্ত্বা বিলীন করে দিতে হয় একটা রহস্যময় অনির্বচনীয় কিছু একটার মধ্যে। এই আত্মসত্ত্বার বিলোপকে আবার অধ্যাত্মবাদের জগতে নেতিবাচক বলে ভাবা হচ্ছেন

    ফেমিনিজম মানেই কি উগ্রপন্থী?


    ফেমিনিজমের নামে যে নারী আমার বুক থেকে ওড়না সরিয়ে গলির মুখে বসে সিগারেট ফুঁকতে ইশারা করে ব্যক্তিগতভাবে কড়া রঙ্গের লিপস্টিক ধারী অর্ধ বুক খোলা সে নারীকে আমি ঘৃনা করি।তারা মূল নারীবাদ কি সেটাই জানে না।নারীবাদকে তারা অবাধে পোশাক খুলে হাঁটার আন্দোলনে ধাবিত করে মূল তত্ত্বকেই বিদূষিত করছে।আমি পারবো না প্রোটোকল মেইন্টেইন করে সিনিয়রিটি মানতে।আমি আমার মতো করে আমার আন্দোলন আমার অবস্থান থেকে চালিয়ে গিয়েছি গত অর্ধ যুগ ধরে।

    একাত্তরে বাংলাদেশে কোনো মুসলমান দেখি নাই। এখন হঠাৎ এতো মুসলমানিত্ব!


    ১৯৭১ সালে, পাকিস্তানীহানাদারবাহিনী জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র-নির্বিশেষে মানুষহত্যা করেছিলো। পাকিস্তান ওদের বাপ হয়। ওরা ওদের বাপের পক্ষে ছিল। আর তা এখনও-তখনও। তাই, ইসলামের ধ্বজাধারীদালালগুলো সেদিন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে কোনো কথা তো বলেইনি বরং পাকিস্তানের পক্ষে এরা লড়াই করেছিলো। আজ মিয়ানমারে ‘বার্মিজ-আর্মি’ কর্তৃক রোহিঙ্গামুসলমানরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে বলে এদের বুকটা একেবারে ফেটে যাচ্ছে। পারলে এরা এখনই একদৌড়ে সীমান্ত পার হয়ে আরাকান-রাখাইন-রাজ্যে ছুটে যায় জিহাদ করতে! এমনই অবস্থা এদের।

    যাপিত জীবনের গল্প


    ২০১৪ সালের জুলাই ছিল সম্ভবত। জীবনের প্রথম মাজারে যাওয়া। আমি স্বাভাবিক ভাবেই ভ্রমণপ্রিয়।খুব কাছের বন্ধু। একসাথেই চলি সবসময়। সন্ধ্যার সময় কল দিয়ে বলল মাজারে যাবে(মাজারটি চট্টগ্রামের খুব বিখ্যাত মাজার,নাম উল্লেখ করছিনা)। আমার অবস্থান থেকে প্রায় ১২০ কি:মি। যাবো বাইক নিয়ে।

    একজন আরিফ আজাদের অযাচিত মাতুব্বরী


    আরিফ আজাদ; শুনেছি একজন ইসলামিক ফেসবুক সেলিব্রেটি তিনি। সম্প্রতি তিনি “প্যারাডক্সিকাল সাজিদ” নামক বই লিখে ইসলামী সমাজে বেশ সমাদৃত হয়েছেন। নাস্তিক্যবাদের মহা-ঔষধ নামে বইটি পরিচিত মুসলিম সমাজে। নাস্তিকদের বৈজ্ঞানিক সকল কুযুক্তির জবাব তিনি দিয়ে গেছেন এই বইতে। তার এই বইতে অপমান করা হয়েছে হুমায়ুন আজাদ থেকে শুরু করে অভিজিৎ রায়কে। এমনকি আরজ আলী মাতুব্বর এবং রিচার্ড ডকিন্সও রক্ষা পাননি তার হাত থেকে। আজ সেই মহাজ্ঞানীকে নিয়ে কিছু লেখা যাক।

    নারীদের জন্য 'জঙ্গি ম্যাগাজিন'!


    পাকিস্তান থেকে প্রকাশিত হয়েছে বিশ্বের প্রথম জঙ্গি ম্যাগাজিন 'সুন্নত-এ-খোয়ালা'। তেহরিক-এ-তালিবানতের উদ্যোগে উর্দু ও ইংরেজী সংস্করণে প্রকাশিত ম্যাগাজিনের লক্ষ্য ভারত, পাকিস্তান ও বাংলাদেশের জঙ্গী নারীদের জঙ্গিবাদে উৎসাহিত করা।

    অপরিচিতা


    আমি এখন রাস্তা দিয়ে বাড়ির পথে হাঁটছি আর বারবার মনে করার চেষ্টা করছি মেয়েটি আসলে কে ? আদৌ কি মেয়েকে আমি চিনি নাকি সবটাই আমার অবচেতন মনের ভুল। যাক সে কথা পরদিন বিকালে বাসে করে এতিমখানা থেকে বাড়ি ফিরছি।বাসে জানলার ধারে জায়গা পেলাম।তাকিয়ে রাস্তার লোকজন দেখছি উদাস দৃষ্টি মেলে।বাস শিমুলতলা ছাড়িয়ে সবে শাপলা সিনেমা ছাড়িয়ে যাবে আমার চোখ গতকালের মেয়েটাকে দেখে আটকে যায়।উগ্র সাজ রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে একজনের সঙ্গে কথা বলছে।জানলা দিয়ে মুখ বের করে জোর গলায় ডাকলাম,এই যে শুনুন?

    ধর্ষণের কারণ নারীর পোশাক...!


    * সংজ্ঞায় উল্লেখ করা হয়েছে "ইচ্ছার বিরুদ্ধে , অনুমতি ব্যতিরকে" যৌনকর্মে লিপ্ত হওয়ার কথা। এখন একটু গভীরে ভাবুন , অনুমতি বা ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌনতা কী শুধু রাস্তাঘাটে বখাটের দ্বারাই ঘটে, নাকি ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌনতা আপনার আমার ঘরেও ঘটে ? আর একটু খুলে বলি, বাংলাদেশে এ্যারেন্জ ম্যারিজের ব্যবস্থাটা যুগ যুগ ধরে চলে আসছে, এটি এমন একটা ব্যবস্থা, যেখানে বাবা মায়ের চাপে পড়ে বহু নারী নিজের প্রেমিককে নিয়ে দেখা স্বপ্নগুলি মাটি করে দিয়ে আরেকজনের সাথে সংসার পাততে বাধ্য হয়। কিংবা অনেক সময় যথেষ্ট সুযোগের অভাবে বিয়ের আগে হবু স্বামীর সাথে তেমন একটা ভালবাসাপূর্ণ সম্পর্কও গড়ে ওঠে না। তো স্বভাবিক ভাবে সেই নারী নতুন একজনের সাথে সম্পর্কের শুরুতেই যৌনকর্মে লিপ্ত হতে চায় না। কিন্তু বিয়ে নামক নারীকে নিজ ইচ্ছেমতো ভোগ করার লাইসেন্সের সুবাদে একদল ভোগী পুরুষ প্রথম রাতেই নারীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে (তার মতামতটি নেওয়ার প্রয়োজনে মনে করে না) তার সাথে একরকম জোর করেই যৌনকর্মে লিপ্ত হয়। আর ভোগী লাইসেন্সের কারণে নারী এর প্রতিবাদও করতে পারে না। আপনি কী জানেন এটাও এক প্রকার ধর্ষণ...?

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর