নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • পৃথু স্যন্যাল
    • শ্যাম পুলক
    • ইকারাস
    • চূড়ান্ত
    • তায়্যিব
    • মোঃ মেজবাহ উদ্দিন
    • রাফিন জয়
    • নীল জোনাকি

    নতুন যাত্রী

    • ষঢ়ঋতু
    • এনেক্স
    • আরিফ ইউডি
    • গলা বাজ
    • হুসাইন
    • তারুবীর
    • অন্তরা ফেরদৌস
    • শেখ সাকিব ফেরদৌস
    • প্রাণ
    • ফেরদৌস সজীব

    ধার্মিকদের বিজ্ঞান চর্চা কি নিজের সাথেই প্রতারণা নয়???


    গতকাল আমার এক ডাক্তারি পড়ুয়া বন্ধুর সাথে কথা হচ্ছিল।যাই হউক কথা প্রসঙ্গে সে বলল, মৃতদেহ খুব আস্তে রাখা উচিত। আমি জিজ্ঞাস করলাম কেন?সে বলল তাতে মৃতের আত্না ও দেহ কম কষ্ট পায়, জীবিত অবস্থায় ব্যথা পেলে তো তাও লোকটি বলতে পারত কিন্তু মৃতের পক্ষে তো তা সম্ভব নয়, পোস্টমর্টেমে মৃতদেহ কাটাকাটিতে নাকি মৃত দেহের অনেক কষ্ট হয়, তাই পোস্টমর্টেম এড়াতে সে যথাসম্ভব আত্নাহত্যা পরিহার করতে বলল।

    আমি স্তব্ধ হয়ে কিছুক্ষণ তাকিয়ে রইলাম ও ভাবলাম এই আমাদের ডাক্তারদের অবস্থা!!!!

    চোখের আঁড়াল মানেই মনের আঁড়াল নয়


    ধর্মপুর, কুমিল্লা।
    ১৭/১০/১৬ইং
    প্রিয় রাত্রি,
    আজ সন্ধ্যেবেলা যখন ঘুম থেকে উঠলাম, তখন মাথাটা কেনো যেনো ধরে ছিলো।
    পড়ার রুমে ঢুকে কিছুক্ষণ বসে রইলাম।
    সন্ধ্যের নাস্তা শেষ করে কিছুক্ষণ একটা সাহিত্য সাময়িকী ঘাটার পর যখন দেখলাম সাতটা বাজে, তখন বই নিয়ে বসলাম পড়তে। কিন্তু মনোযোগ যে আজ কিছুতেই আসছে না।
    তাই ছাদে এলাম। একবার ভাবলাম তোকে ফোন দেই। কিন্তু পরক্ষণেই মনে হলো, তুই বলেছিলি যে তোর ফোন কয়েক সপ্তাহের জন্য বন্ধ থাকবে। তাই তোকে আর ফোন দিলাম না।

    একহাজার একশো রাতের গল্পঃ নির্বাচন সরকার গণতন্ত্র


    আপনি বই পড়তে, গান শুনতে, সিনেমা দেখতে ভালোবাসেন। আমিও ভীষণ ভালোবাসি। শিল্পসংস্কৃতির প্রতি মানুষের তৃষ্ণা আদিম ও সার্বজনীন। কারণ মানুষের ভেতরে কমিউনিকেট করার আকাঙ্ক্ষা আছে। অন্যের ভেতরে নিজেকে আবিষ্কার করার আকাঙ্ক্ষাও আছে। শিল্পসংস্কৃতির নানা মাধ্যম মানুষের সেই আকাঙ্ক্ষা মেটায়। প্রাচীন পুঁথিসাহিত্য থেকে আধুনিক বিশ্বসাহিত্য, অতীতের যাত্রাপালা থেকে বর্তমান থিয়েটার, মানুষের সাথে মানুষের কমিউনিকেট করার আকাঙ্খারই সাক্ষ্য।

    জ্যামিতির কয়েকটি ভিন্ন পাঠ


    জ্যামিতির ভিন্ন পাঠ-১

    বৃত্ত একটি বহুভুজ যার বাহুর সংখ্যা অসীম যেখানে বৃত্তের পরিধির প্রতিটি বিন্দুই একেকটি বাহু।

    জ্যামিতির ভিন্ন পাঠ-২

    বৃত্তের ব্যাসার্ধের বৃদ্ধির সাথে সাথে পরিধির বক্রতা হ্রাস পায়। অতএব অসীম ব্যাসার্ধের বৃত্তের পরিধি একটি সরলরেখা।
    অন্যভাবে বলা যায় অসীম ব্যাসার্ধের বৃত্তের পরিধির যে কোন অংশকে সরলরেখা বলে।

    জ্যামিতির ভিন্ন পাঠ-৩

    "তোমারেই ক্যান বলে?"


    বাঙালি কইন্যাদের মধ্যে এমন কেউ নাই যে একটা বাক্য জীবনে শুনেন নাই। বাক্যটা হইলো: 'তোমারেই ক্যান বলে?'

    এই বাক্যরে যা তা যেমন তেমন বাক্য ভাবিবেন না। এই বাক্যের শক্তি ও ত্যাজ ম্যালা। এই বাক্যের ক্ষমতা এমনই যে বাক্যের নিপীড়নে বহু মেয়ে আত্মহত্যা পর্যন্ত করে। আমি আমার এই জীবনে আপন পর, বন্ধু শত্রু- বহু মানুষের কাছ থেকে এই বাক্য শুনিয়া শুনিয়া বড় হইয়াছি। এখনও এই বুড়াকালে শুনতে হয়- তোমারেই ক্যান বলে?

    ব্রিগেডিয়ার শামসুদ্দীন আহমেদের ’বঙ্গভবনে যখন ছিলাম’- আলোকিত হবার একটি বই


    তিনি তাঁর বইয়ে যে ঘটনাবলীর বর্ণনা করেছেন তা তাঁর এই মহৎ উদ্দেশ্যকে সামনে রেখেই করেছেন। তিনি তাঁর অভিজ্ঞতা দিয়ে যা দেখেছেন তার মূল্যায়ন করতে চেয়েছেন্। আগামী দিনে যারা দেশের সত্যিকার ভাল মহৎ কিছু করার স্বপ্ন দেখেন ও তার বাস্তবায়নে সচেষ্ট থাকবেন তারা যেন এই অভিজ্ঞতা থেকে শিখতে পারে সে চেষ্টাই তিনি করেছেন। ১৯৯২ সালে লেখা এবং ১৯৯৩ সালে প্রকাশিত তার এই বই হয়তো নানা কারণে আরো অনেকের কাছে পৌঁছায়নি। তবে আমার ব্যক্তিগত অভিমত, এই বই হল তাদের জন্য যারা দেশের ভাল কিছু করার জন্য আপ্রাণ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এই বই পড়ে দেশের শাসনকামীরা উদ্বুদ্ধ হতে পারবেন মহৎ কিছু করতে। এই বই আরো অনেক পাঠকের দৃষ্টি আকর্ষণ করুক এই প্রত্যাশা রইল।

    থাকুক না একটু পাগলামি ! ওইটাই তো ভালোবাসা


    ( ভালোবাসায় একটু পাগলামি থাকবে না তাই আবার হয় নাকি?? Smile )

    প্রেমিকা


    তোমাকে ভুলে যাওয়া খুব কঠিন কিছু না,
    আরও কত প্রেমিকাকেই তো ভুলে গেছি।
    এক সময় যারা শুধু প্রেমিকাই ছিলো না,
    ছিলো একেকটা স্বপ্ন,
    একেকটা গল্প,
    একেকটা জীবন!

    তোমার মতো ওদের নিয়েও কাব্য করেছি,
    স্বপ্ন বুনেছি,
    জীবনের ক্যানভাস পেড়িয়ে হেঁটে গেছি দূর থেকে বহু দূরে।
    যেখানে জীবন নিষিদ্ধ,
    বেঁচে থাকা দুস্কর,
    কেবল স্বপ্ন বেঁচে খাওয়া প্রেমিকদের বাস!

    অবশেষে পিতা ফিরলেন তাঁর স্বপ্নের গৃহে


    পিতার অগণিত সন্তান। তারা একেকজন যেমন তেজস্বী আর তেমনই সাহসী। আর এদেরই নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে পাকিস্তানীকুকুরগুলো ১৯৭১ সালে ব-দ্বীপভূমিকে চিরতরে ধ্বংস করতে চেয়েছিলো। কিন্তু গৃহবাসী এককাট্টা হয়ে পাকিস্তানীকুকুরগুলোকে মোকাবেলা করে গৃহের সম্মান রক্ষা করেছেন।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর