নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • লিটমাইসোলজিক
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • কাঠমোল্লা
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • জহিরুল ইসলাম
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

কোরানের আল্লাহই আসলে শয়তান


প্রতিটা ধর্মে দেখা যায় , শুভ শক্তির আধার সৃষ্টিকর্তা বা ঈশ্বর , আর অপশক্তির আধার শয়তান বা এ জাতীয় কেউ। কোরানে সেই ইশ্বরকে আল্লাহ নামে ডাকা হয়েছে। এখন কোরান পড়লে আল্লাহর যে চরিত্র বা কাজ কর্ম দেখি , তাতে দ্ব্যর্থহীন ভাবে প্রমানিত হয় যে , এই আল্লাহই আসলে শয়তান। যেমন - আল্লাহ হবে ন্যায়বান , সমদর্শী , ন্যায় বিচারক , দয়ালু ইত্যাদি। কিন্তু কোরানের আল্লাহকে দেখা যায় , সে নির্মম নিষ্ঠুর কুটিল অনৈতিক এবং এমন কি অপরাধ কার্যক্রমের দোসর- যা আসলে শয়তানের বৈশিষ্ট্য হবে। নিচে বিভিন্ন পয়েন্ট দেখান হলো , কেন আল্লাহই আসলে শয়তান।

১। দাসপ্রথা নিশ্চিতভাবেই একটা অমানবিক ,অনৈতিক বিধান। কোরান সেই দাসপ্রথাকে বহাল রেখে বলেছে - দাসীদের সাথে যৌনসঙ্গম করা যাবে, যেমন ---
সুরা মুমিনুন- ২৩: ৫-৬: এবং যারা নিজেদের যৌনাঙ্গকে সংযত রাখে।তবে তাদের স্ত্রী ও মালিকানাভুক্ত দাসীদের ক্ষেত্রে সংযত না রাখলে তারা তিরস্কৃত হবে না।

২। অসহায় নারী ধর্ষন নিশ্চিতভাবেই একটা সীমাহীন অমানবিক ও বর্বর কাজ। কোরান সেই বিধান চালু করেছে , যেমন ----
দুধপান অধ্যায় ::সহিহ মুসলিম :: খন্ড ৮ :: হাদিস ৩৪৩২
উবায়দুল্লাহ ইবন উমর ইবন মায়সারা কাওয়ারীরী (র)......।আবু সাঈদ খুদরী (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, রাসুলুল্লাহ (সা) হুনায়নের যুদ্ধের সময় একটি দল আওতাসের দিকে পাঠান । তারা শক্রদলের মুখোমুখী হয়েও তাদের সাথে যুদ্ধ করে জয়লাভ করে এবং তাদের অনেক কয়েদী তাদের হস্তগত হয় । এদের মধ্য থেকে বন্দিনী নারীদের সাথে সহবাস করা রাসুলুল্লাহ (সা) -এর কয়েকজন সাহাবী যেন না জায়িয মনে করলেন, তাদের মুশরিক স্বামী বর্তমান থাকার কারণে । আল্লাহ তায়ালা এ আয়াত অবতীর্ণ করেন "এবং নারীর মধ্যে তোমাদের অধিকারভূক্ত দাসী ব্যতীত সকল সধ্বা তোমাদের জন্য নিষিদ্ধ-, অর্থাৎ তারা তোমাদের জন্য হালাল, যখন তারা তাদের ইদ্দত পূর্ন করে নিবে(নিসা-৪:২৪)"

৩। চুরি ডাকাতি একটা অনৈতিক ও অপরাধ মূলক কাজ। কোরান বলেছে সেই চুরি ডাকাতি হলো পবিত্র জিহাদ , আর লুট করা মালামাল গণিমতের মাল হিসাবে ভাগাভাগি করতে হবে। যেমন -
সুরা বাকারা - ২: ২১৭ নং আয়াতটা নাজিল হয়েছিল মুহাম্মদ কর্তক অসময়ে একটা ডাকাতিকে বৈধ করতে। সেই ডাকাতির মালামাল কিভাবে বন্টন করতে হবে , সেটা বলা আছে সুরা আনফালে।

৪। মিথ্যা কথা বলা বা প্রতারনা করা নিশ্চিতভাবেই একটা অনৈতিক ও অপরাধ মূলক কাজ। কিন্তু কোরান বলেছে আল্লাহ নিজেই মহা প্রতারক, আর মুসলমানরা প্রয়োজনে মানুষকে প্রতারনা করতে পারবে। যেমন --
সুরা - ইমরান - ৩: ৫৪: বং কাফেরেরা চক্রান্ত করেছে আর আল্লাহও প্রতরনা করেছেন। বস্তুতঃ আল্লাহ হচ্ছেন সর্বোত্তম চক্রান্তকারী।
সুরা রাদ - ১৩: ৪২: তাদের পূর্বে যারা ছিল, তারা চক্রান্ত করেছে। আর সকল চক্রান্ত তো আল্লাহর হাতেই আছে। তিনি জানেন প্রত্যেক ব্যক্তি যা কিছু করে। কাফেররা জেনে নেবে যে, পর জীবনের আবাসস্থল কাদের জন্য রয়েছে।

৫। পরকীয়া নিশ্চিতভাবেই একটা অনৈতিক কাজ। কোরানের আল্লাহ তার নবীকে পরকীয়া করার বিধান দিয়েছে। মুহাম্মদ জায়েদের স্ত্রী জয়নাবের প্রেমে পড়ে- এটা একটা পরকীয় ও অনৈতিক কাজ। কোরানের আল্লাহ আয়াত নাজিল করে , অত:পর মুহাম্মদ ও জয়নাবের মধ্যে বিয়ের ব্যবস্থা করে।

৬। শুধুমাত্র বিশ্বাস না করার কারনে কারও বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা বা হত্যা করা নিশ্চিতভাবেই একটা জঘন্য অপরাধের কাজ, হিংস্রতা ও নিষ্ঠুরতা। কিন্তু কোরানের আল্লাহ বলছে ,তাকে যদি কেউ বিশ্বাস না করে , তাহলে তার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে তাকে হত্যা করতে হবে। যেমন ---

সুরা তাওবা -৯:৫: অতঃপর নিষিদ্ধ মাস অতিবাহিত হলে মুশরিকদের হত্যা কর যেখানে তাদের পাও, তাদের বন্দী কর এবং অবরোধ কর। আর প্রত্যেক ঘাঁটিতে তাদের সন্ধানে ওঁৎ পেতে বসে থাক। কিন্তু যদি তারা তওবা করে, নামায কায়েম করে, যাকাত আদায় করে, তবে তাদের পথ ছেড়ে দাও। নিশ্চয় আল্লাহ অতি ক্ষমাশীল, পরম দয়ালু।

সুরা তাওবা -৯: ২৯: তোমরা যুদ্ধ কর আহলে-কিতাবের ঐ লোকদের সাথে, যারা আল্লাহ ও রোজ হাশরে ঈমান রাখে না, আল্লাহ ও তাঁর রসূল যা হারাম করে দিয়েছেন তা হারাম করে না এবং গ্রহণ করে না সত্য ধর্ম, যতক্ষণ না করজোড়ে তারা জিযিয়া প্রদান করে।

আরও বহু বৈশিষ্ট্য আছে , যার দ্বারা দেখা যাবে , কোরানের আল্লাহর যে সব বৈশিষ্ট্য বর্তমান , তা হুবহু শয়তানের বৈশিষ্টের অনুরূপ। তাই দ্ব্যর্থহীনভাবে বলা যায় , কোরানের আল্লাহই আসলে শয়তান।

Comments

আহমেদ শাকিল পাটওয়ারী এর ছবি
 

কিছু কথা বলার খুব ইচ্ছা হচ্ছে। আচ্ছা শোনেন। কোরআন নিয়ে তো ভালোই গবেষনা করলেন। আপনি কোন কালে বড় ইমাম ছিলেন? বাংলা তরজমা পড়ে কিছু আয়াত দিয়ে ভালোই গল্প বানানো যায়। আরবি তো এতটুকু পড়তে পারবেন না। যুদ্ধে একটা মেয়ের বাবা আর ভাই মারা গেলো। তখন মেয়েটা কি করে খাবে? অন্য কিছু করতে গেলেও তাকে কোথাও না কোথাও ধর্ষিত হবে। তাই তাকে দাসী করে দেওয়া হচ্ছে। আর দাসী আর স্ত্রীর মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই ইসলামে। গতিমতের মাল। যুদ্ধে পরাজিত দল কখনওই নিজেদের মাল নিতে সাহস করে না। তারা সেগুলো ফেলে যায়। আর সেগুলো গ্রহন করা চুরি না। কারন যুদ্ধে জয়ীদলই সেগুলোর মালিক। আপনার যুদ্ধবিদ্যায় জ্ঞান কম। জ্ঞান নিয়ে কথা বলবেন।
আর আল্লাহকে বা ইসলামকে দোষারোপ করার আগে উক্ত আয়াতের আগের পরের কয়েকটি আয়াত ভালো করে পড়ে নিবেন।
সালা মুর্খ

Shakil

 

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঠমোল্লা
কাঠমোল্লা এর ছবি
Online
Last seen: 1 ঘন্টা 13 min ago
Joined: শুক্রবার, এপ্রিল 8, 2016 - 4:48অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর