নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • কুরুৎআলা পাবলিক
  • এন্টারকটিকায় পড়ছি
  • গোলাম সারওয়ার

নতুন যাত্রী

  • অনিক চক্রবর্তী
  • অনুভব রিজওয়ান
  • মোমিন মাহদী
  • নাঈম উদ্দীন
  • সাইফ উদ্দীন
  • সংগ্রামী আমি
  • মোঃ নাহিদ হোসোইন
  • পাপেন ত্রিপুরা
  • মোঃ রেফায়েত উল্ল্যাহ
  • রজন্ত মিত্র

আপনি এখানে

রক্তিম বিপ্লবী এর ব্লগ

দারিদ্রতা ও মানবিকতা


ট্রেনে করে বাড়ি ফিরছিলাম এমন সময় এক বয়স্কা ভিখারী কাছে এসে ভিক্ষা চাইতে লাগল। অদ্ভুত ভাবে লক্ষ্য করলাম এই নিঃস্ব মহিলাটির মুখের ভাষা পর্যন্ত নেই, শুধু আওয়াজ আসছে আঃ, আঃ, আঃ এবং অঝোর নয়নে চোখের জল বের হচ্ছে। এই ঘটনাটি আমার মননকে ক্ষতবিক্ষত করল আমারা কি রকম সমাজে বাস করি? আমরা কি রকম মানুষ যে একটি নিঃস্ব মহিলার পাশে দাড়াই না?

নতুন সোশ্যাল মিডিয়া আইন ও কিছু আশঙ্কা


@ সকলকে অনুরোধ এই আইনটি আমাদের সকলের জীবনে প্রভাব ফেলবে তাই নিজেদের একটু মূল্যবান সময় বের করে এই লেখাটি পড়ার বিশেষ অনুরোধ রইল
----------------------------------------------------------
বিভিন্ন সংবাদসূত্র থেকে জানা যাচ্ছে উত্তর চব্বিশ পরগণার বাদুড়িয়া সহ অতীতের কয়েকটি ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে কড়া আইন আনতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার।ফেসবুক,হোয়াটস অ্যাপ সহ বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ালে কড়া শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে।সূত্রের খবর,নতুন আইনের খসড়ায় ধর্মীয় উস্কানিমূলক গুজব ছড়ালে এক বছর থেকে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদন্ডের প্রস্তাব রয়েছে।

ইরফান পাঠান, মহঃসামির স্ত্রী ও মেয়ের ছবি বিতর্ক, বোরখা-হিজাব, ইসলাম ও নারী প্রসঙ্গ


ভারতের দুই স্বনাম ধন্য ক্রিকেটার একজন ইরফান পাঠান ও অন্য জন মহঃসামি নিজেদের পরিবারের সঙ্গে ছবি পোস্ট করায় ইসলামী মৌলবাদীদের রোষানলে পড়েছেন।এবার দেখা যাক বিষয়টি কি এবং এর পিছনে মনস্তত্ব কি? সামি উঁনি নিজের মেয়ে আইরার জন্মদিনের কেক কেটে সেই ছবি পোস্ট করেন,এর উত্তরে মুমিনরা বলেছেন-আপনার স্ত্রীকে হিজাব ছাড়া দেখে দুঃখ পাচ্ছি,কেউ কেউ বলেছেন আমি মুসলমান তাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা দেওয়া যাবে না,কারণ ইসলামে জন্মদিন পালন করা যাবে না।

কেন্দ্রের নয়া গবাদি বিধি ও লেডি জাস্টিশিয়ার মূর্তি অপসারণ প্রসঙ্গ


*পাঠকরা আপনাদের কাছে বিশেষ অনুরোধ লেখাটি বেশ বড় হয়েছে কিন্তু এতে রাজনীতি,অর্থনীতি,ধর্ম আর ও অনেক বিষয় নিয়ে বিশ্লেষণ করা হয়েছে ,আশা করি আপনারা লেখাটি ধৈর্য ও মনযোগ সহকারে পড়বেন।ধন্যবাদ ।
-----------------------------------
ভারত ও বাংলাদেশ এই দুই দেশেই ধর্মান্ধ রাজনীতির বহিঃপ্রকাশ ঘটছে যার চরম নিদর্শন ভারতে কেন্দ্রীয় সরকারের নয়া গবাদি বিধি ও অন্যদিকে বাংলাদেশে ন্যায়ের মূর্তি জস্টিশিয়াকে সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গন থেকে অপসারণ ।

তিন তালাক বিতর্ক ও প্রাসঙ্গিক কিছু কথা



মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেছেন -"আমরা তালাক বিলটিতে সমর্থন করেছিলাম। ভেবেছিলাম ভালো কিছু হবে তাই এতদিন কিছু বলিনি। কিন্তু এখন দেখছি বিলে অনেক গোলমাল রয়েছে। এই তালাক বিল মুসলিম মেয়েদের ক্ষতি করবে। মেয়েরা আরও বিপদে পড়বে।কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে সরাসরি তোপ দেগে তিনি বলেন,ওরা মুসলিম মেয়েদের ক্ষমতায়নের পরিবর্তে ক্ষতি করবে"।

দুই হত্যাকান্ড কিন্তু দৃষ্টিভঙ্গি ভিন্ন কেন ?


বর্তমান সময়ে দেশে সবথেকে আলোড়নকারী খবর হল -মালদহের বাসিন্দা আরাফাজুল খানকে রাজস্থানে হত্যা করে পুড়িয়ে মারার ঘটনা ।হত্যা কারি শম্ভুলাল রেগর, প্রথমে কুপিয়ে তারপর পুড়িয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে ।এই নৃশংস হত্যাকান্ড দেশকে নড়িয়ে দেয় এবং দেশজুড়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ হয় ।মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যথার্থই বলেছেন -"রাজস্থানে বাংলার এক শ্রমিকের নৃশংস হত্যাকান্ডের তীব্র নিন্দা করছি আমরা ।" সত্যি এই হত্যাকান্ড আমাদের সভ্য সমাজের কাছে চরম লজ্জার ,ওই হত্যাকারীর আইনানুগ কঠোর শাস্তি হওয়াই বাঞ্ছনীয় ।আশাকরি রাজস্থান সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়েই দেখবেন ।বিশেষত দেশ জোড়া প্রতিবাদের পর কেন্দ্রী

লাভ জেহাদ কি এবং এর যথার্থতা কতটুকু ?


ভারতে গত উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনের সময়কালে বেশ কিছু হিন্দুত্ববাদী সংগঠন লাভ জেহাদ ইসুটি তুলে ধরে। লাভ জেহাদ কথার অর্থ বলতে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলি বোঝাতে চাইছে -মুসলিম পুরুষরা হিন্দু নারীদের ফুসলিয়ে ফুসলিয়ে তাদের বিয়ে করে হিন্দু থেকে মুসলমান হিসাবে ধর্মান্তরিত করে এবং নারী স্বাধীনতা হরণ করে তাদের বোরখার মধ্যে আবদ্ধ করে। এই বিষয় নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়াতে আলোচনা হয়েছে, বহু পত্রপত্রিকাতে লেখালেখি হয়েছে বিস্তর। তবে তাদের বেশিরভাগই বড্ড বেশি একদেশদর্শী সমলোচনা। তাই প্রকৃত সত্য তুলে ধরার নৈতিক কর্তব্য বোধ থেকেই এই লেখার উন্মেষ। এই লেখাটিতে লাভ জেহাদ সম্পর্কে চুলচেরা বিশ্লেষণ করব। বিশেষ করে যারা নতুন ক

আমার ইচ্ছা


আমি এক নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান ।বহু সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে জীবনে প্রকৃত শিক্ষা অর্জন করতে পেরেছি। পরিবারের সদস্যদের আশা আমিই তাদের আর্থিক দুরবস্থা ঘোঁচাবো ও আর্থিক সমৃদ্ধি ঘটাবো ।নিজের পড়াশোনা ও আনুষাঙ্গিক খরচ নির্বাহের জন্য শিক্ষকতা করি ।আমি অনেক বিষয়েই শিক্ষা দিতে পারি তবে ছাত্রছাত্রীরা প্রধানত আমার কাছে দর্শন ও ইতিহাস শিক্ষণের জন্য আসে । আমার শ্রেণী কক্ষে জ্ঞানের অবাধ বিচরণ- শিক্ষা ,সাহিত্য ,বিজ্ঞান ,ধর্ম ,দর্শন ,ইতিহাস প্রভৃতি বিষয়ের অবাধ বিচরণ জ্ঞান সেখানে মুক্ত ।আসলে আমি শিক্ষক হিসাবে হেনরি লুইস ভিভিয়ান ডিরোজিও কে নিজের আদর্শ বলে মনে করি ।ডিরোজিওর শিক্ষার আদর্শে অনুপ্রাণিত

কুরবানী ও বর্বরতা


পৃথিবীর ইতিহাসে বর্বরতম ও নিষ্ঠুর যে প্রথা গুলি প্রচলিত আছে তার মধ্যে অন্যতম হল মুসলমানদের মধ্যে প্রচলিত কুরবানী প্রথা I এখন প্রশ্ন হল এই প্রথা চালু হল কি ভাবে ? প্রচলিত মতানুসারে ইহা পরমকরুণাময় আল্লাহের ইচেছই হয় ?

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

রক্তিম বিপ্লবী
রক্তিম বিপ্লবী এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 6 দিন ago
Joined: মঙ্গলবার, আগস্ট 29, 2017 - 3:02অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর