নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 2 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • কুমার শাহিন মন্ডল
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

হিউম্যানিস্ট বাই নেচার এর ব্লগ

জীবন ও মন, ধর্ম এবং তার কর্ম


আমি রাতের নির্জনে আমার রুমে অন্ধকারে একাকী বড় ভাবনায় ঢুকে পরেছি তাই ঘুমাতে পারছি না, তার উপর বাহিরে ঝম ঝম করে বৃষ্টি পরছে। আমার এখানে রাত ২টা বাজে,কিন্তু ঘুমানোর চেষ্টা করছিলাম সেই রাত ১২টা থেকে। তাই ভাবলাম মনের ভাবনা গুলোকে বন্ধি না রেখে আপনাদের মাঝে ছেড়ে দিই।

ধর্মের প্রয়োজনীয়তা তৈরী করা হয়েছে সমাজের সাধারন মানুষকে ভয় দেখানোর জন্য


আমরা এমন কিছু ধর্মীয় ধর্মীয় রীতি নীতি পাই জীবন চলতে যা অবাক করে দেয় আমাদের সুস্হ চিন্তা ধারাকে।কেউ কেউ বলে ধর্ম আছে বলে পৃথিবীতে মানুষ এখনো শৃঙ্খলাবদ্ব। সত্যি আমি এই কথার মর্ম খুঁজে হয়রান, কিন্তু যতবার যুক্তি দিয়ে খুঁজি বার বার একই উত্তর মিলে, আর তা হলো ধর্ম এক সর্বনাশা পৃথিবীর রুপকার যেখানে পরিসংখ্যান বলে হাজার-শতাব্দী বছর জুড়ে যে হত্যা ক্যান্ড ঘটে আসছে তার সিংহ ভাগ এই ধর্মকে নিয়ে।

ভারতীয় উপমহাদেশে ইসলাম ধর্ম থেকে নাস্তিকতাই আব্দুল রাহীম


যুগে যুগে অনেকেই প্রগতিশীল চিন্তা-ভাবনা নিয়ে সমাজ সংস্কার এর জন্য এসেছেন। অনেকেই পেরেছেন সংস্কার করতে আবার অনেকেই পারেন নি। তবে ধর্ম কে ঠিক রেখে যে সংস্কার গুলো করা হয়েছে তাদের মধ্যে বেশীর ভাগেই সফল হয়েছে যেমন বলা যায় ব্রাহ্মধর্ম একেশ্বরবাদী মতবাদ। কিন্তু চার্বাক দর্শন বা জড়বাদী মতবাদের সংস্কার যত গুলোই হয়েছে আমাদের উপমহাদেশে সবই থেমে গেছে কোন না কোন কারনে। যদি সফল হতো হয়তো আজ আমরা তার ফল ভোগ করতাম। বলা হয়ে থাকে ইসলামী ধর্মবিশ্বাকে অনমনীয় বলে মনে হলেও মুসলিম ভাবজগত নাকি যুক্তিবাদের একটা স্থান বরাবরই ছিল। খুব সম্ভব এর প্রথম নির্দশন দেখা যায় খ্রিষ্টীয় নয় শতকের আরব দেশে আব্বাসী খলি

ধর্ম নয় ,কর্মকে মহৎ করতে পারলে এই পৃথিবী দেখবে বহু আরাধ্য শান্তির পায়রা


কিছু সংশোধন এবং সংযোজন করে আমি তাসলিমা নাসরিনের লেখাটির সাথে আমার মনের ধারনা গুলোর ভীষন মিল খুঁজে পাচ্ছি।
আমি মানবতার জন্য নিবেদিত প্রান, মানবতার বার্তার মাধ্যমে আমি আলোকিত পৃথিবীর সপ্ন দেখি।তাই লেখাটি পোস্ট।

কি লিখবো আজ বড় মন খারাপ


গত কয়েক দিন ব্যস্ততার কারনে চট্টগ্রামের আদিবাসীদের উপর হত্যা, অত্যাচার, নির্যাতন এবং তাদের বাড়ীঘর আগুনে পুড়ে ফেলা নিয়ে লেখার ইচ্ছে থাকা সত্বেও সময় পাইনি। রবিবার ব্যস্ততা কম থাকবে তখন লেখবো এই আশায় শুক্রবার থেকে ছিলাম, কিন্তু গতকাল আমার নিকটবর্তী লন্ডনে ঘটে গেল বর্বর সন্ত্রাসী হত্যাকান্ড। আমরা ম্যানস্টিটারের ক্ষত না ভূলতে আরেক ক্ষতের জ্বালা সয়তে হচ্ছে।এইসব তাবৎ দুনিয়া ধর্ম যোদ্ধারা কি তাদের আল্লাহ ,ভগবান,ঈশ্বরকে মানুষের রক্ত দিয়ে রাঙ্গিয়ে খুঁশি করতে হয়?মুসলমানেরা এই রোজার মাস এইটা নাকি তাদের আত্নসংযমের মাস তো তারা কি মানুষ মারা আত্ন-প্রত্যয়ে তাদের আল্লাহর রক্ত পিপাষা মেটানোর

ভাস্কর্য রাজনীতির বলি হলো ধর্মীয় গুরুদের সন্তুষ্ট রাখতে রাজনৈতির নতুন ছলাকলা


আজ বাংলাদেশ চরম উন্নতির শিখরে উঠেছে, বাংলাদেশের ক্ষমতাশীন রাজনৈতিক দল তাদের বানানো স্লোগানকে ভূল প্রমানিত করলো।আর রাজনীতির নতুন একটি কলংকিত অধ্যায়ের উন্মোচন করলো।অবশ্য তারা বিগত বছরগুলো থেকে আজ অবধি এই রকম চরম জগন্য সুন্দর, জনগন বিরোধী এবং গনতন্ত্রহীন কার্যক্রমে অভ্যস্ত। তাদের দ্বারা সব সম্ভব আর ক্ষমতার জন্য অসম্ভবকেও সম্ভব করবে।সরকার গঠন করেছে মুক্তমনা নামধারী ঈশ্বরে বিশ্বাসহীন কিছু তথা কথিত লোকদের নিয়ে। কিন্তু আমরা যারা সত্যিকারে মুক্তমনা এবং ধর্মের সাজানো গল্পতে অবিশ্বাসী তাদের থেকে ঐসব তথা কথিত মুক্তমনাদের আলাদা করে রাখলেন। আর ঐসব মুক্তমনারা হলো রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্য এবং

একজন কুসংস্কারাচ্ছন্ন অন্ধবিশ্বাসী ধার্মিকের গল্প


আমি এক ধার্মিককে প্রশ্ন করেছিলাম, তুমি কেন তোমার ধর্ম পালন করো আর তোমার নিজের ধর্মকে সত্য ধর্ম মনে করো?
সে উত্তরে বলেছিল, আমার ধর্ম সত্যি কারণ আমার ধর্মগ্রন্থ সত্যি।
আমি তাকে যখন পাল্টা প্রশ্ন করলাম, কেন তোমার এমনটি মনে হয়?
তখন সে বিরক্তি নিয়ে বললো- আমার ধর্মগ্রন্থটির প্রতিটি বাণীই সত্যি। এবং বিজ্ঞানের যত আবিষ্কার তার সব গুলোই আমার ধর্মগ্রন্থ থেকে নেওয়া হয়েছে।
কিন্তু আমি যখন তার কাছে তার কথার প্রমাণ চাইলাম তখন সে তার ধর্মগ্রন্থের কিছু প্রাচীণ বাণী দেখালো। আমি তাকে বললাম -তার এই ধর্মগ্রন্তের বাণীতে কোন বিজ্ঞানের আবিষ্কার সম্ভব হয়েছে।

ইসলামের জোরপূর্বক প্রয়োগ।


নবী মোহাম্মদ বলেছেন, "কোন শিশু জন্মগ্রহণ করে না বরং ফিতরা (মুসলিম)বা প্রত্যক শিশু জন্মসূত্রে মুসলিম। এটি তার পিতা-মাতা যারা তাকে ইহুদী বা খৃষ্টান বা মুশরিক বলে (তাঁরাই তাদের পছন্দের ধর্মে দিক্ষিত করে)" (সহীহ মুসলিম, খণ্ড 0৩৩)

পরিবর্তিত বিশ্ব রাজনীতি এবং ধর্মীয় উগ্রবাদের হালচাল।



বিশ্ব রাজনীতির মানচিত্র গত ১-২বছরে যেভাবে পরিবর্তন হলো এবং হচ্ছে তাতে আর রাজনৈতিক অশান্তি পৃথিবীর এক প্রান্তে আটকা পরে নেই। উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর মধ্য রাজনৈতিক বৈরি আবহাওয়া ও ডানপন্থী রাজনৈতিক দলের যেভাবে জনপ্রিয়তা বাড়ছে তাতে বৈশ্বিক বৈষম্যও বেড়ে চলছে। বিশেষ করে গত কয়েক বছর ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের কিছু শক্তিশালী দেশ অর্থনৈতিক যা মন্দায় গোলাটে অবস্থা তাতে বৈশ্বিক অস্থিরতা দিন দিন বাড়ছেই

সেই দিন আর আজকের দিন


আজ থেকে দীর্ঘ আট বছর আগে যেসব কাজগুলো করতাম এবং ভাবতাম হঠাৎ করে তা মনে পরে গেল কোনো এক ভাবে। খুব কষ্ট পাচ্ছি এইভাবেই আর কোনো দিন পিরে পাবো না সেইসব দিন এবং কর্মকান্ড, শুধুই রোমন্থন করতে পারবো স্মৃতি। আজ অনেক কিছু হারিয়ে ফেলেছি জীবন থেকে যেইসব আর কখনো পাবো না।শুধু তাই নয় হারিয়ে ফেলেছি অনেক আপন জন ও পারিবারিক সদ্যসদের, যারা চলে গেছেন না ফেরার দেশে। আর যারা আছেন তারা ও ভূলে গেছেন এবং ছিন্ন করেছেন বন্ধন আমার সাথে।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

হিউম্যানিস্ট বা...
হিউম্যানিস্ট বাই নেচার এর ছবি
Offline
Last seen: 3 দিন 13 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, এপ্রিল 5, 2017 - 4:57পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর