নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • আকাশ লীনা
  • নুর নবী দুলাল
  • সীমান্ত মল্লিক

নতুন যাত্রী

  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম
  • মোঃ মনজুরুল ইসলাম
  • এলিজা আকবর
  • বাপ্পার কাব্য

আপনি এখানে

কৌশিক মজুমদার শুভ এর ব্লগ

আরেকটা জীবন কেটে যাক প্রেমহীন জলে


আরেকটা জীবন কেটে যাক প্রেমহীন জলে
--কৌশিক মজুমদার
আবার এসে গেছে প্রেম-
আরো কয়েকটা রাত কেটে যাবে নির্ঘুম ;
রাস্তা আর ফুটপাত জুড়ে-নিরিবিলি বটগাছটার সাথে।
বারান্দা -ছাদে ধুলোমাখা জুতোর ছাপ;এবার দিন কাটবে চিলেকোঠায়,সিঁড়িঘরে-
টিকটিকি,তেলাপোকার সঙ্গম দেখে,
অংকের খাতাগুলো ভরে যাবে-এ্যবস্ট্যাক্ট স্কেচ আর অর্থহীন কাটাকুটিতে।
হাতে হাতে শক্তি -জীবন-হিকমত-রুদ্রের ওলটপালট জীবন;
কেটে যাবে মোজার্টের অপেরায়,
ছাদে দাঁড়িয়ে রাস্তায় মাথা গুনে গুনে।

নারীশিক্ষা নাকি নারীমুক্তি ?--(কৌশিক মজুমদার )


আমি নিজে কখনো পাব্লিক ট্রান্সপোর্ট এ অবলাদের জন্যে আসন ছেড়ে দিই না কারন সমান অধিকারের বুলি কপচালেই হয় না,সমান অধিকারর জন্য সমান কাজও করতে হয় বলে আমি বিশ্বাস করি।আমিও মাঝে মাঝে এ ব্যাপারে নিয়মভঙ্গ করি। যদি সে নারী -প্রথমত অসু্স্থ কিংবা বৃদ্ধা হয় ,দ্বিতীয়ত ,সে বোরকা পরিহিত নারী হয়।দ্বিতীয় ক্ষেত্রে আপনি হয়ত আমাকে হিপোক্রেট বা মোনাফেক ভাববেন।ব্যাপারটা তেমন নয় আসলে এইসব নারীরা আগেই নিজেকে পুরুষতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থার নিয়োজিত সেবাদাসী হিসেবে স্বীকার করে নিয়েছেন ।তাই তাদের এই দাসবৃত্তির প্রতিদান দেয়া পুরুষ হিসেবে বা দাসপ্রভু হিসেবে আমার নৈতিকতা বা এথিক্সের মধ্যে চলে আসে।

রামপাল প্রকল্পের সমর্থন আমিও করি না,তবে সববিষয়ে ভারতের অন্ধসমালোচনা ও শত্রুভাবাপন্ন মনোভাব কতকটা ধর্মবিদ্বেষ ও কতকটা রাজনৈতিকদের কৃত্রিম সৃষ্টি বলে মনে হয়


দেশটাকে যদি ভারত নিয়ে নিতেই চাইত, তবে সে বাংলাদেশের গোড়ার দিকেই নিয়ে নিত। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পর এসে চিন্তা করতো না এবার দেশটা আমরাই নিয়ে নেই বাপু! এই যে ভারত দেশ নিয়ে যাবে এই জুজুর ভয়ের উৎস সন্ধান করতে গেলে সেই পাকিস্তান আমলেই ফিরে যেতে হবে। এটা পাকিস্তানি জেনেটিক প্রোবলেম। বংশানুক্রমিক কিছু রোগ আছে, যেমন দাদার থেকে বাপে পায়, বাপের থেকে সন্তান পায়, সন্তান থেকে তাঁর সন্তানেরা পায়। জুজুর ভয়টাও বংশানুক্রমিক। পাকিস্তানি বাপেদের থেকে পাওয়া।

এক টুকরো দেশ


এক টুকরো দেশ
--#কৌশিক মজুমদার
কুকুরের ঘন ঘন সঙ্গমে -আসন্ন কার্তিক মাস।
তোদের নগরে শুনলাম ,কুকুর নিধন কর্মসূচি আসছে!
দেখা যাবে অসংখ্য কুত্তার বাচ্চা রেজিস্ট্রেশন করতে গেছে,
বলেছে;
দেখিয়েছে; সরকারী দস্তখত-গলায় ঝুলিয়ে মিছিল করেছে;বাকা ন্যাজ নিয়ে দৌড়েছে রাস্তায়।
আর ভাদ্রের শারদীয় উষ্ণতায় লালা ঝরে -
তাদের লকলকে সাদা লাল জিহ্বায়।
এর মধ্যে অগণিত শল্যচিকিতসক জানিয়েছেন -
"তাহাড়া সরকারী কুত্তা এবং তাহাদের কামড়ে জলাতঙ্কের সম্ভাবনা ক্ষীণ।"
এই ইসতেহার অগণিত মিডিয়ার টিভি পর্দায় ঝড় তুলবে।

ঈস যোগে বর ঈশ্বর


ঈস যোগে বর
---কৌশিক মজুমদার
মহাকাশ অন্ধকার , তারাদের লোডশেডিংএ-ডুবে আছে স্বপ্নের শহর;
অলিগলি ,মৃত নক্ষত্র পড়ে আছে নর্দমা ডাস্টবিনে,
নিস্তব্ধ কবরস্থান,মজগুনি তিন নাম্বার ।
ব্লাকহোল অন্ধকারে প্রেমিকার বাঁকানো শিরদাঁড়া বেয়ে -কয়েকটা সাইমুম বয়ে যায়।
তবুও পড়ে থাকি এই ভাঙা নর্দমার পাশে-কয়েকটা রাত নির্বিকার কেটে যায় ভাঙা ছাতাটার নিচে।
নাক্ষত্রিকবর্ষ আগে,একদিন-এই ভরা পূর্ণিমায়
মাতালের পিঠে চড়ে -স্বর্গে গিয়েছি -সেখানে পানশালা ,স্বর্গীয় অপ্সরায়-মদ-মোহ-মাৎসর্যে ডুবে আছে কামুক দেবতারা।

প্রজন্ম একাত্তর



আমি যুদ্ধ দেখেছি
--কৌশিক মজুমদার

ধর্ষিত প্রেমিকার লাশ আমি বুকে নিয়েছি,
বারংবার মহাকাশে তাকিয়ে স্রষ্টাকে প্রশ্ন করেছি,
বেয়নেটের খোঁচায় যারা আমার প্রেয়সীর যোনী ক্ষতবিক্ষত করেছে,
তাদের লাশের উপর আমি তান্ডবনৃত্য করেছি,
রাইফেলের বাঁটে থেঁতলে দিয়েছি জননাঙ্গ ,
আমি যুদ্ধ দেখেছি,মানুষকে মরতে দেখেছি..

একুশ শতকের লুক্রেতিউস


একুশ শতকে লুক্রেতিউস
---কৌশিক মজুমদার (শুভ)

ধর্ম ও দর্শন নিয়ে কিছু কথা- পর্ব ২ (কৌশিক মজুমদার শুভ)


ধর্ম ও সামাজিক সহনশীলতা চর্চা

---বাংলাদেশে শব্দ দূষণ প্রতিরোধের কি কোনো কার্যকরী আইন নেই?।
বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলোতে বিশেষত পূজা ,মাহফিল,রমজানের সেহেরির সময় মানুষের ব্যক্তিগত স্বাছন্দের কথা না ভেবেই মাইকগুলো উচ্চশব্দে বেজে ওঠে ,কিন্তু এতে যে কতকটা সমস্যার কারন সৃষ্টি হয় তা কেবল ভুক্তভোগীরাই জানে ।এটা কতখানি ধর্মীয় এথিক্সের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ আমি তা জানি না এবং ধর্মগ্রন্থে এ সম্বন্ধে কোনো বিধিনিষেধ আছে কিনা তাও জানি না।

৫৭ ধারা বাতিল করে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা দেয়া হোক।


গণতন্ত্রের নামে প্রহসনমূলক শাসনব্যবস্থায় ৫৭ ধারার মত ঘৃণ্য বর্বর ব্যবস্থা চালু করে প্রগতিশীলদের মুখে এঁটে দেয়া হয়েছে রাজনৈতিক মাস্ক,যা ভেদ করে হয়ত সরকারী পোষ্যের মত বুলি কপচানো যায়,কিন্তু মানবিক ও মানসিক মুক্তি হয় না ।যে ভাষার জন্যে বাঙালী প্রাণ দিয়েছে যুগে যুগে আজ ৫৭ ধারার মত ঘৃণ্য ধারা জাতির টুটি টিপে ধরেছে ,কেড়ে নিয়েছে বাকস্বাধীনতা।যার শিকার হয়েছে নুর নবী দুলাল ভাই,আসাদ নূর,শ্রাবন প্রকাশণা,দিলীপ রায়,শামসুজ্জোহা মানিকসহ আরো অনেকেই ।এ যেন একবিংশ শতকে মধ্যযুগীয় বর্বরতা। শাসকের এই ধরনের ডোন্ট কেয়ার মনোভাবের কারনে মৌলবাদ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে ,রাষ্ট্র হয়ে পড়ে গণতান্ত্রিক ভাগাড়।যে ভাগাড়ে পড়ে থাকে হুমায়ুন আজাদ,অভিজিত রায়,অনন্ত দিজয় দাশ,ওয়াসিকুর রহমান বাবুর মত দেশের প্রগতিবাদী মুক্তমনা মানুষের অগণতান্ত্রিক লাশ।আর বাইরের মুক্ত বাতাস গায়ে লাগিয়ে ঘুরে বেড়ায়তুহিন মালিকের মত গণতন্ত্রী জারজ।মডিফাইড ফ্যাসিবাদী মনোভাবের বিরুদ্ধে আমার তিনটি কবিতা।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

কৌশিক মজুমদার শুভ
কৌশিক মজুমদার শুভ এর ছবি
Offline
Last seen: 1 month 2 weeks ago
Joined: রবিবার, এপ্রিল 2, 2017 - 7:31অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর