নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 9 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাফী শামস
  • দিন মজুর
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • গোলাম মোর্শেদ হিমু
  • আব্দুল্লাহ আল ফাহাদ
  • রুদ্রমঙ্গল
  • নুর নবী দুলাল
  • এফ ইউ শিমুল
  • জহিরুল ইসলাম

নতুন যাত্রী

  • অন্ধকারের শেষ প...
  • রিপন চাক
  • বোরহান মিয়া
  • গোলাম মোর্শেদ হিমু
  • নবীন পাঠক
  • রকিব রাজন
  • রুবেল হোসাইন
  • অলি জালেম
  • চিন্ময় ইবনে খালিদ
  • সুস্মিত আবদুল্লাহ

আপনি এখানে

কৌশিক মজুমদার শুভ এর ব্লগ

এক ধুমকেতু ও কয়েকটি বিশ্বযুদ্ধ


অত:পর এই পৃথিবীর তলে কতদিন কাটায়েছি-এক নক্ষত্রের আলোতে দুজন;
তবু নক্ষত্রের মৃত্যুতে পৃথিবীর আলো আকাশে ফারাক হয় না কিছুই!
কতকাল ঘুমায়ে কাটায়েছি আমি তোমাদের নক্ষত্রের তটে,নাভীমূলে;
জীবন চলে গেছে সময়ের আঘ্রাণে বয়ে চলা স্রোতস্বতীর মত;
কে যেন বলে গ্যাছে সেই ধূমকেতু আসতে আরো ঢের দেরি আছে-যেন তার পিঠে চড়ে সহস্র জাগতিক প্রেম আসে ধেয়ে;পৃথিবীর তরে।
সহস্রকিরণ যে দিয়ে গ্যাছে ,উষ্ণতা নিয়ে গ্যাছে শতাধিক পতঙ্গেরে যারা-সেইসব নক্ষত্র চলে গ্যাছে ব্ল্যাকহোলে।

ফেমিনিজম মানে কি শুধুই একতরফা বুলি


সবসময় ফেমিনিজম বুলি ঝারতে ঝারতে পুরুষজাতির টেস্টিস প্রতিনিয়ত মাথায় তুলি।যদিও তার যথেষ্ট কারন রয়েছে আদিকাল থেকে এই ম্লেচ্ছ লিঙ্গিকগণ যতরকম অত্যাচার আর কদাচর্য ব্রত পালন করে আসছে।বর্তমানেও এর সাক্ষাৎ পাই- বাবা কর্তৃক মেয়ে,ভাই কর্তৃক বোন ধর্ষণ এমনকি ,স্ত্রীকে বৈধপন্থায় প্রতিনিয়ত ঘরোয়া ধর্ষণ করে পুরুষজাতি ।

ধর্মস্থানগুলোর সদব্যবহার


বাংলাদেশে মসজিদ মন্দিরগুলোর সমাজকল্যাণমূলক ব্যবহার শুধু ও শুধুমাত্র গণ-শৌচাগার হিসেবেই সীমাবদ্ধ ।

গীর্জাগুলোতে তবু কনফেশন বক্স থাকায় মানসিক প্রশান্তি ও পাপবোধ মুক্ত করতে করে কিছু সাইকোলজিক্যাল পজিটিভ ভূমিকা নিতে পারত ; কিন্তু বর্তমান প্রেক্ষাপটে নিরাপত্তা খাতিরে গণস্বেচ্ছাপ্রবেশাধিকার রোধ করে সেগুলো ইউজলেস, মিনিংলেস একটা উদ্ভট স্থানে রুপ নিয়েছ ;যেখানে সপ্তাহে দুদিন ক্ষেত্রবিশেষে একদিন একই ধর্মীয় ঘ্যানঘ্যানানি শুনিয়ে একবিংশ শতকে মানুষের সর্বাপেক্ষা মূল্যবান সময় মাঠে মারা যায়।

সুবোধ তুই পালা!!


সুবোধ তুই পালিয়ে যা,
মানুষ ভালোবাসতে ভুলে গেছে!
সহস্রবার জন্মে,কফিনেভর্তি শুকনো ভালোবাসা নিয়ে গ্যাছে লোক।
অস্তাচলে গ্যাছে বিষণ্ণ রোববার ।
জীবনে এসেছে অগণিত ক্যালেন্ডার ,দিন,তারিখ, মৃত্যুসন।
শহুরে রিক্সায়-বর্ষায় রক্ত ধুয়ে গ্যাছে, কৃষ্ণচূড়ার লালে মিশেল হয়েছে শতশত পীড়িতের আর্তচিৎকার-কারাবাস হয়েছে সুবোধের।
শ্বাসঘাত রুদ্ধ হয়েছে কারাগারের ছয় বাই ছয় ফুটে,
শহুরে নগ্নতা ঘিরে ধরে নিলজ্জ্ব গণতন্ত্র ,
স্বপ্নের প্রজাপতি ডানা কেটে হয়ে যাবে অজস্র শুঁয়াপোকা ।

শাস্ত্রে নারী ,পর্ব -২


নারী পুরুষের অধিকৃত সম্পত্তি (Sahih Bukhari 5:59:524)

নারী হজ্ব করার অযোগ্য (Sahih Bukhari 1:6:302)

সাক্ষ্য গ্রহনের ক্ষেত্রে একজন নারী একজন পুরুষের অর্ধেক বলে বিবেচিত হবে (Quran 2:282)

ইসলাম আদেশ করে যখনই একজন মুসলিম স্বামী ইচ্ছা করবে, তখনই তার পত্নিকে সেক্স এর জন্যে সারা দিতে হবে, যদিনা তার রজচক্র চলে বা অসুস্থ থাকে (Sahih bukhari 8:3368)

নারী পুরুষের যৌন দাসী (Ibn Hisham-al-Sira al-nabawiyya, Cairo, 1963) ও কুকুরের সমতুল্য (Sahih Bukhari 1:9:490, 1:9:493, 1:9:486 Sahih Muslim 4:1032)

যদি তুমি বলতে


নক্ষত্র পুড়ে যাবে, শুকোবে পৃথিবী হৃদয় ,কবিদের মৃতদেহ ।
ঘরচাপা স্মৃতি ,স্পষ্ট ক্যালেন্ডারে দাগ কাটা মৃত্যুসন।
তবু আমার ঘাম আর উচ্ছিষ্ট রয়ে গ্যাছে বিস্তারিত পৃথিবী,কোনো এক নারীর গর্ভে,যোনীতে ,হৃদয়ের গহ্বরে।

ধর্মশাস্ত্রে নারী (পর্ব-১)


যারা হিন্দুধর্মে নারীর ঋণাত্মক বিশেষত্ব পুরুষের নারীর উপর কতৃত্ব নিয়ে সন্দিহান এবং যারা শুধুমাত্র ইসলামী সমালোচনার পোস্টেই নারীর প্রতি সদাচার প্রদর্শন করেন তাদের উদ্দ্যেশ্যে বলতে চাই হিন্দুধর্মের ক্ষেত্রে নারীবিদ্বেষ ও নারীর প্রতি স্বেচ্ছাচার এতই বেশী যে "ভাগ্যবানের বউ মরে ,অভাগার গরু"প্রবাদটি হিন্দুদের ক্ষেত্রে বহুলভাবে প্রযোজ্য।কেননা বহুবিবাহ,বাল্যবিবাহ,সতীদাহ,এবং যৌতুকপ্রথার মত নারীসদাচারী প্রথাগুলো হিন্দুমস্তিষ্কদ্ভূত তা আমাদের আদিম পূর্বপুরুষগণ যথার্থই কাম আই মিন কাজে প্রমাণ দিয়ে গ্যাছেন।হিন্দু শাস্ত্র যে নারীদের কম কদচর্য দেখিয়েছে তাও বলা যাবে না,কেননা আদিম ঋষিদের মস্তিষ্কের প্রভা

স্বৈরাচারী অন্তর্বাস


রাস্তা ,হাইওয়ে ,ফুটপাত,
এঁদো গলি,ড্রেনের পাশে যত্রতত্র , অসংখ্য রাজনৈতিক কেন্দ্র;
ওগুলো আমার কাছে মাতালের কর্মশালা ।
বাঙালী ব্রিটিশ ইংরেজ হেদিয়েছে-মাড়ায়নি সমাজতন্ত্রও-শুধু শুনেছে স্বাধীন দেশে,
গণতান্ত্রিক রাস্তা তৈরির গল্প।

তাই রাস্তায় দেশজ নেড়ির দল প্রকাশ্যে সঙ্গম আর ছেঁড়াছিঁড়ি করে-সভাসমাবেশ মিটিং মিছিল ।
এঁদোখেদো দেশটার চামড়া খুলে রোদে শুকোয়-জুতো বানায় বিচ্ছুরিত, বিচ্যুত গণতন্ত্রী ।

অব্যক্ত ল্যাম্পপোস্ট


রাস্তার বুক চিঁড়ে অবিরত ছুটে গেছি ,
তাকিয়েছি হাজার বছরিয়া জবরজং ল্যাম্পপোস্টের শিরাবিহীন বুকে,
এরা, শহরের বুকে জন্মজন্মান্তর ধরে উষ্ণতা বিলিয়ে গ্যাছে,
উলঙ্গ নগ্ন বুক খুলে ঢেলে গ্যাছে একরাশ সোনা রং- বংশানুক্রমিক ধারায় পাহারাধীন শহরতলীর স্রোতস্বিনী ধারায়,পার্কে -উদ্যানে,
তাহাদিগের বুক চিঁড়ে ঝরে গ্যাছে শতেকখোয়ারি যুবার যৌবনরস ,তাহাদের হৃদয়ে ঢেলেছে তরমুজ মদের ফোয়ারা ,
জীবন চলে গেছে সেই -কুড়ি বছরের পাড়ে।
তবু শতাব্দীকাল পর,

পথ ও পরিক্রমা


প্রেমিকার উরুসন্ধি,বগলে যারা অক্সি এসিটিলিনে পোড়া ধাতব গন্ধ পায়-মেটাল ওয়ার্কশপের পোড়া ধাতু।
এই শহরে এমন কতক জীব ,কতক মানুষ এক ছাদের নিচে গুহাবাসী ।
তাদের জননাঙ্গে অবিচ্ছিন্ন মূত্র আর সিফিলিস চড়ে বেড়ায়-অবিরাম,অবিচ্ছিন্ন।
আর চড়ে ফেরে অবশিষ্ট পৃথিবীর পথে পথে।
তাদের হৃদয় যেন মাতালের হাতে পোড়া সিগারেট -আধপোড়া ফিল্টার-নিকোটিন আর ধূসর ধোঁয়ায়।

আর এই চিন্তার মধ্যে একখানি লাল তেলগাড়ি চলে গেল-কয়েকটা রিক্সা,মালবাহী পিক-আপ।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

কৌশিক মজুমদার শুভ
কৌশিক মজুমদার শুভ এর ছবি
Offline
Last seen: 2 months 18 ঘন্টা ago
Joined: রবিবার, এপ্রিল 2, 2017 - 7:31অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর