নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • জয়বাংলা ১৯৭১
  • মোগ্গালানা মাইকেল
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • দীব্বেন্দু দীপ

নতুন যাত্রী

  • বিদ্রোহী মুসাফির
  • টি রহমান বর্ণিল
  • আজহরুল ইসলাম
  • রইসউদ্দিন গায়েন
  • উৎসব
  • সাদমান ফেরদৌস
  • বিপ্লব দাস
  • আফিজের রহমান
  • হুসাইন মাহমুদ
  • অচিন-পাখী

আপনি এখানে

দীব্বেন্দু দীপ এর ব্লগ

ছোটগল্প: পোস্টার


সবকিছু একটা সিস্টেমে চলছে। এমপি শুধু উপজেলা কমিটিতে নাক গলায়। তাও সব পোস্টের জন্য পারতপক্ষে না। উপজেলার সভাপতি এবং সম্পাদক ইউনিয়নগুলোতে কমিটি দেয়। এভাবে একটা বোঝাপড়া তারা করে নেয়। তাও কোন্দল বাধে মাঝে মাঝে উপজেলা এবং ইউনিয়নে, শহরে সমস্যা হয় ওয়ার্ডগুলোতে।

একজন শিক্ষিকাকে নাজেহাল করা অতি উৎসাহী চেয়ারম্যানকে কিছু বলতে চাই



স্কুলের ক্লাস পরিদর্শনরত অবস্থায় সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ।

খবরটি হচ্ছে- সিলেটের জকিগঞ্জে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মডেল টেস্টের দায়িত্ব পালনের সময় স্কুলশিক্ষিকা দীপ্তি বিশ্বাসের ঘুমিয়ে পড়ার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে। স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ বিদ্যালয় পরিদর্শন করতে গেলে তার সঙ্গে থাকা ব্যক্তিরা ওই ছবি তোলেন।

ছোটগল্প: বেশ্যাবৃত্তি


স্বামী দুই বছর পর পর দেশে আসে। মাস খানেক থাকে, এই সময়ে তার প্রধান কাজ হচ্ছে স্ত্রীকে গর্ভবতি করে রেখে যাওয়া। এভাবে সে খানিকটা নিশ্চিন্ত থাকতে চেষ্টা করে। ইয়ারুন চায় না, তার টাকায় স্ত্রী দেশে ফূর্তি করে বেড়াক অন্য পুরুষদের সাথে। মধ্যপ্রাচ্যে থাকে সে, বাঙালির আবহমান পুরুষতান্ত্রিক রক্ষণশীলতার সাথে তার ভাবনায় নতুন যুক্ত হয়েছে নারীর প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দৃষ্টিভঙ্গি।

নাস্তিকতা নয়, ঈশ্বরের শত্রু আরেক ঈশ্বর


আর্নেস্ট হেমিংওয়ে 'এ ফেয়ার ওয়েল টু আর্মস’ উপন্যাসে লিখেছেন, “চিন্তাশক্তিসম্পন্ন সকল মানুষই নাস্তিক” -এটি নাস্তিকতার অতি সহজীকরণ এবং আস্তিকতাকে এক ঝটকায় অজ্ঞতার দিকে ঠেলে দেওয়ার প্রবণতা। আমি হেমিং-এর এ মতের সাথে একমত নই।
বিশ্বাস এবং অবিশ্বাস উভয় ক্ষেত্রেই সন্দেহের একটা দোলাচল থাকে। অনেকে বলেন, যা নেই বা আছে কিনা জানা নেই তা কল্পনায় এনে কবিতা লেখা যায়, কিন্তু মৃত্যুর পরে পাওয়ার লোভে ভাগাড়ের কাক হওয়ার কোন মানে হয় না।

আমার গ্রাম মসনী: উপড়ে গেছে সম্প্রীতির শিকড়, ক্রমেই এখন তা সন্ত্রাসে রূপ নিচ্ছে


মসনী (কচুয়া, বাগেরহাট) একটি ঐতিহ্যবাহী গ্রাম। এটি এমন একটি গ্রাম যেখানে স্কুল, ডাকঘর, হাসপাতাল সবই রয়েছে। এলাকাটি হিন্দু অধ্যুষিত হলেও পাশেই কয়েকটি গ্রামে মুসলিম বসতি রয়েছে যারা সবসময় হিন্দু গ্রামগুলোর পূজা পার্বনে এবং সকল অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে।

নোবেল শান্তি পুরস্কার এবং আন্তর্জাতিক রাজনীতি


নোবেল শান্তি পুরস্কার একটা রাজনৈতিক হাতিয়ারে পরিণত হয়েছে। আমেরিকা তথা পশ্চিমা বিশ্বের আনুগত্য রক্ষা করে চলে শুধু এমন বিখ্যাত মানুষরাই এখন নোবেল শান্তি পুরস্কার পায়। একথা অনেকেই বলে থাকেন যে নোবেল শান্তি পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে পশ্চিমা বিশ্ব বিভিন্ন দেশে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করে থাকে। কথা পুরোপুরি হয়ত সত্য না, কিন্তু অনেকাংশে যে সত্য তার প্রমাণ আমরা বিজয়ীদের কর্ম এবং ব্যক্তিজীবন পর্যালোচনা করলে বুঝতে পারি।

আমার বা একজন কলেজ শিক্ষকের চেয়ে একজন বাসের হেলপারের মূল্য আসলে বেশি নয় কি?



এই ট্রলটা এবং এরকম কিছু ট্রল ফেসবুকে গত কয়েকদিন ধরে দেখতে পাচ্ছি।


দাদা পড়েছে-
কারক কাকে বলে, কত প্রকার ও কী কী?

পিতা পড়েছে-
কারক কাকে বলে, কত প্রকার ও কী কী?

ছেলে পড়েছে-
কারক কাকে বলে, কত প্রকার ও কী কী?
... ...
লাভ কী হইছে? বাংলাভাষা কতটুকু এগিয়েছে তাতে? বাংলার কেনো শিক্ষক আমাকে বুঝিয়ে দেবেন কি যে কারক নির্ণয়, সমাস নির্ণয় -এগুলো পড়ার প্রয়োজনটা কী?

মৃত্যু! মৃত্যুতেই সকল সাম্যবাদ


জীবিকার তাগিদটুকু বাদ দিলে আমি খুব পরিতৃপ্ত মানুষ। এর মানে এই নয় যে আমি অনেক কিছু পেয়েছি, বা পেতে চাইনি। জীবনের খুব সুস্পষ্ট একটা মানে খুঁজে পাওয়ার চাইতে বড় লক্ষ্য কিছু থাকতে পারে না।

আপনি সব পাবেন কিন্তু জীবনের লক্ষ্যে কখনই পৌঁছানো হবে না ঐ দার্শনিকতাটুকু না থাকলে। এটা ভিন্ন হতে পারে, কিন্তু থাকা চাই। অাসক্ত আবার নিরাসক্ত, উদাসীন আবার ভীষণ দায়িত্বশীল, চরিত্রবান আবার চরিত্রহীনও। গড়বড়ে লাগে, কিন্তু এসবই সত্য।

হত্যা হত্যাই, ধর্মীয় হলেও সেটি আড়ালেই করা উচিৎ


ঈশপকে মাঝে মাঝে বাজারে নিয়ে যাই। ও মুরগী দেখে বলে, “মুরগী কক কক করে ডাকে।” নেটে সার্চ দিয়ে মুরগীর ছবি দেখে। কোনোভাবেই আমি মানতে পারি না- যে মুরগিটিকে ও ভালোবেসে তার ডাক নকল করছে, সেটিকেই আবার কেটে খাবে!

অামি কখনো বলি না, এটা মুরগীর মাংস বা কিছু, বলি, মাংস খাও বা মাছ খাও। নাম বলি না। এটা তো সভ্যতার একটা সমস্যা যে আমাদের হত্যা করে বাঁচতে হয়। তবে সেটি শিশুদের সামনে কোনোভাবেই করা চলে না। ওদের সেটি বলা চলে না। চলে কি?

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

দীব্বেন্দু দীপ
দীব্বেন্দু দীপ এর ছবি
Online
Last seen: 1 ঘন্টা 57 min ago
Joined: সোমবার, মার্চ 20, 2017 - 11:34পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর