নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 9 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাফী শামস
  • দিন মজুর
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • গোলাম মোর্শেদ হিমু
  • আব্দুল্লাহ আল ফাহাদ
  • রুদ্রমঙ্গল
  • নুর নবী দুলাল
  • এফ ইউ শিমুল
  • জহিরুল ইসলাম

নতুন যাত্রী

  • অন্ধকারের শেষ প...
  • রিপন চাক
  • বোরহান মিয়া
  • গোলাম মোর্শেদ হিমু
  • নবীন পাঠক
  • রকিব রাজন
  • রুবেল হোসাইন
  • অলি জালেম
  • চিন্ময় ইবনে খালিদ
  • সুস্মিত আবদুল্লাহ

আপনি এখানে

রাকিব মামুন এর ব্লগ

পাকিস্তান ভেঙে আমরা মানুষ হতে পারিনি হয়েছি বাঙালী মুসলমান


মধ্যযুগ কে ইসলামের স্বর্ণযুগ বলায় আমি অভাগ হয়নি,অভাগ হওয়ারই বা কি আছে!

যেই ইসলাম শিশু বয়সেই ৭০ টি তাজা প্রাণের রক্তের মাঝে খোঁজে পায় বেঁচে থাকার ও বিকশিত হওয়ার অপূর্ব সাধ।

সেই শিশু ইসলাম শুধু রক্তই পান করেনি, বদর, ওহুদ,আহযাব যুদ্ধে, যুদ্ধ - লব্ধ সম্পদের অমৃতসাধও গ্রহণ করে।

পাশাপাশি শিশু-কিশোর, নর-নারীকে বন্দী করে, অফেন্সিভ আক্রমণ করে সারা আরববিশ্বে ইসলাম যে ত্রাসের সৃষ্টি করেছিল তাতে তো বলায় যায় মধ্যযুগটা ছিল ইসলামের স্বর্ণযুগ!

এতে অভাগ হওয়ার কিছু নেই কারণ ইতিহাস সব সময় বিজয়ীদের পক্ষেই লেখা হয়।

"যার পুড়ে তার জ্বলে না অন্যদের জ্বলে কেন!"


নিজেকে যিনি সর্বশ্রেষ্ঠ, সর্বশক্তিমান বলে জাহির করেন, যিনি নিজেকে এক বলে দাবী করেন, যিনি সমগ্র মহাজগতকে সৃষ্টি করেছেন বলে ঘোষণা দেন, যিনি সৃষ্টি করেছেন সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ।সৃষ্টি করেছেন জীন জাতিসহ সকল প্রজাতি।

"মায়ের শরীরে নাই বস্ত্র ছেলের কানে সোনার রিং"


যে দেশে হকারদের উচ্ছেদ করা হয় কিন্তু পুনর্বাসন করার ব্যবস্থা নেওয়া হয়না।
যে দেশে ভিক্ষুকের চিৎকারে আশেপাশের বাতাস পর্যন্ত ভারী হয়ে যায়। অথচ তাদের পুনর্বাসন করা হয় না।
যে দেশে হাজারো টুকাই (পথ শিশু) দারিদ্র্যতার যাঁতাকলে টিকতে না পেরে নিজেকে সুশিক্ষিত করার বদলে অন্ধকারে ঠেলে দেয়। কিন্তু তাদের মানুষ করার কোন ইচ্ছা আমাদের নেই।
যে দেশে রানা প্লাজার মত স্থাপনা ধসে পরলে মানুষ কে উদ্ধার করতে পারে না উন্নত সরঞ্জামের অভাবে।
যে দেশে জাতির সূর্য সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা দিনমজুর, রিক্সাচালক, ভিক্ষুক হয়ে দিনযাপন করে।

সে দেশে সাবমেরিন দিয়ে হবে কি?

জোকারি আর কত দিন?


থিওডর নোলদেকে। তিনি১৮৬০ খ্রিষ্টাব্দে Geschichte des Qorâns(কুরআনের ইতিহাস) নামীয় গ্রন্থে উল্লেখ করেন যে আরবি কুরআন শব্দটি সিরিয়াক ভাষায় ব্যবহৃত বিশেষ্য পদ qeryānâ(কেরিয়ানা) থেকে এসে থাকতে পারে।
সিরিয়াক ভাষার এই শব্দটি আবার সিরিয়াক ক্রিয়াপদ থেকে উৎপত্তি লাভ করেছে যার অর্থ পাঠ করা বা আবৃত্তি করা।নোলদেকের উদ্ধৃতি উল্লেখ করা যেতে পারে,

"পাঠ কর" -এর মতো একটি ক্রিয়াপদ প্রাক-সেমিটীয় হতে পারে না, আমরা ধারণা করতে পারি শব্দটি আরবিতে প্রবেশ করেছে, খুব সম্ভবত উত্তরাঞ্চলের কোনো ভাষা থেকে ... যেহেতু সিরিয়াক ভাষায় קּרא নামক ক্রিয়া এবং "কেরিয়ানা" নামীয় একটি বিশেষ্যও রয়েছে যার অর্থ ἀνάγνωσις (পাঠ করা) এবং ἀνάγνωσμα (ভাষণ) উভয়টিই হতে পারে, এবং উপর্যুক্ত সকল ধারণার কারণেই এই সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায় যে, কুরআন আরবি ভাষার নিজসৃষ্ট কোনো শব্দ নয় যার অর্থ একই রকম হতে পারে, বরং এটি সিরিয়াক ভাষা থেকে ধার করা শব্দ হতে পারে যা fulʻān ধরণ হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়ে থাকবে।

বোর্ডিং কার্ড

রাকিব মামুন
রাকিব মামুন এর ছবি
Offline
Last seen: 1 month 1 week ago
Joined: বুধবার, ফেব্রুয়ারী 15, 2017 - 5:08অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর