নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

অজন্তা দেব রায় এর ব্লগ

পিনাকী ভট্টাচার্য্য একজন ঘৃনাজীবী।


পিনাকী ভট্টাচার্য্য একজন ঘৃনাজীবী। তিনি খুব সুকৌশলে বাংলাদেশের ধর্মীয় সংখ্যাগুরু ধর্ম ভীরু মানুষের অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে তাদেরকে উস্কানো, বিদ্বেষ ছড়ানো এবং সহিংসতা সৃষ্টির কাজ করে চলেছেন বলেই আমার বিশ্বাস।

আমাদের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস কে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছেন , দেশের প্রগতিশীল মুক্তমনা তরুণদের বিরুদ্ধে মৌলবাদীদের প্রতিনিয়ত উস্কাচ্ছেন, উগ্র মৌলবাদী সংগঠনগুলোর এজেন্ডার পক্ষে লেখালেখি করছেন। সর্বোপরি দেশে একটা অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সৃষ্টি করার জন্যই বোধ করি তার প্রানান্ত চেষ্টা।

ধর্ষন রোধে চাই সামাজিক প্রতিরোধ।



ও - তে ওড়না শেখা ছেলেটাই মেয়েদের ওড়না ধরে টান মেরে বিকৃত আনন্দ পায়। 'মেয়েদের একা কোথাও যাওয়া ঠিক না' বা 'রাতে বাইরে বের হওয়া ঠিক না' এই ধ্যান ধারণায় বেড়ে ওঠা সমাজেই একা মেয়ে বাইরে বের হয়ে নিরাপদ বোধ করে না। হাজারো ধর্ষক চোখ তাকে তাড়া করে বেড়ায়। এই সমস্ত ধ্যান ধারণা থেকে সমাজ যতদিন বের হয়ে না আসবে , যতদিন পর্যন্ত সমাজে এই শিক্ষা দেয়া না হবে যে 'ছেলে আর মেয়েতে কোন তফাৎ নাই , যার যা ইচ্ছা কাপড় পড়ার , যেখানে যখন ইচ্ছা যাবার পূর্ণ ব্যক্তি স্বাধীনতা আছে' - ততদিন পর্যন্ত বিকৃত মানসিকতা নিয়ে বেড়ে ওঠা ছেলেদের চোখ মেয়েদের মুখের দিকে না গিয়ে বুকের ওড়নার দিকে যাবেই।

ধর্মীয় অনুভূতির ব্যবসা বন্ধ হোক।


একটা কথা আছে - নগর পুড়লে দেবালয় এড়ায় না। গতপরশু যে আগুন জ্বলেছে রাজীব-অভিজিৎ-অনন্ত-সামাদ দের ঘরে, গতকাল সে আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে হোলি আর্টিজান বেকারিতে আসা নিরপরাধ জীবনগুলো আর আজ সেই এক ই আগুনে জ্বলছে সিলেটের শিববাড়ি এলাকা। আগামীকাল , তার পরের দিন, তারো পরের দিন এই করতে করতে বাংলাদেশের প্রতিটি ঘর জ্বালিয়ে পুড়িয়ে ছারখার করার আগ পর্যন্ত এ আগুন নিভবে না যদি না আমরা সময় থাকতে আজ ই এই আগুন না নেভাই।

ধর্মে বিশ্বাসী মানুষ মাত্রই জঙ্গি মদদ দাতা / জঙ্গি নয়


যেকোনো সমাজ বা ধর্মের সংস্কার একদিনে হয় না। এটা একটা দীর্ঘমেয়াদি প্রসেস। আর আমার মতে এই প্রসেসে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন ইমরান এইচ সরকারের মত বিশ্বাসী রাই। দেশের বিশাল জনগোষ্ঠীর ধর্ম বিশ্বাসকে এক মুহূর্তে তুড়ি দিয়ে উড়িয়ে দিয়ে লাভের লাভ কিছুই হবে না বরং ঘৃণা বাড়বে, বিভেদ বাড়বে, সহিংসতা বাড়বে।

জিহাদি আদর্শের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে হবে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদেরকেই


বিশ্বব্যাপী 'ইসলামের' নামে নাশকতা চালানো জিহাদি জঙ্গিদের কারণে সামাজিক, রাজনৈতিক এবং বৈশ্বিক ভাবে বিব্রত ও হেয় হচ্ছেন লাখো - কোটি নিরপরাধ মুসলিমেরা যারা মনে প্রাণে বিশ্বাস করেন যে 'জঙ্গিবাদ / নিরপরাধ মানুষ হত্যা তাদের ধর্ম সমর্থন করে না। '
এই অবস্থার অবসান দরকার।

সাম্প্রদায়িক প্রেতাত্মা তুহিন মালিকের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারা নীরব কেন?


ফেসবুকের কোনো এক কোনায় কোথাকার কোন জেলে রসরাজ দাশের আইডি থেকে ভুয়া ধর্মীয় অবমাননামূলক পোস্টের কারণে তাকে বিনা বিচারে আড়াই মাস জেল খাটতে হয়, কোন ব্লগের কোথায় কি লেখার জন্য খুন হয়ে যেতে হয়, চাপাটি আর ৫৭ ধারার সম্মিলিত দৌড়ানি খেয়ে প্রাণ হাতে নিয়ে দেশ ছেড়ে পালতে হয় অথচ হাজার হাজার লাইক আর ফলোয়ার সমৃদ্ধ ফেইসবুক প্রোফাইল আর পেইজ থেকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়েও তুহিন মালিকেরা আইনের নজরে পরে না।

ফেইসবুক ব্যবহারে সতর্ক হউন।


রসরাজ দাসের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিন।

ঠিকমত ব্যবহার করা না শিখে ফেসবুকে একাউন্ট করে রেখে দিলে সেই একাউন্ট দিয়ে যে কেউ আপনাকে ফাঁসিয়ে দিতে পারে। ফেসবুকের প্রাইভেসি রেস্ট্রিক্টেড করে না রাখলে যে কারো পোস্টে আপনাকে ট্যাগ করলেই তা আপনার টাইম লাইনে দেখায়। অনেক সময় অনেকেই নানান রকম বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন, আবার ট্যাগ করা পোস্টের কারণে অনেকে বিপদেও পড়েন।

ফেইসবুক একাউন্ট ব্যবহারে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরি :

বোর্ডিং কার্ড

অজন্তা দেব রায়
অজন্তা দেব রায় এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 4 দিন ago
Joined: মঙ্গলবার, জানুয়ারী 17, 2017 - 9:35অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর