নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 7 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • পৃথু স্যন্যাল
  • রুদ্র মাহমুদ
  • সুষুপ্ত পাঠক
  • বেহুলার ভেলা
  • নিটোল আরন্যক
  • মো.ইমানুর রহমান
  • সুজন আরাফাত

নতুন যাত্রী

  • রমাকান্ত রায়
  • আবুল খায়ের
  • একজন সত্যিকার হিমু
  • চক্রবাক অভ্র
  • মিস্টার ইনকমপ্লেইট
  • নওসাদ
  • ফুয়াদ হাসান
  • নাসিম হোসেন
  • নেকো
  • সোহম কর

আপনি এখানে

শারমিন শামস্ এর ব্লগ

‘বিজাতীয়’ হিজাব নাকি আমাদের ‘নিজেদের’ শাড়ি!


পয়লা ফাল্গুনে হলুদে ছেয়ে গেছে চারধার। প্রায় সব মেয়ের পরনেই শাড়ি। হলুদ লাল কমলা বেগুনি গোলাপি সবুজ সাদা শাড়ি। রঙে রঙে ছেয়ে গেছে চারধার। কী সুন্দর। কী সুন্দর আমার দেশ। কী সুন্দর এই ঢাকার পথঘাট। আমি আবার প্রেমে পড়ে গেলাম ঢাকার, এই শহরের পথের, মানুষের, আমার সংস্কৃতির। আমার গায়ে হলদে শাড়ি, চুলে গাঁদা ফুল। আহা, নিজেকে কী নির্মল আর সুন্দর মনে হচ্ছে। ভীষণ আত্মবিশ্বাসী লাগছে। রাস্তা দিয়ে যেতে যেতে দুই চোখ মেলে দিয়ে রাখলাম। চারিদিকে শাড়ি আর পাঞ্জাবী। এই তো আমার বাংলাদেশ। এই তো আমরা, বাঙালি। আমি মনে মনে সুখি হয়ে উঠি। আর নানারকম ভাবনা দানা বেঁধে উঠতে থাকে মনের ভিতরে। এই যে এত এত শাড়ি পাঞ্জাবি, আমরা যদি এই ঐতিহ্যটাকে ধরে রাখতে পারতাম! আজ যে পরিমান আর রকমের হিজাবে দেশটা ছেয়ে যেতে শুরু করেছে, তার বদলে যদি শাড়িতে আর পাঞ্জাবিতে আমরা ভরিয়ে ফেলতে পারতাম আমার দেশটাকে। যদি ভিনদেশি হিজাব নয়, আমাদের নিজেদের শাড়িকে অধিকাংশ দিনের পোশাক করে ফেলতে পারতো এদেশের মেয়েরা তাহলে হয়তো সংস্কৃতির একটা জায়গা শক্ত হাতে ধরে রাখা সম্ভব হত।

"তোমারেই ক্যান বলে?"


বাঙালি কইন্যাদের মধ্যে এমন কেউ নাই যে একটা বাক্য জীবনে শুনেন নাই। বাক্যটা হইলো: 'তোমারেই ক্যান বলে?'

এই বাক্যরে যা তা যেমন তেমন বাক্য ভাবিবেন না। এই বাক্যের শক্তি ও ত্যাজ ম্যালা। এই বাক্যের ক্ষমতা এমনই যে বাক্যের নিপীড়নে বহু মেয়ে আত্মহত্যা পর্যন্ত করে। আমি আমার এই জীবনে আপন পর, বন্ধু শত্রু- বহু মানুষের কাছ থেকে এই বাক্য শুনিয়া শুনিয়া বড় হইয়াছি। এখনও এই বুড়াকালে শুনতে হয়- তোমারেই ক্যান বলে?

নিষিদ্ধ শ্রাবণ: নিকষ আঁধার যুগের শেষ সংকেত!


কাল দুপুরে ফেসবুকে অলস চোখ বুলাচ্ছি। হঠাৎ রবিন আহসানের স্ট্যাটাস চোখে পড়লো। আগামি দুই বছরের জন্য একুশে বইমেলায় শ্রাবণ প্রকাশনীকে নিষিদ্ধ করেছে বাংলা একাডেমির বইমেলা সংক্রান্ত কমিটি। রীতিমত বজ্রপাতের মত একটা খবর। যদিও এই দেশে বজ্রপাত এত বেশি হয় যে, জনগনের ঘাড়ে দীর্ঘদিন কোন বজ্র পতিত না হলেই, আমাদেরই কেমন আইঢাই লাগতে থাকে!

অর্ধেক নারীবাদ- পুরষতন্ত্রের গিফট!


যেকোন জিনিস আধাআধি অত্যন্ত খারাপ। নারীবাদের ব্যাপারে সেটা আরো খারাপ। অর্ধেক নারীবাদী যারা, তারাই নারীবাদের মূল শত্রু। দুঃখজনক হলো, আমার চারপাশের অধিকাংশ নারীই অর্ধেক নারীবাদী। তেনারা ঘরেরটা খান, পরেরটা পরেন, পুরুষতন্ত্রের পানি পান এবং তাদের মুখেই ঝাল খান, কিন্তু খুব যত্ন করে নারীবাদের একটা মুখোশ মুখমণ্ডলে আটকায়ে রাখেন। যেন সকলেই তাকে যথেষ্ট আধুনিক, প্রগতিশীল ও উচ্চমনা বলে ভাবতে পারে। ঘটনা হলো, এরা জানেই না যে এরা নারীবাদকেই জানে না। এরা মনের ভিতর থেকে নিজের নারী অস্তিত্বের বাইরে বাইর হইতে পারে না। এরা একটু ঘরের বাইরে যাইতে পারলেই পুরুষরে ধন্য ধন্য করেন আর বলেন, 'ও না আমাকে

Facebook comments

বোর্ডিং কার্ড

শারমিন শামস্
শারমিন শামস্ এর ছবি
Offline
Last seen: 4 দিন 10 ঘন্টা ago
Joined: মঙ্গলবার, ডিসেম্বর 13, 2016 - 7:55অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর