নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • কান্ডারী হুশিয়ার
  • দীপ্ত সুন্দ অসুর
  • দীব্বেন্দু দীপ
  • আলমগীর কবির
  • গোলাম সারওয়ার

নতুন যাত্রী

  • সুক্ন্ত মিত্র
  • কাজী আহসান
  • তা ন ভী র .
  • কেএম শাওন
  • নুসরাত প্রিয়া
  • তথাগত
  • জুনায়েদ সিদ্দিক...
  • হান্টার দীপ
  • সাধু বাবা
  • বেকার_মানুষ

আপনি এখানে

রুদ্র মাহমুদ এর ব্লগ

মা, আমায় ক্ষমা করো!


বাবার হাতে মা নির্যাতিত হচ্ছে। প্রতিদিন, প্রতি রাতে। কোন না কোন কারণে বাবা সন্তানের চোখের সামনে মা'কে মারছে। সন্তানের বয়স তখন কত? ৮/১০ বছর বয়স। এই কচি বয়সে একটা ভয়ার্ত রূপ, বাবাকে সে দেখছে ভয়ে চুপসে যাওয়া তার মা'কে। প্রতিদিন, প্রতি রাতে তার মা ভয়ে চুপসে যায়। অথচ তার বাবা! ভয়ংকর সব অপরাধ করেও দানবের মত হুংকার ছেড়ে (শুওরের বাচ্চা, কুত্তার বাচ্চা) পিটাচ্ছে, থাপড়াচ্ছে কখনও বা চুল ধরে ধাক্কা কিংবা লাথি দিয়ে মাটিতে ফেলে দিচ্ছে।
সন্তানটি দেখে যাচ্ছে। চোখ বন্ধ করে রাখছে, যাতে দেখতে না হয় পিতার ভয়ংকর রূপ না দেখতে হয় মাতার ভয়ে চুপসে যাওয়া মুখ।

ঘুষ দেয়া-নেয়া অপরাধ; রম্য নাটক মঞ্চস্থ হলো নারায়ণগঞ্জে।


"

ঘুষ দেয়া ও নেয়া উভয়ই সমান অপরাধ" বিজ্ঞাপনে দেখে থাকি, ঘুষ দিলে ও নিলে পুলিশ উভয়কেই গ্রেফতার করে। কেননা উভয়ই সমান অপরাধে অপরাধী। কিন্তু আমার বিবেচনায় যে ঘুষ দেয় সে সব চেয়ে বড় অপরাধী। কেননা যে ঘুষ দিলো সে যদি ঘুষ না দিয়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতো তবে ঘুষ যে নিলো সে নেয়ার কোন সুযোগ পেতো না। বরং আপনি প্রতিবাদ না করে ঘুষ দিয়ে তাকে উৎসাহী করলেন। সুতরাং যে ঘুষ নিলো তার থেকে যে ঘুষ দিলো সে বেশি অপরাধী।

সাঈদীর ফাঁসি চেয়ে ছাত্র-জনতার সমাবেশ


যুদ্ধাপরাধী দেলোয়ার হোসাই সাঈদীর আমৃত্যু কারাদণ্ড রায় প্রত্যাখান করে, তাঁর সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি দাবি করে ১৯ মে গতকাল শাহবাগে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে প্রগতিশীল ছাত্রসমাজ ।

১৯ মে, শুক্রবার বিকেল পাঁচটায় (৫.০০) শুরু হয় এই সমাবেশটি চলে রাত আট (৮.০০) পর্যন্ত । সবাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠনের বক্তরা ।

ধর্ষণ প্রতিরোধে সমাজ ও পরিবারকে-ই দায়িত্ব নিতে হবে।


ধর্ষণের পর আমরা যতটা না ধর্ষককে অপরাধী করি তার চেয়ে দশগুন অপরাধী করি ধর্ষিতাকে। মেয়েটা উল্টাপাল্টা পোষাক পরেছিলো হয়তো। না হলে ছেলেটা বা ছেলেগুলো কেন-ই বা.....?

দেশটা রসাতলে গেল। মেয়েরা কি সব পোষাক পরে। তা দেখলে কি কোন ছেলের মাথা ঠিক থাকে?

ধর্ষণের ঘটনায় আপনি মেয়েটিকে অপরাধী করবেন, মেয়েটির পোষাক নিয়ে প্রশ্ন তুলবেন তখন যখন আপনি পুরুষত্ব দ্বারা নিয়ন্ত্রিত এবং পোষাকহীন আপনার মস্তিস্ক।

লিঙ্গ বৈষম্য; নারী মুক্তির পথে প্রধান অন্তরায়।


লিঙ্গ বৈষম্য তৈরীর আঁতুর ঘর পরিবার। পরিবারই শেখায় তুমি মেয়ে, তুমি ছেলে। তুমি এই পোষাক পরবে তাহলে মেয়েদের মত দেখাবে, আর তুমি এই পোষাক পরবে তাহলে ছেলেদের মত দেখাবে। দিনের আলো পরতে পরতে তুমি ঘরে চলে আসবে কারণ মেয়েদের রাত অবদি বাইরে থাকা উচিত নয়, আর ছেলে রাত দশটায় আসলেও সমস্যা নেই।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

রুদ্র মাহমুদ
রুদ্র মাহমুদ এর ছবি
Offline
Last seen: 2 weeks 2 দিন ago
Joined: মঙ্গলবার, নভেম্বর 29, 2016 - 1:57অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর