নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • মাহের ইসলাম
  • মৃত কালপুরুষ

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ব্লগ

শেখ মুজিবের হত্যাকারী কারা : ৩


বোস্টারের ধারণা করেছিলেন রাষ্ট্রদূত হিসেবে তার কর্তৃত্বের পাশ কাটিয়ে ঘটনাটি ঘটানো হয়েছে। যে লোকগুলোর সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশ দিয়েছিলেন তারাই অভ্যুত্থানের দৃশ্যপটে দেখা দেয় এবং ক্ষমতা গ্রহণের ঘোষণা দেয়। এটা বোস্টারকে মনে করতে বাধ্য করে যে, এটি একটি সরল কাকতালীয় ঘটনা নয়, তার চেয়েও বেশি কিছু। বোস্টারকে লিফশুলজরা প্রশ্ন করেছিল: তার অগোচরে ফিলিপ চেরি কিংবা সিআইএ স্টাফরা শেখ মুজিবকে অপসারণের ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছিলেন কি না। বোস্টার বলেছিলেন: "বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বাইরে গিয়ে তাত্ত্বিকভাবে আমি প্রশ্নটির জবাব দিতে চাই। আমি বলব, না স্টেশন চিফ এ ধরনের কোনো কাজ করেন নি, তবে একজন আমেরিকান হিসেবে আরেকজন আমেরিকানকে বলব, যোগাযোগটা ছিল। আসলে অনেক ফাঁকফোকর ছিল। স্টেশন চিফের দায়িত্ব হচ্ছে তার সব কর্মকাণ্ড বা যোগাযোগের ব্যাপারে আমাদের জানানো। রাষ্ট্রদূতের অনুমোদনবহির্ভূত কোনো যোগাযোগ চেরি বাইরের কারও সঙ্গে রাখেন নি এ গ্যারান্টি আমি দিতে পারি না।" বোস্টার ‘রাষ্ট্রদূত’ বলতে নিজেকেই বুঝিয়েছেন। বোস্টার নিশ্চিত ছিলেন যে, যোগাযোগ অব্যাহত ছিল এবং অভ্যুত্থানটি যারা করেছে, তারা ভেবেছিল মুজিব চলে গেলেই যুক্তরাষ্ট্র তাদের গ্রহণ করবে ও তারা সফল হলে যুক্তরাষ্ট্র তাদের স্বীকৃতি দেবে।

শেখ মুজিবের হত্যাকারী কারা : ২


১২. অভ্যুত্থানের পৃষ্ঠপোষক ও নিজেদের বন্ধুদের কাজে তিতি-বিরক্ত হয়ে এই জুনিয়র অফিসারদের অধিকাংশ ব্যাংকক এবং অন্যত্র সাংবাদিকদের কাছে সাক্ষাৎকার দিয়ে মুখ খুলতে শুরু করে। অভ্যুত্থানের আগে মোশতাক ও তার সহযোগীদের সঙ্গে বৈঠকের কথা তারা নিশ্চিত বলে। তখন এ কাহিনী বেরিয়ে আসে যে, মুজিবকে হত্যা ও ক্ষমতাচ্যুত করার এক বছর আগে থেকেই মোশতাক ও তার রাজনৈতিক মিত্ররা বেশ কয়েক দফা গোপন বৈঠক পরিকল্পনা করেছিল।

আয়নায় শেখ মুজিব (শেষ পর্ব) :


শেক্সপীয়ারের বিখ্যাত উক্তি: ‘গলদ আমাদের চরিত্রের মধ্যে, গ্রহ-নক্ষত্র সে জন্যে দায়ী নয়।’ মানুষ জীবন দিয়েই তো সবকিছু করে। তার কোনও কর্মই জীবন থেকে আলাদা বা বিচ্ছিন্ন নয়। শেখ মুজিবের পোশাকি জীবন এবং তাঁর রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের খতিয়ান হয়ত পাওয়া যাবে, কিন্তু ব্যক্তি মুজিবকে সেখানে থেকে খুঁজে বের করা অনেকটা খড়ের গাদায় সুঁচের খোজ করার মত! শেখ সাহেবের রাজনৈতিক জীবনের সূচনা কলকাতা শহরে। ফরিদপুরের গোপালগঞ্জ থেকে ত্রিশের দশকের একেবারে শেষ আর চল্লিশের দশকের শুরুর দিকে তিনি ইসলামিয়া কলেজের ছাত্র। তখন অবিভক্ত বাংলায় শেরে বাংলা এ.

আয়নায় শেখ মুজিব ২:


ধর্মভিত্তিক জাতীয়তার শেকড় উপড়ে ফেলে দশ কোটি মানুষের সামনে এক নতুন রাজনৈতিক বাস্তবতা ফুটে উঠলো, যাকে অবশ্যই একপ্রকার বাঙালি জাতীয়তাবাদ বলা যায়। মুসলিম জাতীয়তার শেকল ভেঙে বাংলাদেশে যখন নতুন জাতীয় সংগ্রাম দাবানলের মতো জ্বলে উঠছে তখন ভারতের ক্ষমতায় থাকা শাসকদলের অনেকেই বাংলাদেশের এই জাতীয় মুক্তিসংগ্রামকে ১৯৪৭ এর দ্বিজাতিতত্ত্বের ভুল সংশোধন হিসাবে দেখেছিলো এবং এই চিন্তাধারা আওয়ামি লিগের রাজনীতিকে প্রভাবিত করেছিল। মুজিবের ভক্তরা তাঁকে ‘বঙ্গবন্ধু’ আখ্যা দিলো, নতুন ধরনের মুজিব কোট, মুজিব টুপি চালু করলো । 'বঙ্গবন্ধু 'কোথায় যেন অচিরেই 'দেশবন্ধু' হয়ে পরলো । মুজিব কোটের সঙ্গে নেহরু জ্যাকেট এবং মুজিব টু

আয়নায় শেখ মুজিব ১ :


আচ্ছা, শেখ মুজিব কি বাঙালির কাছে একজন মহান শহিদ? যিনি সপরিবারে ঘৃণ্য গুপ্তঘাতকের হাতে প্রাণ হারিয়েছেন না কি শেখ মুজিব ইতিহাসের সেসব ঘৃণিত ভিলেনদের একজন, যারা জনগণকে মুক্তি এবং স্বাধীনতার নামে জাগায় বটে, কিন্তু সামনে যাওয়ার নাম করে পেছনের দিকে যায়? মৃতদেহ ঢাকা পড়ে রইলো রাজপথে অথচ শোকের কান্নায় চারপাশ প্লাবিত হলো না, বিদ্রোহ-বিক্ষোভের ঢেউ আছড়ে পরলো না!

বঙ্গবন্ধুকে কয়েকটা প্রশ্ন


একটা কথা নির্দ্বিধায় স্বীকার করতে হয় যে বঙ্গবন্ধু সম্পূর্ণভাবে একজন রাজনৈতিক হিরো। তার ক্ষমতা ছিল এক ডাকে সারা দেশের মানুষকে এক জায়গায় জড়ো করার। স্বাধীন হবার জন্য পূর্ব-পাকিস্তানের বাঙালির একজন নেতার প্রয়োজন ছিল, বঙ্গবন্ধু সেই জায়গাটা নিয়েছিল। বাঙ্গালির নানা মত, নানা দল নির্বিশেষে এক করাটা কোনো ছোট প্রয়াস নয়!

অস্থির সময়ের গল্প: নকশালবাড়ি ৬:


কিছু দিনের মধ্যেই নকশাল আন্দোলন সমাজের সাধারণ স্তরে একটা ভীতির বাতাবহ তৈরী করেছিল যার ফলে আপত্তিকর অবস্থায় পরে সরকার। তৎকালীন মূখ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ সংকর রায় তখন নকশাল দমনে একাত্ম প্রাণ! কিন্তু এর কারণ কি? পাঠক কখনো ভেবেছেন? আমি এর আগের ভাগেই শ্রেণী শত্রু ও শ্রেণী সংগ্রাম এই দুটোর উল্লেখ করেছিলাম| আজ সেইখান থেকেই ধরছি| জমিদার শ্রেনীর কৃষকের প্রতি অবিচারের বিরুদ্ধে যখন কৃষক বিদ্রোহ করে তখন সেটা একটা শ্রেণী সংগ্রামের রূপ নেয়। জমিদার তখন অবশ্যই এক শ্রেণী শত্রু!

অস্থির সময়ের গল্প: নকশালবাড়ি ৫:


নকশাল আন্দোলনকে রুশ কিংবা চীনা বিপ্লবের পাশে রাখা যায় না, কিন্তু এই উপমহাদেশের সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে এই আন্দোলনটা বেশ প্রভাবশালী । মধ্যবিত্ত ও উচ্চমধ্যবিত্ত ছাত্র-যুবা স্টাইলিস্ট পোষাক ফেলে মার্ক্স, লেনিন আর মাও সে তুং এর একগাদা বই কাছে টেনে নেবে, ব্যাপারটা একটু হলেও আজকের জনমানসে খটকা লাগায় !

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

রাজর্ষি ব্যনার্জী
রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ছবি
Online
Last seen: 47 min 23 sec ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 1:03অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর