নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

শিডিউল

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • অভিজিৎ
  • মূর্খ চাষা
  • দ্বিতীয়নাম

নতুন যাত্রী

  • রোহিত
  • আকাশ লীনা
  • আশরাফ হোসেন
  • হিলম্যান
  • সরদার জিয়াউদ্দিন
  • অনুপম অমি
  • নভো নীল
  • মুমিন
  • মোঃ সোহেল রানা
  • উথোয়াই মারমা জয়

আপনি এখানে

আমি অথবা অন্য কেউ এর ব্লগ

নারীবাদ ও নারী অধিকারঃ স্বরুপ ও বাস্তবতা-সংশ্লিষ্ট প্রাসঙ্গিক আলোচনা



নারী অধিকার মানবাধিকারের বাইরের কিছু নয়। নারীবাদ মানে এমনকিছু হওয়া উচিত নয় যা থেকে আমরা বুঝব, সেটা হচ্ছে পুরুষ হটিয়ে কর্তৃত্ব দখল করা। নারী অধিকার মানে এমনকিছু হওয়া নয় যার মাধ্যমে পরিবারের প্রধান হবে একজন নারী, রাষ্ট্রের মাথায় বসবে একজন নারী কিংবা নারীরা তাদের সন্তানদের ব্রেস্টফিডিং বন্ধ করে দিয়ে পুরুষ সঙ্গীকে ফিডার হাতে বসিয়ে সন্তানকে লালনপালনে বাধ্য করবে। পৃথিবীর প্রতিটা মানুষের অধিকার সমান, নারী হোক আর পুরুষ। সবচেয়ে ভালো পদে চাকরী সেই পাক যে সেই পদের জন্য বেশি যোগ্য। পৃথিবীতে মানবজাতি আরও কোটি বছরের বিবর্তন পার করলেও সন্তান লালনের জন্য আদর্শ হিসেবে মায়ের বিকল্প তৈরি হবে না।

সভ্য মানুষদের শোষণ ও স্বার্থের আদর্শ শিকারঃ ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অফ কঙ্গো



ধরেন, কোনো একটা দেশের আয়তন বাংলাদেশের আয়তনের ১৫ গুণ বেশি, জনসংখ্যা অর্ধেকেরও কম। আবার সেইদেশের আবহাওয়া ভালো, মাটি উর্বর। বনজ সম্পদ, প্রবাহমান নদী এবং অঢেল খনিজ সম্পদে ভরপুর সেই দেশ। সেইদেশের মাথাপিছু আয় কি আমাদের দেশের তিনভাগের একভাগ হবার কথা? মাথাপিছু আয় দিয়ে কোনো অঞ্চলের মানুষের জীবনধারণের মান বোঝা যায়। তবে কোনো হিসেব নিকেশেই এত সম্পদ, অনুকূল পরিস্থিতি থাকবার পরেও সেইদেশের মানুষের জীবনযাত্রার মানের এমন অবস্থার ব্যাখ্যা মাথায় ঢুকবার কথা নয়।

ইরাকী কুর্দিদের রেফারেন্ডামঃ নতুন মানবিক বিপর্যয় দেখবে মধ্যপ্রাচ্য?


কু্দিস্তানে মনে হয় যুদ্ধ না হলেও আবার একটা বড় ক্রাইসিস হবে। এদের হাজার হাজার বছরের ইতিহাসে বিদ্রোহের পর বিদ্রোহ ছাড়া আর কিছু নাই, এরা বিদ্রোহী জাতি। মধ্যপ্রাচ্যের ডি-কলোনিয়ালাইজেশনের সময় ব্রিটেন যে কেন এদের আলাদা দেশ না দিয়ে কুর্দিদের অঞ্চলগুলো ইরান, ইরাক আর তুরস্কের মধ্যে টুকরা করে দিয়ে গেছিল কে জানে। বর্তমানে যারা সুপার পাওয়ার, এদের সবগুলোই ইতিহাসে একেকটা কালপ্রিট। সভ্যতার নামে অনাচার, অবিচারের যা নজির এরা স্থাপন অরে গেছে তার তুলনা নাই, সুপরিকল্পিত সিস্টেমেটিক ওয়েতে।

নিজের জন্য নোট - ১ (ডায়েরি এবং প্রেম)



সেই অপরিণত বয়সেই অনেকবার মনে করেছি বলা যায়, তোকে আমার পছন্দ। ভাবতাম বলি, আমার তোকে পছন্দ কিন্তু চুমু খাওয়া যাবে না, চুমু খেলে বাচ্চা হয়। সন্তান কিভাবে হয় এটা প্রথম জানি সম্ভবত ক্লাস সেভেনের পর। কিন্তু অল্প কয়বছর পর চলে যায় কল্যাণপুর। আমি ক্লাস এইট কিংবা নাইন পর্যন্ত ডায়েরীতে মাঝে মাঝেই ওর কথা লিখতাম, সেগুলোও পড়ছিলাম কিছুদিন আগে। আমার শ্যামা মেয়েতে অবসেশন শুরু মনে হয় তখন থেকে। আফসোস, জীবনে এরপর আরও কতবার প্রেমে পড়লাম, প্রেমে পড়ে হাত-পা ভাঙলাম, আহত নিহত হইলাম, কিন্তু শ্যামা মেয়ের সাথে খাপে খাপ হইল না কখনো।

চাহিদার লিস্টে প্রাপ্তিতে কিছু শূন্যতা থাকুক মানুষের



জীবনে সবাই অনেককিছু পাইতে চায়। কিন্তু সব পাওয়া তো ভাল না। যেমন চলতে গিয়ে আঘাত পাওয়া, রোজার সময় রোজাদারদের ঘুম ভাঙার পর আবার ঘুম পাওয়া হেতু সেহরী করতে না পারবার কারণে সকাল সকালই পিপাসা পাওয়া। অথবা আপনি যারে মনে মনে লাইকান, আচমকা বজ্রপাতের মত তার বিয়ের ইনভাইটেশন কার্ড পাওয়া।

ফোর জি সেবা যেন নামেমাত্র না হয়



আমি ফোরজি নেটওয়ার্কে ডাটা ইউজ করতে থ্রিজির থেকে দশগুণ স্পিড চাই না। লাইসেন্স দেরীতে হলেও দিচ্ছে, বা এইদেশে সব ভাল দেরিতে হয় সেটাও মানা গেল। কিন্তু ভাল হবে নাম দিয়ে আসবার পর মোবাইলে ইউটিউব ভিডিও চালাইলে আমার মোবাইল স্কিনে যেন গোল্লা চাক্কা ঘুরতে না থাকে অনির্দিষ্ট সময়ব্যাপী।

অসীম ক্ষমতাধর মানবপ্রজাতি, বন্যাপীড়িত দরিদ্র বাংলাদেশ ও দূর্ভাগা রোহিংগা জাতি



নরমাল সময়ে মায়ানমার এতবার দেশের আকাশসীমা লংঘন করলে হয়ত উত্তেজনা ব্যাপক বাড়ত বা প্রতিক্রিয়া ভিন্ন দিকে যেতে পারত। এইসময়ে আরও করলেও যাবে না। কারণ, মায়ানমার বিশ্বের নজর অন্যদিকেও নিতে চায়, এসব হয়ত তারই উস্কানী। সরকার তাই আমার মতে সতর্ক প্রতিক্রিয়াই দেখাচ্ছে। কূটনীতি কী বয়ে আনবে কে জানে, ভালকিছুর সম্ভাবনা কম। আমি যেখান থেকে দেখি একজন সাধারণ আগ্রহী মানুষ হিসেবে, সেখান থেকে তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যত দেখি না, মানবিক ভবিষ্যত না তাদের অধিকাংশের জন্য। মানুষ হিসেবে আমাদের ক্ষমতা অসীম যদি পৃথিবীর সকল মানুষ মানবিক, যৌক্তিক, আদর্শ আচরণ করত। কিন্তু মানুষ উন্নত বুদ্ধিমত্তার হলেও নিজের প্রজাতির উপর জেনেবুঝে ইচ্ছাকৃত ক্ষতি একমাত্র মানুষই করতে পারে। কিছু মানুষ যদিও নিজের ভাগ্য নিজেই গড়ে নেয়। এই রোহিংগারা আমাদের দেশের জন্য ছোটখাট দূর্যোগ বয়ে নিয়ে আসবে, সম্ভবত তাদের জীবনেও অপেক্ষা করছে দীর্ঘকালীন দূর্যোগ, দূর্ভোগ।

কবিতাঃ বুকে লোম নাই আমার!


আমাকে অবিশ্বাস করো, বুকে লোম নাই আমার!

মংডু শহরে যেই প্রতিবেশী ছিল তার গায়ের রঙ হলুদ!
অগ্নিকে সে কেবল উনুনেই দেখেছে, গায়ে মাখে নাই,
গুলির শব্দ শুনেছে অজস্র, গুলি বিঁধে নাই তার গায়ে;
আমি তার নোবেলজয়ী অন্ধ মাকে কীভাবে বোঝাই-
আগুনে শরীর কেমন জ্বলে, কতটা বিঁধে তপ্ত সীসা?

ত্বক পুড়ে কালো, আমাকে ঘৃণা করো, মানুষ নাই আমি!
আমাকে ভয় করো, আগুনে পুড়েছে আমার সমস্ত বুক!

আমার জানা, এই দগ্ধ বুকে একটা লোমও নাই এখন!
খুবলে দ্যাখো তোমাদেরও মানবতার মানসকন্যা মাতার বুক,
দ্যাখো সেখানে কত লোম, বোঝো গরিলা তিনি; না হাঙর মাছ...

বাংলাদেশ - মায়ানমার সামরিক সংঘাতের সম্ভাবনা ও রোহিংগা ইস্যু প্রসঙ্গে


বাংলাদেশ - মায়ানমারের সম্ভ্যাব্য সামরিক সংঘাত নিয়ে দেশের জনতার একাংশ ব্যাপক উৎসাহী। যুদ্ধ কিংবা সামরিক সংঘাতের আশংকা না থাকলেও পারলে নিজেরা গিয়ে লাগিয়ে দেন এমন উৎসাহ তাদের। জংগী বিমান, নোউবাহিনীর জাহাজ সহ নানা সামরিক সরঞ্জাম সেখানে পাঠানো হচ্ছে এমন গুজব ছড়িয়ে পড়ছে দেখলাম। আরও দেখলাম তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ৭ টি নোউবহর পাঠাচ্ছেন। উনি এর আগেও পাঠিয়েছিলেন যা এখনো পৌঁছায়নি। এবারেরগুলাও পৌঁছাবে না। যাক সে কথা, কথা হচ্ছে বাংলাদেশ মায়ানমার যুদ্ধের কোন সম্ভাবনা কি সত্যিই আছে? আমার তো মনে হয় নেই, যৌক্তিক কারণেই নেই। এবং এই দুই দেশের মধ্যে কোনরুপ যুদ্ধে কারো পক্ষেই কারো বিরুদ্ধে জেতা সম্ভব নয় তা দুইদেশের সামরিক নীতিনির্ধারকেরাই জানেন। দুই দেশের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় বিমান হামলা চালানো এবং বন্দর অকেজো করে দেয়া ছাড়া সামান্য ভূমি দখলও একে অন্যের বিপক্ষে সম্ভব নয়।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

আমি অথবা অন্য কেউ
আমি অথবা অন্য কেউ এর ছবি
Offline
Last seen: 20 ঘন্টা 27 min ago
Joined: শুক্রবার, জুন 17, 2016 - 12:11অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর