নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • হাসান নাজমুল
  • শ্রীঅভিজিৎ দাস
  • মুফতি বিশ্বাস মন্ডল
  • নিরব
  • সুব্রত শুভ

নতুন যাত্রী

  • নিনজা
  • মোঃ মোফাজ্জল হোসেন
  • আমজনতা আমজনতা
  • কুমকুম কুল
  • কথা নীল
  • নীল পত্র
  • দুর্জয় দাশ গুপ্ত
  • ফিরোজ মাহমুদ
  • মানিরুজ্জামান
  • সুবর্না ব্যানার্জী

আপনি এখানে

কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ এর ব্লগ

শোক দিবসের ভোজন উৎসব এবং আওয়ামীলীগে মুস্তাকপন্থীদের দ্বৈরথ


গতকাল দেশব্যাপী মহাসমারোহে জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে! ‘মহাসমারোহ' শব্দটি ব্যবহারের জন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। কিন্তু জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে দেশব্যাপী আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীরা যেভাবে ভোজনে মেতেছে, তাতে মহাসমারোহ শব্দটার বিকল্প খুঁজে পাইনি। শোক দিবসটাও এখন লীগারদের কাছে একটা উৎসব, ভোজন বিলাসের উৎসব! সফেদ পাঞ্জাবী, মুজিব কোট আর কালোব্যাজ পড়ে শোক প্রকাশের যে বাহ্যিক রুপ দেখানোর হিড়িক পড়ে, আমার কাছে সেটা কে ‘ভোজন উৎসবের জন্য বেশ ধারন করা’ বলে মনে হয়! শোক দিবসকে উপলক্ষ্য করে যারা এমন মাতম করতে পারে, যারা শোক দিবসের খাবারের ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে মারামারিতে লিপ্ত হতে পারে, তারা কোন পক্ষের আওয়ামীলীগ?

পক্ষে গেলে মানি, পক্ষে না গেলে চুতমারানিঃ প্রসঙ্গ সংবিধানের সংশোধনী


আওয়ামীলীগের নেতারা মনে হয় এটা ভুলে গেছে যে, সংসদ কেবল সংবিধান প্রণয়ন করতে পারে, সংবিধানের সংরক্ষণের দায়িত্ব সংসদের নয়, আদালতের। আদালত হচ্ছে সংবিধানের হেফাজতকারী।

সংসদে কিছু অরাজনৈতিক ব্যবসায়ীক লোক জনপ্রতিনিধিরূপে ঘাপটি মেরা বসেছে, যাদের রাজনৈতিক জ্ঞান নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। যাদের কাজ হচ্ছে প্রভুভক্ত প্রাণীর মতো মনিবের নির্দেশ পালন করা। এই জনপ্রতিনিধিরা(!) সংসদে নিজের দলের আনীত বিলের উপর বিরোধী মত প্রকাশে অক্ষম! তাই দুই - তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে, এই প্রাণীগুলোকে ব্যবহার করে যে কোন সরকারই সংবিধানে পরিবর্তন আনতে পারে।

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে আইনমন্ত্রীর বক্তব্য ও আমার কিছু প্রশ্ন


সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পূর্ণাঙ্গ রায়ে প্রধান বিচারপতি বলেছেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা কোন একক ব্যক্তির কারণে হয়নি।
আমাদের আইনমন্ত্রী মশায় প্রধান বিচারপতির এই বক্তব্যে মর্মাহত হয়েছেন। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেছেন, ১৯৪৮ থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভ করা পর্যন্ত যত আন্দোলন হয়েছে, সবগুলো বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে হয়েছে। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের কারাগারে থাকলেও, তার নেতৃত্বে এবং তার আদর্শেই যুদ্ধ পরিচালিত হয়েছে।

বিশ্বজিৎ দাস হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায়ঃ বিচার না খেলা?


গতকাল উচ্চ আদালত বহুল আলোচিত বিশ্বজিৎ দাস হত্যাকান্ডের রায় ঘোষনা করেন। এই রায়ে দেশের বেশিরভাগ মানুষের মতো আমিও হতাশ এবং সংক্ষুব্ধ। এই রায়ে নিম্ন আদালতে ফাঁসির দন্ড পাওয়া ৮ আসামির মধ্যে দুজনের ফাঁসির দন্ড বহাল রাখা হয়। ফাঁসির দন্ড পাওয়া বাকি আসামিদের মধ্যে চারজনের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং অপর দুই আসামিকে খালাস দেয়া হয়! নিম্ন আদালতে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রাপ্ত ১৩ জনের মধ্যে যে দুজন আপিল করেছিলেন, উচ্চ আদালত তাদের খালাস প্রদান করেছে!

বাংলাদেশের কবিরা কবি হয়ে উঠুক


হুমায়ুন আজাদ স্যারের একটা প্রবচন আছে, কবিতা এখন দু-রকমঃ দালালী ও গালাগালি। দেশের বর্তমান অবস্থা দেখে তার কথা পুরোপুরি সত্য বলে মনে হচ্ছে। শুধু কবিতা নয়, শিল্প সাহিত্যের প্রতিটি স্তরেই আমাদের অবনমন ঘটছে!

একজন ধর্ষিতা ন্যায় বিচার পাবে কার কাছে?


সমাজের ভয়ে ধর্ষিতার পরিবার অনেক সময়েই ধর্ষণের বিচার দাবি করেন না। সমাজপতিরা অনেকসময় ভয় দেখিয়ে কিংবা কিছু টাকা হাতে গুজে দিয়েই ধর্ষিতার পরিবারকে দমিয়ে রাখে। একজন নারী ধর্ষিতা হয়েছে, এটা জানা জানি হলে এই সমাজে খুব কম লোকই আছে যারা সেই নারীকে বিয়ে করার সাহস দেখায়। অথচ একজন ধর্ষকের জন্য বিয়েশাদি করতে কোন সমস্যাই হয় না। 'পুরুষ মানুষ বয়সকালে দুই চারটে অমন কাজ করেই' বলে ধর্ষণকে জায়েজ করার প্রবণতা সমাজে লক্ষ্যনীয়।

প্রসঙ্গঃ নোয়াখালি বিভাগের দাবি ও মানুষের হাসি - তামাশা



কয়েকদিন আগে একবার লিখেছিলাম, আমি নোয়াখালী বিভাগ হওয়ার পক্ষে নই। আসলে আমি নতুন করে কোন বিভাগ হওয়ারই পক্ষে নই। কারণ আমি বিভাগের কোন উপকারি দিক দেখি না। বিভাগগুলো নিয়ে যদি আলাদা বিভাগীয় সরকার ব্যবস্থা থাকতো, তাহলে আমি বিভাগ করার পক্ষ নিতাম।

বিশ্ববিদ্যালয় না কিন্ডারগার্টেনঃ প্রসঙ্গ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ইউনিফর্ম।


দেশের কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ড্রেসকোড এর বিধান যুক্ত করা হয়েছে। বিশেষ করে মেয়েদের জন্য ড্রেসকোড মানা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এই বছরের ১ম শ্রেণির পাঠ্য বইয়ে লেখা হয়েছিলো, ও-তে ওড়না চাই। এই শিক্ষায় দীক্ষিত হয়ে কয়েকটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অথরিটি ওড়নাকে মেয়েদের জন্য বাধ্যতামূলক করেছে!

প্রসঙ্গঃ নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটি


নির্বাচন কমিশন গঠনে মহামান্য রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটি গঠন করেছেন বেশ কিছুদিন হলো। বিরোধীরা নিরপেক্ষতার প্রশ্ন তুলে সার্চ কমিটির সমালোচনা করলেও, সার্চ কমিটির ‘অনুরোধে’ নির্বাচন কমিশন গঠনে তাদের পছন্দের নাম সার্চ কমিটির কাছে সুপারিশ করবেন বলে জানিয়েছেন। বিরোধীরা বিরোধীতা করলেও অনেক বিজ্ঞ মানুষজন সার্চ কমিটি গঠনের ঘটনাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। অনেকে একে সঠিক গণতান্ত্রিক পথ বলে অভিহিত করছেন। কিন্তু মূল কথা হলো সার্চ কমিটিই কি নির্বাচন কমিশন গঠনের বিষয়ে সঠিক সমাধান? আদতে সার্চ কমিটির প্রয়োজনীয়তা কতটুকু?

'বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন' - ধর্ষণের বৈধতা ও ধর্ষকের বাঁচার রাস্তা করে দিবে


সরকারের ভাষায়, 'দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়ক ধরে সামনে এগিয়ে চলছে'। অথচ দেশের এই এগিয়ে চলার সময়ে সরকার এমন একটি আইন করতে যাচ্ছে, যাতে মনে হচ্ছে দেশ আসলে কয়েক বছর আগের অবস্থায় ফিরে গেছে। সরকার বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন বাস্তবায়নের জন্য মেয়েদের বিয়ের বয়সের ক্ষেত্রে শিথিলতা দেখাচ্ছে। বাল্য বিবাহ রোধে বিয়ের বয়সই কমিয়ে দেয়া হচ্ছে, সরকার কি বুদ্ধিমান। আজ যদি কোন মেয়ের বিয়ে ১৬ বছর বয়সে হয়, তাহলে সেটা বাল্য বিবাহ বলে বিবেচিত হবে। অথচ নতুন বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন কার্যকর হলে (হয়তো আগামী বছর থেকে কার্যকর হবে), ধরুন সেটা ২০২০ সাল, কোন মেয়ের ১৪ বছর বয়সে বিয়ে হলেও সেটা বাল্যবিবাহ বলে গন্য হবে না!!

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ
কফিল উদ্দিন মোহাম্মদ এর ছবি
Offline
Last seen: 5 দিন 52 min ago
Joined: রবিবার, মে 8, 2016 - 11:31পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর