নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • নাসিম হোসেন
  • সংবাদ পর্যবেক্ষক

নতুন যাত্রী

  • নওসাদ
  • ফুয়াদ হাসান
  • নাসিম হোসেন
  • নেকো
  • সোহম কর
  • অজিতেশ মণ্ডল
  • আতিকুর রহমান স্বপ্ন
  • অ্যালেক্স
  • মিশু মিলন
  • আগন্তুক মিত্র

আপনি এখানে

আবু মমিন এর ব্লগ

মৌলিক ও বাস্তবতার মূলসূত্রঃ


১.১ প্রকৃত পক্ষেই মৌলিক বলে কিছু নেই। আমরা যাকে মৌলিক বলি সেটা মূলত আপেক্ষিক অর্থে বলি।

১.২ মৌলিকতা মানেই অনস্তিত্বতা, অবাস্তবতা কিংবা অপরিমাপ্য, অনির্নেয় অর্থে শূন্যতা।

১.৩ অনু কি মৌলিক? না উহাতে পরমানু থাকে? পরমানু কি মৌলিক? না, উহাতে ইলেক্ট্রন, প্রোটন ও নিউটন থাকে। অতিপারমানবিক কনিকা সমূহ কি মৌলিক? না, উহাতে কার্ক কিংবা লেপটন কনিকা থাকে এবং কিংবা উহা স্ট্রিং তন্তুর কম্পনের ফল। এভাবে মাপন যন্ত্রের উন্নয়নের সাথে সাথে মৌলিক বিষয়কে আরও অধিকতর মৌলিক বিষয়ের ফল হিসেবে পাচ্ছি এবং শেষ পর্যন্ত মৌলিকতা শূন্যতায় পর্যবসিত হচ্ছে।

১.৪ অতএব, বাস্তব মৌলিকতাও আপেক্ষিক_পরম নয়।

শিশু ও মুক্তবুদ্ধির চর্চাঃ দুইটি বিশেষ পাঠ


১.১ শিশু জন্ম গ্রহন করার সময় তার মস্তিষ্ক রুপ জৈবিক কম্পিউটারটি থাকে সাদা কাগজের মত সাদা_না শুধুই সাদা নয়, তার সঙ্গে থাকে জন্মসূত্রে প্রাপ্ত কিছু বেসিক সফ্টওয়্যার । প্রকৃতি থেকে তথা শিশুর পারিপার্শ্বিকতা থেকে অনবরত নতুন নতুন তথ্য শিশুর মস্তিষ্কে প্রোগ্রামিত হচ্ছে। সৃষ্টি হচ্ছে শিশুর মনে নানা প্রশ্ন।

রঙ ও মন


জগত রঙিন নয়_উহা বৈচিত্রময়ও নয়। রঙতো তোমার মনে। পদার্থ বিজ্ঞানের জ্ঞান আমাদের বলে যে, জগত তরঙ্গময়_বিদ্যুৎ-চুম্বক তরঙ্গের খেলা। যে আলোর মাধ্যমে জগতটা বিভিন্ন রঙে রঙিনময় হয়ে তোমার মনে ধরা দেয় সেটাওতো ইলেক্ট্রোম্যাগনেটিক ওয়েভ। যে আলোকে তুমি বর্নহীন জান সেটাওতো রঙ ধনুর সাতটি রঙে তোমার মনে প্রতিভাসিত হয়। বাইরের জগতের ঐ ই,এম,ও সমূহ কত কম্পাঙ্কে, কত দৈর্ঘ্যে, কত মাত্রায়, কত কৌনিক অবস্থানে কেন্দ্রিভূত আছে তার উপর ভিত্তি করেই রঙের বৈচিত্রময়তা তোমার মনে বিভিন্ন ভাবের সঞ্চারন ঘটাচ্ছে। বিপরীত ক্রমে তোমার মনের ভাব কিংবা অভিব্যক্তিরও নির্দিষ্ট রঙ রয়েছে। বাইরের জগতের সঙ্গে তোমার মনের অভিব্যক্তির রঙের পার

আত্মা


আত্মা কি এবং তার অস্তিত্ব আছে কিনা তা আমি জানিনা। এ মহাবিশ্বে না থাকলেও অন্যকোন কোন মহাবিশ্বে উহার অস্তিত্ব আছে কিনা তাও জানিনা।

চিন্তা ও বাস্তবতাঃ


চিন্তা ও বাস্তবতার প্রতিফলনঃ

১.১ মানুষ চিন্তাশীল প্রানী। চিন্তা মূলত মানব মস্তিষ্কে বাইরের জগতের প্রতিফলন। যে শিশুর বাইরের স্পর্শ নেই তার চিন্তাও নেই যদিও শূন্য স্পর্শ, শূন্য চিন্তা অসম্ভ। কারন শিশু জগতেরই অংশ এমনকি মাতৃগর্ভে থাকালীন সময়েও সে জগতের স্পর্শে থাকে এবং সেখানেও সে পরিপূর্নতার একটা পর্যায়ে চিন্তা করে তা যতই ন্যূনতম হোক।

১.২ যদিও চিন্তা একটি বায়বীয় কিংবা বিমূর্ত বিষয় তথাপি, যে কোন অর্থে চিন্তার অস্তিত্ব স্বীকার্য।

ধর্ম ও বিজ্ঞানঃ একটি বিশেষ পাঠ


ধর্ম ও বিজ্ঞান উভয়ের আধিক্য ব্যক্তি, সমাজ, রাষ্ট্র এবং নীতি-নৈতিকতা-মানবিকতার জন্য ক্ষতিকর। আধিক্য এই অর্থে উহাদের অপপ্রয়োগ ও অপব্যবহার। আধিক্য এই অর্থে বিজ্ঞান-প্রযুক্তির অপব্যবহার। আধিক্য এই অর্থে যে, ধর্মের নামে অন্ধবিশ্বাস গ্রহন ও মানব সমাজ বিভাজনের নীতি গ্রহন করা।

বিজ্ঞানের নামে বিজ্ঞানবাদীতা এবং ধর্মের নামে ধর্ম মত এবং উগ্রতা উভয়ই সমভাবে ক্ষতিকর।

বিজ্ঞান ও ধর্মের সঙ্গে মত, পথ, বাদ কিংবা ism যুক্তকরে যেকোন মতবাদ সৃষ্টি করা এবং সেই বাদকে কেন্দ্র করে যেকোন ধরনের উগ্রতাই মানবিকতা ও নৈতিকতার পরিপন্থী।

শূন্যঃ শূন্য, শূন্যতা, পূর্নতা, শূন্যানুভূতি, আপেক্ষিকতা ও প্রাসঙ্গিক আলোচনা


শূন্য কি?

=>শূন্য হলো কিছুইনা, অস্তিত্বহীনতা, অবাস্তবতা যা কোন নির্দিষ্ট মাত্রিক দেশ-কালিক মানদন্ডে বিচার্য্য।
গানিতিক অর্থে শূন্য হলো +১ ও -১ এই সংখ্যার মধ্যবর্তী সংখ্যা যা অঋণাত্বক, অধনাত্মক, নিরপেক্ষ, মূলদ, পূর্ন, জোড়, অমৌলিক এক রহস্যময় সংখ্যা।
শূন্য হলো দুটি সমমানের ধনাত্মক ও ঋনাত্মক সংখ্যার যোগফল কিংবা সমষ্টি।
শূন্য হলো নেগেটিভ-পজিটিভে পূর্ন।

=>বিভিন্ন অর্থে শূন্য ও শূন্যতা ব্যবহার্য্যঃ

♦১) অস্তিত্বঃ গ্লাসটিতে পানি নেই_গ্লাসটি পানি শূন্য। বাল্বটিতে বায়ু নেই_বাল্বটি বায়ু শূন্য। ঘরটিতে কেউ নেই_ঘরটি মানব শূন্য।

জন্মান্তরবাদ/পূনর্জন্মঃ দুইটি বিশেষ পাঠ


১.১ জন্মের আবর্তন কিংবা মৃত্যুর পর পুন:জন্ম বিষয়টি মূলত সনাতন ধর্ম সম্পর্কিত। অবশ্য কোরানের একাধিক আয়াতেও পুনর্জন্মের ইঙ্গিত আছে। যাহোক পুনর্জন্ম বিষয়টি তখনই প্রযোজ্য হবে যখন আমরা আত্মানামীয় অদৃশ্য অশরীরী শ্বাশত কোন সত্তাকে স্বীকার করব। বিজ্ঞান যদিও অদৃশ্য অইন্দ্রিয়গ্রাহ্য অতিপারমনবিক কনাকে স্বীকার করে_যা গানিতিক ও পরীক্ষালব্দভাবে প্রমানিত। কিন্তু শরীর বিহীন অদৃশ্য আত্মা নামীয় কোন সত্তার অস্তিত্ব পরীক্ষাগারে এখনও প্রমানিত হয়নি। যদিও বিজ্ঞান চারমাত্রার স্কেলে সবকিছু পরিমাপ করে। আত্মা যদি বহু মাত্রিক( পঞ্চম কিংবা পঞ্চম+) সত্তা হয় তবে তাকে চতুর্মাত্রিক স্কেলে পরিমাপ করা সম্ভব নাও হতে পারে।

ছন্দে ছন্দে বিজ্ঞান চিন্তা-১


ইলেকট্রন?

আমি ক্ষুদ্র
আমি রুদ্র
আমি ঘূর্নন
আমি চক্রন
আমি নেতি
ইতি-নেতিতে করি আবর্তন!
আমি স্থিতি
আমিই গতি
মনেই স্থিতি
মনেই গতি
নেইকো আমার স্থিতি-গতি!

এটম?

আমি একক,
আমি ক্ষুদ্র
ইতি-নেতিতে
আমি স্থিতিবান
এককে অদৃশ্য
পুঞ্জে দৃশ্যমান
ক্রিয়া-বিক্রিয়ায়
আমি বেগবান
আমি জায়মান!!!

শূন্যে-অসীমে.. 0..œ..0..
œ

মানবতা,নীতি-নৈতিকতা,আদর্শ ও প্রাসঙ্গিক অন্যান্য বিষয়ঃ নাস্তিক্য চিন্তা, মানবতাবাদ ও ধর্ম নিরপেক্ষ দৃষ্টিকোনে একটি বস্তনিষ্ঠ আলোচনা


=>মানবতা কি?

১.১ মানবতা হলো মানুষ মানুষেরর জন্যে,মানুষ মানুষকে ভালোবাসবে। ইহা মানবতার প্রথম মাত্রা।

১.২ মানুষ অন্য প্রানীকে ভালোবাসবে। ইহা মানবতার দ্বিতীয় মাত্রা।

১.৩ মানুষ সকল উদ্ভিদকে ভালোবাসবে। ইহা মানবতার চতুর্থ মাত্রা।

১.৪ মানুষ প্রকৃতির সকল জড়ীয়-অজড়ীয় সত্তাকে ভালোবাসবে। প্রকৃতির প্রতি সম্মান প্রদর্শন করবে_Respect for nature. ইহা মানবতার চতুর্থ মাত্রা।

মানুষের মনের উৎকর্ষতার সাথে সাথে তার মানবতাবোধ ও নৈতিকতার চেতনায় বিবর্তন ঘটেছে এবং ঘটতেই থাকবে।

পৃষ্ঠাসমূহ

Facebook comments

বোর্ডিং কার্ড

আবু মমিন
আবু মমিন এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 3 দিন ago
Joined: রবিবার, মে 1, 2016 - 9:00অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর