নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 10 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • পৃথু স্যন্যাল
  • সুজন আরাফাত
  • অর্বাচীন উজবুক
  • নুরুন নেসা
  • সংবাদ পর্যবেক্ষক
  • নাস্তিকের আত্মকথা
  • আবীর সমুদ্র
  • মূর্খ চাষা
  • নরসুন্দর মানুষ
  • দ্বিতীয়নাম

নতুন যাত্রী

  • সোহম কর
  • অজিতেশ মণ্ডল
  • আতিকুর রহমান স্বপ্ন
  • অ্যালেক্স
  • মিশু মিলন
  • আগন্তুক মিত্র
  • গাজী নিষাদ
  • বেকার
  • আসিফ মহিউদ্দীন
  • সাধনা নস্কর

আপনি এখানে

' ইফতেখার ' এর ব্লগ

শ্যামলা মেয়ের গল্প


আষাঢ় মাস। এক শ্যামলা মেয়ের আকাশজুড়ে শ্রাবণের ঢল নেমেছে। প্রকৃতি অঝোরে কাঁদছে। প্রকৃতির ছাই রং প্রভাব ফেলছে মেয়েটার রূপে। শ্যামলা মেয়েদের এই এক সমস্যা—বর্ণচোরা ওরা। প্রকৃতিই নির্ধারণ করে আজ ওদের লাগবে কেমন।
সদ্য ১৮ পেরিয়ে ১৯–এ মেয়েটা। তাঁকে আজ ছেলেপক্ষ দেখবে বাইরে কোথাও। মেয়েপক্ষও ছেলেকে দেখবে। শ্যামলা মেয়ের মা কটকটে কমলা রঙের একটা শাড়ি কিনেছেন মেয়ের জন্যে। তাঁর ধারণা, কমলা রঙের শাড়ি পরলে মেয়েদের সোনালি দেখায়! তাতে পছন্দ না করুক, অপছন্দও করতে পারবে না।

নাহ ... কল্পনার জগতে কোন "মন খারাপ" এর জায়গা নেই ...


জীবনটা বাংলা সিনেমা না ... বাংলা সিনেমা হলে দুইজন মিলে একটা চাদর গায়ে জড়িয়ে রাখতো ... জড়সড় হয়ে বসে একজন আরেকজনের দিকে তাকিয়ে মিটিমিটি হাসতো ... তারপর হয়তো একটা গান শুরু হয়ে যেতো !!

"কথা" নামে একটা ছুরি আছে ...


মেয়েটা কাঁদছিল ... তার টলমলে চোখে এক ধরণের অবিশ্বাসের ছাপ ছিল ... তার পৃথিবীটা মূহুর্তের জন্য অন্ধকার হয়ে আসছিল ... এইমাত্র ছেলেটার শেষ কথাটা একটা ভয়াবহ ধারালো ছুরি হয়ে তার ভেতরটাকে কুচি কুচি করে কেটে ফেললো ... মেয়েটা জানে না সে কেন এখনো বেঁচে আছে ... তার নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছে ... এই বেঁচে থাকাটা মৃত্যুর চেয়েও খারাপ !!

"কথা খুঁজে না পাওয়া" !


"কি খবর তোমার ??"

"এই তো ... তুমি কেমন আছো ??"

"ভালো !!"

"হুম !!"

"কী করো ??"

"ফেসবুক চালাই !!"

"ও !!"

"তুমি ??"

"কিছু না !!"

"হুম !!"

"হুম !!"

Seen at 10:04 p.m.

... ... ...

"কথা খুঁজে না পাওয়া" - এর মত কষ্টের অনুভূতি বোধ হয় আর নেই ... দুঃস্বপ্ন দেখে মাঝ রাতে হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে গেলে পাগলের মত আশেপাশে হাতড়ে কাউকে খোঁজার মত করে প্রতিদিনই কেউ কেউ নিজের ভেতরটা হাতড়ে কথা খুঁজতে থাকে !!

"কেউ একজন" থেকে "অন্য কোন একজন"


"আগামীকাল মিলির বিয়ে হয়ে যাচ্ছে ... ব্যাপারটা ঠিক এমন না যে মিলির বাবা-মা জোর করে বিয়ে দিয়ে দিচ্ছে ... বিয়েতে মিলির মত আছে ... খুব ভালো রকমের মত আছে ... প্রশ্ন জাগে, তবুও কেন বলা হলো "মিলির বিয়ে হয়ে যাচ্ছে" ?? ... অবশ্যই বলা উচিত ছিল "আগামীকাল মিলির বিয়ে"!!
মিলির চেহারার দিকে তাকালেও "বিয়ে হয়ে যাচ্ছে" এর লক্ষণ দেখা যায় না ... সে হাসছে ... মোটামুটি আনন্দিত সে ... তার হাত ভরা মেহেদি ... খুব যত্ন করে চুল আচড়াচ্ছে সে !!
খুব ধুমধাম করে মিলির বিয়ে হচ্ছিল ... বিশাল খাওয়া-দাওয়া ... হাজার লোকের সমাগম ... মিলিকে সুন্দর লাগছিল ... বিয়ের সাজে সব মেয়েকেই সুন্দর লাগে !!

কোন কিছুই খালি থাকে না ... REPLACED হয়ে যায় !!


"এরকম চুপ করে আছো কেন ??"
"এমনিই !!"
"চা খাবা ??"
"নাহ !!"
"তুমি তো "চা পাগল" মানুষ !!"
"ছিলাম এক সময় !!"
"এখন ??"
"এখন "শুধু পাগল" মানুষ !!"
"ওহ !! তাইলে আমি পাগলি !!"
"হুম !!"
"তোমার আসলেই কোন অনুভূতি নাই এখন ??"
"নাহ ... আমার অনুভূতি মারা গেছে ... দাফনও হয়ে গেছে !!"
"তোমার অনুভূতি কিভাবে মারা গেছে ??"
"একবার "আমার অনুভূতি" এর ভীষণ জ্বর হয়েছিল ... "আমার অনুভূতি" জ্বরের ঘোরে একটা "ওর অনুভূতি" কে ডাকছিল !!"
"তারপর ??"

ভালবাসা ♥


ছেলে : তোমাকে একটা প্রশ্ন করি?
মেয়ে : হ্যা করেন...
ছেলে : বিয়ে করতে চাওয়ার ডিসিশন টা কি তোমার নাকি তোমার বাসায় দিচ্ছে?
মেয়ে : যদি ডিরেক্ট ওয়েতে বলতে চাই তাহলে বলবো আমি নিজেই বিয়ে করার কথা টা বাসায় বলেছি, আমি এখন বিয়ে করতে চাই...
ছেলে : কারণ টা কি জানতে পারি?
মেয়ে : আমি অনেক চিন্তাভাবনা করে দেখেছি, আমার দ্বারা আর প্রেম-ভালবাসা হবে না। আমি এখন সংসার করতে চাই।
ছেলে : তোমার দ্বারা যদি প্রেম-ভালবাসা সম্ভব না হয় তাহলে তুমি বিয়ের পর আমাকে কিভাবে ভালবাসবে??
মেয়ে : আমি আপনাকে ভালবাসার জন্য বিয়ে করতে চাই নি।
ছেলে : তাহলে?

আবেগ ও বাস্তবতার বেড়াজাল


আবেগী ভালোবাসায় সিক্ত কোনো এক পরাজিত রোমিও প্রশ্ন করেছিলো আমায়,

ভালোবাসার মানে বোঝ??

আমি স্মিত !!

হেসে বলেছিলাম... লালনকে তুমি বৈরাগ্যের সুর চেনাচ্ছো?

আমি ভালোবাসার যত রূপ দেখেছি, তুমি তার সিকি অংশও দেখোনি...

নারীর প্রতি পুরুষ, পুরুষের প্রতি নারীর ভালোবাসায় মোহ আছে, উত্তেজনা আছে, আছে বাড়তি আবেগ,,,

মমতা নেই, আনন্দ নেই...

আবেগের ভালোবাসায় কি আছে??

কয়েক বিন্দু জল,

মিথ্যে কথার মেলা,

বিশ্বাস নিয়ে খেলা,

অগোচরে আঘাত করা,

পরিশেষে হারিয়ে যাওয়া??

নাহ্‌ এগুলো ভালোবাসা নয়..

এক জোড়া ভাঙ্গা চুড়ি ....


ঝুমঝুম বৃষ্টি হচ্ছে । একটু পরপর আকাশ কাপিয়ে বিদ্যুৎ চমকাচ্ছে । রাত প্রায় দশটা । মিরা দারিয়ে আছে দরজার কাছে । সাদিক এখনো বাসায় ফেরেনি । সে খুব চিন্তিত । কোথায় গেল মানুষটা !
একটু পরই সাদিককে দেখা গেল বাড়ির বড় দরজায় । ভিজে চপচপ করছে । মিরা ঠিক করলো সাদিককে কিছু কঠিন কথা শোনাবে । দুজনের সংসার । তাও সবে মাত্র একমাস হল তাদের বিয়ে হয়েছে । এভাবে একা ফেলে কেউ বাইরে থাকে !
সাদিক দরজার কাছে এসে বলল, কি হল দরজা খোল !
মিরা মুখটা গম্ভীর করে বলল,আপনি এত রাত করে কেন ফিরলেন আজ? আপনি তো জানেন আমি একা একটা মেয়ে থাকি ।

ছায়াপথের সেই মেয়েটি==


ইমরান: এই শোন না?
ইতি: কি বল?
ইমরান:ভালবাসি..... অনেক।
ইতি: দিবো থাপ্পর একটা?
ইমরান: তুই কি একটুও বুঝবিনা আমাকে?
ইতি: তোকে কতোবার বলছি বন্ধু হয়ে থাকলে থাক, না হয় রাস্তা মাপতে পারিস ।
ইমরান: তোকে আমার ভাল লাগে এতে আমার কি দোষ বল?
ইতি: আমারও তো ভাল লাগা থাকতে পারে তাই না আর
তোকে কোন দিন সেই ভাবে দেখনি ।
ইমরান:বল না কি করলে ভালবাসবি?
ইতি: তুই যাবি এখান থেকে.. না, আমি চলে যাবো?
ইমরান: এই নিয়ে ৩২ বার তোরে প্রোপজ করলাম রিজেক্ট করলি,
আচ্ছা ভালবাসতে হবে না, একটু ভালবাসতে দিস ।

পৃষ্ঠাসমূহ

Facebook comments

বোর্ডিং কার্ড

' ইফতেখার '
' ইফতেখার ' এর ছবি
Offline
Last seen: 3 ঘন্টা 51 min ago
Joined: শুক্রবার, এপ্রিল 22, 2016 - 5:27অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর