নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রূপালীনা
  • নুর নবী দুলাল
  • সুব্রত শুভ

নতুন যাত্রী

  • মহক ঠাকুর
  • সুপ্ত শুভ
  • সাধু পুরুষ
  • মোনাজ হক
  • অচিন্তা দত্ত
  • নীল পদ্ম
  • ব্লগ সার্চম্যান
  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান

আপনি এখানে

গোলাম সারওয়ার এর ব্লগ

“বাগদাদ জ্বলছে” - নামহীন নারীর ব্লগ থেকে ! – কিস্তি ৪


(পাঠকের জন্যে নোটঃ এই লেখায় মূল লেখকের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল সাধারণ ইরাকীর নাম – ছদ্মনাম হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। ইংরাজি বর্ণ অনুযায়ী তাদের কে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রাসঙ্গিক ছবি গুলো অনুবাদকের সংযোজন )

রবিবার, আগস্ট ২৪, ২০০৩

“বাগদাদ জ্বলছে” - নামহীন নারীর ব্লগ থেকে ! – কিস্তি ৩


শনিবার, আগস্ট ২৩, ২০০৩

আমরা কেবল শুরু করেছি ......

“বাগদাদ জ্বলছে” - নামহীন নারীর ব্লগ থেকে ! - কিস্তি ২


(পাঠকের জন্যে নোটঃ ব্রেইমার হচ্ছেন ইরাক দখল করে নেবার পরে বুশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ইরাকের মার্কিন প্রশাসনের প্রধান নির্বাহী। আল – সালাবি হচ্ছেন আমেরিকার অনুগত ইরাকী প্রশাসকদের একজন, যার বিরুদ্ধে অতীতে অনেক সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমের সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগ আছে। ইরাকী ন্যাশনাল কংগ্রেস হচ্ছে আল – সালাবির দল। কোয়ালিশন প্রভিশনাল অথরিটি হচ্ছে মার্কিন উদ্যোগে গঠিত ইরাকী কোয়ালিশন সরকার।)

পশ্চিমা গনতন্ত্র, একজন জেরেমি করবিন এবং “এক চিমটি লবণের প্রয়োজনীয়তা”!


ইরাক যুদ্ধের আগে বুশ – ব্লেয়ার প্রশাসন তাদের নিজ নিজ পার্লামেন্ট কে জানিয়েছিলো, যদিও তারা যুদ্ধ ঘোষণা করছেন, তবুও সর্বাধিক গুরুত্ব দেবেন সাধারন নাগরিক বা “অরডিনারী সিভিলিয়ান” দের জীবন হানি ও ক্ষয় ক্ষতি যেনো না হয় সেই দিকে। বুশের প্রধান সেনাপতি ডোনাল্ড রামস্ফেল্ড মার্কিন নাগরিকদের জানিয়েছিলেন – সাধারন সিভিলিয়ানদের খুব বেশী ক্ষতি হবেনা, সেদিকে ঈঙ্গ – মার্কিন বাহিনী থাকবে “সদা সজাগ”। এই “সদা সজাগ” থাকার পরিনতি হচ্ছে – প্রায় ছয় লক্ষ সাধারন ইরাকী নিহত হওয়া। এই “সদা সজাগ” থাকার পরিনতি হয়েছিলো প্রায় ১৫ লক্ষ ইরাকী স্থায়ী ভাবে উদ্বাস্তু হয়ে যাওয়া। এই “সদা সজাগ” থাকার পরিনতি হয়েছিলো প্রায় ২০ লক্ষ শিশুর এতিম হয়ে যাওয়া এবং “স্ট্রিট চাইল্ড” এ পরিনত হওয়া। কয়েক লক্ষ মানুষ মারা গেছেন শুধুমাত্র ক্ষুধার তাড়নায়। এই ছিলো বুশ – ব্লেয়ার প্রশাসনের “সদা জাগ্রত” যুদ্ধ কৌশল।

আতরের শিশিতে বিষ রাখলে কি তা আতর হয়ে যায়?


ফরহাদ মজহার এর একটা লেখা দেখলাম মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সমালোচনা করেছেন ধর্ম ও মার্ক্সবাদ বিষয়ে। তার নিজের পত্রিকায় ছাপিয়েছেন লেখাটা। এই লেখাটি মজহারের সেই লেখা পাঠের একটি প্রতিক্রিয়া, নিতান্তই একজন পাঠকের প্রতিক্রিয়া। এই ব্লগপোস্ট এর পাঠক যারা তাদেরকে একমত হতে হবে এমন কোনও কথা নেই।

ফরহাদ মজহারের দুইটা গুন।
১ -- তিনি খুব ভালো কবিতা লিখতে পারেন।
২ -- তিনি কবিতার মতো করে মিথ্যা বয়ান গুলো লিখতে পারেন দিনের পর দিন

“মাদ্রাসাকে মাদ্রাসার যায়গায়” রেখে দেয়া কি “মাদ্রাসা প্রেম”? নাকি গরীবের বাচ্চাদের বিরুদ্ধে অভিজাতদের ষড়যন্ত্র?


১.
মাদ্রাসা শিক্ষাকে মুল ধারার শিক্ষার সাথে যুক্ত করার দাবীটি বহু পুরনো। বাংলাদেশের প্রগতিশীল ছাত্র সংগঠন গুলো অন্তত গত তিন দশক ধরে দাবী করে আসছে, মদ্রাসা শিক্ষার আধুনিকায়ন এবং একে ক্রমশ মুলধারার শিক্ষার সাথে যুক্ত করার কথা। এর প্রধান যুক্তিগুলো হচ্ছে –
- মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের যুগোপযুগী শিক্ষার মধ্যে নিয়ে আসা, যেনো তাঁদের মাঝে শ্রম বাজারে প্রতিযোগিতা করার মতো দক্ষতা তৈরী হয়।
- একমুখী শিক্ষা ব্যবস্থা সমাজে অসমতা বা ইনিকুয়ালিটি হ্রাস করতে সহযোগিতা করবে

এনলাইটেনমেন্ট কি? এ প্রশ্নের সোজা সাপটা উত্তর ।


[ইউরোপীয় এনলাইটেনমেন্ট প্রসঙ্গে নানান রকমের ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি আছে আমাদের বাংলা ভাষার লেখালেখিতে। এই সকল ভিন্নতার কিছু কিছু কেবলই দেখার বা বোঝার ভিন্নতা আবার কিছু কিছু বোঝাপড়া নিরেট উদ্দেশ্য প্রনোদিত বিভ্রান্তি ছড়ানো। ইউরোপীয় এনলাইটেনমেন্ট কে বোঝার জন্যে হয়ত একক কোনও পুস্তক বা প্রবন্ধ নেই, এর জন্যে বেশ কিছু প্রতিনিধিত্বমূলক পুস্তক ও প্রবন্ধ পড়া দরকার। তবুও, জার্মান দার্শনিক ইমানুয়েল কান্ট এর লেখা An Answer to the Question: "What is Enlightenment?" প্রবন্ধটি সারা পৃথিবীতেই বহুল পঠিত একটি প্রবন্ধ। মুল প্রবন্ধটি জার্মান ভাষায় লেখা কিন্তু তাঁর বহু ইংরাজি অনুবাদ আছে। বাংলায় এর তরজমা খুব সুল

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

গোলাম সারওয়ার
গোলাম সারওয়ার এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: শনিবার, মার্চ 23, 2013 - 4:42পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর