নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 9 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • চিত্রগুপ্ত
  • কাঠমোল্লা
  • নুর নবী দুলাল
  • মৃত কালপুরুষ
  • অ্যাডল্ফ বিচ্ছু
  • নরসুন্দর মানুষ
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি

নতুন যাত্রী

  • আদি মানব
  • নগরবালক
  • মানিকুজ্জামান
  • একরামুল হক
  • আব্দুর রহমান ইমন
  • ইমরান হোসেন মনা
  • আবু উষা
  • জনৈক জুম্ম
  • ফরিদ আলম
  • নিহত নক্ষত্র

আপনি এখানে

তায়্যিব এর ব্লগ

হ্যাপী বার্থডে মুহাম্মদ!


নবী মুহাম্মদের জন্ম নিয়ে কিছুটা ধোয়াশা আছে, বাবা আব্দুল্লাহর মৃত্যুর চার বছর পর মুহাম্মদের জন্ম। লিখার বিষয়বস্তু মুহাম্মদ জারজ কি নাজারজ এটা না। জন্ম হোক যথাতথা কর্ম হোক ভাল। যীশুও ঈশ্বরের অবৈধ পুত্র - তাতে যীশুর যেমন দোষ নেই, মুহাম্মদের জন্মে তার দোষ নেই। প্রকৃতি যেমন জারজ সন্তানদের ফেলে দেয় না, একজন মুক্তমনা মানুষ কখনো জন্ম নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে না। মূল আলোচনা হচ্ছে আমার (অবিশ্বাসী) দৃষ্টিতে মুহাম্মাদ।

ধর্মহীন লাশ


হেমন্তের পড়ন্ত বিকেলে সূর্যের লাল, নরম মোহনীয় অথচ সরল আলোকরশ্মির আলোয় কাঁশফুল গুলো হিমেলকে আরও থেতিয়ে দিচ্ছে। আজ সে চুমু খাবেই। দু বছর হয়ে গেল প্রেমের প্রতিবারের মত আজও সে নিজের সাথে প্রতিজ্ঞা করেছে, চুমো খাবেই। আস্তে করে ডান হাতটি চেপে ধরে কাঁশবনের পাশে ঘেষা দেয়ালটায় প্রজ্ঞার পিঠ লাগিয়ে দেয়। আরেকটু কাছে এসে হিমেল তার ঠোঁট দুটো প্রজ্ঞার নাক বরাবর ঘেষে কপাল পর্যন্ত নিয়ে যায়।
- কিরে তোর কপালের মাঝ বরাবর সিঁথিতে একটা চুল পেঁকে গেছে মনে হয়! বুড়ি হয়ে গেলি নাকি?
- যাও তুমি যে কি করোনা, একদম ভয় পাইয়ে দাও। আমি চললাম সন্ধ্যা হয়ে গেছে ঠাকুর ঘরে পূজো দিতে হবে।বলেই দৌড়।

আদর্শ ব্যাক্তিঃ বঙ্গবন্ধু ও নবী মুহাম্মদ


ষষ্ঠ শ্রেণীতে যখন পড়ি, বাংলা দ্বিতীয় পত্রে রচনা আসছিলো "তোমার আদর্শ ব্যাক্তি বা প্রিয় ব্যাক্তিত্ব "।তখন 12 নম্বর প্রশ্নে পাঁচটি রচনার মধ্যে একটির উত্তর দিতে হতো। মুখস্থ করার অভ্যাস আমার কখনোই ছিলো না, সভাবতই আমি আমার মত করে আদর্শ ব্যাক্তি রচনা টি লিখেছিলাম। পাঠ্যবইয়ের বাইরে বই পড়া কি জিনিস বুঝতাম না। মায়ার (মা) কাছ থেকে যতটুকু যুদ্ধ আর বঙ্গবন্ধুর কাহিনী শুনতাম তাতে মনের অজান্তেই বঙ্গবন্ধু আমার কাছে প্রিয় ব্যাক্তি হয়ে ওঠে। আমিও স্বপ্নের নায়ক বঙ্গবন্ধু কে আদর্শের স্থানটি দিয়ে "আদর্শ ব্যাক্তি " রচনা টি সম্পন্ন করি।

কোরআন মাজিদ তেলাওয়াত, সর্বোত্তম ইবাদত???


নবীর মৃত্যুর পর প্রশ্নাতীত ভাবে জিব্রাইলের আসা বন্ধ হয়ে যায়। বলা যায় সমগ্র জাতির জন্য সকল দিকনির্দেশনা শেষ করেই আল্লা নবীকে পৃথিবী থেকে উঠিয়ে নেন। Cray 2Cray 2Cray 2 জিব্রাইলকে আর পাঠানোর প্রয়োজনও ফুরিয়ে যায়। (জানি না বেচারা এখন কি কাজে ব্যাস্ত)

হরিদাসের ইসলাম গ্রহণ


সন্ধ্যা ছয়টা। অন্ধকার হয়ে আসছে চারদিক।টেনশনে চোখ ঝাপসা হয়ে আসছে বাচ্চু মিয়ার। মনেমনে মানত করলো আল্লার রহমতে যদি সন্তান সুস্থ হয়,আল্লার রাস্তায় একে মাদ্রাসায় দিয়ে দিবো। আগের বার মৃত সন্তানের কথা মনে হলে গা শিওরে উঠছে।

ভিতর থেকে কান্নার শব্দ,আনন্দে লাফিয়ে উঠলো বাচ্চু মিয়ার মণ।
আনন্দ দীর্ঘ স্থায়ী হওয়ার আগেই দুঃসংবাদ,বংশ রক্ষার প্রদীপ জ্বালাতে গিয়ে অল্প বয়সী বউটা মারাই গেল শেষ পর্যন্ত।
সেই থেকে ছেলে সজল তার চোখের মণি। গ্রামে ভদ্র, অমায়িক, পড়াশোনায় এক নাম্বার ছেলেটি তারই।
মাদ্রাসা পড়ুয়া এই ছেলেটি এমন কাজ করবে!! গ্রামের সবার মত তার বাবাও ভাবতে পারেনি।

মসজিদ


ও বন্দে আলী একটা মসজিদ বানাবো ভাবছিলাম। কেমন হবে বলতো?

তা চাচা কি উদ্দেশ্যে বানাবেন?

এই বেডা উদ্দেশ্য আবার কি?জীবনে তো পাপ কম করলাম না। তাছাড়া মানুষগুলো সব নামাজ রোজা করে না। তাই ভাবছিলাম হাতের কাছে মসজিদ হইলে একটু আধটু নামাজ পড়তো। বড় হুজুর ওইদনি ওয়াজে কইলো মসজিদ হইলো আল্লাহর ঘর? আমার মৃত্যুরপরও যতদিন যত মুসল্লি এখানে নামাজ পরবো আমার নামে সওয়াব লিখা হইবো।

উদ্দেশ্যটা চাচা আমার কাছে পরিষ্কার না।

কেন? কেন?

না মানে আপনি আসলে মানুষের উপকারের জন্য করতেছেন নাকি সওয়াবের আশায়।কোন কিছু আশা বা বিনিময় করে প্রকৃত উপকার হয় কি?

" স্বর্গ থেকে আসে প্রেম।"?


আমার রুমমেটের বদৌলতে প্রতিদিন ভোরবেলা " যে প্রেম স্বর্গ থেকে এসে জীবনে অমর হয়ে রয় " গানটি শুনতে শুনতে আমার নিজের গানটির প্রতি বিরক্ত লাগা শুরু হইছে। (যদিও গানটি আমার খুব ভাললাগতো)বিরক্ত হওয়াই সমস্যা ছিলনা কিন্তু প্যাঁচ লাগলো "যে প্রেম স্বর্গ থেকে এসে " কথাটায়।
আগেও প্রেম স্বর্গীয় বা প্রেমে স্বর্গীয় সুখ এসব কথা শুনেছি। আর মনে মনে উত্তর খুঁজেছি - প্রেম জিনিসটা কি?
কিভাবে প্রেমের অনুভব হয়? প্রেমের উৎপত্তি কোথা থেকে? স্বর্গে এত এত জিনিস থাকতে প্রেমই কেন স্বর্গ থেকে আসলো?স্বর্গীয় প্রেম কে আবার খারাপ চোখে দেখা হয় সমাজে।

সুসাইড নোট। 2090


কোন এক অপরিপক্ক মস্তিষ্কের মননের গর্ভে আমার ভ্রুণের উৎপত্তি । যদিও বা আমার জন্মিক সঠিক তারিখ বা সাল নেই। ধারণা করা হয় প্রায় 7000 বছর পূর্বে আমার পরিস্ফুটন ঘটে। জন্ম মূহুর্ত গুলো ছিলো আমার কৌতূহল দ্বীপ্ত।

বোর্ডিং কার্ড

তায়্যিব
তায়্যিব এর ছবি
Offline
Last seen: 3 দিন 5 ঘন্টা ago
Joined: বুধবার, ফেব্রুয়ারী 10, 2016 - 12:31অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর