নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • এলিজা আকবর
  • পৃথ্বীরাজ চৌহান
  • নুর নবী দুলাল

নতুন যাত্রী

  • সুমন মুরমু
  • জোসেফ হ্যারিসন
  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান

আপনি এখানে

সাইয়িদ রফিকুল হক এর ব্লগ

তবুও টিটু রায়কে কেন গ্রেফতার করা হয়েছে?


বাংলাদেশে ইতঃপূর্বে অনেকবার সাম্প্রদায়িক-দাঙ্গা হয়েছে। তবে ইদানীং বিভিন্ন তুচ্ছবিষয়কে কেন্দ্র করে দাঙ্গার পরিমাণ আরও বেড়ে গেছে। ২০১২ সালে, পার্বত্যচট্টগ্রামের রামুতে মুসলমান-নামধারী সাম্প্রদায়িকপশুগুলো রাতের আঁধারে, দিনদুপুরে যে যেভাবে পেরেছে রামুর বৌদ্ধবিহারে নৃশংসভাবে হামলা চালিয়েছিলো। তাদের তাণ্ডবলীলা দেখলে যেকোনো মানুষ মনে করবে এখানে হয়তো পৃথিবীর সর্বকালের-সর্বকুখ্যাত ও হিংস্র কোনো শূয়র ভয়ংকর আগ্রাসন চালিয়েছে। আসলে, এগুলো আমাদের বাংলাদেশের আত্মস্বীকৃত-ধার্মিক তথা একশ্রেণীর নামধারী-মুসলমানই ইসলামের নামে এসব করেছে।

অধার্মিক আর শয়তানরাই এখন ধর্মের কথা বলে বেশি


বহুকাল আগে এই দেশে ধার্মিকের একটা শ্বাশ্বত-সুন্দর চেহারা ছিল। আর তখন, এঁদের দেখলে সাধারণ থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষের মনে বিরাট একটা ভক্তিভাবের উদয় হতো। আর এখন ধার্মিকের নাম শুনলে মানুষ আঁতকে ওঠে। কোনো হিংস্র-জন্তুজানোয়ারের নাম নিলেও মানুষ এতোটা আঁতকে ওঠে না—যতোটা এইসব ধার্মিকের নাম শুনে আঁতকে ওঠে!

৭ই নভেম্বর কেন ওদের কাছে জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস


বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার পর বাংলাদেশের রাষ্ট্রক্ষমতা সরাসরি একাত্তরের স্বাধীনতাবিরোধীদের হাতে চলে আসে। এইসময় খুনীচক্রের অন্যতম প্রধান খন্দকার মোশতাকের নেতৃত্বে বাংলাদেশে স্বল্পসময়ের জন্য একটা নামমাত্র সরকার গঠিত হয়। আর এর নেতৃত্ব থাকে আমেরিকা-পাকিস্তানের হাতে। এইসময় তারা, তাদের মনমতো, পাকিস্তানী ভাবধারায়, পাকিস্তানী চিন্তাচেতনায় চিরবিশ্বাসী ও পাকিস্তানীদের মতোই একটা যোগ্যলোক খুঁজছিলো। আর তখনই ওরা পেয়ে যায় বাংলার এজিদ তথা বাংলার চিরবিশ্বাসঘাতক জিয়াউর রহমানকে।

দেশে রাজাকারদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক সরকারের ভিতরেই!



সরকার দীর্ঘদিন যাবৎ সারাদেশে জঙ্গিদমনের জন্য নানারকম পদক্ষেপগ্রহণ করেছেন। এগুলো নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। কিন্তু এখন দেখতে পাচ্ছি, খোদ সরকারের ভিতরেই ঘাপটিমেরে থাকা একশ্রেণীর দেশবিরোধী-লোকজন জঙ্গিবাদের অন্যতম প্রধান পৃষ্ঠপোষক। আর এরা যে-সে লোকজন নয়—এরা আমাদের সমাজের একেবারে হোমরাচোমরা লোক—আর এরা মন্ত্রী, পাতিমন্ত্রী কিংবা এমপি পর্যায়ের লোক। এরা এখন একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে স্বার্থসংশ্লিষ্টবিষয়ে একদেহ-একপ্রাণ হয়ে সরকারের ভিতরেই বসবাস করছে! আর এরা স্বার্থের মায়াজালে আবদ্ধ হয়ে কিংবা স্বার্থখেলার ডামাডোলে আষ্টেপৃষ্টে বন্দি হয়ে, পাকিস্তানীকায়দায় ভাই-ভাই হয়ে দেশে রাজাকারপুনর্বাসনের অপচেষ্টা ও ষড়যন্ত্র করছে। এরা বাংলাদেশরাষ্ট্র ও বর্তমান-সরকারেরও শত্রু।

‘শূয়রের বাচ্চা কখনও মানুষ হয় না’ (পর্ব—৪)



মতিনদের ধরতে ওরা ঝড়ের বেগে রওনা হয়ে যাচ্ছিলো। এমন সময় অধ্যাপক লিটু মিয়া ওদের একটু থামতে বললেন। তারপর তিনি ঘরের বারান্দা থেকে নিচে নেমে এসে ওদের কাছে দাঁড়িয়ে বললেন, “তোমরা খুব সাধারণভাবে ওদের ধরতে যাবে। তোমরা আগে থেকে কাউকে কিছু বুঝতে দিবে না। এভাবে দলবেঁধে একসঙ্গে গেলে এলাকার সবাই বুঝে ফেলবে যে, তোমরা কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে কোনোদিকে যাচ্ছো। আর এতে ধূর্ত মতিন-চোরাটা পালিয়ে যেতে পারে। তাই বলছিলাম, তোমরা দুই-চারজনের একটা দলগঠন করে একটু দূরে-দূরে হাঁটবে, আর পথ চলবে। এতে কারও মনে কোনো সন্দেহের উদ্রেক হবে না।”
প্রথম পর্বের লিংক: https://istishon.com/?q=node/27123
দ্বিতীয় পর্বের লিংক: https://istishon.com/?q=node/27204
তৃতীয় পর্বের লংক: https://istishon.com/?q=node/27385

সহীহ মুসলমানের চেহারা (দ্বিতীয় পর্ব)


হাঁটতে-হাঁটতে ইসমাইল একসময় আরও বলে, “দোস্ত শোন্, আমার এই মামু শালার ব্যাটা কিন্তু আমলীগ আর কমুনিস্ট না কী জানি কী কয়—তাগরে দুইচক্ষে দেখতে পারে না। সে যদি তোর সামনে আমলীগরে গালিগালাজ করে তুই আবার কিছু কইস না কিন্তু! শালার ব্যাটা মনে অয় একাত্তুরে রাজাকারই আছিলো।”
তাইজুল হতাশ হয়ে বলে, “আচ্ছা। আর চল, কাছে গিয়ে দেহি লোকটা কীরহম মানুষ!”
প্রথম পর্বের লিংক: https://istishon.com/?q=node/27344

বাংলাদেশের একটি প্রাইমারি-স্কুল পৃথিবীর সকল মাদ্রাসার চেয়ে উত্তম


পৃথিবীর কিংবা বাংলাদেশের সমস্ত মাদ্রাসা আমাদের একটি প্রাইমারি-স্কুলের সমতুল্য নয়। কথাটি শুনে অনেকে হয়তো আঁতকে উঠতে পারে। কারণ, এরা ধর্মব্যবসায়ী আর এই ধর্মব্যবসায়ীদেরই দালাল কিংবা তাদের বেতনভুক্ত মুখপাত্র। এখানে, হয়তো মাদ্রাসার পোষ্যকোটার দালাল সলিমুল্লাহ খানরা নাকগলাতে পারে। কিন্তু এই দালালদের এই সত্যটি উপলব্ধি কিংবা হৃদয়ঙ্গম করার মতো যোগ্যতা, মেধা ও সৎসাহস নাই।
যাক, বলছিলাম—পৃথিবীর কিংবা এই বাংলাদেশেরই সমস্ত মাদ্রাসা বাংলাদেশের সামান্য একটি প্রাইমারি-স্কুলের সঙ্গে মানে, মননে, মেধায়, শিক্ষাদীক্ষায়, চরিত্রে, সততায় আর দেশপ্রেমের ক্ষেত্রে টিকতে পারবে না। এমনকি এর ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারবে না। এর কারণগুলো এবার খুব সংক্ষেপে ব্যাখ্যা করছি:

‘শূয়রের বাচ্চা কখনও মানুষ হয় না’ (পর্ব—৩)


আগে শোভন রাজনীতি থেকে কিছুটা দূরে থাকতো। সে তার বইপুস্তক পড়া, ভ্রমণ করা, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া ইত্যাদি নিয়ে ব্যস্ত ছিল। কিন্তু এখন তার মনে হচ্ছে—সে এতোকাল বিরাট ভুল করেছে। এখন তার মনে হলো—তার আরও আগে রাজনীতিতে সক্রিয় হওয়া উচিত ছিল। এমনকি তার এই গ্রামেই বসবাস করার প্রয়োজন ছিল। তার কেবলই মনে হলো—সে এতোদিন ভুল করেছে। এবার হয়তো তার ভুলশোধরানোর প্রয়োজন হতে পারে।
প্রথম পর্বের লিংক: https://istishon.com/?q=node/27123
দ্বিতীয় পর্বের লিংক: https://istishon.com/?q=node/27204

মসজিদের এইসব ইমাম মিথ্যাকথার খনি আর শয়তানের দোসর


দেশে আইনের শাসন না থাকায় এইসব ধর্মব্যবসায়ীগোষ্ঠী এখন নিজের ইচ্ছেমতো লাগামহীন ও অশ্লীল কথাবার্তা বলছে। কিন্তু আর কত? এর একটা শেষসীমা থাকা উচিত। মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে এই লাগামহীন ছাগলগুলো এভাবে আর কত ভ্যা-ভ্যা করবে? এদের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক প্রতিরোধব্যবস্থা গড়ে না তুললে ৩০লাখ শহীদের আত্মা কষ্ট পাবে।

সহীহ মুসলমানের চেহারা (প্রথম পর্ব)


সে দেখতে লাগলো: তার চাচা অনেক সময় নিয়ে আজ নামাজআদায় করছে। তাইজুলের এবার সত্যি মনে হলো: সে হয়তো বড় কোনো বুজুর্গ হবে। সে তার চাচার প্রতি মনে আরও ভক্তিভাব আনার সর্বাত্মক চেষ্টা করতে থাকে। আর সে মনে-মনে আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করলো: বাঃ এমন একজন বুজুর্গলোক তিনি তাকে মিলিয়ে দিয়েছেন। সত্যি, আল্লাহ রহিম-রহমান!

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

সাইয়িদ রফিকুল হক
সাইয়িদ রফিকুল হক এর ছবি
Offline
Last seen: 17 ঘন্টা 54 min ago
Joined: রবিবার, জানুয়ারী 3, 2016 - 7:20পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর