নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 12 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • আগুনখোর আঁতেল
  • সৌমেন গুহ
  • আমি অথবা অন্য কেউ
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • আরমান অর্ক
  • সুবিনয় মুস্তফী
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • সুমিত রায়
  • মিশু মিলন
  • সুব্রত শুভ

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

সাইয়িদ রফিকুল হক এর ব্লগ

জুম্মার নামাজের আগে মসজিদের ইমাম বললো, “মেয়েরা শয়তানের জাত!”


জুম্মার নামাজ ঘরে পড়া যায় না। তাই, একরকম বাধ্য হয়েই আমাদের মসজিদে যেতে হয়। কিন্তু মসজিদে গিয়েও শান্তি ও স্বস্তি নাই। সেখানে একশ্রেণীর কাটমোল্লা-মার্কা-ইমামদের অত্যাচারে দেশের নিরীহ ও সাধারণ মুসলমান আজ অতিষ্ঠ। সবখানে এইসব অল্পশিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত, অশিক্ষিত, বেএলেম আর জাহেল-ইমামদের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে।

এইটা মসজিদের ইমাম নাকি ডাস্টবিনের আবর্জনা?


সেদিন জুম্মার নামাজের আগে এলাকার মসজিদের ইমাম সংক্ষিপ্ত ওয়াজের জন্য ধরে এনেছে আরেক মসজিদের ইমামকে। সে নাকি খুব বড় আলেম! তার সম্পর্কে মসজিদের বর্তমান ইমামের বয়ান শুনে আর তার ভাবখানা দেখে মনে হলো—ওই আরেক মসজিদের ইমামের বেহেশতো যেন আগে থেকেই ঠিক হয়ে আছে—সে যেন এমনই এক দামি মানুষ!

ভণ্ড-শয়তান ফরহাদ মজহারের প্রভাবশালী আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবগণ


সময় যতো যাচ্ছে ততই স্পষ্ট হচ্ছে যে, ফরহাদ মজহারের অপহরণের ঘটনাটি সরাসরি নাটক। আর এই নাটকের রচয়িতা সে নিজেই কিংবা অন্য কোনো দেশদ্রোহী। কিন্তু এর পরিচালক ও প্রযোজক যে কে—তা কিন্তু এখনও পুলিশ খুঁজে বের করতে পারেনি। এর পিছনে রয়েছে একটি শক্তিশালী ও প্রভাবশালী ঘাতকচক্র। আর এরা জাতে বাংলাদেশী! কিন্তু এদের দেহ-মন-রক্ত সবকিছুই পাকিস্তানী। এদের উদ্দেশ্য ও মতিগতি ভালো ছিল না। আর এরা এই নিয়ে তাদের স্বার্থের জন্য বড় ধরনের নাশকতাসৃষ্টির পাঁয়তারাও করেছিলো। এবার দেখুন ফরহাদ মজহারের আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধব কারা, আর কী এদের পরিচয়। এদের চিনে নিন:

ভণ্ড ফরহাদ মজহার যে একটা ‘জাতীয় শয়তান’ তার কয়েকটি প্রমাণ


১৯৭১ সাল থেকে ফরহাদ মজহাররা বাংলাদেশবিরোধী আর পাকিস্তানের একনিষ্ঠ দালাল। আর তাই, ১৯৭২ সালে—ফরহাদ মজহার ডেকে নেওয়ার পর খুন হয়েছিলেন তখনকার কবি হুমায়ুন কবির। স্বাধীনতার পক্ষাবলম্বী কবি হুমায়ুন কবির হত্যার পিছনে তার হাত রয়েছে।

বিকৃত-ব্যবচ্ছেদ


তনুশ্রীর একবার মনে হলো: সে বাস থেকে নেমে যাবে। হাঁটলে সহজে তবুও কেউ তার শরীরস্পর্শ করতে পারবে না। এজন্য সে বাসে সহজে উঠতে চায় না। বাসে আজকাল মানুষের পাশাপাশি শিয়াল, শকুন, নেকড়েও উঠছে দলে-দলে। সে ভাবছিলো: এখন কোথাও একটু বসতে পারলে সে আজ দ্বিতীয়বারের মতো ধর্ষিত হওয়ার অবস্থা থেকে রক্ষা পেতো।

বাঙালি-মুসলমানের ঈদেও পাকিস্তানপ্রেম


বাঙালি-মুসলমানের একটি শ্রেণী আজ এতোটাই গাদ্দার হয়ে উঠেছে যে, এদের কাছে নিজের দেশ এখন সম্পূর্ণরূপে উপেক্ষিত। এরা অবলীলাক্রমে নিজেদের শয়তানীবুদ্ধিতে আজ দেশের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে সামান্যতম লজ্জাবোধ করছে না। এরা দেশের স্বার্থ ও সম্মান ভূলুণ্ঠিত করতেও কোনোপ্রকার দ্বিধাবোধ করছে না। তাই, এরা ধার্মিক হতে গিয়ে পথভুলে আজ শয়তানে পরিণত হচ্ছে। তবুও এদের কোনো বোধোদয় ঘটছে না। এই শ্রেণীটি সবসময় দেশের খাবে—কিন্তু পরের গুণগান গাইবে!

আগে ছিল ঈদ আর এখন ঈদের নামে শুধুই ফ্যাশন কিংবা অভিনয়


টাকালোভী-সম্পদশালী-সম্পদলুটপাটকারী ও নষ্টচরিত্রের এই ধনিকশ্রেণীটি এখন বিদেশে গিয়ে ঈদ করছে। আসলে, এটি ঈদ নয়—এটি হলো তাদের ঈদের নামে ভণ্ডামি আর ফুর্তি! এরা সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক, মালয়েশিয়া থেকে শুরু করে ইউরোপের অনেক দেশের হোটেলে সময় কাটাচ্ছে—আর সেখানে মদ ও মেয়েমানুষ নিয়ে ফুর্তি করছে। ঈদ এখন এদের কাছে ফ্যাশন মাত্র। আর এই অমানুষের দলের কাছে দেশের সাধারণ ও গরিব মানুষের স্থান কোথায়?

ইসলামের নামে ইফতারমাহফিল বা ইফতারপার্টি স্রেফ ভণ্ডামি


দেশে ধার্মিকের চেয়ে ভণ্ডের সংখ্যা অনেকগুন বেশি। আর এই দেশে এখন প্রতিনিয়ত ভণ্ডের চাষ হচ্ছে। আজ ধর্মের নামে বুকফুলিয়ে শয়তানী-আবাদ করা হচ্ছে। তাইতে আমাদের এই ছোট্ট দেশটাতে আজ এতো-এতো শয়তান! এখানে, শয়তানের কোনো অভাব নাই। তাই, এখানে জাতশয়তান, কালশয়তান, পাতিশয়তান, ভণ্ডশয়তান, আর ধর্মের নামে সর্বপ্রকার শয়তান নানারূপে, নানাবর্ণে, নানাউদ্দেশ্যে আজকাল আসন গেড়ে বসেছে। আর সব শয়তানের উদ্দেশ্য কিন্তু একটাই—ধর্মের নামে যেকোনোভাবে নিজেদের স্বার্থউদ্ধার করা।

নাপাকিসন্তান ইমরান খান নাপাকি-জেনারেলদের মতোই কথা বলছে


এই তো কয়েক বছর আগেও বাংলাদেশে খেলতে এসে পাকিস্তানীরা জোরপূর্বক আমাদের বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছিলো। আর আমাদের দেশের খেলোয়াড়দের “রান” নিতে বাধার সৃষ্টি করেছিলো। এটি সারাবিশ্বের মানুষ দেখেছিলো। এই নিয়ে পরে আমাদের দেশ ‘আইসিসি’-তে অভিযোগও দায়ের করেছিলো। কিন্তু পাকিস্তানী-লবিস্টরা তা ধামাচাপা দিয়েছে। এদের পাপের ও অপকর্মের শেষ নাই।

ভণ্ড ইমামের অধর্ম-অপকর্মে বাধা দেওয়ায় জীবন গেল সাধারণ-নিরীহ মুসল্লীর



মসজিদের একশ্রেণীর ইমাম এখন ধর্মপালনের চেয়ে রাজনীতিপালনে বেশি আগ্রহী ও তৎপর হয়ে উঠছে। আর ধর্মের অপব্যাখ্যা করে তাদের ব্যক্তিগত ও মনগড়া সিদ্ধান্ত সাধারণ মুসল্লীদের উপর চাপিয়ে দেওয়ার প্রবণতা ভয়ানকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আর এইব্যাপারে বাংলাদেশের বিভিন্নস্থানে আজকাল ভণ্ডইমামদের অপতৎপরতা দিনের-পর-দিন বেড়েই চলেছে। এরা নিজেরা শুধু মুখে-মুখে আল্লাহ-রাসুলের নাম-ভাঙ্গিয়ে আর দিন-রাত ইসলাম-ইসলাম করে এদেশের সাধারণ ধর্মপ্রাণ মানুষ ও মুসলমানদের বিভ্রান্ত করছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

সাইয়িদ রফিকুল হক
সাইয়িদ রফিকুল হক এর ছবি
Online
Last seen: 34 min 17 sec ago
Joined: রবিবার, জানুয়ারী 3, 2016 - 7:20পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর