নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • জীহান রানা
  • দীব্বেন্দু দীপ
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • জয়বাংলা ১৯৭১

নতুন যাত্রী

  • বিদ্রোহী মুসাফির
  • টি রহমান বর্ণিল
  • আজহরুল ইসলাম
  • রইসউদ্দিন গায়েন
  • উৎসব
  • সাদমান ফেরদৌস
  • বিপ্লব দাস
  • আফিজের রহমান
  • হুসাইন মাহমুদ
  • অচিন-পাখী

আপনি এখানে

অনন্য আজাদ এর ব্লগ

পুরুষতন্ত্র



এই দুনিয়াটা ভাই, বাবা, স্বামী, মামা, কাকা, চাচা, দাদা, নানা অর্থাৎ পুরুষের একচেটিয়া সম্পত্তি। কোন দিন শুনলাম না স্ত্রীর মৃত্যুর পর স্বামীকে জীবন্ত আগুনে পোড়ানো হয়েছে, কিংবা কোন দিন শুনলাম না পুত্রসন্তান প্রসব করার কারণে পুত্রকে জীবিতাবস্থায় মাটিতে পুঁতে দেওয়া হয়েছে, কিংবা কোন দিন শুনলাম না কন্যা সন্তান প্রসব করার কারণে স্বামীকে নির্যাতনের ইতিহাস, কিংবা স্ত্রীর দীর্ঘায়ুর জন্য প্রার্থনা করার রীতি, বা বোনের সাফল্যে জন্য ভাইয়ের কামনা!

তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র জার্মানি


হিপোক্রিসি শুধু বাঙালি জাতিরই একচেটিয়া সম্পত্তি নয়! জার্মানদের মধ্যেও হিপোক্রিসি বিদ্যমান। পার্থক্য হচ্ছে, তথাকথিত সভ্য জাতি হিসেবে পরিচিত জার্মানেরা বা ইউরোপিয়ানেরা এতো নিখুঁত, দক্ষ এবং শান্তশিষ্ট ভাবে হিপোক্রিসি করে থাকে যা চোখে পড়া কঠিন। অন্যদিকে, বাঙালি বা এশিয়ানেরা স্বভাবত খুবই উত্তেজিত ও বাচাল প্রকৃতি হওয়ার কারণে সেগুলো চোখে পড়ে।

কখনো যদি


কখনো যদি তোমার শহরে বৃষ্টি হয়, তাহলে মনে করো সেই বৃষ্টির ফোটা হয়ে তোমার শরীর ছুঁয়ে নিবো।
কখনো যদি সিদ্ধান্তহীনতায় দীর্ঘ নিঃশ্বাস ছাড়ো, সেই নিঃশ্বাসের বায়ুতে আমাকে খুঁজে ফিরো।
কখনো যদি শত মানুষের ভিড়ে নিজেকে একলা মনে করো, তাহলে ভেবে নিও তোমার ছায়ার মধ্যেই আমার উপস্থিতি।
কখনো যদি ভিন্ন মনুষ্যে নিজেকে খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করো, তাহলে ধরে নিও তুমি সুখী নও।
কখনো যদি যন্ত্রণায় ছটফট করো, শান্ত মনে আমাকে স্মরণ করো।
কখনো যদি আমাকে স্মরণ করো- তাহলে খুঁজে পাবে তোমার শরীরের গন্ধে মিশে থাকা আমার দীর্ঘ প্রতীক্ষার ইতিহাস।

দেশ চলবে হাসিনাতন্ত্রের নিয়মানুসারে


বর্তমানে শেখ হাসিনা একনায়কতন্ত্রের স্বপ্নে বিভোর। শেখ মুজিব যে ভুল করতে যাচ্ছিলেন তার প্রিয়তমা কন্যা সেই ভুল শুধরে নেওয়ার পরিবর্তে একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি করতে যাচ্ছেন। বর্তমানে এমন এক ভীতিকর পরিস্থিতি বিদ্যমান- যে শেখ হাসিনার কর্মকাণ্ডের বিপক্ষে, কিংবা তার কোনো সিদ্ধান্তের বিপক্ষে, কিংবা তার শাসনামলে ভুল-ত্রুটি নিয়ে যে ব্যক্তিই কণ্ঠস্বর তুলবেন তাকে হয় দেশান্তরী হতে হবে, অথবা তার মৃত্যু অনিবার্য। এখন যদি শেখ মুজিব জীবিত থাকতেন এবং শেখ হাসিনার সমালোচনা করতেন তাহলে তাকেও হয়ত দেশান্তরী হতে হতো।

প্রতিক্রিয়াশীল প্রেম এবং ডিভোর্স


আমার এক বান্ধবীর ডিভোর্স হয়েছে। বান্ধবী যন্ত্রণায় ছটফট করেই যাচ্ছে। বান্ধবীকে বিয়ের পূর্বেই জানিয়েছিলাম যে এই বিয়ে টিকবে না। আমার পক্ষে অনুমান করাটা সহজ ছিল কারণ বান্ধবী সম্বন্ধে আমার ভালো ধারণা ছিল। এবং পাত্রের সাথে কথোপকথন শুনে আমার মনে হয়েছিল যে, সাময়িক উত্তেজনার জন্য মানুষ মাঝে মাঝে যা কিছু করে থাকে, সেই ব্যক্তিও তেমনই করে যাচ্ছিল- ফলাফল ডিভোর্স।

পুরুষতন্ত্রের ভণ্ডামো


আমার এক বান্ধবী ছিল যে প্রতি দশ মিনিটে একবার করে উচ্চারণ করতো 'আমার কী আর সেই বয়স আছে'! বান্ধবী প্রায় সব ক্ষেত্রেই অসাধারণ ভূমিকা পালন করতে সক্ষম, কিন্তু মস্তিস্কে ঢুকানো হয়েছিল বিয়ের বয়স চলে যাচ্ছে বা গেছে।

ঘটনা হচ্ছে, আশেপাশের প্রতিক্রিয়াশীল মানুষজন বান্ধবীর মস্তিস্কে জোরপূর্বকভাবে গেঁথে দিয়েছিল যে বান্ধবীর অনেক বয়স হয়ে গিয়েছে। এবং ধীরে ধীরে সে নিজেও ভাবতে শুরু করেছিল যে তার অনেক বয়স বেড়ে গেছে। পুরুষতান্ত্রিক সমাজে নারীকে যেভাবে বয়সের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হয়, ঠিক সেভাবেই আমার বান্ধবীর মস্তিস্কে ভরে দেওয়া হয়েছিল দুর্গন্ধময় আবর্জনা।

নিকৃষ্ট সমাজব্যবস্থা ও ঝঞ্ঝামুখর সংস্কৃতি


আমার খুব ভালো লাগে যখন দেখি বয়স্ক মানুষেরা হাতে হাত রেখে ঘোরাঘুরি করে। খুব ভালো লাগে যখন দেখি পঞ্চাশ, ষাট, সত্তর বয়সী নারীপুরুষ চোখে চোখ রেখে ভালোবাসার গল্পে মেতে থাকে। শরীরে বয়সের স্পষ্ট ছাপ, কোঁচকানো চামড়া থাকা সত্ত্বেও একে অপরকে চুম্বন করে প্রেমময় আবেদনের বহিঃপ্রকাশ মুগ্ধনয়নে চেয়ে দেখি।

বাঙালি মুসলমানের মানবতা সন্দেহজনক


বাঙালি যখন নীতি আদর্শ নিয়ে উচ্চবাচ্য করে এবং মুসলমান যখন মানবতা নিয়ে অশ্রু বিসর্জন দেয় তখন বুঝতে হবে এর পেছনে স্বার্থ জড়িত। স্বার্থ ছাড়া বাঙাল ও মুসলমান এক পা এগোয় না। বাঙালি মুসলমানের উপর বিশ্বাস রাখা নিজ পায়ে কুড়াল মারার মতোই।

শরীরের স্বাধীনতায় পুরুষ ভীত


যারা বলে থাকে, বাঙলাদেশে ধর্ষণ বা নারী নির্যাতনের ঘটনা নারীর প্রতি পুরুষের সহিংসতা বা পুরুষতান্ত্রিকতার সমস্যা নয়, বরং সামাজিক সমস্যা- তারা একেকজন পুরুষতন্ত্রে আক্রান্ত রোগী এবং ধর্ষণকামী পুরুষ। এরাই পিতৃতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থাকে টিকিয়ে রাখার জন্য নারীকে শিশ্নপরিচর্যাকারী হিসেবে মূল্যায়ন করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে এবং নিজস্ব সুবিধার্থে বিভিন্ন উপমায় নারীর নামকরণ করে।

বিপদজনক মানুষ, পশুপাখি নয়



লেকের পাশে বসে খুব মনোযোগ সহকারে বার্গার ভক্ষণ করছিলাম। আশেপাশে মানুষজনের সংখ্যাও কম ছিল না। কেউ গল্প করছিল, কেউ ভালোবাসার মানুষকে আদর করছিল, কেউ গান গাইছিল, কেউ পান করছিল। আর আমি মনোযোগ দিয়ে ভক্ষণ করেই যাচ্ছিলাম।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

অনন্য আজাদ
অনন্য আজাদ এর ছবি
Offline
Last seen: 8 ঘন্টা 6 min ago
Joined: শুক্রবার, সেপ্টেম্বর 4, 2015 - 10:56অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর