নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • বিকাশ দাস বাপ্পী
  • রসিক বাঙাল
  • এলিজা আকবর

নতুন যাত্রী

  • সাতাল
  • যাযাবর বুর্জোয়া
  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম

আপনি এখানে

অনুপম সৈকত শান্ত এর ব্লগ

ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়ন বিষয়ক আইন


যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণ কেবল অপরাধ নয়, এটি একটি ব্যাধি। এটি কেবল ব্যক্তি বিশেষের তথা অপরাধীর ব্যাধি নয়, পুরো সমাজেরই ব্যাধি। বর্তমানে পুরো বাংলাদেশে যেভাবে মহামারীর মত এই ব্যাধিটি ছড়িয়ে পড়েছে, তাতে এর আশু চিকিৎসা আবশ্যক হয়ে পড়েছে। এখান থেকে মুক্তির জন্যে তীব্রে সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতিক আন্দোলন দরকার। যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণ নিয়ে আইনী আলোচনা এই আন্দোলনের খুব ছোট একটি অংশ, কেননা এটি কেবল দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালনের উপরে দৃষ্টি দেয়। কিন্তু দুষ্টের দুষ্ট হয়ে ওঠার মনস্তাত্ত্বিক তথা সামাজিক- সাংস্কৃতিক- রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট যেহেতু আইনের আওতাধীন নয়, সেহেতু সে দুষ্টের দমনের মাধ্যমে দৃষ্টান্ত তৈরি করে সমাজ থেকে অপরাধ নির্মূলের চেষ্টা করে। সে কারণেই কেবল যথাযথ আইন ও বিচার ব্যবস্থা দিয়েই সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। কিন্তু আইনের মাঝেই যদি গলদ থাকে, বিচারে যদি ফাঁকি থাকে, তবে সাধারণ মানুষের যাওয়ার আর কোন জায়গাই থাকে না। সে জায়গা থেকেই আইন-আদালতের আলাপটাও খুব জরুরি। আলোচ্য লেখায় বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যৌন নিপীড়ন ও ধর্ষণ বিরোধী আইনগুলোর পর্যালোচনা করা হয়েছে, তা করতে গিয়ে অন্যান্য দেশের এ সংক্রান্ত কিছু আইনের সাহায্যও নেয়া হয়েছে।

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ও প্রতিক্রিয়াসমূহ


সংবিধানের বিধান সংশোধন করার এখতিয়ার কেবলমাত্র জাতীয় সংসদের। কেবল সংবিধান সংশোধন নয়, অন্য যেকোন আইন রদ, বদল বা নতুন আইন প্রণয়নেরও এখতিয়ার সংসদের। সে কারণেই সাংসদদের বলা হয় আইন প্রণেতা। সংবিধানের ১৪২ নম্বর অনুচ্ছেদে সংবিধান সংশোধনের ক্ষমতা সাংসদদের হাতে ন্যস্ত করা হয়েছে। জাতীয় সংসদের দুই তৃতীয়াংশের ভোটে সংবিধানের বিধান পাল্টানো যায়, পুরান বিধান রদ বা বাতিল, পরিবর্তন, পরিবর্ধন করা যায়, আবার সম্পূর্ণ নতুন বিধানও প্রণয়ন করা যায়। তবে, সংবিধান সংশোধনের এই ক্ষমতা নিরঙ্কুশ নয়। সংবিধানেরই আরো কিছু ধারা দিয়ে সংবিধান সংশোধনের কিংবা যেকোন আইন প্রণয়নের সীমানা তৈরি করে দেয়া হয়েছে! অর্থাৎ সাংসদেরা কেবল নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলেই সংবিধান পরিবর্তন করতে পারবে না বা সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে চাইলেই নতুন যেকোন একটা আইন প্রণয়ন করতে পারবে না।

‘বাল্যবিবাহ নিরোধ বিল ২০১৭’ - একটি পর্যালোচনা


প্রধানমন্ত্রী যুক্তি করেছেন, অনাকাঙ্খিত সন্তান চলে আসলে বিবাহ দেয়াই একমাত্র উপায় হতে পারে, সেরকম ক্ষেত্রে এই বিশেষ বিধান বিশেষ কাজে লাগবে। বাস্তবে, এর মধ্য দিয়ে ধর্ষণকেই উৎসাহিত করা হয়েছে। কেননা, শিশুদের সাথে সম্মতিতেও যৌন সম্পর্ক করা হলে ধর্ষণ হিসেবে বিবেচনা ক’রে (নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ দ্রষ্টব্য) যেখানে ধর্ষককে কঠোর শাস্তির মাধ্যমে এরকম ঘটনার প্রকোপ কমানোর কথা, সেখানে ধর্ষণের ফলে অনাগত শিশুর ভবিষ্যতের কথাকে অযুহাত হিসাবে ধর্ষককে কেবল দায়মুক্তিই দেয়া হচ্ছে না, ধর্ষকের সাথে বিবাহের ব্যবস্থা উপহার স্বরূপ দেয়া হচ্ছে।

বাংলা একাডেমীর স্বায়ত্বশাসন


অনেকেই অমর একুশে বইমেলাকে বাংলা একাডেমীর খপ্পর থেকে বের করার দাবী তুলছেন। অনেকে বলছেন- এটা বেআইনি বা আইন অনুযায়ী বইমেলা করার কোন এখতিয়ারই বাংলা একাডেমীর নেই। অনেকে বাংলা একাডেমী আইন ২০১৩ দেখিয়ে জানাচ্ছেন, মহাপরিচালকের শ্রাবণ প্রকাশনীকে নিষিদ্ধ করার কোন আইনি এখতিয়ার নেই। অমর একুশে বইমেলাকে বাংলা একাডেমীর হাত থেকে বের করে কার হাতে কিভাবে ছেড়ে দেয়া যায়- সেটার ব্যাপারে অনেকে জানাচ্ছেন- প্রকাশকরা মিলে এটা করবে।

বাংলা একাডেমীর ইতিহাস, বইমেলার ইতিহাস


বাংলা একাডেমী ও একুশে বইমেলা- দুটোই জনগণের ধারাবাহিক সংগ্রামের ফসল। বাংলা একাডেমী গড়ে ওঠে আমাদের ভাষা আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে, যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে জয়লাভের মধ্য দিয়ে। আর ফেব্রুয়ারি বইমেলার শুরু ৯ মাসের রক্তাক্ত মুক্তিযুদ্ধে জয়লাভের ঠিক পরের ফেব্রুয়ারিতেই। বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতি নিয়ে গবেষণা, এর প্রসার ও প্রচারের মত খুব গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব বাংলা একাডেমীর ঘাড়ে। যদিও এটিকে সরকারের হাতের মুঠোয় নিয়ে গিয়ে ক্রমশ একটি বন্ধা ও বদ্ধ সংস্থায় পরিণত করা হচ্ছে। একইভাবে আজকের বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় ইনটেলেকচুয়াল মিলনমেলায় পরিণত হওয়া ও বাংলাদেশের লেখক- প্রকাশক – পাঠক- সকলের জন্যেই একটি উৎসব হয়ে দাঁড়ানো

বোর্ডিং কার্ড

অনুপম সৈকত শান্ত
অনুপম সৈকত শান্ত এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 3 দিন ago
Joined: রবিবার, অক্টোবর 5, 2014 - 4:02অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর