নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • বেহুলার ভেলা

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

মরেনো এর ব্লগ

বিশ্ব তোলপাড়, ভারত তোলপাড়, মোদি আর বিজেপি ক্ষমতায় আসলে কি হবে?


বিশ্ব তোলপাড়, ভারত তোলপাড়, মোদি আর বিজেপি ক্ষমতায় আসলে কি হবে? বিশ্বের সর্ববৃহত গনতন্ত্রের দেশ ভারত কি গনতন্ত্রের সহায়তায় এক উগ্র হিন্দু সাপম্রদায়িক দেশে পরিনত হতে যাচ্ছে? ভারতের হিন্দুরা কি উগ্র সাম্প্রদায়িকতার দিকে ঝুকছে?

বাংলাদেশেও এই তোলপাড়ের ঢেউ লেগেছে, লাগতে বাধ্য। বাংলাদেশের সংখ্যগুরুরা সংকিত ভারতের বাংলাদেশ নিতি আরো বৈরি আর বৈষ্যম্যমুলক হবে ভেবে, আর সংখ্যালঘুরা সংকিত যে বাংলাদেশে ভারত বিদ্বেষ বেড়ে যাবে আর তা প্রতিফলিত হবে ঘরের কাছের সংখ্যালঘু বিদ্বেষে।

জামাত নিষিদ্ধ করনের দাবি – রাজনৈতিক প্রজ্ঞা আর বাস্তবতাহিন


আমার মতে জামাত নিষিদ্ধের এই দাবি রাজনৈতিক প্রজ্ঞা আর বাস্তবতাহিন। ওদের নিষিদ্ধ করলেই কি ওদের সমর্থকরা, যারা যথেষ্ট সংখ্যক ও রাজনৈতিক ভাবে সবচেয়ে সুসঙ্ঘটিত, ভানিশ হয়ে যাবে?

জিয়ার স্বাধিনতা ঘোষনা - আর অর্বাচিন বালখিল্যতা


এই নিয়ে কত বিতর্ক। জিয়াউর রহমান ঘোষনা দিয়েছিলেন ঘটনাচক্রে দৈবাত সেই মুহুর্তে চট্টগ্রামে উপস্থিত ছিলেন বলে - অন্য কোনো অফিসারও হতে পারতো। ওই ঘোষনার গুরুত্ব তখন পর্যন্ত অচেনা অজানা মেজর জিয়াউর রহমানের বিদ্রোহ নয়, বরং একমাত্র বাঙালি সামরিক ইউনিট ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টগুলির, ইউনিট হিসাবে বিদ্রোহ। যা পাকিস্তানি আক্রান্ত নিরস্ত্র বাঙ্গালিকে প্রচন্ড সাহস আর আশা যুগিয়েছিল।

বাংলাদেশের কাটা মুন্ডু আর ভয়ঙ্কর অসুস্থ আমরা


অনেক আগে কোথায় যেনো পড়েছিলাম এক এক্সপেরিমেন্টে নাকি দেখা গেছে যে একটা ব্যাঙকে যদি একটা পানি ভর্তি পাত্রে রেখে খুবই আস্তে আস্তে পানির তাপমাত্রা বাড়ানো হয় (স্লো- বয়েল), সে নাকি সেদ্ধ হয়ে মরে না যাওয়া পর্যন্ত নিজের বিপদ বুঝতে পারে না, তাপমাত্রা বৃদ্ধিটা আস্তে আস্তে সয়ে নিতে থাকে।

আমাদেরও কি ওই ব্যাঙের মত অবস্থা? আমরাও কি চরম অবক্ষয়ি চরম নৈরাজ্যকর রাজনৈতিক সামাজিক আর শাসনিক পরিবেশের স্লো বয়েলের শিকার?

প্রজন্ম আন্দোলন - মানুষ মানবতা, বিশ্বাস অবিশ্বাস, নাস্তিকতা আস্তিকতা


মানুষ আর মানবতার অনেক ইউটোপিয়ান কথার ফুলঝুড়িই আমরা ছড়াতে পারি। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে মানুষ এই প্রানিকুলের সবচেয়ে হিংস্র স্বার্থপর আর শঠ প্রানি।

বিশ্বাস,শুধু ধর্মবিশ্বাসই মানুষের একমাত্র বিশ্বাস নয়, নাস্তিকতা,গনতন্ত্র,পুজিবাদ, কম্যুনিজম, বাক স্বাধিনতা,নাগরিক অধিকার, ইত্যাদি ইত্যাদি সবই বিশ্বাসের ব্যাপার। জটিল মানব জাতি সাধারনত একাধিক বিশ্বাসের নানা পারমুটেশন কম্বিনেশন নিয়েই চলে। তবে তার শঠতায় মানুষ মুখে তার বিশ্বাসের ফুলঝুড়ি ছোটালেও,তার বিশ্বাস শুদ্ধ নয়, আর সে তার অশুদ্ধ বিশ্বাস প্রয়োগ করে নিজের স্বার্থ অনুযায়ি, বিভিন্ন মাত্রার কপটতায়।

প্রজন্ম অভ্যুত্থান যেন ভেসে না যায় – লক্ষ্যকে জিবনসংগ্রামের ভিত্তি দিন, জনমুখি হোন


আমার কেনো জানি মনে হচ্ছে শাহবাগ চত্বরের এত সম্ভবনাময় নতু্ন প্রজন্মের অভ্যুত্থান, যার সম্ভবনা আছে নতুন প্রজন্মের নতুন ধারার রাজনৈতিক শক্তি হিসাবে উত্থানের, তা যেন একটা খনিকের হুজুগের মতো থিতিয়ে পড়ছে জামাতি কুট কৌশলের মুখে।

প্রজন্ম চত্বর মঞ্চ থেকে ছাত্র নেতাদের আর ধর্মবিদ্বেষি নাস্তিকদের হটান


“ব্লগার মাত্রই নাস্তিক নয়। যেমন টুপি দাড়ি মানেই জামাত নয়” এটা জনতাকে পরিস্কারভাবে বোঝানোর দ্বায়িত্ব আন্দোলোনকারীদের, তাদের নেতা আর সংঘঠকদের। অপ্রাসঙ্গিক নাস্তিকতা, ধর্র্মবিদ্বেষিকতাকে আর দলিয়করনকে সামান্যতম প্রশ্রয় দিলেই যে জামাত তার রাজনৈতিক ফয়দা তুলতে লুফে নেবে এবং নিচ্ছে তাতো জানা কথা। তা জেনেও শাহবাগ মঞ্চের সংগঠক নেতৃত্ব এই ভুল কেন করছেন?

বোর্ডিং কার্ড

মরেনো
মরেনো এর ছবি
Offline
Last seen: 4 years 1 month ago
Joined: শনিবার, ফেব্রুয়ারী 23, 2013 - 9:35পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর