নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • নগরবালক
  • শ্মশান বাসী
  • মৃত কালপুরুষ
  • গোলাপ মাহমুদ

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

সুষুপ্ত পাঠক এর ব্লগ

দেশি মৌলবাদী বনাম ভারতীয় মোদী ফিবার


বাংলাদেশের মৌলবাদীরা মোদীর বিজয়ে বিষণ্ন, ক্ষুব্ধ, হতাশ...। রাহুল গান্ধির কংগ্রেস জিতলে তারা স্বস্থির নিঃশ্বাস ফেলতো! (মজা দেখেন, কংগ্রেস সেক্যুলার রাজনৈতিক দল হিসেবে পরিচিত!) যাদের কথা বললাম এরা দেশে ইসলামী আইন-কানুন চালুর পক্ষের লোক। সংবিধানে বিসমিল্লাহ থাকলে এদের আপত্তি নেই। বরং কেউ পরিবর্তনের কথা বললে এরা “ অহেতুক বিতর্ক তৈরি করা ঠিক হবে না” গোছের অজুহাতে সংবিধানকে ইসলামীকরণকে জিইয়ে রাখতে চায়। অবশ্য এরা বিধর্মী নাগরিকদের প্রতি কোরআন-সুন্না মোতাবেক অধিকার দিতে আগ্রহী। এটাই নাকি তাদের জন্য সবচেয়ে ভাল ও সুফল (তাহলে কি অন্যান্য হিন্দু, খ্রিস্টান প্রধান রাষ্ট্রে ইসলাম মোতাবেক শাসন চালু করা উচিত? মুসলিমরা তাদের সবচেয়ে ভাল ও সুফল দিবে!)।মোট কথা তারা মুসলিম, তারা সংখ্যাগরিষ্ঠ, তাদের ধর্ম সর্ব শ্রেষ্ঠ, তাদের ধর্মেই একমাত্র সুশাসন দেয়া আছে

"মো: উট" সমাচার ও ভাষা-সংস্কৃতির উপনিবেশন...


এক সময় একটা চায়ের দোকানে বসে আড্ডা মারতাম। দোকানদারের নাম মো: জামাল। সে কয়েক বছর সৌদি আরব ছিল। সে একদিন কথা প্রসঙ্গে বলল, মামা, সৌদি যাবার পর জানলাম আমার নামের অর্থ উট! এমুন দুঃখ পাইছি। বাপ-মায় আমারে উট নাম রাখলো কোন আক্কেলে কন তো?...

মো: জামাল এর বাংলা করলে দাঁড়ায় “মো: উট”!

প্রথম আলোর ফান ম্যাগাজিনের সেই কার্টুনটির কথা সবার মনে আছে নিশ্চয়? শিক্ষক বলছে ছাত্রকে, নাম বলার আগে সব সময় মো: বলবা। ছাত্রর হাতে ছিল একটা বিড়াল, শিক্ষক জানতে চায় , এটা কি? বোকা ছাত্রর উত্তর: মো: বিলাই!...

আমি কি বাঙালি?


বাঙালির নিজস্ব খাবার কি? বাঙালির নিজস্ব পোশাক? আজ বাঙলা নববর্ষের দিনে সবাই নাকি একদিনের জন্য বাঙালি সাজবে? বাঙালি খাবার খাবে? এটা নিয়ে শ্লেষ ছলে বলা হয় কথাগুলো। ধর্মান্ধ মুসলিম মৌলবাদীরা আবার বৈশাখ পালনে এ্যালার্জি বোধ করেন। এবারই সিলেটে একটা ভূইফোড় মৌলবাদী সংগঠন বৈশাখ পালনের নামে বেল্লাপনাকে ঠেকানোর ঘোষণা দিয়েছে। তারা শহরে ইসলামী নিয়মে বর্ষবরণ করে দেখিয়ে দিবে। এরা যাই হোক বর্ষবরণ “ইসলামী” ধারায় পালনের কথা বলছে, অন্য মৌলবাদীরা বাঙলা নববর্ষকে পুরোপুরিই শরীয়ত বিরোধী মনে করে।ঢাকা শহর সহ দেশের শহুরে জীবনে যে বৈশাখ পালনের বর্তমান চেহারা তা খুব বেশিদিনের নয়। ৮০ দশকে খুব সম্ভবত ঢাকার বাইরে চারুকলা প্রথম মঙ্গল শোভাযাত্রার সূচনা করে।ক্রমে সেটা ঢাকায় রমনায় জনপ্রিয় হয়ে যায়। বৈশাখের প্রথম প্রভাতে “এসো হে বৈশাখ”

ফাইজুরা কামড়িয়েছে, মাজারেও ব্যবসা হয়েছে, কিন্তু এটাই একমাত্র সত্য নয়, "গণজাগরণটাই পূর্ণ সত্য...


যারা লেখার জন্য একজন লেখককে রাস্তায় পেলে কোপায়, চিরতরে তার লেখনী বন্ধ করে দেয় তাদের সঙ্গে ফাইজুদ্দিনদের তফাত কোথায়?

ধর্ম ধার্মিক ধর্ম


টিভিতে ইসলামী সাওয়াল জবাবের অনুষ্ঠান অত্যন্ত জনপ্রিয় দেখলাম। প্রচুর দর্শক ফোন করেন, চিঠি পাঠান, মেইল করেন। তারা জানতে চান অমুক কি ইসলামে জায়েজ? ওটা খাওয়া কি হালাল? কাজটা শরীয়ত সম্মত হবে তো?... যে দেশের রন্ধে রন্ধে দূর্নীতি সে দেশের মানুষ যে হালাল সাবান খুঁজবে বাজারে গেলে এ আর নতুন কি?

আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা, ফারাবী ও দুই কিশোর ব্লগার...


আমি আপনাদের কাছে প্রশ্ন রাখতে চাই, “ইহুদী-খ্রিস্টানরা তাদের ধর্মগ্রন্থ বিকৃত করে ফেলেছে” এই উক্তির মধ্যে ইহুদী ও খ্রিস্টান ধর্মে বিশ্বাসীদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগার মত কিছু আছে কিনা? “কোরআন বিকৃত হয়ে গেছে” -এই উক্তি কি কোন বিশ্বাসী মুসলিমের ভাল লাগবে?

রাজাকাররা ও তাদের সন্তানেরা


ক্লাশ এইটে পড়ার সময় আমি প্রথম রাজাকার দেখি। মোটামুটি বড় ধরনের রাজাকার।ইয়াহিয়ার সঙ্গে একদল লোকের মাঝে একজন জিন্না টুপি পরা লোককে আমার বন্ধু আঙ্গুল দিয়ে দেখালো, এইটা আমার দাদা! সে চাপা গলায় বিব্রতভাবে বলল, আমার দাদা, বাবা দুজনেই রাজাকার ছিলেন…।

একদিন টিফিনের সময় স্কুল থেকে রাতুলদের (ইচেছ করেই নামটা পাল্টে দিলাম) বাসায় গিয়েছিলাম ভাত খেতে। রাতুলই খুব পিড়াপিড়ি করে আমাদের কয়েকজনকে ডেকে নিয়ে যায়। ফটোগ্রাফটা অবশ্য সে আমাকে একা ডেকে নিয়ে গিয়ে দেখায়।যেন গোপন একটা পাপকে সে আমার কাছে প্রকাশ করছে এমনভাবে দেয়ালের ফটোটাকে দেখালো। আমাকে বলল, কাউকে বলবি না কিন্তু…।

চটি লেখা হাতে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লেখার দরকার নাই


একজন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে শক্তির সমর্থক, ব্লগিয় ছাগু ফাইটার, যিনি মুক্তিযুদ্ধে ২ লাখ নারীর সম্ভ্রমহানীর জন্য রাজাকার-আল বদর মুজাহিদ, নিজামী, গোলাম আযমদের ক্ষমা করতে পারেন না, তিনিই যদি ব্যক্তিগত জীবনে এ দেশের মেয়েদেরকে অনলাইনে ¯্রফে পণ্য হিসেবে প্রকাশ করেন তখন তাতে কি বলবো আমরা?

রাষ্ট্রর নাস্তিকতা ভিন্ন সমাধান নাই


আমার প্রতি অভিযোগ আমি নাকি ধর্ম নিয়ে লিখি। কথাটা আমি স্বীকার করি না। ব্লগে ধর্ম নিয়ে যে ধরনের পোস্ট আসে আমি সেরকম লেখার যোগ্যতা রাখি না। আমি কোরআন-হাদিস, বেদ-বাইবেল বিষয়ে কোন জ্ঞান রাখি না। কাজেই এইসব গ্রন্থে কোথায় কি গন্ডগোল, কোন অবতার বদমাশ আর ভন্ড সেসব নিয়ে সরাসরি আমার কোন লেখা নেই। তবু যেহেতু সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতা, মৌলবাদীতার বিরুদ্ধে লিখি কাজেই ধর্ম নিয়ে লিখি এই সরলীকরণে পড়তে হবে জানা কথাই। আমি সব সময় সাম্প্রদায়িকতার মূল কোথায় চিহ্নিত করতে চেষ্টা করি, তালেবান উৎপাদনের কারখানাকে দেখানোর চেষ্টা করি। বলতে চেষ্টা করি, বেড়ায়ই ধান খাচ্ছে...। এই লেখাটির ট্যাগেও ধর্ম লেখা আছে। এই সাম্প্রদ

“বাংলাদেশ” চেতনায় ইসলামী ফ্লেভার মেশালেই আমরা সবাই স্বাধীনতার পক্ষশক্তি


মুক্তিযুদ্ধের পক্ষ সেজে কৌশলে ইসলামী রাষ্ট্রর গান গাওয়া অনেক সুবিধাজনক। আওয়ামী লীগের প্রশংসা করে দু-চার কথা বলে শেখ হাসিনাকে হযরত ওমরের মত দেশ চালানোর আহবান যে রাজনীতির মধ্যে ইসলামী ফ্লেভার কৌশলে ঢুকিয়ে দেয়া হচ্ছে সেটা খুব সচেতন না হলে বুঝা কিন্তু খুব মুশকিল। নির্লজ্জ পাকিস্তানী প্রেমিক সেজে যে হালে পানি পাবে না এটা তারা বুঝে গেছে। কাজেই পাকিস্তানের মায়া ছেড়ে “বাংলাদেশকে” মেনে নিয়ে যা করার করতে হবে। হেফাজত মতিঝিলে এসেছিল জাতীয় পতাকা উড়িয়ে উড়িয়ে। হুজুরদের মাথায় জাতীয় পতাকা পট্টির মত বেঁধে ইসলামী রাষ্ট্রর দাবী দশ বছর আগেও দেখা যেতো না। লাল সবুজের পতাকা উড়িয়ে খেলাফতের ডাক আগামীতে যখন রাজপথে দে

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

সুষুপ্ত পাঠক
সুষুপ্ত পাঠক এর ছবি
Offline
Last seen: 2 weeks 1 দিন ago
Joined: শনিবার, ডিসেম্বর 21, 2013 - 3:33অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর