নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 7 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • জান্নাতুল নাইম শাওন
  • শাহরিয়ার জাহিদ...
  • পৃথু স্যন্যাল
  • নীল কষ্ট
  • আরিফ ইউডি
  • নুরুন নেসা
  • এম ইউ রাকিব

নতুন যাত্রী

  • আবুল কালাম
  • ইমরান আহমেদ সৈকত
  • উন্মাদ কবি
  • রাহাত মাকসুদ
  • শাহরিয়ার জাহিদ...
  • অপূর্ব দাশ
  • এল্লেন সাইফুল
  • বাপ্পি হালদার
  • রমাকান্ত রায়
  • আবুল খায়ের

আপনি এখানে

ধ্রুব তারা এর ব্লগ

অপদ্য বচন (২০৬-২১৫)


২০৬. At times good friends are like good prostitutes - a rare source of brainless entertainment.

২০৭. ২০২০ সাল বাংলাদেশের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বছর। এ বছর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ইসলামের ত্রাতা আওয়ামীবন্ধু শফী হুজুর, উভয়েরই জন্ম শতবার্ষিকী।

২০৮.বাংলাদেশে যারা স্টার জলশা, জী বাংলা এই চ্যানেলগুলো নিষেধের পক্ষে, তাঁদের কমন আর্গুমেন্ট হলো অপসংস্কৃতি বা বাঙালি সমাজের সাথে সাংঘর্ষিক আইডিয়োলজির আত্মীকরণ। খুব জানতে ইচ্ছে করে, গেইম অফ থর্নস বা স্পার্টাকাস-এর ঠিক কোন কোন দিক থেকে আমাদের সংস্কৃতির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

৫২, ৭১ এবং নয়া পাকিস্তানের জন্ম


নামটা মনে নেই। কোথাও এক জায়গায় পড়েছিলাম, 'একুশ কোন মাস নয়, কোন দিন নয়, কোন বছর নয় - একটি চেতনার নাম'। আদতেও তাই। মাসটা মার্চ থেকে জানুয়ারি, দিনটা ৩১টা সংখ্যার মধ্যে যে কোন একটা আর বছরটা সামনে পেছনে দুই-এক ঘর হেরফের হলেও কোন সমস্যা ছিলো না। কারণ, এখানে চাওয়া-পাওয়ার হিসেবের মধ্যবিন্দু হলো অনুভূতি। আর স্বপ্নটা হলো নিজের মতো চলার বা এক্ষেত্রে বলার স্বাধীনতা।

অপদ্য বচন (১৯৬-২০৫)


শুনেছি মানুষের বেঁচে থাকার প্রধান অস্ত্র হচ্ছে আশা বা Hope. প্রবাদ-ও আছে বোধ হয়, যতক্ষণ আশ ততক্ষণ শ্বাস বা Vice Versa. প্রবাদটাকে সত্যি মানলে বাঙালি এখনো বেঁচে আছে। কারণ, তাঁরা আশা করে তনুর ধর্ষক আর এসপি বাবুলের বিরুদ্ধে চক্রান্তকারী-রা একজোট হয়ে দেশটাকে 'সোনার' বাংলাদেশ বানাবে। যদি-ও ভদ্রস্থ এবং অভদ্রস্থ মিলিয়ে 'সোনা' শব্দটির অনেক অর্থ রয়েছে। সেদিকে আর না যাই।

কবিতা : প্রণাম তোমায়


প্রণাম তোমায়!
ভুল হয়ে গেছে মানছি!
কাঁচকাঁটা রোদের তলে শ্যাওলাগুলো ঠিক চোখে পরেনি।

ইতিহাসের খেরোখাতার হিসেব মেলাতে ব্যস্ত কেরাণীর কাছে,
ঘাসফুলের জ্যামিতিক ব্যাখ্যা থাকে। থাকে,
তাজমহলের ইট-কাঠের স্বয়ংসম্পূর্ণ বর্ণনা। ফুস করে একটানে
সে এঁকে দিতে পারে, সূর্যালোকের নয়টি গ্রহের পুঙ্ক্ষানুপুংখ গতিপথ।
একাগ্র চিত্তে – এক নিশ্বাসে গড়গড় করে বলতে পারে, ন্যূহের প্লাবনের ইতিকথা।

ডায়েরী অফ আ মালাউনের বাচ্চা


মালাউন/মালাওন (বি.) > অভিশপ্ত

১.
মালাওন বা মালাউন শব্দটির সাথে আমার পরিচয় বেশ পুরোনো। অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে এই শব্দটা আমার প্রথম স্মৃতির মতোই পুরোনো। মাঝে মাঝেই শুনতাম। বলবো না সবসময় ব্যাক্তি আমাকে উদ্দেশ্য করে বলা হতো। তবে, শুনতাম।

কোন ছুটা বুয়াকে আর রাখা হবে না - তো বাসার বাইরে মচ্ছব লেগেছে, 'মালাউনের বাসায় আর কাম করমু না'। বা ওরসের চাঁদাবাজী চলছে তো 'মালুরা এই দেশে থাকবো, কিন্তু চাঁদা দিবো না'। বা ক্রিকেটে ভারত জিতলো, 'মালুদের ঘরে তো ঈদ লাগসে'।

কবিতা : চিৎকার


[এ্যালেন গিনেসবার্গ আমার প্রিয় কবি। দ্রোহ, প্রেম, বিদ্বেষ - সবকিছুর অদ্ভুত মিশেল। অনেকদিন থেকেই ইচ্ছে ছিলো প্রিয় কবির 'হাউল' কবিতাটি অনুবাদ করবো। পারিনি। সে যোগ্যতা আমার নেই। তবে দেদারসে ধার ঠিকই করেছি]

কি? হেরে গেলো!
না-না! কোন ভুল তো হয়নি!
দিব্যি বলছি!
কানা গলিটা এফোর-ওফোর করে
ন্যাংটো প্রজন্ম হিচড়ে-হিচড়ে চলে গ্যাছে।

কি জানি বাব্বা, লাজ-লজ্জাও নেই।

বিড়ালের থলে


কোন এক হলিউডী মুভিতে শুনেছিলাম, মানুষ না-কি দু'প্রকার - কুকুরপ্রেমী আর বেড়াল প্রেমী। ইয়াংকিদের মতোন নুন আনতে পান্তা ফুরোনো বাঙালিদের অবশ্য বেড়াল-কুকুরের প্রতি আদিখ্যেতা নেই। তারা রাস্তাঘাটে ছোট্ট কুকুর ছানা দেখলে গালে হাত দিয়ে উচ্ছাস প্রকাশ করার মানে খুঁজে পায় না। সত্যি বলবো? ব্যাক্তিগত ভাবে আমি নিজেও পাই না।

অপদ্য বচন (১৭৬-১৯৫)


১৭৬.
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে যুদ্ধে জয় পাওয়ায় দেশের নাম নিশ্চিতভাবেই বদলেছে, কিন্তু মান মনে হয় না খুব একটা পাল্টেছে। জয়ের ৪৪ বছর পরেও স্বাধীণতাটা অধরা। মন পাল্টাতে হবে, কেবল ভোল না।

১৭৭.
একদিন সবকিছু নষ্টদের হাতে তুলে দে'য়ার জন্যে, ৩০ লাখ মানুষের জীবন আর দু' লাখ নারীর সম্ভ্রম হারিয়ে যুদ্ধ করার কোন মানে খুঁজে পাই না।

১৭৮.
প্রখ্যাত কবি, দার্শনিক সর্বোপরি আমীর-এ-সাহিত্য 'আল মাহমুদ', নি:সন্দেহে একজন ভবিষ্যৎ দ্রষ্টা। তিনি আজ থেকে প্রায় বছর তিরিশেক আগে '৬৮ হাজার গ্রাম বাঁ চলে এরশাদের বাংলাদেশ-ও বাঁচবে' এরকম একটা স্লোগান লেখে ৬৮ হাজার টাকা বিল করেছিলেন।

পূর্ব পাকিস্তান > বাংলাদেশ > পাকিস্তান


হিযবুত তাওহীদ - অনলাইন ঘেটে যা পেলাম এটি একটি কালো তালিকাভূক্ত সংগঠন। পানি আর পানীয়ের মধ্যে গূণগত ভিন্নতার মতো বাংলাদেশ সরকারও কালো তালিকাভূক্ত আর নিষিদ্ধ সংগঠনকে আলাদা করে দেখেছে এবং দেখছে। গত বছরের এপ্রিলে র‌্যাবের তখনকার মহাপরিচালক জিয়াউল আহসান বলেছিলেন যে, তাঁদের পর্যবেক্ষণে সংগঠনটিকে নাশকতামূলক মনে হয়েছে। তাই নিষিদ্ধের সুপারিশ করা হবে। অদ্ভুত কোন কারণে 'হিযবুত তাওহীদ' নিষিদ্ধ হয়নি। যদিও গত বছরেরই শেষ দিকে এসে, সরকারী চাকুরীজীবিদের 'হি.তা.'-এর কোন অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা আসে।

মুভি রিভিউ : পিঁপড়াবিদ্যা


অস্বীকার করবো না, সিনেমা হলে যখনই কোন বাংলা ছবি দেখতে যাই তখনি আমি কিছুটা প্রিডিটারমাইন্ড থাকি। মানে দেশি সিনে জগতের হাল-হকিকতের ব্যাপারগুলো মাথায় রেখে অনেকটা জোর করে সিনেমার মান যেমনই হোক ভাল লাগবে গোত্রের মনোভাব নিয়ে হলে ঢুকি। হালের আশিকুর রহমান, স্বপন আহমেদ বা অনন্য মামুন সবার ক্ষেত্রেই সেটা মোটামুটি প্রযোজ্য। তবে বাংলাদেশের যে দু'তিন জন পরিচালক আছেন যাদের মুভি দেখতে যাই ঠিক উল্টো মনোভাব নিয়ে। মানে তাদের কাছে প্রত্যাশা বেশি। কাজে ধার আছে, কিন্তু কোথায় কি যেন নেই! তাই সবসময়ই মনে হয় হতাশ হবো। আর এই বেশি প্রত্যাশার কারণে হতাশ করা পরিচালকদের মধ্যে মনে হয় প্রথমেই আছেন মোস্তফা সরোয়ার ফারুকী।

পৃষ্ঠাসমূহ

Facebook comments

বোর্ডিং কার্ড

ধ্রুব তারা
ধ্রুব তারা এর ছবি
Offline
Last seen: 4 দিন 11 ঘন্টা ago
Joined: মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী 19, 2013 - 3:31অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর