নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • বেহুলার ভেলা

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

ইমরানুল কবির এর ব্লগ

তরবারী না ঢাল হিসেবেই ব্যবহৃত হোক তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা


হঠাত করে প্রবীর শিকদারকে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারাটির 'নেতিবাচক' দিকটি শিক্ষিত নাগরিক সমাজের মধ্যে উদ্বেগের সৃষ্টি করেছে। প্রবীর শিকদারের মত একজন পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধাকে হাতকড়া পড়িয়ে আইনটি অনেকটাই নিজেই নিজের হাতে কড়া পড়িয়েছে।

বাজেট দিনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে লাজুক মধ্যবিত্তের নির্লজ্জ আবেদন!


প্রধানমন্ত্রী সেদিন বললেন, উত্তরবঙ্গে এক সফরে তিনি কিছু দরিদ্র নারীকে সন্তানদের স্কুলে পাঠানোর পরামর্শ দিলেন। তারা বল্লো, 'বাচ্চারা স্কুলে গেলে খামু কি? তাগো তো কাম করন লাগে!' প্রধানমন্ত্রী বললেন, 'বাচ্চা মাসে কত কামায়? আমি দেবো, সরকার দেবে সেই টাকা!' প্রধানমন্ত্রী বাচ্চার মায়েদের জন্য আলাদা একাউন্ট করে সেই একাউন্টে বাচ্চার মাসিক আয়ের সমান টাকা জমা দিয়ে ঐ বাচ্চার পড়ালেখা নিশ্চিত করেছেন!

বিএনপি এখন কোমায়...আওয়ামী লীগের সাথে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ!


গত কয়েকদিন ভাবছিলাম ৫ই জানুয়ারী থেকে চলমান বিভীষিকাময় দিনগুলির কথা। সে সময় মনে হচ্ছিল এই দিনগুলি যেন শেষ হবার নয়! জলে, স্থলের অতি চেনা পথ যেন শত্রু সেনা বেষ্টিত অচেনা দুর্গম গিরিখাত। বাচ্চা-কাচ্চাদের স্কুল কলেজ বন্ধ, দূরপাল্লার যাত্রায় কখন যে পেট্রোল বোমার অ্যাটাকে পরতে হয় কেউ জানে না! আবার কিভাবে, কিভাবেই যেন সব বন্ধ হয়ে গেল! বিএনপি রাজনৈতিকভাবে একেবারেই 'কোমা'য় চলে গেল, আর বিএনপি'র মিত্র জামাত তার রাজনৈতিক চরিত্র হারিয়ে তালিবান-আইএসের সন্ত্রাসী চরিত্রে আবির্ভুত হল।

কবির সুমন, পশ্চিমবঙ্গের বাঙ্গালী, ক্রিকেট আর আমাদের অহংকার!


অনেকগুলো সীমান্তবর্তী দেশের অংশ নিয়ে বিশাল ভারতের সাম্রাজ্য। বাংলা, পাঞ্জাব, আসাম, মিজোরাম, তামিলনাড়ুসহ এমন অনেক প্রদেশ আছে, যাদের বড় একটা অংশ স্বাধীন একটা দেশ কিংবা অন্য কোন স্বাধীন দেশের মুল ভুখণ্ড। এই সমস্ত প্রদেশ যেমন ভারতকে ঐ সব দেশে প্রভাব বিস্তারে সক্ষমতা দিয়েছে, তেমনি মনে করা হয় ঐ সমস্ত প্রদেশের জনগণের মধ্যে মুল ভুখণ্ডের প্রতি সহানুভূতিশীল অনুভূতি ভারত সীমান্তবর্তী দেশগুলোর জন্য একটা শক্তি হিসেবে কাজ করে।

জনতাকে পুড়িয়ে জনগণের রাজনীতিকে জনতাই পারে দমন করতে


দেশে এখন প্রতিদিন মানুষ পুড়ছে, মরছে। অনেক মানুষই শারীরিক বিকৃতি নিয়ে অভিশপ্ত জীবন যাপন করছে। সমগ্র বাংলাদেশ এখন বার্ণ ইউনিটে পরিণত হয়েছে। আমাদের কারো জীবন আর জীবিকার নিরাপত্তা নেই! চলমান সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে সবাই এখন একটা প্রশ্নই করছে, সেটা হল এই সঙ্কটের সমাধান কি? কিভাবে আমরা এই সঙ্কট থেকে বের হয়ে আসবো?

কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ, চীনা পাড়া/ কোরিয়া পাড়া, আগত ভবিষ্যত


গুলশান, বারিধারার পাশে বাড্ডা। গুলশান, বারিধারা বড়লোকের এলাকা, বাড্ডা ‘গরীব লোকের’ এলাকা। গুলশানের কাঠা প্রতি জমির দাম কোটি কোটি টাকা, বাড্ডার দাম ছিল অনেক সস্তা। অথচ একটা রাস্তার এই পাড় আর ঐ পাড় ছিল গুলশান বাড্ডা। সামান্য কিছু নাগরিক সুবিধা, যোগাযোগ অপ্রতুলতা মিটিয়ে দিলেই এ তিনটা এলাকার মধ্যে আর কোন পার্থক্য নেই। ক্রমবর্ধমান ঢাকা শহরে এখন এই ব্যাপারটাই ঘটছে। উত্তরা, নিকুঞ্জ, পুর্বাচল, ঝিলিমিলি সহ নিত্যদিন শহরের প্রসার ঘটছে আর নাগরিকের বাসস্থান তৈরী হচ্ছে। এই নাগরিক সুবিধা বা অপ্রতুলতা মেটানোর জন্য ঋণের বিনিময়ে যদি সরকার বাড্ডা, পুর্বাচল যদি চীন-জাপানকে দিয়ে দেয় তাহলে ব্যাপারটা কেউ মেনে নিব

রাজনীতিতে আফ্রিকান মাগুর আর গুম খুন!


বর্তমান গুম, খুন আর দুবৃত্তায়নের রাজনীতি দেখে আবুল মনসুর আহমেদের লেখা ‘আমার দেখা রাজনীতির ৫০ বছর’ জাতীয় একটা লেখা মনে আসছে, তাই লিখছি! আমার ছেলেবেলায় দেখা রাজনীতিবিদেরা ছিলেন, সরল সহজ জীবনযাপনে অভ্যস্ত আর দেশের প্রতি মানুষের প্রতি তাদের ছিল অসীম ভালবাসা। শক্তির প্রয়োগ যে ছিলনা তা না, তবে এভাবে এখনকার মত ব্যক্তি স্বার্থে কিংবা ব্যবসায়িক স্বার্থে শক্তি ব্যবহৃত হত না; রাজনীতি সবসময় বাহুবলের চাইতে অধিক শক্তিশালী ছিল। ঐ সময়ের মানুষদের হয়তো মনে হত, একজন রাজনীতিকের দেশের প্রতি ভালবাসা আর ফলশ্রুত ত্যাগ থাকবে এটাই তো স্বাভাবিক! তা নইলে রাজনীতি করা কেন?!

বাংলাদেশের ক্রিকেট আর 'বিশেষ' অজ্ঞের ক্ষুদ্র ভাবনা


টেস্ট প্লেয়িং জাতি হিসেবে আমরা দর্শকরাও অনেক কিছু শিখছি। বড়দের বিরুদ্ধে যেমন নির্ভার খেলা যায়, তেমনি ছোটদের সাথে খেলতে থাকে হারানোর ভয়। এজন্য বড়দের সাথে অনেক জয়ের পরেও আফগানিস্থান, আয়ারল্যান্ড, কানাডার সাথে আমাদের প্রায়ই হারতে হচ্ছে। আপেক্ষাকৃত দুর্বল দলের সাথে খেলতে গেলে আমাদের স্ট্র্যটেজি নিয়ে ভাবা দরকার। আমাদের নার্ভ ধরে রাখার উপর ট্রেনিং প্রয়োজন। আমাদের খেলোয়াড়দের এ ব্যাপারে মেডিটেশন কোর্স করালে কাজে দিতে পারে বলে আমার মনে হচ্ছে।

এটা কোন কলাম নয় এটা 'বিপদ সঙ্কেত'


জমি দিলে কর্ণফুলী টানেল হবে
আরিফুর রহমান
শেয়ার - মন্তব্য (0) - প্রিন্ট
অঅ-অ+

ক্রিকেট আপনার কাছে শুধুই ব্যবসা, আর আমার কাছে অক্সিজেন


লেখাটা এডিট করতে হল, কারণ লেখাটা লিখেছিলাম আইসিসির বিগ-৩ এর ক্রিকেট ব্যবসা দখল আর বাংলাদেশ জিম্বাবুয়েকে টেস্ট ক্রিকেট থেকে বহিস্কার সিদ্ধান্ত ফাঁস হবার কিছুদিন আগেঃ

গত ক’বছরে বাংলাদেশের উন্নতি উর্ধমুখী। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে টেস্ট আর ওয়ান ডে সিরিজে হারানোর মাধ্যমে তরুন বাংলাদেশের জয়ের ধারা শুরু হয়, কিন্ত যেহেতু এই সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুল খেলোয়াড়রা ধর্মঘটের কারণে অনুপস্থিত ছিলেন সে কারণে অনেক সমালোচকের কাছে এই রেজাল্ট বাংলাদেশের উন্নতির উর্ধ্বমুখীতার স্বীকৃতি পায়নি। এরপরে বাংলাদেশ ঘরের মাটিতে নিউজিল্যান্ডকে ৪-০ তে হোয়াইট ওয়াশ করে। এটাও বাংলাদেশ বিদ্বেষীদের ভাল লাগেনি; তারা একে পীচের সমস্যা, নিউজিল্যান্ড ভাল খেলেনি, হালকাভাবে নিয়েছিল, ইত্যাদি বিভিন্ন অজুহাতে বাংলাদেশকে কৃতিত্ব দিতে চান নি।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

ইমরানুল কবির
ইমরানুল কবির এর ছবি
Offline
Last seen: 10 months 1 week ago
Joined: শনিবার, ফেব্রুয়ারী 16, 2013 - 11:29অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর