নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • দ্বিতীয়নাম
  • নিঃসঙ্গী
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • মিঠুন বিশ্বাস

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

মহামান্য গুরুভাই এর ব্লগ

বলতে কি পার তুমি!


বলতে কি পার তুমি! / নিবিড় রৌদ্র৷
৩০শে বৈশাখ, ১৪২১ বাংলা৷
রাত- ৩টা ৫২মিনিট৷
---------------------

শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!
বলতে কি পার তুমি,
নিঃসঙ্গ নাবিকের সম্বল-
ছোট তরী কেন উঠে নড়ে,
ছেড়া পাল কেন যায়
বারে বারে ছিড়ে?
প্রবল বেগে ধেয়ে আসা ঝড়ে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

প্রভাতে ফুটে যে ফুল,
সাঁজে যায় ঝরে!
বলতে কি পার তুমি,
কতটা হিংস্রতা হানা দেয়-
কত আত্ম-চিত্কার দেয়ালে
আটকে পড়ে, কত অভিশাপ
চোখ থেকে ঝরে? অচিরেই
মুছে যায় রাতের জলসাঘরে!
শুণ্যতা উকি মারে,
চুপিসারে ঘরে!

নগ্নতা ঢেকে রাখি,
কলঙ্ক ভেসে উঠে পর্দাটা সরে!
বলতে কি পার তুমি,

স্বার্থপর!


আমার নভোর জ্যোছনা আজ,
তোমার উঠান জুড়ে!
তুমি পোহাও আলোর রাত্রি,
আমি আঁধার ঘিরে৷
জ্যোছনালোকে আলোকিত
তোমার কল্প-ঘর,
তাইতো আজ জ্যোছনাটাকেও
লাগছে স্বার্থপর!

কিশোর স্মৃতি৷


কই কতদিন,
এইতো সেদিন!
হেঁটেছি দুজন একি পথে,
দিন কিবা রাত-
তবু একসাথে!

কত অভিমান -প্রতিযোগিতা,
দিন শেষে ছিলো সেই একতা৷
ছিল মনে আশা,
কত ভালবাসা!

মহাকালের প্রাণ৷


যদি আকাশ ঘিরে ঘনায় অন্ধকার,
যদি আসে ধেয়ে কালবৈশাখী ঝড়!
তবে আসুক কালের ঝড়৷
যদি দোলে!
নাহয় দোলোক পাখির খাঁচা!
তবু দোহাই লাগে তোর,
খুলে খাঁচার দো'র-
ঐ পাখির প্রানটি বাঁচা!

ক্রিকেট যদি শিল্প হয় শিল্পী তৈরীতে দুর্নীতি কেনো?!!!


এগারো সদস্যের দলটিকে সফলতা এনে দেওয়া একজন খেলোয়াড়ের পক্ষে সম্ভব নয়, সে যত ভালো খেলে থাকুকনা কেনো৷ তবে সেই কঠিন সাফল্যটিকে সহজে জয় করার পথ তৈরী করতে পারা সম্ভব একজন খেলোয়াড়ের পক্ষেই৷
নির্জন আজো এটাই বিশ্বাস করে৷ গল্পটার শুরু নির্জনের স্কুল জীবন থেকে৷ বরাবরের মতো ইন্টারস্কুল,ইউনিয়ন ও উপজেলা ভিত্তিক সকল টুর্নামেন্ট কিংবা ম্যাচে অলরাউন্ডার হিসেবেই তার খ্যাতি৷ যখন থেকে ক্রিকেটের মানে বুঝি ম্যান অব দ্য ম্যাচ অথবা সিরিজের ট্রপিটা বুঝি তার জন্যেই মাঠে আনা হয়! তখন থেকেই নির্জন স্বপ্ন দেখে একদিন সে জাতীয় দলে খেলবে৷

স্বপ্ন পোড়া গন্ধ!


জ্বলন্ত সিগারেটের নেই অবশেষ,
তবু দেখো ভীতু চোখ জেগে আছে বেশ!
ছল ছল চোখেতে আজো লেপ্টে আছে ভয়,
নতুন কোন স্বপ্ন যেনো হয়না পুড়ে ক্ষয়!

আজন্ম যেনো কাটেনা আমার স্বপ্ন দেখার ভয়,
স্বপ্নে স্বপ্নে চোখ যেনো কভূ হয়না স্বপ্নময়!

বাঙালি বনাম রাজাকার সাকা !


পাকি বংশে জন্ম নেয়া ফকা
তার নষ্ট রক্ত নিয়ে বেড়ে উঠা,
ব্রাদার ফাকার সাকা।
একাত্তরে যে গোল দিয়েছিলো
বাংলার মাঠ পেয়ে ফাঁকা !

অত:পর সে কেড়ে নিতে থাকে,
নিরীহ বাঙালির জায়গা জমি টাকা।

রোদের জাগরণ।


তবে শুনো অভিমানী মেয়ে;

আমার পথ পানে চেয়ে
যদি কষ্টে কেঁদে উঠে মন-
যদি অশ্রু নেমে আসে গাল বেয়ে।

তুমি ভোরের জ্যোছনা হয়ে,
আমার উঠোনে যেয়ে-
ঢেলে দিও আলো,
যেথায় ঢাকা ছিলো মেঘে মেঘে।

প্রিয়তমা, হবে? ।। নিবিড় রৌদ্র।


প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু সময় হবে?
আমাকে দেয়ার মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু কথা হবে?
আমাকে শুনানোর মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু মায়া হবে?
আমাকে জড়ানোর মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু হাসি হবে?
আমাকে পাগল করার মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু অবাদ্যতা হবে?
আমাকে রাগানোর মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু প্রেম হবে?
আমার অভিমানের মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু অনুভূতি হবে?
আমার ভালোলাগার মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু সৃষ্টিশীলতা হবে?
আমাকে ভাবানোর মতো।
প্রিয়তমা, তোমার কাছে কিছু ভাবনা হবে?
আমাকে ঘিরে থাকার মতো।

একাত্তরের স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের নিয়মিত কথিকা ‘বিশ্বজনমত’ !


বাংলাদেশের শহরে নগরে বাজারে বন্দরে প্রতিটি পল্লীতে আজ শত্রুহননের দুর্বার লড়াই চলছে। আর এই লড়াইয়ে কুলিয়ে উঠতে না পেরে আমাদের মৃত্যুঞ্জয়ী বীর মুক্তিযোদ্ধারদের হাতে প্রচ- মার খেয়ে পাকিস্তানি সামরিক চক্র নতুন এক ফন্দি আঁটলো। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকেতারা ভারত-পাকিস্তান সমস্যা বলে চিহ্নিত করে কাজ হাসিল করতে চেয়েছিল। তারা ভেবেছিল আমাদের দেশের এই মুক্তিযুদ্ধকে তারা যদি ভারত-পাকিস্তান বিরোধ বলে চিহ্নিত করতে পারে তাহলে বাংলাদেশের সাড়ে সাত কোটি মানুষের মুক্তিসংগ্রামের প্রতি আজ যে বিশ্ব জনমত গঠিত হয়েছে, তাকে কিছুটা প্রশমিত করা যাবে। পাকিস্তানি সামরিক চক্র এই উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের অধিকৃত এলাকার সীমান্তে এবং ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে উস্কানিমূলক তৎপরতা শুরু করলো। কিন্তু বিশ্বের সচেতন মানুষ পাকিস্তানি সামরিক চক্রের এই দুরভিসন্ধিটা বুঝে নিয়েছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

মহামান্য গুরুভাই
মহামান্য গুরুভাই এর ছবি
Offline
Last seen: 3 years 1 month ago
Joined: সোমবার, মে 13, 2013 - 2:21অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর