নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 8 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • পৃথু স্যন্যাল
  • চূড়ান্ত
  • ইকারাস
  • তায়্যিব
  • মোঃ মেজবাহ উদ্দিন
  • রাফিন জয়
  • নীল জোনাকি
  • জীহান রানা

নতুন যাত্রী

  • ষঢ়ঋতু
  • এনেক্স
  • আরিফ ইউডি
  • গলা বাজ
  • হুসাইন
  • তারুবীর
  • অন্তরা ফেরদৌস
  • শেখ সাকিব ফেরদৌস
  • প্রাণ
  • ফেরদৌস সজীব

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

ফেইসবুক ব্যবহারে সতর্ক হউন।


রসরাজ দাসের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিন।

ঠিকমত ব্যবহার করা না শিখে ফেসবুকে একাউন্ট করে রেখে দিলে সেই একাউন্ট দিয়ে যে কেউ আপনাকে ফাঁসিয়ে দিতে পারে। ফেসবুকের প্রাইভেসি রেস্ট্রিক্টেড করে না রাখলে যে কারো পোস্টে আপনাকে ট্যাগ করলেই তা আপনার টাইম লাইনে দেখায়। অনেক সময় অনেকেই নানান রকম বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন, আবার ট্যাগ করা পোস্টের কারণে অনেকে বিপদেও পড়েন।

ফেইসবুক একাউন্ট ব্যবহারে যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা জরুরি :

১) আপনার একাউন্টের পাসওয়ার্ড অন্য কাউকে না জানানো (খুব বিশ্বস্ত কাছের মানুষ হলে অন্য কথা)

ধর্ম,দর্শন ও বিজ্ঞান-৮ঃ আস্তিকতা-নাস্তিকতা এবং নৈতিকতা ও বিবর্তনবাদ


মানুষের অনু-পরমানু এবং ঐ নিম্ন শ্রেনীর প্রানীটির অনু-পরমানু একই সেলে, একই বিন্দুতে কেন্দ্রিভূত[ বিগ ব্যাং কালীন] ছিল_এখনও মহাবিশ্বের সকল অনু-পরমানুর মধ্যে একই ওয়েভ ফাংশন ক্রিয়াশীল_যে কোন বিন্দুর স্পন্দনে অন্য বিন্দু গুলোও স্পন্দিত হয়।

এটা এখন আর বলার অপেক্ষা রাখে না


১৯৭১ সালে স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বিশ্বের দ্বিতীয় দরিদ্রতম দেশ ছিল বাংলাদেশ। আর সেই বাংলাদেশের অর্থনীতি এখন জিডিপির ভিত্তিতে বিশ্বে ৪৫তম এবং ক্রয়ক্ষমতার ভিত্তিতে ৩৩তম স্থান অধিকার করেছে। বাংলাদেশ এখন আর ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ নয়, বরং ঐ ঝুড়ি এখন পরিপূর্ণ হয়ে উপচে পড়ছে। দেশে এখন আর দুর্ভিক্ষ হয় না, মঙ্গা শব্দটিও নির্বাসিত। মানুষের জীবনযাত্রায় ঘটে গেছে এক নিরব পরিবর্তন। দেশব্যাপী শুরু হওয়া কর্মযজ্ঞে শহর-গ্রামের পার্থক্য অনেকটাই কমে যেতে শুরু করেছে। পুরোপুরি পাল্টে গেছে নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের জীবনযাত্রার চিত্র। রঙিন টিভি, ফ্রিজ, খাট-পালঙ্ক থেকে শুরু করে আধুনিক গৃহসজ্জার প্রায় সব সামগ্রীই বিদ্যমান এসব

বাঙালি নাকি মুসলমান?


বাঙালি নাকি মুসলমান? জাতির জনক কে, ইব্রাহীম নাকি শেখ মুজিব? এ প্রশ্ন দু'টো বাংলাদেশে বেশ প্রচলিত। উত্তরটাও মোটে অপ্রচলিত নয়। এদেশের আমার মনে হয় নব্বই ভাগ মানুষই নিজেকে বাঙালি হিসেবে কল্পনা করতে লজ্জাবোধ করলেও তিনি যে মুসলমান সেটা অকুণ্ঠ স্বীকার করেন। আর শেখ মুজিব যে জাতির জনক নন বরং ইব্রাহীম সে ব্যাপারেও এই নব্বই জন বেশ অটল। মজার বিষয় হচ্ছে ইনাদের জিয়াকে অথবা জিন্নাহকে জাতির পিতা মানতে কখনোই কোন সমস্যা হয়নি। অবশ্য পালিত প্রাণী কখনোই তার পালকের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেনা।

গতকাল মারা গেলেন ইউজিন কারনান, চাঁদের বুকে হাঁটা এ পর্যন্ত সর্বশেষ মানুষ


ইউজিন কারনান, চাঁদের বুকে হাঁটা এ পর্যন্ত সর্বশেষ মানুষ, গতকাল ১৬ ই জানুয়ারি ২০১৭ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি ছিলেন ১৯৬৩র অক্টোবরে বাছাই করা ১৪ জন নভোচারীদের একজন।

একটি গানঃ একা; পাড়ি দিচ্ছে আলোকবর্ষ ।


চাঁদে এ পর্যন্ত হওয়া সাকসেসফুল, আনসাকসেসফুল মিশন ও ২০১৮ পর্যন্ত যেসব মিশন হবে তার একটা ডিটেইলস লিস্ট পাবেন এখানে

আর্যরা বহিরাগত নয়.... আর্য দ্রাবির বরং একক জনগোষ্ঠী (দেবযানী ঘোষ) দ্বিতীয় পর্ব


'আর্যরা বহিরাগত' এই তত্ত্ব সম্পূর্ণ ভাবে ইউরোপীয় মস্তিষ্ক প্রসূত ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। ইউরোপীয়রা এসেই আগে ভারতীয় ভাষা শিখে নেয়। তারপর সব পুঁথি, মহাকাব্য পড়ে ও এত বিস্তৃত, এত সভ্য সমাজের খোঁজ পেয়ে ওরা বিস্মিত হয়ে যায়। প্রাচীন ভারতীয় সভ্যতার দর্শন, বিজ্ঞান, আয়ুর্বিজ্ঞান, জ্যোতির্বিজ্ঞান, স্থাপত্য বিজ্ঞান এতটাই উন্নত ছিল যে অষ্টাদশ শতাব্দীতেও ইউরোপীয় পণ্ডিতদের ভাবনার বাইরে ছিল। কিন্তু আত্ম অহংকারী শ্বেতাঙ্গরা মেনে নিতে পারেনি যে কৃষ্ণাঙ্গরা তাদের থেকে উন্নত। তাই শুরু হলো ক্ষমতা ও বুদ্ধির অদ্ভুত নোংরা রাজনীতির খেলা।

হিন্দু ধর্মের ইতি বৃত্ত, পর্ব ০২


সিদ্ধিদাতা মহারাজ গণেশের মাথা ও মুখমন্ডল নিয়ে কিছু কথা। গণেশ হচ্ছেন মহাদেব শিব এবং পার্বতীর পুত্র। গণেশের জন্ম হবার পরে অনেক দেবতার সঙ্গে দেবতা শনিও দেখতে এসেছিলেন নবজাতককে। শনির স্ত্রী কোনো এক কারণে একসময় তাকে অভিশাপ দিয়েছিলেন যে, তিনি যার দিকে দৃষ্টি দেবেন, তারই সর্বনাশ হবে। তাই শনি নবজাতকের চেহারা দেখতে চান নি কিন্তু পার্বতীর একান্ত পীড়াপীড়িতে তিনি বাধ্য হন শিশুর দিকে তাকাতে। শনির দৃষ্টি শিশুমুখে পড়া মাত্র শিশুটির মুণ্ড দেহচ্যুত হয়ে যায়। খবরটি স্বর্গে মহাপ্রভু বিষ্ণুর কাছে যখন পৌছুল তিনি অতিসত্বর চলে আসার পথে মাঠে একটা হাতিকে শুয়ে থাকতে দেখে সুদর্শন চক্রের সাহায্যে সেটির মাথা কেটে নিয়ে এলেন আর গণেশের গলার সঙ্গে যুক্ত করে দিলেন। একদম পুরোপুরি ‘প্লাষ্টিক সার্জারি’।

ব্যথিত খুনির প্রতি, সাইকিক প্রতিকার; সুইসাইড ফ্যাক্ট


যেটা তুমি করতে পারো, তা হল একটা চরিত্র সৃষ্টি করলে আর তাকে দিয়েই খুনটা করালে। খুনের পর তুমি নিজেই খুনিকে ফাঁসি দিয়ে দিলে। প্রতিটা খুনের আগে একটি করে চরিত্র সৃষ্টি করলে, নিজের ভিতরেই, আর খুনের পর তাকে ফাঁসি দিলে।

পেশা হিসেবে নেয়াটা একটা সহজ প্রথা; এটা সহজেই ভাবতে পারো, টিকে থাকার জন্য মানুষ যেকোন কিছু করতে পারে, করেও;

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর