নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • কুরুৎআলা পাবলিক
  • এন্টারকটিকায় পড়ছি
  • গোলাম সারওয়ার

নতুন যাত্রী

  • অনিক চক্রবর্তী
  • অনুভব রিজওয়ান
  • মোমিন মাহদী
  • নাঈম উদ্দীন
  • সাইফ উদ্দীন
  • সংগ্রামী আমি
  • মোঃ নাহিদ হোসোইন
  • পাপেন ত্রিপুরা
  • মোঃ রেফায়েত উল্ল্যাহ
  • রজন্ত মিত্র

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

দেইল্লা রাজাকারের ফাঁসির রায়ের পর বগুড়ায় পুলিশ ও সরকারি অফিসের উপর আক্রমন..(ডাইনোসর এর পোস্টের অনুসরণে)...


০২ মার্চ দিবাগত রাত ২.৩০ টা কোথাও কোথাও রাত ৩.০০ টায় বগুড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলার গ্রামাঞ্চলের মসজিদের মাইকে প্রচার করা হয় যে, চাঁদে সাইদীর (দেইল্লা রাজাকার) চেহারা দেখা যাচ্ছে। সাইদী একজন নিরাপরাধ আল্লাহওয়ালা আলেম। তাকে বর্তমান সরকার বিনা দোষে সাইদীর ফাঁসির আদেশ দিয়েছে। সুতরাং তাকে (সাইদী) ফাঁসির হাত থেকে বাঁচানো আমাদের ইমানি দায়িত্ব। তাকে (সাইদী) বাঁচাতে না পারলে কারও ইমান থাকবে না, আমরা সবাই গুনাগার হয়ে যাব। নারী-পুরুষ, ছেলে-মেয়ে সবাই ঘর থেকে বেরিয়ে আসুন এখনই এর প্রতিবাদ করতে হবে। সাথে আরও প্রচার করা হয় যে, যাদের ইমান দর্বল হয়ে গেছে তারা সাইদীকে চাঁদে দেখতে পাবেনা। আসুন আমরা সবাই প্রতিবাদ

দেলু চোরার চন্দ্রবিলাস


হিমু অবলম্বনে
হুমায়ূন আহমেদ হিমু ও হিমুভক্তদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।

শেষ পর্যন্ত ধরা খেয়ে গেলাম। দাড়িতে লাল রঙ মাখিয়ে জজ সাহেবকে বিভ্রান্ত করা গেল না। আমার ফাঁসির হুকুম হয়ে গেল। কাচারিঘরের সমবেত জনতা আমার দিকে প্রবল ঘৃণা নিয়ে তাকিয়ে আছে। আমি পাত্তা দিলাম না। মহাপুরুষদের এইসব পাত্তা দিলে চলেনা। আমি শীষ দিয়ে একটা গানের সুর তোলার চেষ্টা করলাম, “ও হাসিনা দিছস কিনা ঝুলায় আমারে......”

পাকা খবর আছে আমাকে হুট করে একদিন ঝুলিয়ে দেওয়া হবে।

হুতাশনের জবানবন্দি


জন্মের কথা ঠিক মনে নেই।
কে জানে, হয়ত জন্মেরই ঠিক নেই।

মনে পড়ে শৈশবে ছিলাম
সুকান্তর কবিতায়
ছিলাম একটা ছোট্ট দেশলাইয়ের কাঠি।
এত নগন্য যে চোখেই পড়তাম না হয়ত।

জাতীয় পাদুকা পদক_(প্রস্তাবিত)


রায় প্রতিদিনই পৃথিবীর
কোথাও কেউ না কেউ পদক
পাচ্ছেন। আমাদের দেশেও
আছে বেশ কতগুলো পদক।
বিভিন্ন ক্ষেত্রে অনবদ্য অবদান
রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট
বিষয়ে পদক দেয়া হয়। এসব পদক
বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে দেয়া হয়।
তবে এই পদক
প্রাপ্তি থেকে বন্ঞিত আছে কিছু
জনগোষ্ঠী। যেমন- চরম মাত্রায়
দুর্ণিতি করার পয়ও তারেক পদক
পায় না॥

দুর্বলতা এবং আত্মবিশ্লেষণ অথবা সমালোচনা।


দেইল্লা রাজাকারের ফাঁসির রায়কে কেন্দ্র করে বগুড়াতে যে পুলিশ ফাঁড়িতে আক্রমন করেছে। ৪/৫জেলাকে ঢাকা থেকে বিচ্ছিন্ন করার সব রকমের চেষ্টাই করেছে। এর কারন জামাত শিবির খুব শক্তিশালী তা কিন্তু না। খবরের যে ছবি দেখা গেছে তাতে স্পষ্ট হয় যে জামাত শিবির অনেক সাধারণ মানুষকে পথে নামিয়ে আনতে পেরেছে। এই পথে নামিয়ে আনার জন্য কেবল টাকাই দিয়েছে আমার এমন মনে হয় না।আমার ধারনা ঐ অঞ্চলের মানুষ নানা কারনে এমনিতেই সরকারের কর্মকাণ্ডের উপর ক্ষেপা ছিল। এই সুযোগে আগুনে ঘি ঢেলেছে জামাত শিবির। সাধারণ মানুষকে সম্পৃক্ত করার সব চেষ্টাই তারা করেছে এবং কিছু সফলও হয়েছে। এটা সহজেই বুঝা যায় ঐ অঞ্চল গুলাতে সরকার দলের কোন রকম সা

ওহে বি টি আর সি -- আমার প্রতিটি বর্ণ অধিকার যুক্ত !


ব্লগের উপর হামলা ?
ওহে বি টি আর সি
আমরা কি তোর কামলা ?

লিখি নিজের স্বাধীনতায়
নিজের ব্লগের নিজের পাতায়
তোর কেন এতো জ্বলে ?
গোপন কিছু ফাস করবো বলে ?

দেশের বিভিন্ন স্থানে নাস্তিক ব্লগার গ্রেপ্তার


দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আজ সন্ধ্যায় বেশ কয়েকজন নাস্তিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে প্রায় প্রত্যেক ব্লগারের বাসায় মুক্তমত নিয়ে বেশ কিছু বই পাওয়া গিয়েছে। এইসব বইয়ের মধ্যে হুমায়ূন আজাদ, আহমদ শরীফ, আরজ আলী, অভিজিৎ রায় অন্যতম। এছাড়া অনেকের বাসায় বিদেশি লেখকদেরও কিছু বইও পাওয়া গিয়েছে। যার মধ্যে রিচারড ডকিংস, কার্ল স্যাগান, ক্যারেন আর্মস্ট্রং, স্যাম হ্যারিসের কিছু মারাত্মক বই আছে। অল্প কিছু বই পরীক্ষা করে দেখা গেছে এইসব বইয়ে মানবপ্রেম এবং অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। নাস্তিক ব্লগারদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, বাঙালি সমাজে এসব অগ্রহণযোগ্য চেতনাক

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রাম শহরের নির্যাতন কেন্দ্র ও বধ্যভূমি সমূহ


একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে পাক বাহিনী অন্যান্য শহর গুলির মত দখল করে নেয় চট্টগ্রাম শহরও। তারা তাদের সৈন্যবাহিনী ও বাঙ্গালী দোসরদের সাথে হাত মিলিয়ে গড়ে তোলে বধ্যভুমি ও অত্যাচার কেন্দ্র। এখানে তেমনি খুজে পাওয়া বধ্যভুমি ও অত্যাচার কেন্দ্রগুলির তালিকা দেওয়া হল :
১। মহামায়া ডালিম ভবন(ডালিম হোটেল)
২। চট্টগ্রাম সার্কিট হাউজ
৩। চট্টগ্রাম স্টেডিয়াম
৪। চট্টগ্রাম সেনানিবাস
৫। গুডস হিল
৬। রেডিও ট্রান্সমিশন কালুরঘাট
৭। টাইগারপাস নৌহাঁটি
৮। ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ
৯। নৌবিহার সদর দপ্তর পতেঙ্গা
১০। সার্সন রোডের পাহাড়ের বাংলো
১১। হোটেল টাওয়ার(জামাল খানের মোড়ে)

বৃদ্ধাশ্রম ও কিছু মানুষ, যাদের সঙ্গী কেবল দীর্ঘশ্বাস!


মহাভারতের বনকাণ্ডে যক্ষের প্রশ্নের জবাবে যুধিষ্ঠির বলেছিলেন,পিতা আকাশের চাইতেও উঁচু, আর মা পৃথিবীর চাইতেও ভারী। যুগে যুগে মনীষীদের উচ্চারণ ছিল,মাতা-পিতা স্বর্গের চেয়েও শ্রেষ্ঠ। কিন্তু রাজধানীর আগারগাঁওয়ের প্রবীণ হাসপাতালের লাল ইমারতটিতে গেলে কষ্টে বুক ভারী হয়ে আসে।
শ্যামলীর হোলি লেনের সুবার্তা বৃদ্ধনিবাসে প্রবীণ মায়ের আর্তিতে আকাশ ভেঙে পড়ে।
রাজধানীর পথে-ঘাটে তরুণদের ঠেলা-ধাক্কা উপেক্ষায় প্রবীণদের অসহায় দৃশ্য তো চোখ-সওয়া। জীবনপথের শেষ স্টেশনের যাত্রী এই প্রবীণদের সঙ্গী কেবল দীর্ঘশ্বাস!অফিসিয়াল আস্যাইনমেন্টেই একটা দিন কাটিয়েছিলাম এই বৃদ্ধদের সঙ্গে।

কুচিন্তা ৯


উনি - ঘণ্টাখানেক ওয়েট করলাম , ছিলা কই?
বালক- জানোইত শিবির করি,একটা অপারেশন সাইরা আইলাম ।
উনি-তা ইনকাম কত?
বালক- আমি কোনদিন তোমার বয়স জিগাইছি?যাক তোমার জন্য একটা গিফট আনছি,নাও।
উনি-এই বোতলে কি?
বালক-ধর,তুমি নায়িকা,ক্যাপ্টেন মারুফ নায়ক আর ৩ নাম্বার ব্যক্তি মানে আমি হইলাম ভিলেন ।
উনি-তো?
বালক-এখন কোন এক মুহূর্তে সুযোগসন্ধানী লম্পট ভিলেন নায়িকারে কলেজ থেকা ফেরার পথে মাইক্রোবাসে নিয়া চম্পট দিল।পথে যা ঘটার ঘটল । নায়িকার এসময় কি দরকার ?
উনি-নায়কের হেল্প,আর কি!

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর