নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • সুমিত রায়
  • পৃথু স্যন্যাল
  • আরমান অর্ক
  • সত্যর সাথে সর্বদা

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

কোপ!!!!!


এখন যা অবস্থা তাতে আসলে লেখার কিছুই নেই । কিছু লিখলেই তো কারো না কারো কত রকম অনুভূতিতে বিশাল বিশাল আঘাত আসে । লেখার আঘাতের ঠেলা মোটেই সহ্য করতে পারে না তারা । তাদের প্রতিরোধের অস্ত্র হল কোপানো । (অনুভূতি এর মধ্যেই আঘাত পেয়ে গেছে মনে হয় )

শালার কি আজিব মানুষ । খালি কোপাতে চাই । এমনকি আমাদের মত ছোট খাট কাউরেও তারা কোপাবে। তাই দেখি অনেকে চুপ হয়ে গেছে । আবার এই বয়সেই অনেকে লিস্টেড হয়ে যায় । আমি কোন বাল হেনু ।

ভাগ্যিস মুসলমান!


না ভাই!!! অনেক ভয় পাইছি! ভাই বিশ্বাস করেন আমি মুসলমান। বিশ্বাস না হইলে আমি প্যান্ট খুইলা দেখাইতাছি। যেই মুসলমান 'অন্তু বড়ুয়ার' মৃত্যুর পর মালাউন মরছে বলে উল্লাস করে আমি সেই মুসলমান। আপনাদের মতই খাঁটি মুসলমান। ভাই বিশ্বাস করেন!! আমি কলেমাও বলতে পারি। আমার আব্বাজানও মুসলমান। যৌবনে ভুল করে মুক্তিযুদ্ধ করে ফেলছে। আমাদের মাইরেন না ভাই!!! আপনার 'পিলিজ' লাগে। @ অন্তু বড়ুয়ার হত্যাকারী

আবার জীবনের সপ্ন


উঠে, উঠে, এখনো সূর্য উঠে।
হ্যা, সেই পশ্চিম দিকেই উঠে।
পশ্চিমটাও তাঁর জায়গায়ই আছে।
মাঝে মাঝে শুধু আকাশটাই ঝামেলা করে।
সর্দি হয়, মন খারাপ হয়, রেগে যায়
মাঝে মাঝে অকারণেই হাসে।

৫০টি বর্ণমালা আর ১০ টি সংখ্যার জন্য
যেদিন কিছু অদ্ভুত উন্মাদ মানুষ ক্ষেপেছিল,
ঐদিনও আকাশ ব্যাটা হাসছিল।
মাটি, পিচঢালা পথ সব রঙ বদলিয়ে লাল হয়ে গেলো।
কিন্তু ঐ আকাশ ব্যাটা হেসেই খুন।
পরে বুঝতে পেরেছিলাম ব্যাটা কেন হেসেছিল।
এই যে, এখন দেখো ১৬ কোটি মানুষ একই ধ্বনিতে কথা বলে।
একই সুরে হাসে।

এভাবে দিন পার হয়ে যায়।
কতকিছুই বদলায়, দিকগুলো শুধু বদলায় না।
একদিন যদি হঠাৎ পশ্চিমটা- দক্ষিণে চলে আসতো
কতো মজা হতো।

কেন জামাত-শিবিরের রাজনীতি বন্ধের দাবীতে রুমীরা শাহবাগে আমরণ অনশণ করে ?


১৯৭১ সালে বাংলাদেশের দামাল ছেলেরা যুদ্ধ করেছিল এদেশের স্বাধীনতার জন্য । শুধু মাত্র স্বাধীনতার জন্য । চার অক্ষরের শব্দটির মুল্য যে কত বড় তা কেবল মাত্র উপলব্ধি করতে পারবে যারা পরাধীনতায় আছেন ।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ছাত্র সংসদ এবং অন্তুকে দেখতে যাওয়া - চট্টগ্রাম অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরামের পক্ষ থেকে।


সকালেই খবরটি জানতে পারি রাফসান ভাইয়ের স্ট্যাটাস থেকে যে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ছাত্র সংসদে ভোরের দিকে আগুন দিয়েছে শিবিরের দুর্বৃত্তরা। পরে দুলাল ভাইয়ের সাথে কথা বলে ঠিক করি বিকালে ১৮ দলের ডাকা হরতালে ককটেল বিস্ফোরনে আহত “অন্তু বড়ুয়া”-কে দেখতে যাবো সেই সাথে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ছাত্র সংসদের দিকেও যাবো চট্টগ্রাম অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম -এর পক্ষ থেকে।

জামায়াত নিষিদ্ধকরণ এবং সরকারের লাভ-ক্ষতি।


এটি একটি অপ্রিয়বাস্তব যে বাংলাদেশের সব রাজনৈতিক দল ই ভোটের জন্যে রাজনীতি করে। তাদের প্রতিটি পদক্ষেপের পিছেই থাকে ভোটের হিসাব। সে হিসেবে জামায়াতের রাজনীতি নিষিদ্ধ করলে এই ভোটের হিসাবের উপর তার প্রভাব কি তাই আমার স্বল্পজ্ঞান দিয়ে আলোচনার চেষ্টা করছি।

জামায়াত নিষিদ্ধ হলে তাদের সব ভোট যাবে বিএনপির বাক্সে, এটা জানা কথা। ফলে জামায়াত নিষিদ্ধ করে সরকারের ভোটের রাজনীতিতে তেমন কোন লাভ হচ্ছে না। তাই হয়তো সরকার জামায়াত নিষিদ্ধ করতে উৎসাহ পাচ্ছেনা।
কিন্তু জামায়াত নিষিদ্ধ না হলে কি এই ভোটগুলো আওয়ামীলীগের বাক্সে আসবে????
উত্তর - না।

জনতা বনাম সরকার!কয়েকটি প্রশ্ন।


এই যে আমরা ব্যাক্তি,গোষ্টি,সংগঠন বা দল এককভাবে কিংবা মিলিতো হয়ে আজ এতো দিন যাবৎ আন্দোলন করতেছি, তা কি বান কি মুন কে দেখানোর জন্য?বারাক ওবামাকে দেখানোর জন্য?মেন্ডেলা বা সুচি কে দেখানোর জন্য?নিশ্চই না?তবে কাকে দেখানোর জন্য বা কাকে উপলক্ষ করে?
গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের উদ্দেশ্যে, তাই তো?

খেয়াল করুন,আমাদের ৬দফা দাবি কি নির্বাচনের ইশতেহারে এই সরকার নিজে উল্লেখ করেনি?শাহবাগের আন্দোলনে সংহতি প্রকাশ করেনি?

আবেগ ও কৌশল


যুদ্ধে আবেগ এবং কৌশল দুটাই গুরুত্বপূর্ণ ।আবেগ যুদ্ধ করায় আর কৌশল যুদ্ধ জেতায়। যে কোন একটার অনুপস্থিতি মানেই পরাজয় ।

যেমন - সেই রাতে ঘর থেকে বেরুনোর পর হাবিলদার মেজর খান ওয়াজির (পরে সুবেদার) তার গালে চড় মারেন।তিনি যদি এই সময় আবেগের চোটে লুঙ্গি কাছা দিয়া কইতেন ''খাইছি তরে,আমি শেখ সাব মানুষ আর তুই জালিম,হাউ মাউ খাউ'' তাইলে সেইখানে অন্যরকম কিছু হতে পারত।কিন্তু তিনি ৫ মিনিট টাইম লয়া তামাকের পাইপ খুইজা আইনা সুবোধ বালকের মত গাড়িতে উঠে বসলেন ।''

বিনপির অর্থহীন রাজনীতি


ছোট থেকেই দেখি মানুষ রাজনীতি করে । কেউ টাকার জন্য করে , কেউ ক্ষমতার জন্য করে , কেউ আবার জনমানুষের জন্য করে । কিন্তু এই মুহূর্তে বিনপি কিসের জন্য রাজনীতি করছে তা খুবই অস্পষ্ট ।
প্রথমত , সরকারের প্রথম ৪ বছর বিনপি " কুইচা মুরগীর" মত ঝিম পারা ছাড়া আর কোন কাজ করে নাই । না দল গুছিয়েছে , না আন্দোলন করছে । ইলিয়াস ইস্যু নিয়া ১ সপ্তাহ ফাল পারল তারপর নাই । বিরোধীদলের কোন বৈশিষ্ট্য অথবা ভাবই নাই ।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর