নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

There is currently 1 user online.

  • ড. লজিক্যাল বাঙালি

নতুন যাত্রী

  • অন্নপূর্ণা দেবী
  • অপরাজিত
  • বিকাশ দেবনাথ
  • কলা বিজ্ঞানী
  • সুবর্ণ জলের মাছ
  • সাবুল সাই
  • বিশ্বজিৎ বিশ্বাস
  • মাহফুজুর রহমান সুমন
  • নাইমুর রহমান
  • রাফি_আদনান_আকাশ

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

"একজন ধর্মবিশ্বাসী অবিশ্বাসের পথে"।


কাল ঢাকা যেতে হবে, সাথে যাবে রহমান ভাই। উনি যাওয়ার কারন আছে। ফেণীর যে মসজিদে উনি নামাজ পড়াতেন ওখানে বেতন কম। যেই বেতন পায় তা দিয়ে নিজেই চলতে কষ্ট হয়, গ্রামে কি পাঠাবে তাই ঢাকা যাচ্ছে আমার সাথে। ঢাকায় ভাল দেখে মসজিদে তার ব্যবস্থা করে দিতে হবে। ভালোই হলো দুইজন এক সাথে থাকা যাবে। আমারও আবার ক্লাস শুরু হয়ে গেল। ও আমার পরিচয় দেয়া হয়নি। আমার নাম নীল। বেদনার নাম নাকি নীল তাই বাবা নাম রেখেছে নীল। বাবা-মা 'রা সাধারণত এমন নাম রাখে যা দ্বারা উচ্চ পর্যায়ের কিছু বুঝায়। তবে আমার বাবা এমন বিরহের নাম রাখার কারণটা আমার জানা নেই। থাক কিছু কিছু বিষয় না জানাই ভাল। আমি পড়ি অনার্স ১ম বর্ষে। বিষয় দর্শন। আমি যে ন

আন্তর্জাতিক আদালতে গঙ্গার জলবন্টন পর্ব # ৫ [শেষ পর্ব]



বাংলাদেশ ৯০% মুসলমানের দেশ। ইসলাম কাউকে জুলুম করতে হুকুম দেয়না। কোরান ও হাদিস হক ও ন্যায্যতার কথা বলে। আবার মুসলমানের ন্যায্য সম্পদ অন্যেরা আটকে রাখবে, তাও কোরান বা হাদিস অনুমোদন করেনা। সুতরাং গঙ্গার অন্তত ৫০% পানি বাংলাদেশের প্রাপ্য। ইসলামের ন্যায্যতার ভিত্তিতে, মানবতার দাবী হিসেবে এটা আদালতের কাছে দাবী করছি আমরা বাংলাদেশের পক্ষে।

আমাদের পথ চলা


আজ আমরা মধ্যম আয়ের বাংলাদেশের এক গর্বিত নাগরিক। মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো গর্বিত জাতির গর্বিত সন্তান। এখন কোন রসের কুলের আত্মীয় আমাদের ‘মিসকিন’ বলতে পারবে না, কোন শ্বশুরের বেটা তলাবিহীন ঝুড়ি বলতে পারবে না, বলতে পারবে না বন্যা-ঝড়-জলোচ্ছ্বাসে কাতর আমাদের দেশ। সব মোকাবেলা করে আমরা এগিয়ে চলেছি। এখন কোন এয়ারপোর্টে সবুজ পাসপোর্ট দেখে কোন সাদা চামড়ার পরিবিবি বাঁকা চোখে তাকাবে না, বরং অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে থাকবে। এবং তাড়াতাড়ি ইমিগ্রেশন ফরমালিটিজ শেষ করতে পারলেই খুশি হবে। একজন মাত্র মানুষ এই গর্বের জায়গাটায় তুলে এনেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকন্যা দেশরত্ন শেখ হাসিনা, গর্বিত পিতার গর্বিত সন্তান। পিতা স্বাধীনতা, মা

শহুরে বাগান- ২


দিন দিন আমাদের শহুরে জীবনে স্থান সংকুলান কমছে। দিনের পর দিন জায়গা কমছে। যার ফলে আজকাল বড় জায়গা নিয়ে বাগান করার ইচ্ছা অনেকটাই অলীক স্বপ্নের মতোই। যেখানে বাচ্চাদের খেলার মাঠই জোটেনা আবার সেখানে বিশাল জায়গা জুড়ে বাগান করতে চাওয়াটা অলীক কল্পনাই বটে। ক্ষেত্র বিশেষে ভাড়াবাড়ির ছাদটাও অনেক সময় জোটে না।
-

নগরনটী (উপন্যাস: পর্ব-বারো)


কৌশিকী পারের এক জন্মনের ঘাটে একনাগাড়ে তিনদিন অতিবাহিত করে গতকাল সন্ধ্যায় নৌকা নোঙর করেছে ত্রিযোজন পর্বতের সবচেয়ে নিকটবর্তী স্থানে। জন্মনের অস্থায়ী হাট থেকে প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য এবং অন্যান্য জিনিসপত্র ক্রয় করা হয়েছে। গিরিকার বেশ ভাল লেগেছিল জন্মন্টি, অপরাহ্ণে কন্যাদের নিয়ে নদীর পার ধরে জন্মনের পথে পথে ঘুরে বেড়িয়েছেন। গৃহী মানুষের সঙ্গে কথা বলেছেন। নদীর পারের একটা পরিবারের সাথে তো বেশ ভাব জমে গিয়েছিল তার। তার ইচ্ছে ছিল গত রাত আর আজকের দিনটাও জন্মনের ঘাটে কাটিয়ে আসার। কিন্তু কন্যাদের পীড়াপীড়িতে গতকালই আসতে হয়েছে এই জন্য যে তারা ত্রিযোজন পর্বতে আরোহণ করার বায়না ধরেছে। প্রথমে তারা বায়না ধরেছিল

ছবির গল্প: ‘ভোপাল গ্যাস ট্রাজেডি’র মৃত শিশুটি



ছবিটায় একটা মৃত শিশুকে কবর দিচ্ছেন বাবা, আর শেষবারের মতো দেখছেন আদরের মেয়েকে। কবরটায় মাটি চাপা দেওয়ার শেষ পর্যায়ে কাঁদতে কাঁদতে ছবিটা তুলেছিলেন সাংবাদিক। এমনকি মৃত শিশুটির বাবার কাছে জানতেও চাননি নাম-ধাম।

ছবিটা তোলা হয়েছিল ভারতের ভোপালে, ১৯৮৪ সালের ডিসেম্বরের ৪ তারিখে। ভারতের ফটো সাংবাদিক পাবলো বার্থোলোমেও এই ছবির জন্য ‘ওয়ার্ল্ড প্রেস ফটো অব দি ইয়ার ১৯৮৫’ পুরস্কার জিতেছিলেন।

ফরহাদ মজহারদের আউলিয়া হয়ে উঠা


অর্চনা রাণী মিথ্যা বলছেন,টিকেট কাউন্টারের লোক মিথ্যা বলছেন,ভিডিও ফুটেজ মিথ্যা বলছে,মোবাইলের নম্বর মিথ্যা বলছে।কিন্তু একমাত্র সত্যবাদী ফরহাদ মজহার ও তার ভক্তরা।নারী কেলেঙ্কারির একের পর এক প্রমাণ তার বিপক্ষে যাচ্ছে কিন্তু আমরা তা বিশ্বাস করব না কারণ তিনি ফরহাদ মজহার বিএনপি-জামাতের বন্ধু।তিনি পাপ করতেই পারেন না।সব আওয়ামীলীগের ষড়যন্ত্র!

তুমি আর নেই সে তুমি!


সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের পূজনীয় শিক্ষামন্ত্রী মহোদয় শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য বিশ্বমঞ্চে পুরষ্কৃত হলেন।এই পুরষ্কারের যোগ্য ব্যক্তি নির্বাচনের জন্য গঠিত কমিটিতে হয় নির্বোধ গরু-গঁধা-ছাগল ছিলো নতুবা স্বার্থন্বেসী দালাল ছিলো বলে আমার বিশ্বাস।আমার এই বিশ্বাসের যুক্তিগত কারন উপস্থাপন করলেও এই পুরষ্কারের কিছুই ছিঁড়বে না,তবু-

৫৭ ধারার শিকার এবার ব্যারিস্টার ইমতিয়াজ মাহমুদ !!!


শিশুর আঁকা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি দিয়ে স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের আমন্ত্রণপত্রের কার্ড বানিয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতি ও অবমাননার অভিযোগে বরগুনার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারেক সালমানের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার রেশ কাটতে না কাটতেই, এবার ফেসবুকে সাম্প্রদায়িক উসকানি দেওয়ার অভিযোগে ইমতিয়াজ মাহমুদ নামে সুপ্রীম কোর্টের এক আইনজীবীর বিরুদ্ধে খাগড়াছড়ি সদর থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে শফিকুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং ১৭, তারিখ-২১-০৭-২০১৭।

গরুর শরীরে প্রস্তুত হল শক্তিশালী এইচআইভি এন্টিবডি


কালকে কয়েক জায়গায় এটা নিয়ে নিউজ শেয়ার করা হয়েছে দেখলাম। তাই ভাবলাম এটা নিয়ে বিস্তারিত কিছু লেখা উচিৎ

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর