নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 10 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • আমি অথবা অন্য কেউ
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • ড. লজিক্যাল বাঙালি
  • সাইয়িদ রফিকুল হক
  • রুদ্র মাহমুদ
  • রাজিব আহমেদ
  • তায়্যিব
  • রুবেল হোসাইন
  • দিন মজুর

নতুন যাত্রী

  • নবীন পাঠক
  • রকিব রাজন
  • রুবেল হোসাইন
  • অলি জালেম
  • চিন্ময় ইবনে খালিদ
  • সুস্মিত আবদুল্লাহ
  • দীপ্ত অধিকারী
  • সৈকত সমুদ্র
  • বেলাল ভুট্টো
  • তানভীর আহমেদ মিরাজ

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

অতঃপর ভালবাসা


জানি ঘুম ভাঙ্গাবে তোমার
মনে পরবে আমার স্পর্ষে কেটে যাওয়া কিছুটা সময়
কেন ঘুমিয়ে পরলে তুমি
ঘুম আসেনা আমার এই চোখে।

হয়ত আমিও ঘুমের ঘুরে চলে যেতাম নিষ্চিন্তপুরে
আমি চেয়েছিলাম তুমার দুই আখিতে
ছলছল নিরবতায় জল প্রপাতে
বিষন্ন মনে প্রতিটা ক্ষণে ক্ষণে।

শৈশবের কর্ত্রী আমার


শৈশবে আমার একটা স্বপ্নের গেরস্ত বাড়ি ছিল।
সেই বাড়ির কর্তা ছিলাম আমি, সে ছিলো কর্ত্রী।
আমাদের সন্তান ছিল মাটির প্রতিমা,
তার চোখে স্বর্গের অপ্সরী।
প্রতিমা বিয়ের ছলে কেটে যেত বেলা।
এইছিল মোদের নিয়মিত খেলা।

কি দরকার ছিলো ?


তুমি আর তুমি আর
তুমি আর নেই সে তুমি
জানি না জানি না কেন এমনও হয়
জানি না
জানি না জানি না কেন এমনও হয়
তুমি আর নেই সে তুমি
তুমি আর তুমি আর
তুমি আর নেই সে তুমি;

তুই ভালই পারলি !!
শুধুই আমাকে কষ্ট দিয়ে কি লাভ পেলি।

একটু ভেবে দেখিস সময় হলে।
কি দোশ আমার.?

শুধুই কষ্ট দিলি ।
কি দরকার ছিলো ?

বাংলার অতিথি: গুআজম


বাংলাদেশের ০৯ কোটি মানুষ দারিদ্র সীমার নিচে বসবাস করে।
অর্থাৎ, এই ০৯ কোটি মানুষ নিদারুণ অর্থকষ্ট, আথির্ক-অনিরাপত্তা ও আন্তরিক-উন্নত চিকিৎসা সেবাহীনভাবে প্রাত্যহিক জীবন যাপন করেন।

অন্যদিকে, একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী-ঘাতক গোলাম আজম, যে বাংলাদেশের জন্মই চায়নি, বাংলাদেশের জন্ম রুখে দেবার জন্য এমন কোন অমানবিক কাজ নেই যার নেতৃত্ব দেয়নি, স্বাধীন বাংলাদেশের ক্ষতি করার জন্য দেশ-বিদেশ ঘুরে বেরিয়েছে.....এরকম একজন বিশ্বাসঘাতক-ঘাতক-বাঙালী ও বাংলাদেশের শত্রুকে "ট্রাইবুনাল ও বাংলাদেশ সরকার" ব্যাপক মেহমানদারী করছে।

তিন ঘণ্টার ট্রলার জার্নিতে যা যা ঘটছে;-


মহিলা কেবিনে বসে আছেন এক হিন্দু মহিলা,এখন চানাচুর তো তখন আচার,তখন সন পাপড়ি তো এখন পান খেয়ে চলছেন একের পর এক!সামনে বসা দশজন মুসলমান মহিলা। রোজা। তারা বিরক্ত হয়ে তাকিয়ে আছেন। একজন জিজ্ঞেস করলেন,সিন্দুর কিতাদি বানায়?হুনছি শুওরের রক্ত হুকাইয়া বানায়?
উভয় পক্ষ চুপচাপ!উভয়েই আহত।

এক কোনে তিনজন যাত্রী এক সাথে ঘুমাচ্ছেন,
বৃষ্টি ছাঁট এসে লাগতেই বন্ধ জানালা!
জুনিয়র বৃত্তি গাইড পড়ছিলো এক ছাত্রী যাত্রী।

দশটাকায় যে পত্রিকাটা কিনেছি তার নাম 'সমকাল' এ হাত ঘুরে ও হাত,ও হাত ঘুরে এ হাত এভাবে বেচারা কাহিল!আমি পড়তে পারছিনা। একটু আগে একজন মন্তব্য করলেন,ফত্রিকা এখটা আওয়ামিলীগের দালাল!

মৃত্যুময় প্রণয়


মৃত্যু যাপনে বিধ্বস্ত, বড় ক্লান্ত দেহময় ব্যাথার সব অনুভূতি,
শুষ্ক চোখজুড়ে কান্নার আকুতি তবু রক্তাক্ত পলকের নেই অব্যাহতি,
গ্রাস করে চলে প্রতি মুহূর্তে অগ্নিকুণ্ডের যন্ত্রণাময় গহ্বর,
ম্রিয়মাণ হৃদয়ের জানা নেই খোঁজ, এতোটুকু আলোকের অস্তিত্ব!
শুধু মায়াময় মৃত্যু অপেক্ষমাণ, যেখানে জীবনের আহ্বান পৌঁছে না,
এখানে কুৎসিতের ঠিকানা, ভয়াল অন্ধকারাচ্ছন্ন পৃথিবীর দুর্গমতম সীমানা,
কাতর চিৎকার, অভিশাপ মোচনের ক্রন্দন শুধু জীবনের এ প্রান্তে,
আঁধার-প্রাণহীন প্রান্তরময় আলোহীন উত্তাপের প্রচন্ডতায় গলিত ধ্বংসস্তুপ
হতে গিয়েও, আঁকড়ে বুকে যন্ত্রণার পরিনাম,

হারানো ধ্রুবতা


খালি চেয়ারটির স্তব্ধতা
অপরিবর্তনীয়তায় বন্দিত্ব করেছে বরণ,
চায়ের কাপে লেগে থাকা ঠোঁটের
স্পর্শ রয়ে যাবে ফেলে গেছো যেমন।
থাকবে বিষণ্ণ বিকেলের ব্যালকনিটা, পাখীর খাঁচাটা শূন্য,
গানগুলো শুনবে না কেউ, সূর থেকেও বিপন্ন।
তুমি নেই তবু, সূর্য উঠবে হয়ত,
অস্ত যাবে নিয়মিত,

আমি চাইছি এমনি হোক...!!


আমি বলছি না ভালবাসতেই হবে,আমি চাই
কেউ একজন আমাকে বলবে রাত জেগে মুভি না দেখে
সকালে ঘুম থেকে উঠেই যেন তাকে গুড মর্নিং বলি।
রাত জেগে মুভি দেখে দেখে চোখের নিচটা কালো করে ফেলেছি।

আমি বলছি না ভালবাসতেই হবে,আমি চাই
কেউ একজন আমাকে বলুক,
আমি যেন পাঁচ ওয়াক্ত নামায আদায় করি।
দুই ওয়াক্ত নামায পড়েই ফাকি মাড়তে আমি অভ্যাস্ত হয়ে পরেছি।

আমি বলছি না আমাকে সরাসরি ভালবাস কথাটা বলতেই হবে,আমি চাই
কেউ একজন অনলাইনে এসে বিভিন্ন ইমো দিয়ে মনের কথা...
...গুলো বুঝিয়ে দিয়ে যাক।
বন্ধুদের নাক বেঁকানো ইমো দেখতে দেখতে আমার সর্দি লাগার উপায় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

অরু আর আমার একজোড়া কবুতর


সকাল থেকে কেমন নির্ভার বসে আছি!
চারিদিকে সোনাঝরা রোদ,
বাইরে পাড়ার ছোট ছোট ছেলে পেলেরা দলবেধেঁ খেলছে...
হই হুল্লোড়েরর শব্দ কানের পাশ দিয়ে চলে যাচ্ছে...
আমার সামনে দিয়ে একটা কবুতরের সাদা কালো পালক খুব ধীরে ধীরে হেলে দুলে উড়ে এসে পড়ল।

পালকটি দেখে আজ অনেকগুলো বছর পর অরুর কথা মনে পড়ে গেল।

অরুর সাথে ছয়টি বছর হেসে খেলে বেড়িয়েছি।

Abraham Lincoln: Vampire Hunter (2012) {একটি আজগুবি কাহিনীর বাস্তবিক বিশ্লেষণ}



বিঃ দ্রঃ সিনামাটার মতন এই পোষ্টের সকল চরিত্র কাল্পনিক। কাউকে ছোট করার উদ্দেশ্যে ইহা রচিত হয় নাই। কেউ অতি মাত্রায় মাথাগরম হইলে এই পোষ্ট বর্জন করাই শ্রেয়।

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর